নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

হাজার হাজার অসাধারন লেখক+ব্লগারের মাঝে আমি এক ক্ষুদ্র ব্লগার। পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া লেখালেখির গুণটা চালিয়ে যাচ্ছি ব্লগ লিখে... যখন যা দেখি, যা মনে দাগ কাটে তা লিখি এই ব্লগে।

সোহানী

আমি অতি বিরক্ত হয়ে আমার অনেক লিখাই ড্রাফটে নিয়েছি কারন সামুতে আমার কিছু ভাবনা শেয়ার করছি, আর এ ভাবনা গুলো আমার অনুমতি ব্যাতিরেকে কপি না করার অনুরোধ করেছিলাম কিন্তু যত্রতত্র আমার লিখার কপি পেস্ট দেখেই যাচ্ছি দিনের পর দিন।

সোহানী › বিস্তারিত পোস্টঃ

আপনার শিশু সন্তানকে কিভাবে বাচাঁবেন নরপশুদের হাত থেকে !!!!!

২৬ শে মে, ২০১৪ দুপুর ১:৫৯





বি:দ্র: সবার অনুরোধে অবশেষে ঘন্টাখানেক পরিশ্রম সঙ্গে একটা মিটিং ক্যান্সেল করে লিখাটা শেষ করলাম। ভালো হলো কিনা জানি না... তারপর ও চেস্টা...



শিশু যৌন নির্যাতনের উপর একটি সচেতনমূলক পোস্ট কয়দিন থেকে স্টিকি করা হয়েছে যা হয়তো অনেকে পড়েছেন আবার হয়তো এ বিষয়ে জেনে অবাক ও হয়েছেন কিভাবে নিজেদের মধ্যে ভালো মুখোশের আড়ালে হায়েনা বাস করে যে আপনার কোমল শিশুটিকে ধর্ষন করার জন্য উৎ পেতে থাকে।



কিন্তু এটাই বাস্তবতা যে পরিমলরা যেমন নামকরা স্কুলের ছাত্রীদের রেহাই দেয় না তেমনি গ্রামের অক্ষাত স্কুলের ছাত্র ও রেহাই পায় না এসব মুখোশধারী শয়তানদের হাত থেকে। আপনারই অগোচরে আপনার আদরের সন্তানটি যে আপনার খুব বিশ্বাসী বন্ধুর দ্বারা নিগৃহিত হচ্ছে না তার গ্যারান্টি কোথায়!!!!!



আর সে কারনে আমাকে আপনাকেই সাবধান হতে হবে। আমাদের সন্তানকেই আমাদেরই বাচাঁতে হবে। ফেইসবুকে পাওয়া চমৎকার এ লিখাটিতে "কিভাবে আপনার শিশু সন্তানকে সেক্সুয়াল এবিউজ থেকে বাচাঁবেন" তার কিছু টিপস্ দেয়া আছে যা সকল মা/বাবার অবশ্যই পাঠ্য ....... এ লিখাটি অরিজিনাল ভার্সান ইংরেজিতেই ... তবে মূল অর্থ একই রেখে আমাদের সমাজের আঙ্গিকে নিজের কিছু অভিজ্ঞতা সহকারে আমি বাংলায় অনুবাদ করে শেয়ার করলাম।



১) আপনার সন্তানকে কখনই কারো কোলে বসতে দিবেন না বা তাকে জড়িয়ে ধরে কাউকে আদর করতে দিবেন না। বিশেষ করে বাচ্চা যখন একটু বড় হয়ে যায়। এমন কি সে আপনার যতই নিকট আত্বীয় হোক না কেন। শুনতে খারাপ লাগলেও মনে রাখবেন আপনার ভাইয়ের কাছে ও আপনার সন্তান নিরাপদ নয়। শিশুরা কিন্তু প্রথম নির্যাতিত হয় খুব কাছের কারো দ্বারা যেমন কাজের লোক, আপন মামা/চাচা/খালু/ফুফা।



আরেকটি বিষয়, আমরা মোটামুটি মধ্যবিত্ত বা নিন্ম মধ্যবিত্ত শ্রেনীর মানুষ। আমাদের বাসায় প্রায় আত্বীয় স্বজন বেড়াতে আসে আর আমরা জায়গার অভাবের কারনে আমাদের সন্তানকে তাদের সাথে রাতে থাকতে দেয়। আপনি কখনই তা করতে দেবেন না। আপনার অগোচরে সেই হয়তো আপনার সন্তানকে নির্যাতন করছে রাতের পর রাত। আপনার শিশু তার উপস্থিতিতে আপনাকে কিছুই শেয়ার করতে পারছে না।



২. আপনার শিশু সন্তানকে কখনই কারো সামনে কাপড় পাল্টাবেন না এমন কি নিজেও পাল্টাবেন না। ওদেরকে শিক্ষা দিন যে কাপড় পাল্টাতে হয় ঘরের দরজা বন্ধ করে কখনই কারো সামনে নয়।



মার্জিত ড্রেস পরার শিক্ষা দিন.... হট/সেক্সি লাগছে তাকে এ ধরনের কথা কাউকে বলার সুযোগ দিবেন না বা উৎসাহ দিবেন না। বয়সের সাথে সাথে ড্রেসকোড তাকে শেখান বিশেষ করে মেয়ে বাচ্চাদের।



৩. অনেকেই আপনার শিশু সন্তানকে আদর করে আমার বউ বা আমার ছেলের বউ বা আমার ডার্লিং বলে ডাকে। কখনই তা প্রশ্রই দিবেন না। আপনি হয়তো জানেন না এ ডাকের পিছনে ভিন্ন কোন উদ্যেশ্য থাকলে ও থাকতে পারে।



৪. আপনার শিশু সন্তান যখন কোথাও খেলতে যায় তখন অবশ্যই নজরেও রাখবেন, সে কি ধরনের খেলা খেলছে বা কাদের সাথে খেলছে কারন দেখা যায় খেলার ছলে ইয়ং ছেলেদের দ্বারাই বেশী যৌন হয়রানির শিকার হয় বাচ্চারা অথবা সে বাসার বড় কারো দ্বারা সে নির্যাতিত হচ্ছে আপনার অজান্তে।



এছাড়া ও নিরব সময় যেমন দুপুর বেলা যখন আপনি ঘুমে থাকেন তখন অবশ্যই বাচ্চাদের বাইরে বের হওয়ার অনুমতি দিবেন না।



৫. এমন কোন আত্বীয় বা বন্ধুদের বাসায় আপনার শিশু সন্তানকে জোর করে পাঠাবেন না যেখানে সে কমফোর্ট ফিল করে না বা সে সেখানে যেতে চায় না অথবা এমন কোন আত্বীয়র কাছে পাঠাবেন না যেখানে সে আগে খুব পছন্দ করতো যেতে এখন সেখানে যেতে চায় না। এক্ষেত্রে খতিয়ে দেখুন কোন সমস্যা নিশ্চয় আছে!!!!



অথবা কোথায় সে খুব উৎসাহ নিয়ে এখন যেতে চায় যা সে আগে চাইতো না তা ও দেখবেন খতিয়ে।



৬. আপনি হঠাৎ খেয়াল করলে আপনার উছ্ছল প্রানবন্ত শিশু সন্তানটি খুব চুপচাপ হয়ে গেছে.... আপনাকেই এগিয়ে আসতে হবে সবার আগে কেন সে এমন আচরন করছে। ওকে অবজার্ভ করুন। তারপর ধীরে ধীরে কৌশলে তা জানার চেস্টা করুন কারনটি। মনে রাখবেন শিশুটির আচরন বদলে যাওয়ার পিছনে অবশ্যই কিছু আছে..... আপনিই ওর সবচেয়ে আপন, আপনি যদি তার সমস্যার সমাধান না করেন তাহলে কেউই করতে পারবে না।



৭. যৌন শিক্ষা বিষয়ে আপনি হবেন ওর আসল শিক্ষক। যৌন শিক্ষা দিতে আপনাকেই সাবধানভাবে এগিয়ে আসতে হবে কারন আপনিই একমাত্র তাকে এ গুরুত্বপূর্ন বিষয়ে সঠিক পথে শিক্ষা দিতে পারবেন। আপনি তাকে যৌন বিষয়ে শিক্ষা না দিলে সমাজই তাকে শিখাবে তবে তা সম্পূন্য ভুল ভাবে।



৮. টিভি বা যেকোন শো/কার্টুন/সিনেমা বাচ্চাদের দেখানের অাগে নিজে দেখে নিবেন এতে আপত্তিকর কিছু আছে কিনা। যদি থেকে থাকে তবে তাকে বুঝিয়ে তা দেখা থেকে বিরত রাখুন (অবশ্যই জোর করে নয়)।



আমার বাচ্চা ডিসকোভারী চ্যানেল খুব পছন্দ করে তবে আমিই তাকে বেছে দিয়েছি কোন কোন শো সে দেখবে ... এডাল্ট শোগুলো আমি তাকে দেখতে বারন করেছি, তাকে বুঝিয়েছি কেন তা দেখা উচিত নয়। তারপরও প্রশ্ন থেকে যায় কারন অনেক এ্যনিমেল শো তে ও পশুর সেক্স দেখায় যা তাকে বিব্রত করতে পারে। সুযোগ থাকলে নিজে পাশে থাকেন এ ধরনের টিভি শো দেখার সময়।



আর দয়া করে জি বাংলা বা স্টার প্লাসের মতো চ্যানেলগুলো থেকে বাচ্চাদের দূরে রাখেন। আপনি জানেন না আপনার অজান্তে তাকে কতটা নিচে নামাচ্ছেন.... অসুস্থ পরিবেশ, প্রেম, পরকীয়া, কুটনামী, অতি সাজগোজ, সেিক্সি ড্রেস, ঝগড়া, কুটকৈাশলী বিষয়ে শিক্ষা দিচ্ছেন তাকে দিনের পর দিন।



৯. অনেক আপত্তিকর চ্যানেল আছে যা চালু থাকলে আপনার সন্তান কৌতুহলী হয়ে তা দেখতে চাইবে। অবশ্যই তা বন্ধ রাখুন। নিজেও দেখবেন না ওকে দেখাবেন না। কারন শিশুদের কৌতুহল অনেক বেশী আর নিষিদ্ধ জিনিসের প্রতি সবারই কৌতুহল আরো বেশী থাকে।



তবে অনেক বেশী সাবধান হবেন ইন্টারনেট এর পর্ন সাইটগুলোর ব্যাপারে। ব্লগার জিসান এর পর্ন সাইট ব্লক করার পরামর্শ আমার ভালো লেগেছে। আপনার সন্তান কি ধরনের সাইট ভিজিট করে নজরে রাখুন। ওকে নৈতিক শিক্ষা দিতে চেস্টা করুন। একদিনে তা সম্ভব নয় তা ধীরে ধীরে করুন।



১০. আপনার শিশুকে বলুন কখনই কাউকে যেন এলাউ না করে যৌনাঙ্গ হাত দিতে। আর এমন কিছু ঘটলে অবশ্যই আপনাকে যেন জানায়।

তার যৌনাঙ্গ কিভাবে পরিস্কার রাখতে হবে আপনি নিজেই তা শিখান। তাকে যৌনাঙ্গ নিজে পরিস্কার রাখার প্রয়োজনীয়তা শিক্ষা দিন। তবে মনে রাখবেন ৩ বছরের পর থেকে আপনিও তার অঙ্গে হাত দিবেন না।



১১. আপনার শিশুকে সব ধরনের পর্ণ উপাদান থেকে দূরে রাখবেন, তাকে বোঝান এর খারাপ দিক। মিউজিক, ভিডিও, ছবি, মুভি এমন কি কোন নিকট আত্বীয় যাকে আপনার কোন কারনে সন্দেহ হয়, তার থেকে দূরে রাখেন। খেলার ছলে বা কোথাও বেড়াতে গেলে কারো হাতেই শিশুকে দিবেন না।



শিশু লুকিয়ে কিছু করছে কিনা ডিটেকটিভ হিসেবে নয় মা/বাবা হিসেবে জানতে চান। ওর বন্ধু হোন শত্রু নয় কিছুতেই। আপনার অতি খবরদারী কিন্তু শিশুকে ওই খারাপ পথেই ঠেলে দিবে তাই বেশী শাসন নয, পরিমিত বিহেব করুন এ বিষয়ে। কেয়ারফুল্লি কেয়ারলেস হোন সবসময়।



১২. অনেক ভিড়ের মাঝে অস্বস্তিকর স্পর্শকে চিনতে সাহায্য করনি। এ ধরনের স্পর্শ থেকে ওরা কিভাবে রক্ষা করবে নিজেকে তা বলুন। অযথা বকা বা পাহারা নয় ... ওদের বুঝিয়ে বলুন। ওদেরকে নিজেকেই বাচাঁর কৈাশল শেখান।



১৩. যদি আপনার শিশু কারো সম্পর্কে নেতিবাচক কথা বলে বা কম্লেইন করে অবশ্যই তা গুরুত্ব সহকারে নিবেন, কোনভাবেই অবহেলা করবেন না হোক না আপনার খুব কাছের মানুষ। সে আত্বীয়কে হয়তো আপনি কিছু বলতে পারবেন না তবে নিজের সন্তানকে তো অন্তত বাচাঁতে পারবেন।



আমি চাইল্ড এবিউজ এর উপর কিছু কাজ করেছিলাম এক সময় এবং এক ট্রেনিং এ বিশ্বের নাম করা জেন্ডার স্পেশিয়ালিস্ট কামলা ভাসিন বলেছিলেন, "তুমি তোমার সন্তানের ব্যপারে কাউকেই বিশ্বাস করবে না"।



আমরা সে ট্রেনিং এ এমন কিছু সহকর্মীকে পেয়েছি যারা কিনা তার চাচা/কাজিন/দুলাভাই/কাজের লোক দ্বারা দিনের পর দিন এবিউজ হয়েছিল কিন্তু কাউকে বলতে পারেনি। কারন কেউ তাকে বিশ্বাস করেনি বা গুরুত্ব দেয়নি। অনেকদিন পর আমাদের মাঝে মানসিক আর শারিরিক নির্যাতনে কথা বলতে পেরে অঝরে কেঁদেছিল।



আপনি কি বুঝতে পারেন এ ধরনের ঘটনার ভিতর দিয়ে গেলে শিশুটির স্বাভাবিক ভাবে বড় হতে কতটা বাধাঁর সৃষ্টি হয় তার মনযোগতে।



অনেক অনেক ভালো থাকুন।



অরিজিনাল লিখাটা...

Click This Link

মন্তব্য ৮২ টি রেটিং +১৫/-০

মন্তব্য (৮২) মন্তব্য লিখুন

১| ২৬ শে মে, ২০১৪ দুপুর ২:২৭

সজল৯৫ বলেছেন: ধন্যবাদ উপকারী পোষ্টের জন্য।

২৬ শে মে, ২০১৪ দুপুর ২:৪০

সোহানী বলেছেন: হুমমম... ধন্যবাদ

২| ২৬ শে মে, ২০১৪ দুপুর ২:৩০

আজীব ০০৭ বলেছেন: আপনাকে অনেক ধন্যবাদ......।


আপনার জন্য শুভকামনা রইল................

২৬ শে মে, ২০১৪ দুপুর ২:৪১

সোহানী বলেছেন: ধন্যবাদ ও শুভকামনা

৩| ২৬ শে মে, ২০১৪ দুপুর ২:৪৯

নীল জোসনা বলেছেন: অশেষ ধন্যবাদ। +++++++

২৬ শে মে, ২০১৪ বিকাল ৩:১৬

সোহানী বলেছেন: ধন্যবাদ ......

৪| ২৬ শে মে, ২০১৪ দুপুর ২:৫০

মামুন রশিদ বলেছেন: খুব ভালো একটা কাজ করেছেন অনুবাদ করে দিয়ে, সাথে কিছু ইনপুট যোগ করেছেন যা প্রয়োজন ছিল । চাইল্ড এবিউজ এর ব্যাপারে প্রত্যেক মা-বাবাকে সতর্ক থাকতে হবে এবং পরিষ্কার ধারণা থাকতে হবে ।

প্রত্যেকটি শিশুর শৈশব হোক আনন্দময় ।

২৬ শে মে, ২০১৪ বিকাল ৩:১৬

সোহানী বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ......

প্রত্যেকটি শিশুর শৈশব হোক আনন্দময় ।

৫| ২৬ শে মে, ২০১৪ দুপুর ২:৫৯

আমি কাল্পনিক সজল বলেছেন: ধন্যবাদ এমন পোস্ট দেওয়ার জন্য, শুভকামনা রইলো৷ :)

২৬ শে মে, ২০১৪ বিকাল ৩:১৭

সোহানী বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ......

৬| ২৬ শে মে, ২০১৪ বিকাল ৩:০১

আমি স্বর্নলতা বলেছেন: খুব ভালো একটা লেখা। সচেতনমূলক পোস্ট। আমি কিছুদিন আগে ঠিক এমন ব্যাপার নিয়ে একটা গল্প লিখেছিলাম। কৈশরে মেয়েরা কি ধরনের সমস্যা ফেইস করে তা কিছুটা তুলে ধরেছিলাম। আর মেয়েটার উপর কিরুপ প্রভাব পড়তে পারে তা কিছুটা তুলে ধরেছি গল্পে। তবে এই ব্যাপার গুলো নিয়ে সবার ভাবা উচিত। ছেলে মেয়ে উভয় -ই এর স্বীকার হয়। আমাদের সমাজে মেয়েরাই বেশি যৌন হয়রানির স্বীকার হয়।

আমার লেখাটা পড়লে খুশি হব। লিঙ্ক দিয়ে দিলাম
Click This Link

২৬ শে মে, ২০১৪ বিকাল ৩:১৮

সোহানী বলেছেন: আপনার লিখাটা আমার নজর এড়িয়ে গিয়েছিল... একটু সময় নিয়ে পড়ে উত্তর দিব। অনেক ধন্যবাদ......

৭| ২৬ শে মে, ২০১৪ বিকাল ৩:০৪

ঢাকাবাসী বলেছেন: অনুবাদ করে দিয়ে খুব ভাল কাজ করেছেন। আর এই পোষ্ট দিয়ে দারুন উপকার করলেন। ধন্যবাদ আপনাকে। ধরা পড়ার পর এধরণের ক্রিমিনালদের (মামা খালু ফুফা টাইপ) ধরে শিশ্ন কর্তণ করাটাই উত্তম পন্হা বলিয়া প্রতীয়য়মান হয়!

২৬ শে মে, ২০১৪ বিকাল ৩:২০

সোহানী বলেছেন: কিন্তু সমস্য হলো শিশুরা ভয় পায় বা বিষয়টি কাউকে জানায় না আর এ সুযোগে পশুগুলো তাদের অত্যাচার দিনের পর দিন চালাতে থাকে।

অনেক ধন্যবাদ......

৮| ২৬ শে মে, ২০১৪ বিকাল ৩:১০

দূক্ষাই গুঞ্জণ বলেছেন: ভালো কিচু পোড়ে ভাল লাগল

২৬ শে মে, ২০১৪ বিকাল ৩:২০

সোহানী বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ......

৯| ২৬ শে মে, ২০১৪ বিকাল ৩:২৫

দূক্ষাই গুঞ্জণ বলেছেন: ফেস বুকে শেয়ার করেচি । ভাল লেগেচে

২৬ শে মে, ২০১৪ বিকাল ৩:৫৪

সোহানী বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ। সবাইকে সচেতন করাই লক্ষ্য।

১০| ২৬ শে মে, ২০১৪ বিকাল ৩:৩১

লাইলী আরজুমান খানম লায়লা বলেছেন: শেয়ার করার জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ আপুনি। প্রিয়তে নিয়ে গেলাম

২৬ শে মে, ২০১৪ বিকাল ৩:৫৫

সোহানী বলেছেন: অনেক অনেক ধন্যবাদ....

১১| ২৬ শে মে, ২০১৪ বিকাল ৩:৩৬

নাহিদ শামস্‌ ইমু বলেছেন: আগেও পড়েছিলাম। তবে তা ইংরেজীতে এবং অপেক্ষাকৃত সংক্ষেপিত।
অনেকের অনুরোধে লেখাটিকে বাংলায় অনুদিত করেছেন সেজন্য ধন্যবাদ। পাশাপাশি অনেক বেশি বিস্তৃত করে বুঝিয়ে লিখেছেন।
ভালো থাকবেন।

২৬ শে মে, ২০১৪ বিকাল ৩:৫৮

সোহানী বলেছেন: অনুরোধের ঢ়েকি গিলতে যেয়ে হাত ব্যাথা + মিটিং সিফ্ট + সারাদিনের সিডিউল কাজের বির্পযয়..... তারপর ও আপনাদের রেসপন্স পেয়ে ভালো লাগছে।

১২| ২৬ শে মে, ২০১৪ বিকাল ৪:০২

দৃষ্টিসীমানা বলেছেন: উপকারি পোস্ট দেয়ার জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ ।আপনার জন্য শুভ কামনা রইল ।

২৬ শে মে, ২০১৪ বিকাল ৪:১১

সোহানী বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ.........

১৩| ২৬ শে মে, ২০১৪ বিকাল ৪:৪০

রাতুলবিডি৪ বলেছেন: +++++++++++++

৭ আর ১০ - এ একমত না ।

২৭ শে মে, ২০১৪ সকাল ৯:২৩

সোহানী বলেছেন: আবারো পড়ুন, অবশ্যই একমত হবেন আশা করি...

অনেক ধন্যবাদ

১৪| ২৬ শে মে, ২০১৪ বিকাল ৪:৫২

মাঘের নীল আকাশ বলেছেন: দয়া করে জি বাংলা বা স্টার প্লাসের মতো চ্যানেলগুলো থেকে বাচ্চাদের দূরে রাখেন। আপনি জানেন না আপনার অজান্তে তাকে কতটা নিচে নামাচ্ছেন.... অসুস্থ পরিবেশ, প্রেম, পরকীয়া, কুটনামী, অতি সাজগোজ, ঝগড়া, কুটকৈাশলী বিষয়ে শিক্ষা দিচ্ছেন তাকে দিনের পর দিন...সহমত!

২৭ শে মে, ২০১৪ সকাল ৯:২৪

সোহানী বলেছেন: আসলেই তাই !!!!!!!!!!!!!!!!!

অনেক ধন্যবাদ ।

১৫| ২৬ শে মে, ২০১৪ বিকাল ৫:১২

দেশ প্রেমিক বাঙালী বলেছেন: চমৎকার একটি পোষ্ট দেওয়ার জন্য রইল বিশেষ ধন্যবাদ।

২৭ শে মে, ২০১৪ সকাল ৯:২৫

সোহানী বলেছেন: দেশ প্রেমিক বাঙালী ভাই অনেক ধন্যবাদ ।

১৬| ২৬ শে মে, ২০১৪ বিকাল ৫:৩৮

আম্মানসুরা বলেছেন: চমৎকার দরকারি পোস্ট। সব বাবা মায়ের উচিত এই পোস্ট টা পড়ে মুখস্থ করে ১০০ বার লিখা যেন জীবনেও কোন পয়েন্ট না ভুলে।

২৭ শে মে, ২০১৪ সকাল ৯:২৬

সোহানী বলেছেন: সত্যিই তাই.... আমাদের সচেতনাতাই ওদের বাচাঁতে পারে।

১৭| ২৬ শে মে, ২০১৪ সন্ধ্যা ৬:২৩

ইউর হাইনেস বলেছেন: ধন্যবাদ।

২৭ শে মে, ২০১৪ সকাল ৯:২৬

সোহানী বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ ।

১৮| ২৬ শে মে, ২০১৪ রাত ৯:২৮

ফা হিম বলেছেন:
সমস্যা হল এগুলো মানতে গেলে অনেকের সাথে বিশেষ করে নিকট-আত্মীয়দের ভিতর জটিলতার সৃষ্টি হবে।

২৭ শে মে, ২০১৪ সকাল ৯:৩৪

সোহানী বলেছেন: আমার সস্তানকে বাচাঁতে যদি কোন নিকট-আত্মীয়দের ভিতর জটিলতার সৃষ্টি হয় তাহলে আমি তাই করবো।

১৯| ২৬ শে মে, ২০১৪ রাত ৯:৫৯

অর্থনীতিবিদ বলেছেন: প্রতিটা বাবা মায়ের জন্য অবশ্য পাঠ্য একটি পোস্ট।

২৭ শে মে, ২০১৪ সকাল ৯:৩৪

সোহানী বলেছেন: অবশ্যই.... আমাদেরই এগিয়ে আসতে হবে প্রথমে।

২০| ২৬ শে মে, ২০১৪ রাত ১১:১৭

এহসান সাবির বলেছেন: আমার একটা শিশু সংকলণ পোস্ট আছে, এই পোস্ট টি সাথে করে নিয়ে গেলাম এ্যাড করবার জন্য।

২৭ শে মে, ২০১৪ সকাল ৯:৩৭

সোহানী বলেছেন: ওকে ব্রাদার.....

২১| ২৭ শে মে, ২০১৪ রাত ১২:০৪

বিফলতা নয়, সফলতায় বিশ্বাসী বলেছেন: উপকারী পোস্ট , , ধন্যবাদ, শুভেচ্ছা নিবেন।

২৭ শে মে, ২০১৪ সকাল ৯:৩৮

সোহানী বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ

২২| ২৭ শে মে, ২০১৪ রাত ১:৩১

জাফরুল মবীন বলেছেন: মনোজাগতিক বিষয নিয়ে আমার বেশ আগ্রহ রয়েছে।আপনার উপস্থাপিত বিষয়টি খুব গুরুত্বপূর্ণ নিঃসন্দেহে।টিপসগুলোর দু একটি বিষয়ে আপাতঃ কিছুটা ভিন্ন দৃষ্টি রয়েছে আমার।তাই প্রিয়তে নিয়ে রাখলাম;সময় নিয়ে ভালভাবে পড়ে ও বুঝে তারপর প্রয়োজন হলে সে বিষয়ে আপনার দৃষ্টি আকর্ষণ করবো।অনেক শুভকামনা রইলো আপনার জন্য....

২৭ শে মে, ২০১৪ সকাল ৯:৪০

সোহানী বলেছেন: আপনাদের সুচিন্তিত মতামত অবশ্য প্রয়োজন। যতবেশী এ বিষয় নিয়ে আলোচনায় আসবে ততবেশী সচেতনতা বাড়েবে নি:সন্দেহে।

২৩| ২৭ শে মে, ২০১৪ রাত ৮:০৮

অপরিচিতা০০১ বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ। শুভকামনা রইল.... :)

২৮ শে মে, ২০১৪ সকাল ৯:১১

সোহানী বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ .........

২৪| ২৭ শে মে, ২০১৪ রাত ৮:১৭

মুদ্‌দাকির বলেছেন: খুব ভালো একটা কাজ করেছেন ++++++++++

২৮ শে মে, ২০১৪ সকাল ১০:৫৭

সোহানী বলেছেন: সবার সচেতন হওয়ার সময় এখনই...

অনেক ধন্যবাদ .........

২৫| ০৪ ঠা জুন, ২০১৪ সকাল ১০:৫১

ইমিনা বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ আপু এমন সুন্দর একটা পোস্ট শেয়ার করার জন্য :) :)

০৫ ই জুন, ২০১৪ বিকাল ৪:১০

সোহানী বলেছেন: ধন্যবাদ আপনাকে ও......

২৬| ০৫ ই জুন, ২০১৪ বিকাল ৪:৩১

ধুমধাম বলেছেন: বিশেষতঃ প্রথমটার ব্যাপারে ঘোরতর আপত্তি জানাতে চাচ্ছিলাম, পরে মনে হল আপনার কথা অস্বাভাবিক নয়!
তবে নিজেকে নিয়ে ভেবে কষ্ট পেলাম, আমার কাছাকাছি পিচ্ছিগুলো আমার কাছে আমার আত্মার মত, তারাও আমাকে ততটাই ভালোবাসে। দুহাতে যখন জড়িয়ে ধরি, সে অনুভুতির কি কোন সাধারণ সংগা আছে? মনে হয় না।

০৫ ই জুন, ২০১৪ রাত ৯:৫২

সোহানী বলেছেন: আপনার অনুভূতিতে আঘাত দেয়ার জন্য দূ:খিত।

কিন্তু লিখাটি আপনাদের জন্য নয় অবশ্যই আর যাদের জন্য তারা কিন্তু এ অপরাধ করে যাচ্ছে দিনের পর দিন। আপনি যদি একবার শিশুর হয়ে ভেবে দেখেন তাহলে বুঝবেন আমাদের কোমল শিশুগুলো এ অত্যাচার কিভাবে সহ্য করেছে দিনের পর দিন। তখন আমার লিখার সঠিক অর্থ খুজেঁ পাবেন।

অনেক ধন্যবাদ

২৭| ০৫ ই জুন, ২০১৪ রাত ৯:৫৪

জালিস মাহমুদ বলেছেন: মানুষের ভিতরে মানুষ
করিতেছে বিরাজন............

আসলে যারা সামাজিক জীব তারাই এই ধরনের আকাম বেশী করে ...........।

০৮ ই জুন, ২০১৪ সকাল ৮:৫১

সোহানী বলেছেন: এদেরকে সামাজিক জীব হিসেবে মানতে পারছি না কিছুতেই। এরা মানুষ নামের পশু.........

২৮| ১০ ই জুন, ২০১৪ দুপুর ১:৪৮

সনজিত বলেছেন: যদি আপনার সদয় অনুমতি হয় তাহলে আমার একটা শিশু বিষয়ক সংকলণ আছে, এখান থেকে কিছু সংগ্রহ করতাম,,,,,,,,,,,

১০ ই জুন, ২০১৪ দুপুর ২:০৪

সোহানী বলেছেন: হাঁ অবশ্যই তবে সংকলনটি আমি পড়তে চাই... কিভাবে তা পেতে পারি?

২৯| ১০ ই জুন, ২০১৪ দুপুর ২:০৭

চড়ুই বলেছেন: খুবী উপকারী ১ পোস্ট শেয়ার করেছেন। ধন্যবাদ

১০ ই জুন, ২০১৪ দুপুর ২:১০

সোহানী বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ.......

৩০| ২৩ শে জুন, ২০১৪ বিকাল ৫:৫৬

রিদওয়ান এইচ ইমন বলেছেন: সচেতনতামূলক এবং অবশ্যই অবশ্যই বেশ উপকারি পোস্ট!!!!

২৪ শে জুন, ২০১৪ সকাল ৯:২৯

সোহানী বলেছেন: অনেক অনেক ধন্যবাদ.......

৩১| ২৬ শে জুন, ২০১৪ দুপুর ১২:৪৯

দয়ালু বলেছেন: পোস্টে প্লাস এবং প্রিয়তে

২৬ শে জুন, ২০১৪ বিকাল ৪:০৮

সোহানী বলেছেন: অসংখ্য ধন্যবাদ........

৩২| ০১ লা জুলাই, ২০১৪ দুপুর ১২:০৬

আকিব আরিয়ান বলেছেন: ভালো লাগলো পোস্টটি পড়ে

০২ রা জুলাই, ২০১৪ সকাল ৯:১১

সোহানী বলেছেন: অসংখ্য ধন্যবাদ আকিব আরিয়ান........

৩৩| ০৪ ঠা জুলাই, ২০১৪ রাত ১১:২৮

জোৎস্নাআলো বলেছেন: ধন্যবাদ উপকারী পোষ্টের জন্য।

০৬ ই জুলাই, ২০১৪ সকাল ৯:১২

সোহানী বলেছেন: অসংখ্য ধন্যবাদ জোৎস্নাআলো লিখাটি পড়ার জন্য।

৩৪| ০৪ ঠা জুলাই, ২০১৪ রাত ১১:৪৭

মদন বলেছেন: অল্প সময়ের জন্য হলেও পোষ্ট টি স্টিকি করা হোক।

০৬ ই জুলাই, ২০১৪ সকাল ৯:৩৯

সোহানী বলেছেন: অসংখ্য অসংখ্য ধন্যবাদ বিষয়টিকে গুরুত্ব দেয়ার জন্য। আসলেই আমাদের আরেকটু সচেতন হতে হবে।

৩৫| ১৮ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৪ দুপুর ১২:২৩

অপূর্ণ রায়হান বলেছেন: ++++++++ প্রিয়তে । খুবই উপকারী একটা পোস্ট । আমিও প্রায় একই ধরনের একটা লিখেছিলাম স্কুল-কলেজের মেয়েদের প্রতি কিছু তেতো কথা । ( আপডেটেড )

ভালো থাকবেন সবসময় ।

১৮ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৪ দুপুর ১২:৩১

সোহানী বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ পোস্টটি পড়া সহ প্রিয়তে নেয়ার জন্য.... এটা আমার জন্য অনার .... আপনার মতো কারো প্রিয়তে স্থান পাওয়া অনেক কিছু আমার জন্য। আপনি কিন্তু চমৎকার লিখেন, আমি আপনার রেগুলার পাঠক....।

ভালো থাকুন আর যেকোন আন্দোলনে সাথেই আছি।

৩৬| ১৮ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৪ দুপুর ১২:৩৭

অপূর্ণ রায়হান বলেছেন: আমি মামুলী মানুষ ভাই । আমার অখাদ্যগুলো ভালো লাগে জেনে কৃতার্থবোধ করছি । অনুসরণে নিলাম । আবার মামলা করে বসবেন না যেন :)

১৮ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৪ দুপুর ১:২৩

সোহানী বলেছেন: B:-) B:-) B:-) B:-) :-B :-B :-B :-B

৩৭| ২৭ শে অক্টোবর, ২০১৪ রাত ৮:১৬

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আনুসরন করলাম আপনাকে :)

২৮ শে অক্টোবর, ২০১৪ সকাল ৯:৪৫

সোহানী বলেছেন: আমিতো ভাই অনুসরনের যোগ্য নই কোনক্রমেই.......... তারপরও এ সন্মানটুকুর জন্য কৃতজ্ঞতা।

৩৮| ১৫ ই অক্টোবর, ২০১৫ রাত ১২:০৪

নাইট রিডার বলেছেন: অসাধারণ লিখেছেন, সুন্দর -সহজ ভাষায় শিশুদের যৌন হয়রানি রোধে আভিভাবকদের করণীয় গুলি অনেকেরই কাজে লাগবে বলে মনে করি পোষ্ট প্রিয়তে।

১৬ ই অক্টোবর, ২০১৫ সন্ধ্যা ৭:৫৭

সোহানী বলেছেন: অনেক অনেক ধন্যবাদ নাইট রিডার .......

৩৯| ১২ ই ডিসেম্বর, ২০১৫ দুপুর ২:০৫

মোহামদ শাকিল বলেছেন: খুব ভালো লিখেছেন এবং এ যুগের জন্য অনেক দরকারি পুষ্ট।
ধন্যবাদ শেয়ার করার জন্য।

১২ ই ডিসেম্বর, ২০১৫ রাত ৯:০৩

সোহানী বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ শাকিল।

৪০| ২৯ শে নভেম্বর, ২০১৬ সকাল ১১:২৩

এই আমি রবীন বলেছেন: কার্জকরী পোষ্ট। ভাল লাগল। কাজে লাগবে ।
পোষ্টে প্লাস।

২৯ শে নভেম্বর, ২০১৬ রাত ৮:৪৯

সোহানী বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ

৪১| ২৯ শে নভেম্বর, ২০১৬ সন্ধ্যা ৭:৪৮

রাজীব নুর বলেছেন: আসলে ঢাকা নিউজ পেজটা আসল না। এই পেজ ছিল জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল ঢাকাটাইমস২৪ডট কম এর। কে বা কারা এটা হ্যাক করে নাম দেয়- ঢাকা নিউজ।

২৯ শে নভেম্বর, ২০১৬ রাত ৮:৫০

সোহানী বলেছেন: তাই নাকি নুর ভাই জানতাম না তো.....................

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.