নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সম্পদহীনদের জন্য শিক্ষাই সম্পদ

চাঁদগাজী

শিক্ষা, টেকনোলোজী, সামাজিক অর্থনীতি ও রাজনীতি জাতিকে এগিয়ে নেবে।

চাঁদগাজী › বিস্তারিত পোস্টঃ

মেয়েদের কি ইমাম, মুয়াজ্জিন, ধর্ম-প্রচারক হওয়ার দরকার আছে?

১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ৯:১৮



বাংগালী মুসলমানদের মাঝে কি মেয়ে ইমাম ও মুয়াজ্জিনের দরকার আছে, নাকি মেয়েরা ইসলামের দাওয়াত দেয়ার দরকার আছে? দরকার থাকলে ভালো, গার্মেন্টস কর্মী বা প্রাইমারী স্কুলের শিক্ষক হওয়ার ছেয়ে ভালো হবে; কমপক্ষে মৃত্যুর পর কিছু একটা উত্তম প্রতিদান পেতে পারে, খারাপ নয়। আর যদি মহিলা ইমাম বা মুয়াজ্জিনের দরকার না থাকে, তা'হলে মেয়েদেরকে মাদ্রাসায় কেন দেয়া হচ্ছে? হুজুরেরা মেয়েদের নিয়ে মহা সমস্যায় থাকে; উনাদের উপর মনে হয় দায়িত্ব থাকে মেয়েগুলোকে ভালো মা করে দেয়ার! স্কুলে যে অঘটন ঘটে না, তা সত্য নয়; তবু স্কুলের মাষ্টারেরা হয়তো কবিতা টবিতা পড়ে শোনায়, ভালোবাসার কথা টথা বলে হয়তো; হুজুরেরা ওসবের ধার ধারে না মনে হয়, উনারা সরাসরি এ্যকশনে চলে যায়!

মেয়েরা মা'দের কাছে হুজুরদের নামে খালি নালিশ করে; আমি আমার সমবয়স্ক মেয়েদের মাঝে হুজুরভীতি দেখেছি সব সময়, মেয়েরা স্কুলের শিক্ষদের বিপক্ষে নালিশ করতে কখনো শুনিনি। আমাদের স্কুলে, ছেলেমেয়েরা একসাথে পড়তাম; কোনদিন কোন অসুবিধা হয়নি; সবার সাথে সবার ভালো সম্পর্ক। নবম শ্রেণীতে মাদ্রাসা পাশকরা ৭ জন হুজুর এসে ভর্তি হলো; মেয়েরা এদের সাথে কোনদিনও মিশতো না, কথা বলতো না; এই হুজুরগুলোর বয়স বেশী ছিলো; উনারা চোখে সুরমা ও গায়ে আতর দিয়ে ক্লাশে আসতেন; মেয়েরা ওদের কাছ দিয়েও হাঁটতো না।

মাদ্রাসার মেয়েদের কি অবস্হা কথা বলতে পারবো না; আমাদের সময়, কেহ কোনদিন ভাবেনি যে, মেয়েদেরকে মাদ্রাসায় পড়তে হবে। মেয়েরা মা, বোন, দাদীর কাছে ধর্ম শিখে; গরীবের মেয়েরা মক্তবে যায়, নামাজের সুরা শিখে এতটুকু ছিলো আমাদের সময় ধর্ম। এখন তাদেরকে কেন আরবী ভাষায় দুনিয়ার কেতাব ইত্যাদি পড়তে হবে কে জানে!

মাদ্রাসা আগে চালাতেন হুজুরেরা গ্রামে গ্রামে চাঁদা তুলে; এখন উনারা টাকা পায় সৌদী আরব ও ইরান থেকে; এরা যাকে পায়, তাকে মাদ্রাসায় নিয়ে যায়। মাদ্রাসায় কোন নিয়ম কানুনের বালাই কখনো ছিলো না; ওখানে কি পড়ায়, কি হয় কেহ জানে না; মেয়েদের মায়েরাও জানে না। আমাদের ইমামের অভাব নেই, মুয়াজ্জিনের অভাব নেই; অকারণে, মাদ্রাসার মতো যায়গায় আমাদের মেয়েগুলোকে পাঠিয়ে দিয়ে পরিবারগুলো অকারণ সমস্যার সৃষ্টি করছে, মনে হয়।

মন্তব্য ৫৬ টি রেটিং +৩/-০

মন্তব্য (৫৬) মন্তব্য লিখুন

১| ১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ৯:৩৪

নাসির ইয়ামান বলেছেন: মেয়েরা যাই শিখুক,নারীদের কাছ থেকেই শিখতে হবে।পুরুষ শিক্ষকের নাগালে যাওয়া যাবে না। শিখলেও যথেষ্ট দূরত্ব ও অন্তরায় থাকা প্রয়োজন!সহশিক্ষার তো প্রশ্নই আসে না!
একই কথা মহিলা রোগীদের চিকিৎসা-ক্ষেত্রে,পুরুষ ডাক্তার দ্বারা চিকিৎসা করা উচিৎ নয়!

১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ৯:৫০

চাঁদগাজী বলেছেন:


আপনি কোন খামারের ছাগল?

২| ১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ৯:৩৮

হাবিব স্যার বলেছেন: মেয়ে ধর্ম প্রচারক হওয়ার দরকার আছে।

১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ৯:৪৯

চাঁদগাজী বলেছেন:


আপনার কথায় বুদ্ধিমত্তার আভাসও নেই।

৩| ১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ১০:১৩

বাংলার মেলা বলেছেন: কাটখোট্টা হুজুরদের দিয়ে কেবল মেয়ে নয়, ছেলেদেরও অনেক অভিযোগ আছে। হুজুর জাতির স্বভাবই হচ্ছে বেত নিয়ে খবরদারি করা - যা আজকালকার যুগে একেবারেই বেমানান।

তবে এটা ঠিক যে দ্বীনি শিক্ষা করা পুরুষ ও নারী উভয়ের জন্যই ফরজ। দ্বীনি শিক্ষা কেবল ইমাম বা মুয়াজ্জিন হবার জন্য দেয়া হয়না। এটা দেয়া হয় পরকালের জন্য নিজেকে প্রস্তুত করা এবং ইহজীবনে নিজেকে আল্লাহর পছন্দ অনুযায়ী বান্দা হিসেবে গড়ে তোলার জন্য। এটি ক্যারিয়ারেরদিকে ততটা ফোকাস করেনা, তাই মেয়েদের জন্যই দ্বীনি শিক্ষা বেশি জরুরী।

১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৪:৩৫

চাঁদগাজী বলেছেন:


গরীবেরা আসলে কোন শিক্ষাই পায় না; যারা শিক্ষা পায় না, তাদের জীবনাটাই কষ্টকর। মেয়েরা পরিবার ও মক্তবে দ্বীনি শিক্ষা পায়। তাদেরকে ব্লগার বিদ্রোহী ভৃগুর মত শবে-মেহরাজ নিয়ে বক্তৃতা দেয়ার মতো মৌলানা করার কি দরকার?

৪| ১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ১০:৩৫

তারেক ফাহিম বলেছেন: দ্বিনি এলেম শিক্ষা করা প্রত্যেক নর-নারির উপর ফরজ করে দিয়েছেন।

মেয়েদের দ্বিনী শিক্ষার দরকার আছে।

১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৪:৩৭

চাঁদগাজী বলেছেন:


দ্বীনি শিক্ষা স্কুল, মক্তব সব যায়গায় দিচ্ছে। মাদ্রাসারটা হলো দ্বীনে কেরিয়ার গড়ার জন্য; মেয়েদের দ্বীনে কেরিয়ার গড়ার কোন কারন থাকতে পারে না; তাদের জন্য শিক্ষক, ডাক্তার ও অনান্য প্রফেশান আছে।

৫| ১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ১০:৩৮

নাসির ইয়ামান বলেছেন: চাঁদগাজীর আত্মাহমিকা চরমে পৌঁছে গেছে!

১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৪:৫০

চাঁদগাজী বলেছেন:


আপনার মতো লোকদের কারণে আমাদের মেয়েরা আরবে কাজ করে ও হজ্ব করে সারা বছর।

৬| ১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ১১:৪০

ঢাবিয়ান বলেছেন: বাংলার মেলা, আপনি বলেছেন যে মেয়েদের জন্যই দ্বীনি শিক্ষা বেশি জরুরী।কেন জরুরী একটু ব্যখ্যা করেন? কেন মেয়েদের ক্যরিয়ার গরার প্রয়োজন নাই?

১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৪:৩৯

চাঁদগাজী বলেছেন:


মাদ্রাসার পড়া দ্বীনের জন্য নয়, উহা দ্বীনের মাঝে কেরিয়ার গঠন মাত্র।

৭| ১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ১১:৪৬

জুন বলেছেন: খুবই মর্মান্তিক খুবই বেদনাদায়ক প্রতিটি অপমৃত্যু। এর একটা বিহিত হওয়া দরকার। দরকার দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি। তেমন শাস্তি নেই দেখে এর শেষ নেই আমাদের দেশে।

১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৪:৪১

চাঁদগাজী বলেছেন:


সরকারের কারণে শুধু দরিদ্রদের মেয়েরা মাদ্রাসায় যাচ্ছে! অবস্হাপন্ন ঘরের মেয়েরা মাদ্রাসায় যায় না; শেখ হাসিনার বিচার হওয়ার দরকার প্রথমেই।

৮| ১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১২:৩৬

বাংলার মেলা বলেছেন: ঢাবিয়ান, আপনি কি চান যে আপনার সন্তান একটা দ্বীনি পরিবেশে আদর্শ সন্তান হিসেবে বেড়ে উঠুক? তাহলে আপনার লাইফস্টাইল তার উপরে খুব একটা প্রভাব ফেলবে না। দিনের ১২ ঘন্টাই আপনি কর্মক্ষেত্রে কাটান। সেক্ষেত্রে আপনার সন্তানের আদর্শ হচ্ছে তাদের মা। তাদের মাকে নামাজ পড়তে দেখলে তারা নামাজ পড়তে চাইবে, কোরআন পড়তে দেখলে তারাও কোরআন শিখতে চাইবে, পর্দা করতে দেখলে তারাও পর্দা করতে/ নারীকে সম্ভ্রম করতে শিখবে। আপনার বাড়িতে আদর্শ দ্বীনি পরিবেশ তৈরি করতে আপনার ভূমিকা যদি হয় ১০%, আপনার স্ত্রী বা মায়ের ভূমিকা হবে ৮০%। এ কারণেই মেয়েদের জন্য দ্বীনি শিক্ষা বেশি জরুরী।

মেয়েদের ক্যারিয়ার গঠনের চেষ্টা অবশ্যই করা উচিত। আল্লাহ যেহেতু আতদেরকেও হাত-পা ও মস্তিষ্ক দিয়েছেন, ইনকাম সোর্স তাদেরও খোঁজা উচিত, তবে অবশ্যই লক্ষ্য করতে হবে সেটা যেন স্বতস্ফুর্ত হয়। ক্যারিয়ার গঠনের ব্যাপারটা মেয়েদের উপর চাপিয়ে দেওয়া কোন অবস্থায়ই সমর্থন যোগ্য নয়। কোন মেয়ে যদি বাচ্চা কাচ্চা পালাতেই, রান্নাবান্না বা গ্রিহাস্থলী কাজে বেশি আগ্রহী হয়, তাকে তাই করতে দেয়া উচিত, তার কামাই করার যত যোগ্যতাই থাকুক না কেন। সিমিলারলি, কেউ যদি ক্যারিয়ার গড়তে আগ্রহী হয়, তাকে সেরকম সুযোগ তৈরি করে দেয়ার দায়িত্বও স্বামী বা অন্য কোন রেসপনসিবল পুরুষ সদস্যের নেয়া উচিত।

১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৪:৪৪

চাঁদগাজী বলেছেন:


মাদ্রাসা দশুধু দ্বীনের শিক্ষা নয়, উহা দ্বীনের ভেতরে কেরিয়ার গড়া; মেয়েদের জন্য উহার দরকার নেই। মেয়েরা মা-বাবা ও মক্তবে ও বাসায় হুজুরদের কাছে নামাজ কলেমা শিখে; মেয়েরা শরিয়া আইন প্রনয়ন করার কি দরকার?

৯| ১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১:০৩

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: মাদ্রাসা শুধু ইমাম, মুয়াজ্জিন, ধর্ম প্রচারক তৈরি করে না। বাংলা, ইংরেজি মাধ্যমের মত এটা আরেকটি মাধ্যম মাত্র। মাদ্রাসা থেকে পড়ে যে কেউ আলীম পাস করে মূলধারার বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে পারে যে কোন বিষয়ে...

১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৪:৪৫

চাঁদগাজী বলেছেন:


একটা মেয়ে আলীম পাশ করে ইংরেজীতে আবার এম এ পাশ করবে? আপনারা মেয়েদেরকে "সুপার ওম্যান" পেয়েছেন নাকি?

১০| ১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১:৩৪

মোগল সম্রাট বলেছেন: প্রতিষ্ঠানে গিয়ে শিক্ষা নিয়ে মানুষ সভ্য হয়েছে এমন নজির আমাদের দেশে অন্তত দেখতে পাওয়া যায় না। আমাদের দেশের সকল সেক্টরের / প্রশাসরনর প্রত্যেকটা স্তরে যারা আছেন আমলা, কামলা কিংবা সচিবালয় থেকে পতিতালয় পরযন্ত (!) তারা কোন প্রতিষ্ঠান থেকে শিক্ষা নিয়েছেন তার পরিসংখ্যান দেখেন। নিশচই সেখানে মাদ্রাসার শিক্ষার্থী অনেক কম। সুতরাং মাদ্রাসা কিংবা স্কুল কলেজের ঢালাও ভাবে দোষ দিয়ে কি লাভ? আামার নীতি-নৈতিকতা অতন্ত্য নিম্ন স্তরে পৌছেছে অনেক আগেই। এগুলো একদিনে হয়নি ।
শুরুতেই চাঁদগাজীর মতো বিদগ্ধ(!) কিছু লোকের ইনিশিয়েটিভ নেয়ার দরকার ছিলো। কিন্তু এধরনের লোকেরা বহু আগিই বিদেশে পালিয়ে গিয়ে শ্রমিক মৌমাছি হয়েছে অনেক আগে।

তাই জাতির কপালে দিন দিন এমন ঘটনার পুনরাবৃত্তি হতেই থাকবে।

১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৪:৪৮

চাঁদগাজী বলেছেন:



স্বাধীনতাটাকে শেখ সাহেব ও তাজুদ্দিন সাহেব এমনভাবে দখল করেছিলো যে, আমাদের মতো লোকদের জন্য কিছু বাকী ছিলো না। আজকে বসুন্ধরা, সালমান রহমান, ফালুরা এমনভাবে দখল করেছে যে, ১ কোটী ১০ লাখ বিদেশে চাকুরী করে, লাখ খানেক মেয়েকেও আরব যেতে হয়েছে

১১| ১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১:৪৭

শাহাদাত নিরব বলেছেন: মাদ্রাসা শিক্ষা হোক আর স্কুল শিক্ষা বিকৃত মস্তিষ্কের মানুষ এসব অপকর্ম করেই যাচ্ছে
(পরিমল কিন্তু মাদ্রাসার কাছে দ্বারেও যায়নি)
এর জন্য প্রয়োজন উপযুক্ত বিচার/শাস্তি।

১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৪:৫১

চাঁদগাজী বলেছেন:



স্কুল কলেজে গন্ডগোল হচ্ছে; তবে, মাদ্রায় গরীবের ছেলেমেয়েরা যাওয়ায়, তারা সহজ শিকারে পরিণত হচ্ছে।

১২| ১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৩:০৪

রাজীব নুর বলেছেন: আমাদের দেশে আইন আছে কিন্তু আইনের প্রয়োগ নেই। তাই এই সমস্যা।

১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৪:৫২

চাঁদগাজী বলেছেন:



৩য় বিশ্বে গরীবের জন্য আইন থাকে না ।

১৩| ১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৩:০৫

রাজীব নুর বলেছেন: মোগল সম্রাট বলেছেন: চাঁদগাজীর মতো বিদগ্ধ(!) কিছু লোকের ইনিশিয়েটিভ নেয়ার দরকার ছিলো। কিন্তু এধরনের লোকেরা বহু আগিই বিদেশে পালিয়ে গিয়ে শ্রমিক মৌমাছি হয়েছে অনেক আগে।

তাই জাতির কপালে দিন দিন এমন ঘটনার পুনরাবৃত্তি হতেই থাকবে।

সহমত।

১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৪:৫৩

চাঁদগাজী বলেছেন:



আমাদেরকে ফেল করায়ে দিয়েছেন শেখ সাহেব ও তাজুদ্দিন সাহেব।

১৪| ১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৩:১৭

আখেনাটেন বলেছেন: দেশে দুই ধরণের মাদ্রাসা শিক্ষা রয়েছে মনে হয়। এর মধ্যে আলিয়া মাদ্রাসাগুলো এখন যথেষ্ট সংস্কার করা হয়েছে। প্রায় জেনারেল শিক্ষার মতোই এদের কার্যক্রম আমি যতটুকু জানি। শুধু অতিরিক্ত হিসেবে আরবী পড়তে হয়।

আর কওমী মাদ্রাসাগুলো একেবারে সেকেলে। এগুলো আধুনিক শিক্ষার ছিঁটেফোটাও নেই। সমাজে টুপি-দাঁড়িসমৃদ্ধ একটি পরকালের ফায়দা লাভ শ্রেণি তৈরির জায়গা এগুলো।

তবে মনে রাখতে হবে এই কওমী মাদ্রাসাগুলোতে পড়ে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই হতদরিদ্র ঘরের সন্তানেরা। এবং অনেকাংশেই থাকা-খাওয়া ফ্রি। এগুলোই দরিদ্র পিতা-মাতাকে উৎসাহিত করে এইসব মাদ্রাসাতে তাদের পাঠাতে। অথচ এদের শিক্ষার ব্যবস্থা সরকারের করার কথা ছিল। তাই ঢালাওভাবে এদের দোষ দেওয়াটাও যায় না।

দেশের নানামুখি শিক্ষাব্যবস্থার সংস্কার ছাড়া কোনো উপায় নেই।

১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৪:৫৫

চাঁদগাজী বলেছেন:



মেয়েদের পড়ানোর দরকার শেখ হাসিনার; উনি করছেন না, তাই মোল্লারা পড়াচ্ছে ও সুযোগ পেলে গরীবের মেয়েগুলোকে জিং জিং করছে।

মাদ্রাসা থেকে পিএইচডি দিলেও, মেয়েদের উহার দরকার নেই!

১৫| ১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৫:১৯

ঢাবিয়ান বলেছেন: থাকা খাওয়া ফ্রি করে পঙ্গ্পালের মত তৈরী করা হচ্ছে হুজুর যাদের কোন ভবিষ্যত নাই। কয়টা ইমাম বা মুয়াজ্জিনের চাকুরি আছে দেশে? কাদের পৃষ্ঠপোষকোতায় হচ্ছে এসব?

১২ ই এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৩:৫৬

চাঁদগাজী বলেছেন:


গরীবের বাচ্চাদের বেহেশতে চালান দেয়ার সরকারী প্রচেষ্টা

১৬| ১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:১৪

অনুভব সাহা বলেছেন:

অন্তর যখন বিষাক্ত, চোখে যখন বিদ্বেষের কালো চশমা, সত্য আবিষ্কার তখন অসম্ভব

১২ ই এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৩:৫৫

চাঁদগাজী বলেছেন:


সত্য কাকে বলে?

১৭| ১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৫০

অনেক কথা বলতে চাই বলেছেন: কিছু বাংলাদেশি হুজুর দেখি ভালো English বলে। এটি কি করে সম্ভব? Physics নিয়েও কথা বলে। আলিয়া মাদ্রাসা?

১২ ই এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৩:৫৮

চাঁদগাজী বলেছেন:


দরিদ্র পরিবারের কিছু উৎসাহী ও পড়ুয়া ছেলেমেয়েকেও মাদ্রাসায় ডাম্পিং করা হয়; ওদের থেকে হাজারে ১০/২০ জন নিজের চেষ্টায় কিছু শেখে।

১৮| ১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৮:৩৯

ঢাকার লোক বলেছেন: মেয়েদের জন্য সঠিক দ্বীনি শিক্ষার দরকার নেই মনে করা ভুল । কিছুদিন আগেও আমাদের এমনি ধারণা ছিল, ফলে ঘরে মা দাদির কাছ থেকে বা স্বল্প বা অশিক্ষিত মাওলানাদের লেখা মকসুদুল মুমিনীন, বিভিন্ন আজিফার কিতাব, ফাজায়েলে আমল বা এ জাতীয় ভুলে ভরা বই থেকে ধর্মীয় শিক্ষা নিয়ে আমাদের মা বোনেরা অনেকেই ইসলামের সঠিক নিয়ম কানুন না জেনে তাদের নামাজ রোজা ইত্যাদি করে জীবন পার করে গেছেন বা যাচ্ছেন । মাদ্রাসায় ভালো আলেমের কাছে ধর্মীয় শিক্ষা নেয়ার কোনো বিকল্প নেই, যা দরকার সে হলো মাদ্রাসাগুলোকে সেইমতো তৈয়ার করা, উপযুক্ত শিক্ষক, তত্বাবধায়ক নিয়োগ করে পরিবেশ নিরাপদ করা । মেয়েদের মাদ্রাসায় যাওয়া বন্ধ করে দেয়া কোনো সমাধান হতে পারে না , শুধু মেয়েদের জন্য সতন্ত্র মাদ্রাসা করা বরং জরুরি । সর্বপোরি দরকার সমাজে, দেশে, যে কোনো অবিচার অনাচারের যথাযোগ্য বিচার ও শাস্তি নিশ্চিত করা ।

১২ ই এপ্রিল, ২০১৯ ভোর ৪:০১

চাঁদগাজী বলেছেন:


আপনি নিজের পেটে একটা শিশু ধারণ করার ক্ষমতা পেলে, আপনার অবদান নবীদের চেয়েও বেশী হয়ে যাবে; এখন আপনার ভাবনাশক্তি কাজ করছে না।

১৯| ১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৯:০২

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন:
সোয়া লাখ নবীর মাঝে কোন মহিলা নবী নেই। মহিলাদের কেন অবহেলা বুঝতে পারি না। তারা জুম্মার নামাজ পড়ার অনুমিতও পায় না। অথছ জুম্মার নামাজ গরীবদের জন্য হজ্জের সমতুল্য।

১২ ই এপ্রিল, ২০১৯ ভোর ৪:০১

চাঁদগাজী বলেছেন:



নারীদেরকে নবীদের চেয়ে বেশী দায়িত্ব দিয়েছে প্রকৃতি

২০| ১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৯:০৫

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন:
ঢাবিয়ান বলেছেন: থাকা খাওয়া ফ্রি করে পঙ্গ্পালের মত তৈরী করা হচ্ছে হুজুর যাদের কোন ভবিষ্যত নাই। কয়টা ইমাম বা মুয়াজ্জিনের চাকুরি আছে দেশে? কাদের পৃষ্ঠপোষকোতায় হচ্ছে এসব?

ইমাম মুয়াজ্জিন কোন বেতনভোগী পেশা কিনা এটা নিয়ে আলোচনার অবকাশ আছে। এই পেশার আদৌ গ্রহণযোগ্যতা আছে কিনা সেটাও বিবেচনার দাবি রাখে।

১২ ই এপ্রিল, ২০১৯ ভোর ৪:০৩

চাঁদগাজী বলেছেন:


মাদ্রাসা বেহেশতে যাবার স্টেশন নয়, উহা ধর্মীয় প্রফেশানেল উৎপাদন কেন্দ্র মাত্র।

২১| ১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৯:২০

নূর আলম হিরণ বলেছেন: শেখ সাহেব বলেছিলেন আমাদের সন্তানদের কারিগরি শিক্ষার দরকার। এসব কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ইংরেজরা করেছে আমাদের কেরনী বানানোর জন্য। মাও সে তুং ক্ষমতায় এসে স্কুল কলেজে তালা মেরে শুধুমাত্র একমুখী কারিগরি শিক্ষা চালু করেছিল।

১২ ই এপ্রিল, ২০১৯ ভোর ৪:০৪

চাঁদগাজী বলেছেন:



শেখ সাহেব ইংরেজদের মতো ও পাকীদের মতো বলেছেন; কিছু করেননি; উনি আসলে বড় ধরণের বকবক ছিলেন।

২২| ১১ ই এপ্রিল, ২০১৯ রাত ১১:০২

নীলপরি বলেছেন: দুঃখজনক ঘটনা ।এখন ন্যয়বিচারই ভরসা ।

১২ ই এপ্রিল, ২০১৯ ভোর ৪:০৫

চাঁদগাজী বলেছেন:


গরীবের মেয়েরা অন্যদের খেলার পুতুল

২৩| ১২ ই এপ্রিল, ২০১৯ রাত ১২:৩৫

গোলাম রাব্বি রকি বলেছেন: মেয়েদের ধর্মীয় শিক্ষার অবশ্যই প্রয়োজন আছে । বরং ছেলেদের চেয়ে তাদেরই বেশি প্রয়োজন বলেই আমি মনে করি । কেন বেশি প্রয়োজন মেয়েদের ? আমাদের সমাজে মেয়েরাই সচরাচর সন্তান লালনপালনের দায়িত্ব বেশি পালন করে । তাই মা যদি চরিত্রবান তথা ধার্মিক হয় তবে তার সন্তানকে সে সুন্দর শিক্ষাই দিবে বলে আমি বিশ্বাস করি । এতে সন্তানেরও চরিত্রবান হওয়ার সম্ভাবনা বেশি হবে বলেই আমার মনে হয়। আর মা যদি ধার্মিক না হয় তবে তার সন্তানের সে শিক্ষা পাওয়ার দ্বার একরকম রুদ্ধই বলা যায় কারণ জাতির সবাই তো মাদ্রাসায় পড়বেনা। নুসরাত এবং আরও দুই একটি সাময়িক ঘটনাকে হাইলাইট করে আপনারা যে ধরনের প্রচারণা করছেন তা এই দুই একটি ঘটনার ফল নয় তা বুঝতে অসুবিধা হয়না । আসলে দোষটা আপনারা মাদ্রাসা আর হুজুরকে দিয়ে বেশি মজা পান তাই আরকি ! মাদ্রাসা আপনার পছন্দ নাই হতে পারে, তাদের শিক্ষা ব্যবস্থাও সেকেলে হতে পারে তবে সব হুজুরকে , মাদ্রাসাকে আপনারা যেভাবে বর্ণনা করছেন তা সাদা চোখে বিদ্বেষ বলেই মনে হয়। তা আপনাদের পছন্দের শিক্ষাব্যবস্থার অবদানটাই কি সমাজে তা একটু বলবেন ??

১২ ই এপ্রিল, ২০১৯ ভোর ৪:০৭

চাঁদগাজী বলেছেন:


মেয়েদের বাচ্চা জন্ম দিতে হয়, সবার যত্ন নিতে হয়; ওদের ধারণা ও ভালোবাসা ধর্মের চেয়ে অনেক শক্তিশালী; মাদ্রাসা আপনার মত ছাগলদের জন্য

২৪| ১২ ই এপ্রিল, ২০১৯ ভোর ৬:৪১

স্বামী বিশুদ্ধানন্দ বলেছেন: মেয়েদের যে কোনো মূল্যে নিজের পায়ে দাঁড়ানোর মতো যুগোপযোগী শিক্ষার ব্যবস্থা করতে হবে | আর ধর্ম শিক্ষার জন্য মাদ্রাসার কোনো প্রয়োজনই নেই | বিশ্বখ্যাত ইসলামী স্কলারদের অনেকেই প্রথমে আধুনিক শিক্ষাব্যবস্থার কারিকুলামের প্রতিষ্ঠানে অধ্যয়ন করেছেন | পরবর্তীতে নিজের আগ্রহে ধর্ম নিয়ে প্রচুর পড়াশুনা করে এই বিষয়ে বুৎপত্তি অর্জন করেছেন বলেই তাদের চিন্তাচেতনা আমাদের দেশের কাঠমোল্লাদের মতো এতো অগভীর নয় |

১২ ই এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৩:৩৭

চাঁদগাজী বলেছেন:


সব নবী জন্ম নিয়েছেন মেয়েদের পেটে, মেয়েদের কোলে মানুষ হয়েছেন।

২৫| ১২ ই এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ৮:১৮

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন:
স্বামী বিশুদ্ধানন্দ বলেছেন: মেয়েদের যে কোনো মূল্যে নিজের পায়ে দাঁড়ানোর মতো যুগোপযোগী শিক্ষার ব্যবস্থা করতে হবে | আর ধর্ম শিক্ষার জন্য মাদ্রাসার কোনো প্রয়োজনই নেই | বিশ্বখ্যাত ইসলামী স্কলারদের অনেকেই প্রথমে আধুনিক শিক্ষাব্যবস্থার কারিকুলামের প্রতিষ্ঠানে অধ্যয়ন করেছেন | পরবর্তীতে নিজের আগ্রহে ধর্ম নিয়ে প্রচুর পড়াশুনা করে এই বিষয়ে বুৎপত্তি অর্জন করেছেন বলেই তাদের চিন্তাচেতনা আমাদের দেশের কাঠমোল্লাদের মতো এতো অগভীর নয় |


১০০% সহমত।

১২ ই এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৩:৩৮

চাঁদগাজী বলেছেন:


ধর্ম এত ছোট যে, উহা নিয়ে পড়লে কেহ স্কলার হওয়ার কথা নয়।

২৬| ১২ ই এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ৯:১৯

Hafiz Anwar বলেছেন: সামুতে অনেক ছাগল আছে,অনেক বলদ আছে।
বাট একজন আছে,যে কিনা নিজেকে আলাদা জাতের ছাগল আছে।আর সেটা হলো এই রামছাগল চাদগাজী।

১২ ই এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৩:৪১

চাঁদগাজী বলেছেন:


আপনি তো কোন মেয়ের পেটে জন্ম নেননি; আপনাকে মাটি থেকে বানানো হয়েছে; মেয়ের পেটে জন্ম নিলে, মেয়ে জাতিকে বুঝতেন। মেয়েরা গোপনাংগের জন্য বড় নন, পেট ও মাথার জন্য বড়।

২৭| ১২ ই এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ১১:২৩

গোলাম রাব্বি রকি বলেছেন: মাদ্রাসায় পড়ুয়াদের আপনি যে ছাগল বলে মনে করেন তা সত্যিই আপনার উদার মনের পরিচয় বহন করে ! আপনাদের মত মুক্তমনা হিসেবে পরিচিত লোকগুলোকে সবসময়ই একচোখা বলেই আমার মনে হয়। আপনাদের স্বগোত্র প্রীতি এত বেশি যে বাকি সবাইকে ছাগল মনে করেন। তা আমার মত যারা আছে তারাও যদি আপনাকে রামছাগল, গোয়াড় মনে করে তবে খুব বেশি ক্ষতি হবে বলে আমার মনে হয়না ...

১২ ই এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৩:৪৩

চাঁদগাজী বলেছেন:


আমি ছাগল পুষতাম খামারে, ব্লগে ওদের পুষি না; আপনার সমগোত্রীয়ও ব্লগে আছে, ওখানে বড় হওয়ার চেষ্টা করেন।

২৮| ১২ ই এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৯:০৩

মাহমুদুর রহমান সুজন বলেছেন: ভিক্টিম মেয়েটির জন্য করুনা হয় যে সে আপনার ঘরে জন্ম গ্রহন করে নাই যদি আপনার মেয়ে হয়ে জন্ম গ্রহন করতো আমিরিকায় থাকতো এমন পরিনতি হতো না।

১৩ ই এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ৯:৪১

চাঁদগাজী বলেছেন:



আপনার ভাবনাশক্তি একজন লিলিপুটিয়ান থেকেও কম; বাংলাদেশের সব মেয়ে আমার ঘরে জন্মানোর কথা নয়, কিন্তু সবাই ভালো থাকার মতো জাতি আমরা।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.