নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সম্পদহীনদের জন্য শিক্ষাই সম্পদ

চাঁদগাজী

শিক্ষা, টেকনোলোজী, সামাজিক অর্থনীতি ও রাজনীতি জাতিকে এগিয়ে নেবে।

চাঁদগাজী › বিস্তারিত পোস্টঃ

পলাশী যুদ্ধের উপর আপনার রাজনৈতিক ধরণা কি?

২৩ শে জুন, ২০১৫ রাত ১০:৩৩

" ২৩শে জুন ১৭৫৭ সালে, স্বাধীন বাংলার সুর্য্য অস্ত গেলো", ধরণাটি কি সঠিক? না, ধরণাটি সঠিক নয়; সেদিন আসলে যুদ্ধ হয়েছিল নবাবী (রাজতন্ত্র) রক্ষা ও নবাবী দখলের জন্য; বাংলা স্বাধীন ছিলো না; সেখানে ২টি পক্ষ ও কয়েকটি কোয়ালিশন ছিল; নবাবের পক্ষে ছিল ফরাসী বণিকদের বাহিনী; অন্য পক্ষ ছিল মীর জাফর ও ঘষেটি বেগমের কোয়ালিশন, তাদের পক্ষে বড় শক্তি ছিল ইংরেজ বণিকদের কর্পোরেশন, "ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানী"। মীর জাফরের আরেক কোয়ালিশন ছিল নবাবের আরো কয়েকজন উপ-সেনাপিতর সাথে। নবাব সিরাজ জানতেন উনি যুদ্ধ করছিলেন ইংরেজদের বিপক্ষে, আর মীর জাফর উনার সেনাপতি; মীর জাফর জানতেন উনি নবাবী দখল করার জন্য যু্দ্ধ করছে, এবং ইংরেজেরা উনার মিত্র-বাহিনী।

নবাব সিরাজ উদ দৌলা পরাজিত হন, তিনি প্রাণ হারান মীর জাফরের লোকদের হাতে; ইংরেজদের হাতে ধরা পড়লে উনার প্রাণে বাঁচার সম্ভাবনা ছিল।

"ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানী"র নিজস্ব প্ল্যান ছিল; তারা প্ল্যান করছিলো ভারত দখল করার জন্য; পলাশীর বিজয় তাদেরকে ভারত দখলের সুযোগ করে দেয়।

পলাশীর যুদ্ধের পর, নবাবী মীর জাফরের হাতে যায়; রাজতন্ত্র নিজ পথে এগুতে থাকে; এতে বাংলার মানুষের জীবন আশাতীতভাবে বদলায়নি; রাজা বদলে, মানুষের জীবনের উপর তার প্রভাব বিরাট হয়, বা হয় না।

১৯৫৭ সালে বিশ্বে রাজতন্ত্র চলছিল পুরোপুরি; শুধুমাত্র ইংল্যান্ডে রাজতন্ত্র ও গণতন্ত্র মিলে মিশ্র সরকার ব্যবস্হা ছিল। বাংলার মানুষ নতুন নবাব (রাজা) পেয়েছিল। পরে, বাংলার নবাবী ইংরেজেরা নিয়ন্ত্রণ করে ও ক্রমে ভারতের বাকী রাজাদের রাজত্ব দখল করে নেয়; ট্যাক্সের বিনিময়ে তারা অনেক রাজাকে ক্ষমতায় ব হাল রাখে; অবশেষে, প্রায় ১০০ বছর পর, বৃটিশ সরকার ভারতকে নিজের কলোনী করে নেয়।

ভাগ্য ভালো যে, আজ ভারতের বাকী অংশ, বাংলার সেই পরাজয়ের জন্য বাংগালীদের তেমন দায়ী করে না।

মন্তব্য ২৭ টি রেটিং +১/-০

মন্তব্য (২৭) মন্তব্য লিখুন

১| ২৩ শে জুন, ২০১৫ রাত ১০:৫৪

শাশ্বত স্বপন বলেছেন: চাঁদগাজি ভাই, নির্বাচিতে পোস্টে আজ পলাশী দিবস পড়েন। আর আপনার লেখাটা আরো বড় করেন। বেশ ভালো বলেছেন, " ২৩শে জুন ১৭৫৭ সালে, স্বাধীন বাংলার সুর্য্য অস্ত গেলো", ধরণাটি কি সঠিক? না, ধরণাটি নয়; সেদিন আসলে যুদ্ধ হয়েছিল নবাবী (রাজতন্ত্র) রক্ষা ও নবাবী দখলের জন্য; সেখানে ২টি পক্ষ ও কয়েকটি কোয়ালিশন ছিল; নবাবের পক্ষে ছিল ফরাসী বণিকদের বাহিনী; অন্য পক্ষ ছিল মীর জাফর ও ঘষেটি বেগমের কোয়ালিশন, তাদের পক্ষে বড় শক্তি ছিল ইংরেজ বণিকদের কর্পোরেশন, "ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানী"। মীর জাফরের আরেক কোয়ালিশন ছিল নবাবের আরো কয়েকজন উপ-সেনাপতি। নবাব জানতেন উনি যুদ্ধ করছিলেন ইংরেজদের বিপক্ষে, মীর জাফর উনার সেনাপতি; মীর জাফর জানতেন উনি নবাবী দখল করবেন, ইংরেজেরা উনার মিত্র-বাহিনী।
নবাব সিরাজ উদ দৌলা পরাজিত হন, প্রাণ হারান মীর জাফরের লোকদের হাতে; ইংরেজদের হাতে দঃরা পড়লে উনি বাণনচার সম্ভাবনা ছিল। আলীবর্দী সরফরাজ খার কাছ থেকে কিভাবে ক্ষমতা নিয়েছিল। তার আগে মুরশীদ কুলি খানের কথা ভাবুন..,

২৩ শে জুন, ২০১৫ রাত ১১:০২

চাঁদগাজী বলেছেন:


পলাশী দিবস সম্পর্কে মোটামুটি ভুল ধরণা ছালু আছে বাংগালীদের মাঝে; বাংগালীদের ভাবনা, বাংলা তখন স্বাধীন দেশ ছিল; সিরাজ উনাদের সরকার প্রধান ছিলেন; এবং বৃটিশ সরকার বাংলা দখল করে কলোনী বানায়েছে।

আমি ছোট করে লিখেছি নিজের ধরণাটুকু জানাতে; আমি ইতিহাস ও ঘটনা প্রবাহ লিখতে চাই না।

২| ২৩ শে জুন, ২০১৫ রাত ১১:৫৪

কোলড বলেছেন: Not sure what are you getting at. Even though the fight was to preserve the "nawabi" but that was Bangla's own "Nawabi" and thus the expression of loss of independence is correct one.

Colonization of India by England was a gift of God but this is my personal opinion and opinion is like an ass, everyone has one!

২৪ শে জুন, ২০১৫ রাত ১২:২৩

চাঁদগাজী বলেছেন:


Bangla was not an democratic entity, nor it was independent at that time; the battle at Palashi was just like any other battles to grab a kingdom.
The east India Company had a grand plan to establish a kingdom in India; Mir Jafar, or his people did not understand it.
Mir Jafar betrayed the Nabab to have the kingdom, that’s all; whatever happened later was the natural flow of events in monarchy.
The British ultimately took over, and made it a colony like any other colony; so, people did not loose, or gain anything at that war.

৩| ২৪ শে জুন, ২০১৫ রাত ১২:৪০

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: সিরাজ উদ দৌলা অবাঙালি হলেও বাঙলাকে প্রাণ দিয়ে ভালোবাসতেন । তাঁর জন্ম এই ভুখন্ডেই । তাঁর পতন নিঃসন্দেহে বাঙালিদের ধ্বংস ঢেকে এনেছিল । ১৭৭০ এর দুর্ভিক্ষ কিংবা ১৯৪৩ এর দুর্ভিক্ষ যার প্রমাণ ।

২৪ শে জুন, ২০১৫ রাত ১:১২

চাঁদগাজী বলেছেন: সব রাজা, সব নবাব, সব জমিদার নিজের ভুমিকে ভালোবাসতেন; এজন্য ইতিহাসে অনেকের সুনাম আছে; তবে, রাজতন্ত্র মানেই রাজতন্ত্র, আগামীকাল কে কেড়ে নেবে কেহ জানতো না।

দুর্ভিক্ষ কেহ চাহে না; আগের দিনে কেহ দুর্ভিক্ষ ঠেকানোর জন্য কোন সঠিক প্ল্যান করতো না।
১৯৭৪ সালে এসেও বাংলাদেশ দুর্ভিক্ষ ঠেকাতে পারেনি।

৪| ২৪ শে জুন, ২০১৫ রাত ১:২৪

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: সব রাজা, নবাব, জমিদার ভূমিকে ভালোবাসতেন বৈকি, মানুষকে কি ভালোবাসতেন? বাংলার মানুষ তো জমিদারদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ ছিল । এ থেকে উদ্ধার করতে শের এ বাঙলা তো আইনই পাশ করলেন । পরে তো জমিদার প্রথা উঠিয়েই দেয়া হলো । দুর্ভিক্ষের কথা বলছেন? মুসলমানদের কয়েকজন শাসক তো চরম অত্যাচারি ছিলেন । কখনো কি তাদের সময়ে দুর্ভিক্ষ হয়েছে? সবচে বড় দুর্ভিক্ষ ইংরেজদের সময়ে হয়েছে । তখন বৃটিশরা কোন পদক্ষেপ নেয়নি । ৭৪ এর যুদ্ধবিদ্বস্ত দেশের ব্যাপার আলাদা ।

২৪ শে জুন, ২০১৫ রাত ২:৩৩

চাঁদগাজী বলেছেন:

লজিক্যালী আপনি ঠিকই আছেন।
ইংরেজরা অবশ্যই নিজের লাভটা দেখেছে মাত্র; তারা ভারতে বসতি করার কথা ভাবেনি; ফলে, তারা ভারতকে উন্নত করার চেস্টা করেনি।

আমি যে পয়েন্টা তুলে ধরার চেস্টা করেছি, সেটা হলো, রাজা বদলের সময় মানুষের হাত ছিলো না, ও ১৭৫৭ সালে মানুষ স্বাধীন ছিলো না, তারা স্বাধীনটা হারায়নি; ভালো রাজার স্হানে খারাপ রাজা এসেছিল।

৫| ২৪ শে জুন, ২০১৫ রাত ২:৩২

প্রবাসী পাঠক বলেছেন: বাংলা কি কখনো স্বাধীন ছিল? অন্তত আমি মনে করি না। এক সময় রাজা শাসন করেছে, তারপর কোম্পানি, তারপর ব্রিটিশ, পাকিস্তানি শাসন, এখন হচ্ছে শোষণ। শাসন কর্তা পরিবর্তন হয়েছে কিন্তু শোষিত পরিবর্তন হয় নি।

২৪ শে জুন, ২০১৫ রাত ৩:০১

চাঁদগাজী বলেছেন:

শোষণ করছে স্বাধীনতার অপব্যভার করে; আমরা এখন স্বাধীন; ফলে, আমরা শোষণকারীদের শাস্টি দেবো আইন ব্যভার করে; একজনও পালাতে পারবে না; অনেক তারেক বের হবে বাংলা থেকে; অনেক খালেদা জিয়া জেলে থাকবে আমরণ।

৬| ২৪ শে জুন, ২০১৫ সন্ধ্যা ৭:৪৪

শতদ্রু একটি নদী... বলেছেন: আপনার কি ধারনা সিরাজের সময় বাংলা পরাধীন ছিলো?

২৪ শে জুন, ২০১৫ রাত ৯:৫১

চাঁদগাজী বলেছেন:

রাজতন্ত্রে জাতি স্বাধীন থাকে না।

আসলে বাংলার সুবেদারেরা সুযোগ মতো দিল্লীকে খাজনা না দিয়ে নিজেদের স্হাধীন নবাব ঘোষনা করেছিল; উনারা নিজেই রাজা হয়েছিলেন।

৭| ২৪ শে জুন, ২০১৫ সন্ধ্যা ৭:৫০

আরণ্যক রাখাল বলেছেন: আমি মনে করি, নবাবের পতন জরুরী ছিল| না হলে এখনও হয়ত আমাদের টোলে পড়তে হত কিংবা মাদ্রাসায়| ব্রিটিসরা আমাদের চুষে খেলেও দিয়েছে নবাব কিংবা রাজাদের চেয়ে বেশি| আর নবাবরা তো সাধুসন্যাসী ছিল না

২৪ শে জুন, ২০১৫ রাত ৯:৫২

চাঁদগাজী বলেছেন:


বৃটিশ টেকনোলোজী দিয়ে গেছে; দাম নিয়েছে বেশী।

৮| ২৪ শে জুন, ২০১৫ রাত ৯:৫৩

চাঁদগাজী বলেছেন:


বৃটিশের সবচেয়ে বড় অবদান, গণতন্ত্র

৯| ২৪ শে জুন, ২০১৫ রাত ৯:৫৬

আরণ্যক রাখাল বলেছেন: নবাবরা তো দেয়নি কিছু শুধু নিয়েছে

২৪ শে জুন, ২০১৫ রাত ১১:৫০

চাঁদগাজী বলেছেন:


সামন্তবাদের ফসল হলো নবাবী, তখন শিক্ষা দীক্ষা ছিল বড় লোকদের জীবন যাপনের উপর; সাধারণ মানুষ বলতে কইছু ছিল না, ছিল প্রজা, মানে অনেকটা দাসের সমান।

১০| ২৫ শে জুন, ২০১৫ রাত ১:৫৩

চাঁদগাজী বলেছেন: ডেন মজিনা বলেছে, কিসিন্জারের মন্তব্য, "বাংলাদেশ তলাহীন ঝুড়ি", সঠিক নয়।

দেশ স্বাধীন হওয়ার কিছুদিন পরে, কিসিন্জারের মন্তব্য করেছিল, "বাংলাদেশ তলাহীন ঝুড়ি"; বাংগালীদের আত্মসন্মানে লেগেছিল কথাটি; কিসিন্জারের মন্তব্যের পর, আনুমানিক ৪২/৪৩ বছর কেটে গেছে, দেশের অবস্হা কইছুটা ভালো এখন; অনেকেই পোস্ট দেয় যে, "বাংলাদেশ তলাহীন ঝুড়ি" নয়; ব্লগারদের কথা বাদ দিলেও, ডেন মজিনা, শেখ হাসিনা ও জয় বলেছে যে, "বাংলাদেশ তলাহীন ঝুড়ি" নয়। খালেদা জিয়ার মতামত নেয়ার দরকার আছে? উনি শেখ হাসিনা যা বলেছে সেটার বিপরীত বলবেন!

ব্লগারেরা বলেন "বাংলাদেশ আর তলাহীন ঝুড়ি নয়", সেটা নিজের দেশকে ভালোবেসে বলেন; ডেন মজিনা বলেছেন, সৌজন্য রক্ষার্থে, শেখ হাসিনা ও জয় বলছে রাজনীতির কারণে, এবং দেশের ঝুড়ির তলা না থাকলেও মাথা ব্যথা নেই, উনাদের নিজস্ব ঝুড়ি আছে।

কিসিন্জার একটু দুস্ট প্রকৃতির লোক, কিছু উনার কাছে যেসব রিপোরট আসতো ও আসে, সেগুলোর আলোকে উনি মন্তব্যটা করেছিলেন; ফলে, ভুল যে বলেননি, এটা সঠিক।

ফালু, তারেক, জয়, ওবায়দুল কাদের, আমান, কামান, সালমান, ফারুক, শাহ আলমদের কাছে জানতে চাইলে তারা বলবে যে, ঝুড়িতে সোনার ডিম আছে, এবং ঝুড়ি বড় করার দরকার।

আমি বলবো, যে ৪০ লাখ কর্মী পোশাক তৈরি করে ২৩ বিলিয়ন ডলার আয় করেন, তাদের কাছে জানটে চাইলে, উনারা হয়তো বলবেন যে, এখন ঝুড়ির হাতলও নেই; ১ কোটী লোক বাইরে চলে গেছে; এদের ৪০ লাখ নিজ পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন; এঁদের কারণে ঝুড়িতে সোনার ডিম জমা হচ্ছে; তলা খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে; তবে, তাঁদের জীবনের তলা হারিয়ে যাচ্ছে; শতকরা ৪০ জন ভুমিহীন হয়ে গেছেন ঝুড়ির তলা বানাতে গিয়ে; কত জন সাগরে ভাসছে, কতজন আফ্রিকার জংগল পার হয়ে নৌকায় উঠার চেস্টা করছে কে জানে?


১১| ২৫ শে জুন, ২০১৫ সকাল ১১:২৩

গড়ল বলেছেন: সিরাজদৌল্লার ব্যাপারে সব জাগায় বলা আছে বাংলার স্বাধীন নবাব, কোথাও বলা নাই স্বাধীন বাংলার নবাব। মানে হচ্ছে নবাব স্বাধীন ছিলেন কারণ উনি দিল্লীর সম্রাটকে খাজনা দিতেন না। কিন্তু বাংলা বা বাংলার জনগন কি স্বাধীন ছিল? "আজ পলাশী দিবস" এ আমি এই মন্তব্য করাতে লেখক আমাকে লেখক বলেছেন যে সেই যুক্তিতে নাকি এখনও বাংলাদেশ স্বাধীন না কারণ হাসিনা ও খালেদাও বাইরে থেকে এসেছেন। যেহেতু এই ব্যাপারে আমার জ্ঞা নাই তাই আর তর্ক করি নাই। তবে আপনার লেখার সাথে সম্পূর্ণ সহমত। নবাবরাও বিদেশী দখলদার ছিল, তারা বাংলাকে ভালবাসত কারণ বাংলার ঐশ্বর্য্যপূর্ণ ছিল। অবশ্য এটা বললে নাকি মীরজাফর হয়ে যাব সেরকমই বলেছেন :আজ পলাশী দিবস" এর লেখক।

২৫ শে জুন, ২০১৫ রাত ৮:৫৫

চাঁদগাজী বলেছেন:

বাংলার শেষ নবাবেরা স্বাধীন হয়েছিল দিল্লীর মোগলদের থেকে।

তখন মানুষ প্রজাতন্ত্র নিয়ে মাথা ঘামানোর পর্যায়ে ছিলো না; জাতি স্বাধীন হয় প্রজাতন্ত্রে।

শেখ হাসিনা ও খালেদা জিয়া জাতির দুর্বলতাকে কাজে লাগিয়ে অপরাজনীতি করে ক্ষমতা দখল করতে সক্ষম হয়েছে।

১২| ২৫ শে জুন, ২০১৫ রাত ৯:২৬

শতদ্রু একটি নদী... বলেছেন: ওইটা আপনার ধারনা। রাজতন্ত্র কি জনগনের কাছে প্রিয় হইতে পারেনা?

তখন কি জনগন নিজেদের পরাধীন ভাবতো? নাকি ইংরেজরা আসার পর ভাবা শুরু করছিলো?

২৫ শে জুন, ২০১৫ রাত ১০:২৪

চাঁদগাজী বলেছেন:

ভারতে যখন বাহিরের যোদ্ধারা এসেছিল, সময়ের সাথে ভারত সবাইকে মেনে নিয়েছিল।

কিন্তু ইংরেজদের মানতে চায়নি, কারণ তারা এসেছিল বণিকের বেশে; আবার তারা শিক্ষায় ও টেকনোলোজীতে উপরে থাকায়, তাদের সাথে মানসিক সংঘর্ষ বাঁধে; সময়ের সাথে মানুষ বুঝতে পারে যে, ইংরেজেরা এখানে থাকবে না, সেটাও সমস্যা ছিল।

১৩| ২৭ শে জুন, ২০১৫ সকাল ৯:২৮

নরাধম বলেছেন: মশাই, কিসব বকে যাচ্ছেন। গণতন্ত্র না থাকলে মানুষ পরাধীন? তাহলে বাংলাদেশে কি আমরা এখন পরাধীন যেহেতু গণতন্ত্র নাই? গণতন্ত্র মাত্র ৫০-৬০ বছর হল ইন-ফ্যাশানে এসেছে, আদ্যিকালে দার্শনিকরা তো গণতণ্ত্রের বিরোধিতা করত।

আর সিরাজদ্দৌল্লাকে ইংরেজ শোষকদের কাতারে ফেলে দিলেন, ইতিহাস কিছু পড়ে তারপর না হয় লিখতে বসেন। হঠাৎ কিছু একটা মনে হল বলে ইউরেকা বলে ব্লগ নামিয়ে দিলে আর্কমিডিস হয়ে যায়না কেউ। ইংরেজ শাসন শুরু হওয়ার পর প্রতি দশকে একটা করে দুর্ভিক্ষ হত বাংলায়, এবং এই দুর্ভিক্ষ প্রত্যক্ষভাবে ইংরেজদের অতি-ট্যাক্সেশানের জন্যই হত। দুর্ভিক্ষের সময়ও ইংরেজরা ট্যাক্স মাফ করতনা। বিপরীতে সিরাজদ্দৌলা এবং তার পূর্বের শাসকরা দুর্ভিক্ষের সময় ট্যাক্স তো মাফ করতই, যাতে সেসময়ে মানুষ মারা না যায় সেজন্য আগে থেকে গুদামকৃত খাবার জনগনের কাছে সরবরাহ করত। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে সময় ইংরেজরা এদেশ থেকে সবডাকাতি করে নিয়ে গিয়েছিল বলে তেতাল্লিশ সালের সেই ভয়ংকর দুর্ভিক্ষ হয়।

এটা যাস্ট এটা তথ্য দিলাম মাত্র। যাচাই বাচাই করে লিখতে চেষ্টা করেন, তাহলে স্বীকৃত ইতিহাসকে অস্বীকার করে চমকদার পোস্ট দেওয়ার প্রয়োজন পড়বেনা।

২৮ শে জুন, ২০১৫ রাত ২:৩৩

চাঁদগাজী বলেছেন:
আমি নবাবকে সহানুভুতির চোখে দেখি; আমি বলছি যে, অনেক মানুষ ইতিসকে ভুলভাবে গ্রহন করেেন, তারা ভাবেন যে, বাংলাদের স্বাধীনতা হারিয়ে গেছে পলাশীতে।

পলাশীতে বাংলার নবাবকে পরাজিত করেছে খারাপ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানী; জাতি স্বাধীন হয় প্রজাতন্ত্রে।

১৪| ২৯ শে জুলাই, ২০১৫ ভোর ৪:০৮

নরাধম বলেছেন: ......"জাতি স্বাধীন হয় প্রজাতন্ত্রে।"

এইটা কোথায় পাইছেন? প্রজাতন্ত্র রাজনৈতিক একটা জনগোষ্ঠীর নিজেদের সংগঠিত এবং শাসনব্যবস্থা কায়েমের উপায় মাত্র, অনেকগুলো উপায়ের একটি। এটা যে অন্য উপায়সমূহ থেকে ভালতর, সেটারও কোন প্রমাণ নাই। স্বাধীনতার সাথে প্রজাতন্ত্রের কোন সম্পর্ক নাই। এগুলা একদম বেসিক ধারণা, সেসব বিষয় না জানলে লেখাপড়া করে তারপর জানেন। না জেনে আন্দাজে লিখাটা ভাল কিছু না। কোন জনগোষ্ঠী চাইলে অন্য কোন জনগোষ্ঠী থেকে স্বাধীন হয়ে রাজতন্ত্রের মাধ্যমে নিজেদের শাসনের সিস্টেম রাখতে পারে বা তারা প্রজাতন্ত্রও কায়েম করতে পারে। সার্বভৌম জনগোষ্ঠী যেই উপায়েই শাসিত হোক, তাদেরকে স্বাধীন ধরা হয়। এমেরিকা এখন হঠাৎ যদি মনে করে যে তারা রাজতন্ত্রে ফিরে যাবে, তাহলে তারা পরাধীন হয়ে যাবে না, তখনও স্বাধীন থাকবে।

২৯ শে জুলাই, ২০১৫ ভোর ৫:৩৪

চাঁদগাজী বলেছেন:

আমেরিকা যদি ভাবে রাজতন্ত্রে যেতে সেটা হবে পরাধীনতার শুরু; যেদিন যাবে, সেইদিন থেকে পরাধীনতা পোক্ত হবে।

যাক, মানব সভ্যতা মোটামুটি পেছেন যেতে পারবে না এ অবস্হায়, আপনি পেছেন আছেন, আপনাকেও সামনে আসতে হবে।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.