নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

হাজার হাজার অসাধারন লেখক+ব্লগারের মাঝে আমি এক ক্ষুদ্র ব্লগার। পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া লেখালেখির গুণটা চালিয়ে যাচ্ছি ব্লগ লিখে... যখন যা দেখি, যা মনে দাগ কাটে তা লিখি এই ব্লগে।

সোহানী

আমি অতি বিরক্ত হয়ে আমার অনেক লিখাই ড্রাফটে নিয়েছি কারন সামুতে আমার কিছু ভাবনা শেয়ার করছি, আর এ ভাবনা গুলো আমার অনুমতি ব্যাতিরেকে কপি না করার অনুরোধ করেছিলাম কিন্তু যত্রতত্র আমার লিখার কপি পেস্ট দেখেই যাচ্ছি দিনের পর দিন।

সোহানী › বিস্তারিত পোস্টঃ

একজন মুনির হাসান এবং একজন আলোকিত মানুষ, একজন স্বপ্নদ্রস্টা .........

১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:২৫


অনেকদিন থেকেই ভাবছিলাম আমার কিছু প্রিয় ব্যাক্তিত্ব নিয়ে লিখবো। কিন্তু কোন দিক থেকে শুরু করবো সেটা ঠিক করতে আর সাথে সময়ের টানাটানি একটা বিশাল ফ্যাক্টর যেকোন কিছু শুরু করার জন্য। কিন্তু ব্লগার আর্কিওপটেরিক্স এর কিছু বাংলা ওয়েবসাইটঃ পর্ব - ১ পোস্টটি দেখে মনে হলো মুনির হাসান ভাইকে নিয়েই লিখা শুরু করি।

একজন মুনির হাসান, নামটা সাধারনের মাঝে জনপ্রিয় না হলেও অন্তত ব্লগারদের মাঝে অনেকেই তাঁকে চিনেন একজন সামহোয়ারের ব্লগার হিসেবে। গণিত অলিম্পিয়াড এর কর্মকান্ডের সাথে যুক্ত হবার কারনে আরো অনেকে উনাকে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে চিনেন। মুনির হাসান এবং গণিত অলিম্পিয়াড প্রায় একই স্বত্তা, গণিত অলিম্পিয়াড এর নাম আসলেই মুনির হাসান নামটা সামনে আসবেই। যে ডেডিকেশান এবং শ্রম এর জন্য দিয়ে যাচ্ছেন তা আজ বা কাল সবসময়ই উনি সবার কাছে স্মরণীয় হয়ে থাকবেন। অংক নিয়ে যে ভীতি বাচ্চাদের মাঝে তার থেকে উনি বের করে নিয়ে আসার চেস্টা করে যাচ্ছেন আমাদের সন্তানদের জন্য। শুধু অংক কেন বলি বিজ্ঞান নিয়েও উনার আছে সীমাহীন ডেডিকেশান। কাজ করে যাচ্ছেন FISBL-BFF Children Science Congress এর জন্য। জনপ্রিয় করার চেস্টা করছেন বিজ্ঞান বিষয়টিকেও শিশুদের মাঝে।

ব্যাক্তি মুনির হাসান বুয়েট থেকে ইলেকট্রিক ইন্জিনিয়ারিং এ পড়াশুনা করলেও আরো অনেক বুয়েটিয়ানদের মতো পাড়ি জমাননি দেশের বাইরে। আকঁড়ে ধরেছিলেন দেশের মাটি ও কাজ করে যাচ্ছেন আমাদের ও সন্তানদের জন্য দিনের পর দিন। অনেকে হয়তো জানেন না দেশের ওপেন সোর্স নেটওয়ার্ক এর আন্দোলনের শুরু অনেকটা উনার হাত ধরে। যা এখন বিডিওএসএন (Bangladesh Open Source Network (BdOSN)) নামে পরিচিত। উনার আরেকটি বড় উদ্যোগ হচ্ছে “Access to Information” বা আইসিটি প্রজেক্ট যা এখনো প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অধীনে চলছে। উনি সে প্রজেক্টের শুরু থেকে বিস্তৃতি সবই উনার চেস্টার ফসল।

২০১২ সালে দুইজন সমাজবিজ্ঞানী Ryszard Praszkier and Andrzej Nowak সামাজিক উদ্যোক্তা (Social Entrepreneurship) নিয়ে একটা পাঠ্যপুস্তক লেখেন যা ছাপা হয়েছে কেমব্রিজ ইউনিভার্সিটি প্রেস থেকে। বিশ্বের অনেকগুলো দেশে গিয়ে মোট ১০ জন ব্যক্তিকে সিলেক্ট করেন যাদের উদাহরণ দিয়ে বইটা সাজানো হয়েছে। এই ১০ জনের মধ্যে একজন মুনির হাসান।

অসংখ্য বই লিখেছেন উনি বিশেষ করে গনিত, বিজ্ঞান ও আইসিটি বিষয়ে। পঞ্চম, ষষ্ঠ ও অষ্টম শ্রেনীর জন্য উনি আইসিটি টেক্সট্ বই নিয়ে কাজ করেছেন। বাংলা এনসাইক্লোপিডিয়া নিয়েও উনার কাজ ও বিশেষ উল্লেখযোগ্য।

টাকার পিছনে ছুটে আইসিটি ব্যবসা শুরু করেননি কিংবা আন্তর্জাতিক চাকরী নিয়ে দেশ ছাড়েননি…. একজন সাধারন মানুষ হয়ে কাজ করে যাচ্ছেন দিনের পর দিন। এমন একজন আলোকিত মানুষের সংস্পর্শে আসা বিশাল ভাগ্যের বিষয়। আমি সেই কিছু ভাগ্যবানদের একজন। একসময় উনার সাথে কাজ করার সুযোগ হয়েছিল। চমৎকার ব্যাক্তিত্বের মানুষটি সবাইকে খুব সহজেই আপন করে নিতেন, কি সিনিয়র, কি জুনিয়র…… সবাই উনার কাছে মূল্যবান ছিলেন।

আজ এতটুকু আবার হয়তো অন্য কাউকে নিয়ে আসবো আরেকদিন আপনারে মাঝে পরিচয় করাতে।

মুনির ভাইয়ের বইয়ের লিস্ট লিংক দিলাম যদি কেউ সংগ্রহে রাখতে চান।
বইয়ের লিস্ট

ব্লগ লিংক: (যদিও অনেকদিন লিখেন না এখানে)
ব্লগ লিংক:

ওয়েবসাইট লিংক:
ওয়েবসাইট লিংক

ছবি: ফেইসবুক প্রোফাইল B:-/

মন্তব্য ৯২ টি রেটিং +২৩/-০

মন্তব্য (৯২) মন্তব্য লিখুন

১| ১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:৩৬

স্বপ্নবাজ সৌরভ বলেছেন: প্রিয় এক ব্যক্তিত্ব নিয়ে দারুন পোস্ট। প্রিয়তে নিলাম সোহানী আপু

১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:৪৭

সোহানী বলেছেন: ধন্যবাদ সৈারভ, এ মানুষগুলোকে আমাদের বড় দরকার……..।

২| ১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:৫০

রাজীব নুর বলেছেন: ধন্যবাদ আপনাকে শ্রদ্ধেয় মুনির হাসান স্যারের সাথে পরিচয় করিয়ে দেবার জন্য।

১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ১০:২০

সোহানী বলেছেন: রাজীব ভাই, আপনাকে নিয়েও লিখবো এক সময় ………. ;)

৩| ১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:৫৪

ইসিয়াক বলেছেন: প্রিয় ব্যক্তিত্ব মুনির হাসানের প্রতি শ্রদ্ধা জানাই ।
পোষ্টে ভালো লাগা।
ধন্যবাদ ও শুভকামনা রইলো আপু।

১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ১০:২১

সোহানী বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ ইসিয়াক।

৪| ১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:৫৪

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: এমন একজন মহান মানুষকে পরিচয় করিয়ে দেয়ার জন্য অনেক ধন্যবাদ আপু। তাঁর মতো একজন মানুষ যে আমাদের এই ব্লগেরই একজন ব্লগার, তাও আজই জানলাম। এটা আমাদের জন্য গর্ব ও আনন্দের বিষয়।

শুভকামনা মুনির হাসানের জন্য।

১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ১০:২৫

সোহানী বলেছেন: উনার অনেক চমৎকার লিখা যেমন ব্লগে আছে তেমনি উনার অনেক বইয়ের শুরুটাও আছে এ ব্লগে। একসময় উনি এ্যাক্টটিভলি লিখতেন।

আর হাঁ, আপনার পালাও কিন্তু আসবে প্রিয় কবি ……. :)

৫| ১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:৫৭

মুনির হাসান বলেছেন: হায়। হায়। এসব কথা তো মানুষ মরে গেলে লেখে সোহানী। আমাকে কি তুমি মেরে ফেলতে চাও!!!

অনেক ভালবাসা

১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ১০:২১

সোহানী বলেছেন: হাহাহাহাহাহা….. মুনির ভাই, আসবো আবার আপনার মন্তব্যের উত্তরে।

৬| ১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ১০:০৮

কবীর হুমায়ূন বলেছেন: একজন ব্যক্তিত্বসম্পন্ন মানুষকে জানার সুযোগ করে দেয়ার জন্য ধন্যবাদ আপনাকে।

১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ১০:২৬

সোহানী বলেছেন: ধন্যবাদ কবীর ভাই, সত্যিই তিনি অনন্য ব্যাক্তিত্ব।

৭| ১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ১০:৩৩

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: উনার সম্পর্কে গণিত অলিম্পিয়াডের মাধ্যমে জানতে পারি। আইএমও তে উনি বাংলাদেশ দলের সাথে থাকেন। এই সূত্রেই উনার ওয়েবসাইট খুঁজে বের করা। তোমার পোস্টের মাধ্যমে তাঁর সম্পর্কে অনেক কিছু জানলাম। এরকম অবদানগুলোই একটি দেশকে এগিয়ে নিয়ে যায়।

এমন ব্যক্তিত্বসম্পন্ন, দেশপ্রেমিক মানুষের সাথে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ আপু।

১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৯:৫০

সোহানী বলেছেন: আর্কু, তোমার পোস্টের পরদিনই উনার একটা পোস্টে জানলাম উনাকে নিয়ে লেখার কথা সমাজ বিজ্ঞান বইতে। তোমার পোস্টটিই আমাকে মনে করিয়ে দিলো উনার কথা। তারপর দেখলাম উনার গন্ডীর বাইরে খুব কম মানুষই জানে উনার সম্পর্কে। তখনই মনে হলো এটা অবশ্যই অন্যায়, এধরনের গুটি কয়েক মানুষদেরকে সবার মাঝে পরিচয় করিয়ে দেয়া আমাদের দায়িত্ব। এ ধরনের মানুষগুলো যতই আলোর মাঝে আসবে ততইতো আমাদের মঙ্গল.....

অনেক ভালো থাকো।

৮| ১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ১০:৪৪

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন:
অসাধারণ একটি পোস্ট।

১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৯:৫১

সোহানী বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ সাজ্জাদ ভাই। কেমন আছেন? আপনার কানাডা আসা কদ্দুর?

৯| ১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ১১:০৮

মলাসইলমুইনা বলেছেন: সোহানী,
উনাকে নিয়ে এর আগে আমি একবারই মাত্র কোথায় যেন পড়েছিলাম । আমরা আমাদের দেশের এমন মানুষগুলোকে নিয়ে খুবতো লিখিনা তাই এরা সব সময় আড়ালেই থেকে যায় । আলোকিত মানুষ নিয়ে আলোকিত লেখায় অনেক ভালোলাগা ।

১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৯:৫৯

সোহানী বলেছেন: নাইমুল ভাই, সেটাই দু:খ। খবরের কাগজ দখল করে থাকে খুন ডাকাতী গোলাগুলির খবর। কোন ভালো খবর আসে না, কোন আলোকিত খবর আসে না। আর সে কারনে আড়ালেই থেকে যায় মানুষগুলো।

অনেক ভালো থাকেন।

১০| ১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ১১:১২

নীল আকাশ বলেছেন: শ্রদ্ধেয় মুনির হাসান সাহেবকে নিয়ে লেখার জন্য ধন্যবাদ আপনাকে।

১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:০১

সোহানী বলেছেন: ভালো থাকুন নীল ভাই।

১১| ১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ১১:৫৭

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: শ্রদ্ধাভাজন মুনির হাসান সাহেবকে নিয়ে লিখে আমাদেরকে কিছু অজানা তথ্যের জোগান দিলেন। আপনাকে ধন্যবাদ।

১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:০৬

সোহানী বলেছেন: হেনা ভাই, সত্যিই এরকম অনেকের সর্ম্পকেই আমরা জানি না এবং কেউই জানায় না। আমি আর ক'জনকেই চিনি। পত্রিকাগুলোর অনেক দায় আছে এ নিয়ে কিন্তু তারা এ নিয়ে কিছুই জানায় না।

১২| ১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১২:০০

নতুন বলেছেন: উনার সম্পর্কে গণিত অলিম্পিয়াডের মাধ্যমে জানতে পারি। উনি আরো কিছু প্রযেক্টে শিশুদের নিয়ে , শিক্ষা ব্যবস্হা নিয়ে কাজ করছেন। আশা করি উনার এই কাজগুলি আরো এগিয়ে নিয়ে যাবে আমাদের নতুন প্রযন্মকে।

১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:০৮

সোহানী বলেছেন: হাঁ, উনি অনেক প্রজেক্ট নিয়ে কাজ করেন বিশেষ করে শিশু শিক্ষা, নারী উদ্যোক্তা ও তরুন প্রজন্ম নিয়ে।

উনি একজন চির তরুন মানুষ।

১৩| ১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১:২৭

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: এইজন্যই আপু একটা ভাষার সমস্ত শিক্ষানুরাগী ব্যক্তিদের ব্লগিং করা উচিত। একটা প্ল্যাটফর্ম থেকে কত রকমের মানুষের সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ সম্ভব।সামুর তার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত। দীর্ঘজীবী হোক সামু ব্লগ।

আপুর পোস্টের মাধ্যমে স্যার আপনার অধ্যবসায়কে জানাই স্যালুট। গণিতকে সহজ সরল উপস্থাপনে আপনার প্রচেষ্টা যেন বাঙালি জাতির ঘরে ঘরে পৌঁছে যায়। সুন্দর পোস্টটির মাধ্যমে একজন গুনী মানুষকে পরিচয় করানোর জন্য ধন্যবাদ আপু আপনাকে।

শুভেচ্ছা নিয়েন।

১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:১৬

সোহানী বলেছেন: প্রিয় পদাতিক ভাই, সামুহোয়ারে ইতিহাস কিন্তু অনেক পুরোনো। অনেক বড় বড় লেখক এখানে লিখতেন বা লিখছেন। দেশের অনেক আন্দোলনের সূচনা ও হয়েছিল এ ব্লগ থেকে।

দেশে অনেক অনেক গুনী মানুষ আছেন যারা অনেক ঝড় ঝাপটা সহ্য করে এগিয়ে নিয়ে যান আবার অনেকে ঝড়ে পড়েন। ক'জনের খোঁজই বা আমরা রাখি।

অনেক অনেক ভালো থাকেন পদাতিক ভাই। নতুন কোন উপন্যাস শুরু করবেন কবে??

১৪| ১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১:৩৭

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:



চমৎকার একজন দেশপ্রেমিক মানুষকে আমাদের মাঝে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ আপু। এসব সোনার মানুষ আছেন বলেই দেশটা এখনো দেউলিয়া হয়নি। বিনম্র শ্রদ্ধা স্যারের প্রতি। স্বপ্ন পূরণের আগে একটি সুন্দর স্বপ্ন দেখাটা জরুরি। স্বপ্ন সেটাই, যেটা মানুষের কল্পনায় থাকে। কল্পনাতো আর এমনি এমনি আসে না। বাস্তবে যদি তার এতটুকু অস্তিত্ব না থাকে তাহলে মানুষ সেই স্বপ্নটি দেখে না। আমাদের প্রতিনিয়ত স্বপ্ন দেখতে হয়। স্বপ্ন দেখে বাঁচি, স্বপ্ন পূরণের আশায় আমরা অবিরাম কাজ করি। আর আমাদের জীবনে কিছু কিছু স্বপ্নদ্রষ্টার প্রয়োজন হয়। যারা স্বপ্ন দেখিয়ে বেড়ান। কেউ প্রকাশ্যে আর কেউবা অন্তরালে।

১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:২২

সোহানী বলেছেন: সত্যিই প্রিয় কাওসার ভাই, এমন কিছু স্বপ্নদ্রষ্টা আছে বলেই দেশ বেচেঁ আছে। নতুবা কবেই আমরা হারিয়ে যেতাম। নিভৃতে উনারা কাজ করে যান আমাদের জন্য।

অনেক ভালো থাকুন প্রিয় লেখক।

১৫| ১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৪:৩৩

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন:



জনাব মুনির হাসান সাহেবের জন্য শুভ কামনা রইলো। তাঁর মতো লোকদের বাংলাদেশে প্রয়োজন আছে। তিনি বাংলাদেশের গৌরব।

১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:২৪

সোহানী বলেছেন: সত্যিই তিনি দেশের গৈারব। তার সে কারনেই এ রকম মানুষগুলোকেই পর্দার সামনে আনা উচিত।

১৬| ১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৪:৪০

জানা বলেছেন: ধন্যবাদ সোহানী, প্রিয় মুনীর ভাইকে নিয়ে সুন্দর পোস্টটির জন্যে। মুনীর ভাই এ দেশের অন্যতম গুনীমানুষদের একজন। তাঁরা ভাগ্যবান, যাঁরা তাঁর মত একজনকে ধারণ করার সামর্থ রাখে। দুঃখজনক হলেও সত্যি যে, তাঁর কর্মজজ্ঞ মূল্যায়ন করার জন্যে উপযুক্ত বা যোগ্যতর সমাজ আমাদের এখনও তৈরী হয়নি। লোভী, অযোগ্য এবং চৌর্যবৃত্তি চর্চাকারীরা যেখানে নিজের ঢাক নিজেই বাজায় সেখানে মুনীর ভাইয়ের মত একটা মানুষ কতখানি সৎ, নির্লোভ এবং নির্মোহ থেকে স্বদেশের জন্যে মূল্যবান ভবিষ্যৎ গড়ে যাচ্ছেন তার গুরুত্বপূর্ণ ফলাফল বাংলাদেশ অচিরেই পাবো ব্যাপকহারে। সততা এবং স্বদেশপ্রেম এমনই মুল্যবান জিনিস যা আপনা থেকেই প্রষ্ফুটিত হয়। শিক্ষার্থীর গণিতভীতি এবং বিজ্ঞান বিমূখতা থেকে সরিয়ে তাদের মধ্যে বিষয়গুলোতে মজা ধরিয়ে দেবার এবং আনন্দ নিয়ে শেখার যে অমূল্য পথ করে যাচ্ছেন মুনীর ভাই তা দেশের গন্ডী ছাড়িয়ে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে অনুকরনীয় হয়ে থাকবে। আমার খুব প্রিয় মানুষদের ছোট তালিকার একজন আমাদের মুনীর ভাই। অশেষ ভালবাসা আর শ্রদ্ধা।

১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:৩৯

সোহানী বলেছেন: প্রিয় জানা আপু, খুব ভালো লাগলো জেনে যে উনি আপনারও প্রিয় একজন। আসলেই সত্যিই যে উনার মতো ব্যাক্তিত্বের সংস্পর্শে যারাই আসবে তারাই বুঝবে আলোকিত মানুষ কেমন হয়।

আপু, যে কঠিন সংগ্রামের মাঝে এ দেশে কিছু করতে হয় তা আমার চেয়ে কোটিগুন আপনি জানেন ও বুঝেন কারন এমন সংগ্রামের মাঝেই আপনি চলছেন। এরকম লোভী, অযোগ্য এবং চৌর্যবৃত্তি চর্চাকারীরা যেখানে নিজের ঢাক নিজেই বাজায় সেখানে টিকে থাকা ও নিজের কাজ করে যাওয়া অনেক অনেক কঠিন। রাগ, দু:খ, কষ্ট, অভিমান, সৎ, নির্লোভ এবং নির্মোহ সব কিছুকে ছাড়িয়ে দেশের জন্য কিছু করা সত্যিই দূরহ। কারন আমাদের সে ধরনের পরিবেশ নেই। তারপরও একজন মুনির হাসান বা আরো কিছু আলোকিত মানুষ তা করে যাচ্ছেন।

"শিক্ষার্থীর গণিতভীতি এবং বিজ্ঞান বিমূখতা থেকে সরিয়ে তাদের মধ্যে বিষয়গুলোতে মজা ধরিয়ে দেবার এবং আনন্দ নিয়ে শেখার যে অমূল্য পথ করে যাচ্ছেন মুনীর ভাই তা দেশের গন্ডী ছাড়িয়ে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে অনুকরনীয় হয়ে থাকবে।"... এই বিশ্বাস আমারো আছে। একদিন উনাকে নিয়েই অনেক বই বের হবে এটা আমি নিশ্চিত।

১৭| ১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৪:৪১

সম্রাট ইজ বেস্ট বলেছেন: ‌আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ! দেশের আনাচেকানাচে এমন গুণী মানুষ অনেক ছড়িয়েছিটিয়ে রয়েছেন যাঁদের খবর আমরা অনেকেই জানি না। এঁদের কর্মযজ্ঞগুলো সবার গোচরে আনা উচিত। তাতে করে অনেকেই তাঁদের মত চিন্তাভাবনা করে নিজেকে গড়ে তোলার চেষ্টা করতে পারবে এবং দেশের জন্য অবদান রাখতে পারবে।

পোস্টে প্লাস।

১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:৪৩

সোহানী বলেছেন: হাঁ সম্রাট বাই, এরকম অনেকেই আছেন। কিন্তু আমরা খুব মানুষেরই খবর রাখি। উনাদের সম্পর্কে আরো জানানো উচিত সবখানে।

১৮| ১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৫:০৩

হামিদ আহসান বলেছেন: এক জন আলোকিত মানুষ সম্পর্কে জেনে ভালো লাগছে।

১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:৪৪

সোহানী বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ হামিদ ভাই।

১৯| ১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:০৭

চাঁদগাজী বলেছেন:



উনার সম্পর্কে ১ম বার শুনলাম

১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:৫১

সোহানী বলেছেন: প্রিয় গাজী ভাই, সেটাইতো দু:খ। শেখ হাসিনা বা খালেদা জিয়া সহ আরো কিছু নেতা নেত্রীবৃন্দ ছাড়া আমরা তেমন কাউকে চিনি না বা চেনার চেস্টাও করি না। এক জাফর স্যার বা আরো কিছু মানুষের কথা আসলেই শুরু হয়ে যায় আওয়ামী বিএনপির মতো দু'দলের মতো ভাগ। যে যার আঙ্গিকে উনাদেরকে ব্যাখ্যার চেস্টা করেন। কেউই তেমন উনাদের সংগ্রাম নিয়ে কথা বলতে চায় না, উনাদের আদর্শ, কর্ম নিয়ে কথা বলে না....। আফসো আর কি।

অনেক ভালো থাকেন। আপনার শরীর কেমন এখন?

২০| ১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৪৮

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন:





চাঁদগাজী ভাই,
মুনির হাসান সাহেব কখনো নিজের প্রচার করেন নি আর তাই তিনি আমাদের কাছে রিতিমতো অপরিচিত একজন মানুষ। আর তাকে নিয়ে ব্লগে আজই সম্ভবত প্রথম লেখা হয়েছে যেটি সোহানী আপা করেছেন। সোহানী আপাকে বিশেষভাবে ধন্যবাদ।

বাংলাদেশে গর্ব করার মতো অনেক মানুষ আছেন যাদের কে আমরা চিনবো দুরে থাকুক, তাদের নাম পর্যন্ত জানিনা। কারণ কি? তাদের কে নিয়ে লিখতে কেউ আগ্রহী নন। কারো গুণগান করার প্র্যাকটিসটি বাংলাদেশে বন্ধই হয়ে গেছে। সোহানী আপাকে আবারো ধন্যবাদ মুনির হাসান সাহেবকে নিয়ে লিখার জন্য। গুড জব।

১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ১১:০৮

সোহানী বলেছেন: "বাংলাদেশে গর্ব করার মতো অনেক মানুষ আছেন যাদের কে আমরা চিনবো দুরে থাকুক, তাদের নাম পর্যন্ত জানিনা। কারণ কি? তাদের কে নিয়ে লিখতে কেউ আগ্রহী নন।" আর সে কারনেই আমরা তাঁকে চিনি না।

প্রিয় ঠাকুর ভাই, আপনার একটি কমেন্টস্ ই সব কিছু বলে দিয়েছে। উপরের জানা আপুর মন্তব্যটা অসাধারন..... নিজের ঢোল পিটাতেই আমরা ব্যাস্ত অন্যের ঢোল পিটাবো কখন???

অনেক ভালো থাকেুন এ শীতে।

২১| ১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৪৩

বিদ্রোহী ভৃগু বলেছেন: এমন অনন্য গুনি ব্যাক্তি সাহচার্য লাভ করেছেন জেনে পুলকিত :)
এবং আমাদের সকলের জন্য দারুন করে উনাকে উপস্থাপন করায় অনেক অনেক ধণ্যবাদ!

এত বিস্তারিত জানা ছিল না। গণিত অলিম্পিয়াডের খবরে যা পড়া হতো!
জানাপুর মন্তব্যে সহমত।

++++

১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ১১:১৮

সোহানী বলেছেন: হাঁ বিগু, খুব কম মানুষেই উনার সস্পর্কে জানে। কারন তাঁরা আমাদের পত্রিকাওয়ালাদের কাছে তেমন গুড়ুত্বপূর্ন নয়......।

অনেক ভালো থাকো কবি।

২২| ১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৮:২১

ভুয়া মফিজ বলেছেন: দেশে এ‘ধরনের কিছু মানুষ এখনও আছে বলেই দেশটা এখনও খেয়ে-পরে বেচে আছে। তবে, দুঃখের বিষয় হলো, এনারা সংখ্যালঘু। আর যে দেশে এ‘ধরনের মানুষেরা সংখ্যালঘু হয়, সে দেশ কতোদিন টিকে থাকবে, সেটা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করাই যায়।

আপনার সিরিজটা চলুক…..দরকার আছে।

তয়, পারলে আমারেও এড কইরেন। লিষ্টে ভুয়া কেউ না থাকাটা ভালো দেখায় না!! :P

১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ১১:২৩

সোহানী বলেছেন: হাহাহা আপনারে তো এড করতে চাই কারন আপনি যা লিখেন তা লেখার যোগ্যতা এ দেশের খুব কম মানুষেরই আছে।

আর এ কারনেই সংখ্যালঘুরা এ দেশ থেকে পালায় :(

২৩| ১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৯:০৭

আহমেদ জী এস বলেছেন: সোহানী,




নিভৃতচারী এক মানুষের অসাধারণ কাহিনী। ফলভারে নত এক বৃক্ষ।
যারা জ্ঞানী,স্বপ্নদ্রষ্ঠা আর স্বদেশ প্রেমী তাঁরা এভাবেই নত থাকেন হাযারো পরগাছার ভিড়ে। নিভৃতে থেকে ছড়িয়ে যান তাঁদের কস্তুরী ঘ্রান। অংকের মতোই দু'য়ে দু'য়ে চার মিলে গেছে এটা তাঁর সম্পর্কে।

আপনাকে ধন্যবাদ এমন নিরহঙ্কারী, আলোকিত একজন মানুষকে দিনের আলোতে তুলে আনার জন্যে।

১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ১১:০৪

সোহানী বলেছেন: "যারা জ্ঞানী,স্বপ্নদ্রষ্ঠা আর স্বদেশ প্রেমী তাঁরা এভাবেই নত থাকেন হাজারো পরগাছার ভিড়ে। নিভৃতে থেকে ছড়িয়ে যান তাঁদের কস্তুরী ঘ্রান।"............... এ পোড়া দেশে ক'জন পারে এভাবে পরগাছা ঠেলে এগিয়ে যেতে..। অনেক অনেক কষ্টসাধ্য এটি। তারপরও তাঁরা এগিয়ে যান সব বাঁধা পেড়িয়ে।

অঅপনার চমৎকার কথাগুলো একজন মুনার হাসানের মত মানুষগুলোর জন্য অনুপ্রেরণা।

অনেক ভালো থাকেন প্রিয় লেখক।

২৪| ১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:১৩

রূপম রিজওয়ান বলেছেন: উনি আমার কাছেও অসম্ভব রকমের প্রিয় একজন ব্যক্তিত্ব। ম্যাথ অলিম্পিয়াডের সুবাদে খুব কাছ থেকে স্যারকে দেখবার সৌভাগ্য হয়েছে। খুব পরিশ্রমী,অনুপ্রেরণাদায়ী এবং সততার প্রশ্নে কখনো আপোস করেন না। বিভিন্ন প্রোগ্রামে ওনার বক্তব্য মন্ত্রমুগ্ধ হয়ে শুনি। বাংলাদেশে বিভিন্ন অলিম্পিয়াডের প্রসারে মুনির স্যারের অবদান জাফর স্যার কিংবা কায়কোবাদ স্যারের থেকে কোন অংশে কম না। কিন্তু গণমাধ্যমে প্রচারের দিক থেকে উনি যেন 'আনসাং হিরো'ই রয়ে গিয়েছেন। একটা মজার বিষয়,আমি 'সামহোয়্যারইন ব্লগ' নামটা মুনির হাসান স্যারের মুখেই প্রথম শুনেছিলাম,ফরিদপুরে।

১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ১১:০৮

সোহানী বলেছেন: সত্যিই তাই, তোমার মূল্যায়নের সাথে আর সবারই মিলে যাবে।

উনি খুব মজা করে কথা বলেন। একসময় উনি খুব লিখতেন ব্লগে। এখন এতো বেশী ব্যাস্ত থাকেন ব্লগে লিখা তাই হয়তো দেখি না।

অনেক ধন্যবাদ নিজের অভিজ্ঞততা শেয়ার করার জন্য।

২৫| ১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:২০

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: প্রতিমন্তব্যে আবার আসা আপু। এই মুহূর্তে কয়েকটি পর্বের একটি ভ্রমণ কাহিনী নিয়ে ব্যস্ত আছি। যদিও ইতিমধ্যে একটি উপন্যাসে হাত দিয়েছি। ভ্রমণ কাহিনীটি শেষ করেই আবার উপন্যাসে ফিরবো ইচ্ছা আছে।

১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ১১:১২

সোহানী বলেছেন: আপনার লিখা আগের উপন্যাসটা কয়েকটা পর্ব মিস করে মনের মাঝে খচখচ লাগছে.... । তারপর কি হলো... এরকম একটা প্রশ্ন মনের মাঝে ঘুরপাক খায়। সময় করে আবার পড়তে হবে।

লিখতে থাকুন প্রিয় লেখক।

২৬| ১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:২১

মনিরা সুলতানা বলেছেন: প্রিয় জনের প্রতি চমৎকার নৈবদ্য।
ধন্যবাদ আপু পরিচয় করিয়ে দেয়ার জন্য।

১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ১১:১২

সোহানী বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ প্রিয় মনিরা।

২৭| ১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:২৯

হাবিব স্যার বলেছেন: এ গ্রেট ম্যান..........

১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ১১:১৩

সোহানী বলেছেন: ধন্যবাদ স্যার ভাই।

২৮| ১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ১১:২৬

শের শায়রী বলেছেন: ব্লগিংয়ের প্রথম দিকে উনার লেখার সাথে পরিচিত ছিলাম। তবে উনাকে নিয়ে অনেক কিছু জানতাম না। আপনার মাধ্যমেই জানলাম। এই ধরনের মানুষগুলোই প্রথম দিকে ব্লগিংকে সমৃদ্ধ করে দিয়ে গেছে। ভালো লাগা জানিয়ে গেলাম বোন।

১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ১১:২০

সোহানী বলেছেন: ব্লগে এ ধরনের মানুষগুলোর অবদান সত্যিই অনেক। ব্লগকে জনপ্রিয় করার জন্য উনাদের অবদান অনেকখানি। এর মাঝে আপনিও একজন।

২৯| ১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ১১:৪২

ওমেরা বলেছেন: একজন আলোকিত মানুষ সম্পর্কে জেনে ভালো লাগল।

১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ১১:২০

সোহানী বলেছেন: ধন্যবাদ ওমেরা।

৩০| ১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ১২:০৫

বিষাদ সময় বলেছেন: সফল এবং দীর্ঘ হোক এই আলোকবর্তিকার পথ চলা............ সেই সাথে আপনাকেও ধন্যাবাদ তাঁর মত একজন ব্লগার এবং ব্যাক্তিত্বের উপর আলোকপাত করায়।

১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ১১:২৯

সোহানী বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ বিষাদ ভাই।.

সফল এবং দীর্ঘ হোক এই আলোকবর্তিকার পথ চলা.........

৩১| ১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ২:০৭

জোবাইর বলেছেন: বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াডের শুরু থেকেই এর সাথে জড়িত যে তিনটি নাম সবসময় দেখে আসছি তা হলো মুহম্মদ জাফর ইকবাল, মুনির হাসান এবং কায়কোবাদ। দীর্ঘকাল বিদেশে থাকার কারণে এদের কারো সাথেই আমার কখনো কোনো ব্যক্তিগত সাক্ষাৎ হয়নি। তারপরেও উনাদের মহতি এই উদ্যোগে উৎসাহিত হয়ে ক্ষুদে গাণিতিকদের জন্য 'গাণিতিক কুইজ' নামে একটি বইও লিখেছিলাম। বইটি বেশ কয়েকবার পুনর্মুদ্রণ হয়েছে।

বাংলাদেশের উচ্চশিক্ষিত মেধাবীদের একটি অংশ বিদেশে চলে যাচ্ছে, আরেকটি অংশ দেশে বিসিএস ক্যাডার হয়ে দুর্নীতি করছে। এর বাইরে মুষ্টিমেয় যে কিছু লোক অর্থ, খ্যাতি, বিদেশের উন্নত জীবন ত্যাগ করে দেশের জন্য নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন তাদের মধ্যে মুনির সাহেব একজন। তাঁর প্রতি অন্তরের অন্তস্থল থেকে শ্রদ্ধা জানাচ্ছি। এরকম একজন গুণীলোককে নিয়ে পোস্ট দেওয়ার জন্য আপনাকেও ধন্যবাদ।

১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৮:৫৫

সোহানী বলেছেন: ভালো লাগছে যে উনাদের মতো কিছু মানুষের অনুকরনে আরো অনেক মানুষ এগিয়ে এসেছে। আপনার বইটির রিভিউ যদি ব্লগে দিতেন তাহলে আমরা আগ্রহীরা জানতে পারতাম।

এটি অস্বীকার করার উপায় নেই, এই মুষ্টিমেয় যে কিছু লোক অর্থ, খ্যাতি, বিদেশের উন্নত জীবন ত্যাগ করে দেশের জন্য নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন তাদের প্রতি পদে পদে শত বাধাঁ....। তারপর ও উনারা করে যাচ্ছেন। দেখুন এক জাফর স্যার, চাইলেই বিদেশে পাড়ি জমাতে পারতেন বা জাফর পল্লী বানিয়ে জীবন উপভোগ করতে পারতেন। কিন্তু উনি তা না করে দেশে আছেন, আর আমরা যত পারছি তাঁকে অপমান অপদস্থ করার চেস্টা করে যাচ্ছি।

অনেক ভালো থাকুন।

৩২| ১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:১৯

রাজীব নুর বলেছেন: লেখক বলেছেন: রাজীব ভাই, আপনাকে নিয়েও লিখবো এক সময় ………
দূর কি যে বলেন!! আমি তো ভাঙ্গা কূলার ছাই।

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৮:৩৫

সোহানী বলেছেন: আরে না, আপনি একজন চমৎকার মানুষ। আপনার চিন্তাধারা অনেক বাস্তবিক ও আধুনিক।

৩৩| ১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:৪৯

তারেক ফাহিম বলেছেন: গুনীজন সামু ব্লগে আছেন, জানা ছিল না।

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৯:২২

সোহানী বলেছেন: উনারাই সামুর পথিকৃত….। আমরা ফলোয়ার।

৩৪| ১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ১১:৩১

ফয়সাল রকি বলেছেন: উনার ব্লগের সাথে পরিচিত হতে পেরে ভালো লাগলো। আজ উনি একটা চমৎকার পোষ্ট করেছেন।

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৯:২৩

সোহানী বলেছেন: ইয়েস, আশা করি উনি নিয়মিত হবেন।

৩৫| ১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ১১:৫৮

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: সুন্দর। উনি একজন ব্লগার জেনে বেশি ভাল লাগলো ।

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৯:২৪

সোহানী বলেছেন: আরে সেলিম ভাই, আপনি জানতেন না???

৩৬| ১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১২:১৪

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
গুণীকে কদর করা উচিৎ।

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৯:২৪

সোহানী বলেছেন: সত্যিই তাই………..

৩৭| ১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১:৫৮

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: উনার সম্পর্কে জানতে পেরে ভালো লাগলো

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৯:২৫

সোহানী বলেছেন: ধন্যবাদ ছবি আপু।

৩৮| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ভোর ৪:৫৭

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন:




সামহোয়্যারইন ব্লগের ১৪ তম বর্ষপূর্তি উপলক্ষে সবাইকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন আমার এই পোষ্টে আপনাকে নিয়ে কি লিখেছি একটু পড়ে দেখবেন। ধন্যবাদ।

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৯:২৬

সোহানী বলেছেন: ঠাকুর ভাই, আপনি যে এতোটা পুরোনো ব্লগার তাইতো জানা ছিল না। খুব ভালো লাগে আপনাদের মতো কাউকে পেলে।

৩৯| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৯:৫৩

স্বপ্নের শঙ্খচিল বলেছেন: শ্রদ্ধেয় মুনির হাসান সর্ম্পকে তেমন কিছুই জানি না,
আপনার লেখা থেকে জানলাম।
........................................................................
শুভেচ্ছা থাকল উনার "গনিত, বিজ্ঞান ও আইসিটি" বিষয়ে
অবদানের জন্য ।

১৯ শে ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৩:৩৭

সোহানী বলেছেন: আমার লিখার স্বার্থকতা।

অনেক ভালো থাকেন। কিন্তু ছবি কই!!!!!!!!!!!!!! আপনার মন্তব্যতো ছবি ছাড়া বেমানান।

৪০| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৯:৫৩

স্বপ্নের শঙ্খচিল বলেছেন: শ্রদ্ধেয় মুনির হাসান সর্ম্পকে তেমন কিছুই জানি না,
আপনার লেখা থেকে জানলাম।
........................................................................
শুভেচ্ছা থাকল উনার "গনিত, বিজ্ঞান ও আইসিটি" বিষয়ে
অবদানের জন্য ।

১৯ শে ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৩:৩৯

সোহানী বলেছেন: আপনার প্রোফাইল পিকটা খুব মন খারাপ করে দেয়..............

৪১| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ১১:২২

মাহমুদুর রহমান সুজন বলেছেন: ওনার সম্পর্কে তেমন কিছুই জানতাম না। আপনি ওনাকে আমাদের সাথে পরিচয় করিয়ে দিয়ে অনেক ভাল করেছেন। আপনাকে ধন্যবাদ। এবং স্যারের প্রতি শ্রদ্ধা। কামনা ওনার আলোতে আরো আলোকিত হউক দেশ ও জাতি।

১৯ শে ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৩:৪১

সোহানী বলেছেন: সত্যিই আমি অবাক হয়েছি যে অনেকেই উনাকে চিনেন না। কিন্তু গণিত অলিম্পিয়াড নিয়ে উনি প্রথম থেকেই কাজ করছেন।

৪২| ১৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ২:৩৭

আকতার আর হোসাইন বলেছেন: প্রিয় ব্যক্তিকে নিয়ে খুব সুন্দর পোস্ট। এমন পোস্ট আরো চাই। আর ওনি সামুতে লিখতেন এটা জেনে গর্ব বোধ হচ্ছে আমার।


তো কেমন আপনে? বিজয়ের শুভেচ্ছা নিবেন।

আর হ্যাঁ, কয় জন্য প্রিয় ব্যক্তিকে লিখবেন? আর তাঁদের তালিকাটা কি প্রকাশ করা যাব?

১৯ শে ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৩:৪৪

সোহানী বলেছেন: আমি ভালো আছি আকতার ভাই। বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা আপনাকেও।

হাহাহা...... আমার প্রিয় তালিকার লিস্ট বিশাল ...। তবে ভাবছি একবার অপ্রিয়র তালিকার একজনকে নিয়ে লিখবো..।

৪৩| ১৯ শে ডিসেম্বর, ২০১৯ ভোর ৪:২০

ডঃ এম এ আলী বলেছেন:
নিভৃতচারী ও নির্লোভ এই গুণী মানুষটিকে নিয়ে
মুল্যবান পোষ্ট দেয়ার জন্য ধন্যবাদ । পোষ্টটি সরাসরি প্রিয়তে গেল ।

আমাদের দেশের ছেলেমেয়েদের সারাজীবন ধরেই বলে এসেছে গণিত হচ্ছে রসকষহীন কাঠখোট্টা একটা কঠীন বিষয়! এটা মুখস্থ করে ফেলতে হয় এবং পরীক্ষায় উগড়ে দিয়ে আসতে হয় ফল ভাল করতে হলে। গণিতের শিক্ষক যেভাবে শিখিয়ে এসেছেন, হুবহু সেভাবে পরীক্ষার খাতায় লিখে আসতে হবে; নিজের নিয়মে কিছু্ই করা যাবেনা । কেউ যদি নিজের নিয়মে করতে চায়, তার জন্য রয়েছে বড় বড় গোল্লা, পরীক্ষার ফল নিয়ে নাকের জল চোখের জল নিয়ে ছেলে মেয়েদের বাড়ী ফেরা ।
দেশের সব ছেলেমেয়েকে গণিতের আনন্দময় জগৎটি আমরা দেখাতে পারিনি, কিন্তু যারা গণিত অলিম্পিয়াডে অংশ নিতে পেরেছে তারা অন্তত এ রহস্যময় জগৎটির ভেতর কিছুটা হলেও উঁকি দিতে পেরেছে।

অনেকদিন ধরেই দেশের মানুষজন শুধু কথাবার্তা বলেছেন, আলোচনা করেছেন, শলা-পরামর্শ করেছেন, পরিকল্পনা করেছেন; কিন্তু কাজের কাজ কিছুই করতে পারিনি। মুনির হাসান এই সেই ব্যক্তি তিনি এসেই কাজ শুরু করে দিলেন । তিন ছেলেমেয়েদের নিয়ে একটা সত্যিকারের গণিত অলিম্পিয়াড করে ফেলেছিলেন । মুনির হাসান বাড়ি বাড়ি গিয়ে বাবা-মায়েদের বুঝিয়ে-সুঝিয়ে তাদের বাচ্চা-কাচ্চা ছেলেমেয়েদের ধার নিয়ে এলেন , বড় একটা হলঘরে বসিয়ে তাদের নিয়ে সত্যি সত্যি একটি ছোটখাটো গণিত অলিম্পিয়াড করে ফেললেন । অলিম্পিয়াড শেষে মুনির হাসান আবার বাচ্চাকাচ্চাদের তাদের বাড়িতে ফিরিয়ে দিয়ে এলেন। আমাদের দেশে গণিত অলিম্পিয়াড নামে বিশাল দজ্ঞযজ্ঞ শুরু হওয়ার পর আমাদের দুঃখ এখন অনেকটা কমেছে। গণিতে দক্ষতা বাড়ানো একটি জীবনব্যাপী প্রক্রিয়া। এই প্রক্রিয়ায় আমাদের শিক্ষার্থীদের যুক্ত করতে পারাটাই ছিল একটি চ্যালেঞ্জ , আর এই চ্যলাঞ্জ মোকাবেলা করেই এসেছে সফলতা , এখানেও অনেক কৃতির মধ্য অন্যতম বড় একটি সাফল্য হল মুনির হাসানের।

এই গুনী মানুষটির প্রতি রইল গভীর শ্রদ্ধাঞ্জলী।

২২ শে ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৮:২১

সোহানী বলেছেন: আলী ভাই, আপনার মন্তব্য আমার পুরো লিখাকে ছাড়িয়ে গেছে। ওই একটি মন্তব্যই উনাকে বিশ্লেষন করেছেন চমৎকারভাবে।

এ ধরনের মানুষগুলো না থাকলে দেশটাকে কোনভাবেই খুজেঁ পাওয়া যেতো না। গণিত নিয়ে ভীতি কি জিনিস তা আমি দেশের বাইরে এসে বাচ্চাদের দেখে হাড়ে হাড়ে বুঝেছি। আমার যেহেতু বাংলাদেশী শিক্ষা তাই আমার বাচ্চাদের এখানে আমার স্টাইলে অংক বিজ্ঞান শেখাই। বিশ্বাস করেন ওরা ক্লাসের বেস্ট। আমার ছেলে এখানে গণিত/রোবোটিক সব অলিম্পিয়াডে এগিয়ে। মেয়েকে সবাই ডাকে বিগ ব্রেইন বলে।

অনেক ভালো থাকেন।

৪৪| ১৯ শে ডিসেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:০৩

স্বপ্নের শঙ্খচিল বলেছেন: সোহানী@ অনেক ভালো থাকেন। কিন্তু ছবি কই !!!!!! আপনার মন্তব্যতো ছবি ছাড়া বেমানান।
সোহানী@ আপনার প্রোফাইল পিকটা খুব মন খারাপ করে দেয়..............

.................................................................................................................................
আমার ছবি দেবার মধ্যে ও একটা রহস্য থাকে, তবে ইদানিং মনটা ভালো নেই ,
ভারতের ধর্মীয়ও এনআরসি কর্মকান্ডে এবং দেশের রাজাকার এর অট্টহাসি দেখে ।
আমার প্রোপিকটা অনেক গুরুত্বপূর্ণ অর্থ বহন করে, "আমি অনেক কিছু বলতে চাই পারি না,
অনেকেই বুঝতে পারে না , তাই সবাইকে মিস করি !
আপনাকে ও !!!

.................................................................................................................

২২ শে ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৮:২৪

সোহানী বলেছেন: আসলে যেভাবে সারা বিশ্বে কালো থাবা বিস্তার ঘটছে তা সত্যি ভয়াবহ। প্রায় প্রতিটা দেশের দিকে তাকান, সবখানেই অপশক্তি ক্ষমতায়.........। আর ভারত মায়ানমার আমাদের চারপাশে হওয়াতে আমাদের উপর চাপটা সীমাহীন।

অনেক ভালো থাকুন মন খারাপ নিয়েও...........

৪৫| ৩০ শে ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৯:৫৮

আমি তুমি আমরা বলেছেন: কয়েকদিন আগে মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে মুনির হাসানের স্মৃতিচারণ পড়েছিলাম ব্লগে। ভাল লেগেছিল।

গণিত অলিম্পিয়াড আর ওপেন সোর্সের বাইরে উনার আরও একটি ভাল প্রজেক্ট হল এদেশে উদ্যোক্তা তৈরীর চেষ্টা। "চাকরি খুঁজব না চাকরি দেব" গ্রুপে উনার কার্যক্রম বেশ প্রশংসাযোগ্য।

৩০ শে ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:১৬

সোহানী বলেছেন: হাঁ, এটা লিখতে ভুলে গেছি। এটিই এখন উনার বড় প্রজক্টে।

৪৬| ১৮ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:০১

খায়রুল আহসান বলেছেন: একজন অসাধারণ গুণী ব্যক্তিকে, যিনি আমাদেরই মত এ ব্লগে ব্লগিং করেন, আমাদের সাথে পরিচয় করিয়ে দেয়ার জন্য অশেষ ধন্যবাদ।
উনি নিজে একজন আলোকিত মানুষ, অপরের মাঝেও আলো ছড়িয়ে যাচ্ছেন, বিশেষ করে শিশুদের মাঝে এবং নারী উদ্যোক্তাদের মাঝে। ছোটবেলায় যাদের গণিতের ভিত মজবুত হয়, তাদের জন্য বিজ্ঞানের অন্যান্য শাখা প্রশাখায় বিচরণ করা সহজ হয়। গণিত অলিম্পিয়াডের মাধ্যমে উনি শিশু কিশোরদেরকে গণিতের প্রতি আকৃষ্ট করে চলেছেন, তাদের মাঝ থেকে গণিত-ভীতি দূর করে চলেছেন। এটি একটি অনন্য অবদান। হাজার হাজার এসব শিশু কিশোরদের মাঝ থেকে যদি মাত্র দশজনও উচ্চমানের বিজ্ঞানী তৈরী হতে পারে, তবে সে কৃতিত্বের ভাগীদার উনিও হবেন, কেননা তাদের বিজ্ঞানমনস্কতার ভিত তিনিই তৈরী করে দিয়েছেন।
ওনাকে জানাই আন্তরিক শ্রদ্ধা, ওনার জন্য হার্দিক শুভকামনা!
আর ওনাকে নিয়ে লেখার জন্য আপনাকেও অনেক অনেক ধন্যবাদ। ১৪ নং মন্তব্যে জানা একটি চমৎকার মন্তব্য রেখে গেছেন, সেজন্য ওনাকেও ধন্যবাদ জানাচ্ছি। একজন গুণী মানুষকে উনি এবং আপনি যেভাবে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন, তা আমাদের জন্যেও অনুকরণীয়।
আহমেদ জী এস, জোবাইর, ডঃ এম এ আলী প্রমুখের মন্তব্যগুলোও ভাল লেগেছে। ওনাদেরকেও ধন্যবাদ, চমৎকার মন্তব্যের জন্য।

২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০২০ রাত ৯:৪০

সোহানী বলেছেন: ধন্যবাদ প্রিয় খায়রুল ভাই।

মুনির ভাইয়ের মতো এরকম অনেক গুনী মানুষ দেশের আনাচে কানাচে ছড়িয়ে আছে কিন্তু আমাদের দূর্ভাগ্য এমন মানুষগুলোকে ধারন করার সামর্থ্য আমরা রাখি বা রাখতে পারি না। তাই তারা অচিরেই হারিয়ে যায়। ক'জন পারে এরকম বৈরী পরিবেশে টিকে থাকতে........... খুব কম।

অনেক ভালো থাকুন।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.