নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

বোকা মানুষের কথায় কিই বা আসে যায়

বোকা মানুষ বলতে চায়

আমি একজন বোকা মানব, সবাই বলে আমার মাথায় কোন ঘিলু নাই। আমি কিছু বলতে নিলেই সবাই থামিয়ে দিয়ে বলে, এই গাধা চুপ কর! তাই আমি ব্লগের সাহায্যে কিছু বলতে চাই। সামু পরিবারে আমার রোল নাম্বারঃ ১৩৩৩৮১

বোকা মানুষ বলতে চায় › বিস্তারিত পোস্টঃ

চল যাই মানালি... (কম খরচে ঘোরাঘুরি) :)

২২ শে নভেম্বর, ২০১৬ বিকাল ৩:৪৪



আগের নোটগুলোতে আমরা বলেছি দিল্লী, সিমলা, কাশ্মীর ট্যুর নিয়ে। আজকে চলুন যাই ঘুরে আসি মানালি হতে। আগের পোস্টগুলো থেকে আপনি নিশ্চয়ই জেনেছেন ঢাকা থেকে কলকাতা হয়ে দিল্লী যাওয়ার সহজ এবং সাশ্রয়ী উপায়। অথবা কলকাতা থেকে সিমলা। মানালি যাওয়ার জন্য আমাদের দুটো সহজ রুট আছে। একটি হল ঢাকা-কলকাতা-দিল্লী-মানালি (চাইলে সিমলা হয়েও যেতে পারেন), অপরটি ঢাকা-কলকাতা-কলকা-সিমলা-মানালি।

আগের তিনটি পোস্টঃ
(১) দিল্লী-হিল্লি (নিজে নিজে ঘুরে আসুন অল্প খরচে সমগ্র দিল্লী)
(২) কাশ্মীর ভ্রমণ পরিকল্পনা এবং বাজেট (একটি অপূর্ণাঙ্গ পোস্ট ;) :P )
(৩) এবার চলুন সিমলা (ঘুরে আসি কম খরচে)



প্রথম রুটঃ

ঢাকা থেকে বাই রোড/রেল/এয়ার এ আপনি ৮০০ থেকে ৬,০০০ টাকার মধ্যে আপনার পছন্দ অনুযায়ী পথ এবং বাহন নিয়ে পৌঁছে যান কলকাতা (এ ব্যাপারে আরও বিস্তারিত জানতে আগের পোস্টগুলো দেখতে পারেন)। কলকাতা হতে দিল্লী যাওয়ার সবচেয়ে ভাল ব্যবস্থা “রাজধানী এক্সপ্রেস”। দিল্লী যাতায়াতের বিস্তারিত পাবেন দিল্লী-হিল্লি (নিজে নিজে ঘুরে আসুন অল্প খরচে সমগ্র দিল্লী) পোস্ট থেকে।

দিল্লী থেকে মানালি যাওয়ার জন্য “হিমাচল প্রদেশ ট্যুরিজম ডেভেলপমেন্ট কর্পোরেশন”- HPTDC এর বাস রয়েছে। প্রতিদিন সন্ধ্যা ০৬:৩০ এবং ০৭:৩০ মিনিটে হিমাচল ভবন, চন্দ্রালোক বিল্ডিং, জনপথ, নিউ দিল্লী থেকে দুটি বাস ছেড়ে যায় মানালির উদ্দেশ্যে। ৫৭০ কিলোমিটার পথে ১৪ ঘণ্টার যাত্রা শেষে সকাল বেলা ৮:৩০-৯:৩০’র দিকে পৌঁছে যাবেন মানালি। এই যাত্রার রুট এমনঃ Delhi - Ambala - Chandigarh - Bilaspur - Mandi -Kullu – Manali। অনলাইন বুকিং দিতে পারেন এখান থেকেঃ http://hp.gov.in/hptdc/Availability.aspx। যে কোন প্রয়োজনে ফোন করতে পারেন এইনাম্বারগুলোতেঃ 01123717473, 01123325320, 011-23716689। এসি ভলভো বাসের ভাড়া ১,৩০০ রুপী। ফেরার জন্য টিকেট করতে মানালির হিমাচল রোড ট্রান্সপোর্ট কর্পোরেশন (HRTC) বাস স্ট্যান্ড হতে বাস ছেড়ে আসে বিকেল ৫:৩০ এবং ০৬:০০ টায়। ভাড়া ১,৩০০ রুপী, অনলাইনে বুকিং দিতে পারেন। অথবা ফোন করুন এই নাম্বারে 01902-252116, 9816005960।

আপনি এই রুটে আরও বেশকিছু প্রাইভেট কোম্পানীর বাস পাবেন, এসি ভলভো এবং নন-এসি দুটোই, আছে প্রাইভেট কার অথবা ট্যাক্সি সার্ভিসও। বাস ভাড়া নন এসির ক্ষেত্রে ৭৫০-৮০০ রুপী থেকে ভাড়া শুরু আর এসি ভলভো’র ক্ষেত্রে ১,২০০ রুপী থেকে ১,৫০০ রুপী’র মধ্যে। ট্যাক্সি অথবা প্রাইভেট কার ভাড়া গাড়ীর প্রকার ভেদে ৬,০০০ রুপী থেকে শুরু। আপনার পছন্দ মত ব্রান্ড, মডেল, সিট এসবের উপর ভাড়া নির্ভর করবে।

দ্বিতীয় রুটঃ

এই রুটে আপনি কলকাতা থেকে কলকা মেইলে কলকা হয়ে সিমলা চলে আসেন। চাইলে একদিন ঘুরে দেখুন সিমলা, তারপর এখান থেকে বাসে করে চলে আসুন মানালি। কলকাতা থেকে সিমলা যাতায়াত এবং সিমলা ভ্রমণ নিয়ে জানতে এই নোটে ঢুঁ মারুনঃ এবার চলুন সিমলা (ঘুরে আসি কম খরচে) । সিমলা থেকে রাত ০৮:৩০ মিনিটে মানালির উদ্দেশ্যে HPTDC’র নন-এসি বাস ছেড়ে যায় মানালির উদ্দেশ্যে; ভাড়া ৫৫০ রুপী, চাইলে আপনি অনলাইনে বুকিং করতে পারেন প্রথম রুটে উল্লেখিত লিংক থেকে। সিমলা থেকে মানালি যাওয়ার প্রাইভেট কোম্পানির বাস খুঁজে পাবেন ৪০০-৫০০ রুপী হতে শুরু হবে ভাড়া। চাইলে ট্যাক্সি বা প্রাইভেট কার ভাড়া করেও আপনি সিমলা থেকে মানালি যেতে পারেন; সেক্ষেত্রে ২৮০ কিলোমিটার পথের জন্য আপনাকে ভাড়া গুনতে হবে ৪,০০০ রুপী হতে শুরু করে গাড়ীর প্রকারভেদে ৮,০০০-১০,০০০ রুপী পর্যন্ত। ফিরতি পথে একই সময়ে মানালি হতে সিমলা’র উদ্দেশ্যে বাস ছেড়ে আসে রাত ০৮:৩০ মিনিটে; ভাড়া সেই ৫৫০ রুপী।



থাকাঃ

মানালি’তে থাকার জন্য অনেক হোটেল পাবেন, আপনার বাজেটের মধ্যে মল এলাকার আশেপাশে প্রচুর হোটেল পাবেন। আর একটু ডিলাক্স বা লাক্সারি হোটেল পাবেন মল এলাকা থেকে একটু দূরে। অনলাইনে makemytrip, tripadvisor, booking.com, agoda ইত্যাদি সাইটে ঢুঁ মেরে আপনার পছন্দের হোটেল সহজেই খুঁজে পেতে পারেন। চাইলে অনলাইনে বুকিং করে ফেলতে পারেন, অথবা স্পটে পৌঁছে দরদাম করে আপনার পছন্দ মাফিক হোটেলে চেকইন করতে পারেন। পুরোটাই আপনার ইচ্ছে।



খাওয়াঃ

মানালিতে খাওয়া নিয়ে একটু বিপাকে পরবেন, বেশীরভাগ ভেজিটেরিয়ান রেস্টুরেন্ট। মানালি মল এলাকায় একটি বাঙ্গালী, একটি পাঞ্জাবী এবং একটি মুসলিম রেস্টুরেন্ট খুঁজে পাবেন। আপনার স্বাদের ভিন্নতার জন্য এগুলোতে চেখে দেখতে পারেন। প্রতিবেলা খাবারে আপনার খরচ হবে ১৫০-২৫০ রুপী (একটু বুঝে চললে); ভাল মানের খাবারের জন্য বাজেট রাখুন ৩০০-৪০০ রুপী। আর একেবারে সাশ্রয়ীদের জন্য কোন সাজেশন নেই, চাইলে ৫০ রুপীর কম খরচেও পেটপুজো করে নিতে পারবেন আপনি। ;)



দর্শনীয় স্থান্সমূহঃ

এখন বাকী রইল কি কি দেখবেনঃ

হাদিম্বা দেবী মন্দিরঃ মানালি মল এলাকা থেকে প্রায় এক কিলোমিটারের একটু বেশী দূরত্বে এই মন্দির হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের জন্য অন্যতম দর্শনীয় স্থান। ১৫৫৩ সালে নির্মিত এই মন্দির সব সময়েই দর্শনার্থীতে পূর্ণ থাকে।

মানু মন্দিরঃ এটা ২ কিলোমিটার মল এলাকা থেকে। হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের তীর্থস্থান।

ভাসিসথঃ এটা একটি উষ্ণ প্রস্রবন, তিন কিলোমিটার দূরে মল এলাকা থেকে।

তিব্বতীয় মনস্ট্রিঃ অধুনা নির্মিত তিনটা মনস্ট্রি রয়েছে মানালিতে, চাইলে ঘুরে দেখতে পারনে।

সোলাং ভ্যালীঃ বরফ, স্কিয়িং আর ক্যাবল কার নিয়ে ছবির মতন সাজানো স্পট সোলাং ভ্যালী মানালি মল এলাকা হতে ১৪ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। শীতের সময়ে হাজারো পর্যটক ছুটে আসে এই সোলাং ভ্যালীতে স্কিয়িং এর মজা নিতে।

কুলু-মানিকারানঃ মানালি এসে কুলুভ্যালী হয়ে মানিকারান উষ্ণপ্রস্রবণ না দেখে গেলে আপনার যাত্রা অসম্পূর্ণ রয়ে যাবে। তাই অতি অবশ্যই কুলু হয়ে মানিকারান যেতে ভুলবেন না।

রোহটাং পাসঃ প্রায় সারা বছর বরফ দেখতে পাওয়া যায় বলে পর্যটকদের অন্যতম গন্তব্যে ১৩,৫০০ ফিট উচ্চতার রোহটাং পাস। ভয়ঙ্কর কিন্তু অসাধারণ অপার্থিব এক রাস্তা দিয়ে যেতে হবে আপনাকে রোহটাং পাস, সাথে অতি অবশ্যই প্রয়োজনীয় শীতবস্ত্র’র সুরক্ষা।

এই স্পটগুলো ঘুরে দেখার জন্য হিমাচল ট্যুরিজম এর নানান প্যাকেজ রয়েছে। রয়েছে প্রাইভেট কোম্পানিগুলোর নানান প্যাকেজ। মানালি মল এলাকায় গেলে দেখবেন অনেকগুলো কোম্পানি আপনার জন্য অফার নিয়ে বসে আছে। নিজের বাজেটের মধ্যে পছন্দ সই একটা প্যাকেজ নিয়ে ঘুরে আসুন উপরের গন্তব্যগুলো হতে। বাজেট ট্রাভেলারদের জন্য রয়েছে HPTDC’র বাস সার্ভিস।
Manali-Kothi-Rahla Fall- Rohtangpass & back 310/- (per seat)
Manali- Nagar- Solang & back 260/- (per seat)
Manali-Kullu-Manikaran & back 350/- (per seat)
Manali- Kullu- Bajaura & back 180/- (per seat)

একটি খসড়া প্ল্যান ও বাজেট (অবশ্যই কম খরচে) :


দিন ০০ঃ ঢাকা থেকে রাতের ট্রেনে যশোর অথবা বাসে সরাসরি বেনাপোল। সেখান থেকে দুই দেশের ইমিগ্রেশন শেষে শেয়ার অটো করে বনগাঁও হয়ে ট্রেনে কলকাতা। সেখান হতে রাতের ট্রেনে রওনা হয়ে যান দিল্লী’র উদ্দেশ্যে। দিল্লীর ট্রেনসূচী দেখে নিতে পারেন এই পোস্ট থেকেঃ দিল্লী-হিল্লি (নিজে নিজে ঘুরে আসুন অল্প খরচে সমগ্র দিল্লী)

দিন ০১ঃ ট্রেনে সারাদিন এবং রাত্রি যাপন

দিন ০২ঃ সকালবেলা দিল্লী পৌঁছে সারাদিন অবসর সময়, ঘুরে দেখতে পারেন কুতুব মিনার, হুমায়ুন টম্ব, লালকেল্লা, চাঁদনীচক ইত্যাদি। সন্ধ্যের বাসে রওনা হয়ে যান মানালির উদ্দেশ্যে। সারা রাত বাস জার্নি।

দিন ০৩ঃ সকাল বেলা মানালি পৌঁছে যাবেন দশটা/এগারোটা নাগাদ। মল এলাকায় চলে গিয়ে একটি বাজেট হোটেল দেখে চেক ইন করুন। ফ্রেশ হয়ে লাঞ্চ সেরে নিন। এদিন দেখুন হাদিম্বা দেবী মন্দির, মানু মন্দির, ভাসিসথ, তিব্বতীয় মনস্ট্রি, বনবিহার ইত্যাদি। রাত্রি যাপন মানালি।

দিন ০৪ঃ এদিন সকালের নাস্তা সেরে চলে যান সোলাং ভ্যালী, সাথে যদি রাস্তা খোলা থাকে (বরফের কারনে বছরের অর্ধেকের বেশী সময় রাস্তা বন্ধ থাকে) চলে যান রোহটাং পাস। রাত্রি যাপন মানালি।

দিন ০৫ঃ এদিন সকালের নাস্তা সেরে ঘুরে আসুন কুলু-মানিকারান। বিকেলের মধ্যে মানালি ফেরত এসে অথবা কুলু থেকে ধরুন দিল্লীর বাস। সারারাত বাস জার্নি।

দিন ০৬ঃ সকাল বেলা দিল্লী পৌঁছে চাইলে দিল্লী ঘুরে দেখার জন্য দিনের বেলা হাতে রাখতে পারেন। এদিন দেখতে পারেন লোটাস টেম্পল, জন্তর মন্তর, আকসার ধাম, পুরানা কিল্লা, লোদী গার্ডেন। ইত্যাদী। দিল্লী হিল্লী পোস্টে এসবের প্ল্যানিং দেয়া আছে। রাতের ট্রেন ধরুন কলকাতার উদ্দেশ্যে।

দিন ০৭ঃ সারাদিন ট্রেন জার্নি।

দিন ০৮ঃ সকাল বেলা কলকাতা পৌঁছে বেনাপোলগামী বাস ধরুন, শেষ বাস দুপুর একটা পর্যন্ত পাবেন। সেটাও মিস হলে, ট্যাক্সি করে চলে যেতে পারেন। অথবা ট্রেনে বনগাঁ হয়ে ছয়টার আগে বেনাপোল চলে আসুন। এরপর বর্ডার পার হয়ে রাতের বাস ধরুন ঢাকার উদ্দেশ্যে। আর দুপুরের মধ্যে বেনাপোল পৌঁছে গেলে তো কথাই নেই, মধ্য রাতের মধ্যে ঢাকায় পৌঁছে যাবেন আশা করা যায়।

খরচের হিসেবঃ
বাস ভাড়া (ঢাকা-কলকাতা-ঢাকা) ২,০০০ টাকা
ট্রেন ভাড়া (কলকাতা- দিল্লী-কলকাতা) ২,৫০০ টাকা
বাস ভাড়া (দিল্লী-মানালি-দিল্লী) ২,৫০০ টাকা
হোটেল ভাড়া (দুই রাত) ১,৫০০ টাকা
খাবার (০৮দিন তিন বেলা) ৪,৫০০ টাকা
সাইট সিয়িং এবং অন্যান্য ২,০০০ টাকা

সর্বমোটঃ ১৫,০০০ টাকা।

মন্তব্য ২৪ টি রেটিং +৫/-০

মন্তব্য (২৪) মন্তব্য লিখুন

১| ২২ শে নভেম্বর, ২০১৬ বিকাল ৪:৩৭

প্রামানিক বলেছেন: যাইতে মন চায় কিন্তু শরীরটা মাঝে মাঝে বাগড়া মারে আর যাওয়া হয় না।

২৯ শে নভেম্বর, ২০১৬ দুপুর ১২:২২

বোকা মানুষ বলতে চায় বলেছেন: ধন্যবাদ প্রামানিক ভাই। ইনশাল্লাহ শরীর স্বাস্থ্য খুব শীঘ্রই বাগড়া মারা বন্ধ করে দেবে, তখন ভাবীকে নিয়ে বেরিয়ে পড়ুন।

ভাল থাকুন সবসময়, অনেক অনেক শুভকামনা রইল।

২| ২২ শে নভেম্বর, ২০১৬ রাত ৮:৩৩

শাহরিয়ার কবীর বলেছেন: শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ।

২৯ শে নভেম্বর, ২০১৬ দুপুর ১:৪৭

বোকা মানুষ বলতে চায় বলেছেন: ধন্যবাদ শাহরিয়ার ভাই। ভাল থাকুন সবসময়। :)

৩| ২২ শে নভেম্বর, ২০১৬ রাত ৯:৩৫

ভ্রমরের ডানা বলেছেন:

খুব সুন্দর সাজিয়েছেন। ভাল লাগল!

২৯ শে নভেম্বর, ২০১৬ বিকাল ৩:৪৩

বোকা মানুষ বলতে চায় বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ আপনাকে। ভাল থাকুন সবসময়। :)

৪| ২৩ শে নভেম্বর, ২০১৬ রাত ১:০০

অন্তু নীল বলেছেন:
ধন্যবাদ।
যাওয়ার প্ল্যান আছে কোনো এক সময়।

৩০ শে নভেম্বর, ২০১৬ দুপুর ১২:৩২

বোকা মানুষ বলতে চায় বলেছেন: আপনাকেও ধন্যবাদ। আর মানালি ভ্রমণের সেরা সময় কিন্তু এখনই, ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বরফ পাবেন। তাই দেরী না করে শুরু করে দিন ভ্রমণ পরিকল্পনা। :)

৫| ২৩ শে নভেম্বর, ২০১৬ রাত ১:৪৪

শাহরিয়ার অভ্র বলেছেন: অসাধারণ এক জায়গা! তবে জানুয়ারিতে গেলে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য টা বেশি উপভোগ করা যায়।

৩০ শে নভেম্বর, ২০১৬ দুপুর ১:১৬

বোকা মানুষ বলতে চায় বলেছেন: ঠিক বলেছেন, জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারি হল সেরা সময় সিমলা-মানালি ভ্রমণের জন্য। দেখি এবার যাওয়া হয় কি না।

অনেক ধন্যবাদ আপনাকে, পাঠ এবং মন্তব্যে কৃতজ্ঞতা জানবেন। ভাল থাকুন সবসময়।

৬| ২৩ শে নভেম্বর, ২০১৬ দুপুর ১:২৪

মনিরা সুলতানা বলেছেন: পাঁচ বছর পর হাতে সময় থাকবে ,কিন্তু হয়ত ইচ্ছা ই থাকবে না :(

সহজ করে অনেক পর্যটকের উপকারী পোষ্ট লিখেছেন :)

১০ ই ডিসেম্বর, ২০১৬ বিকাল ৩:৫০

বোকা মানুষ বলতে চায় বলেছেন: আসলে সময় বড়ই নির্মম... আমি তা হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছি। :(

সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ আপু, ভাল থাকুন সবসময়। শুভকামনা রইবে। :)

৭| ২৪ শে নভেম্বর, ২০১৬ রাত ৮:০৭

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: যাইতে মুন্চায়, এমন একটা ট্যুর প্ল্যান করেন ভাই, ১৫০০০ হাজার টাকায় হলে নো চিন্তা।

১০ ই ডিসেম্বর, ২০১৬ বিকাল ৪:২৪

বোকা মানুষ বলতে চায় বলেছেন: প্ল্যান তো করি, কিন্তু আপনার তো সময় হয় না মিয়াঁ ভাই.... :(

৮| ২৬ শে নভেম্বর, ২০১৬ বিকাল ৩:৪৭

কাবিল বলেছেন: কাজের পোস্ট, ভাল লাগল।



ব্লগারস ট্রাভেলিং ডায়েরী লেখা কি বাদ দিলেন ভাই?

১০ ই ডিসেম্বর, ২০১৬ বিকাল ৪:৩৫

বোকা মানুষ বলতে চায় বলেছেন: ধন্যবাদ ভাই কাবিল।

আসলে ব্লগার ট্রাভেলিং ডায়েরী বাদ দেই নাই, খুব ইচ্ছে হয় প্রতি মাসেই, কিন্তু সময় করে উঠতে পারি না। এই মাসে পাবেন আশা করি এবং সেটা এই সপ্তাহেই আশা করা যায়। দোয়া করবেন।

ভাল থাকুন সবসময়, অনেক অনেক শুভকামনা।

৯| ২৯ শে নভেম্বর, ২০১৬ রাত ২:১৫

SH SAYMON বলেছেন: ভাই ভিসা পাবো কি ভাবে

১০ ই ডিসেম্বর, ২০১৬ বিকাল ৫:২৪

বোকা মানুষ বলতে চায় বলেছেন: ইন্ডিয়ান ভিসা প্রসেসিং সার্ভিস সেন্টারঃ http://www.ivacbd.com এই লিংকে গেলে সকল তথ্য এবং প্রসিডিউর পেয়ে যাবেন।

ধন্যবাদ, ভাল থাকুন সবসময়। :)

১০| ০৪ ঠা ডিসেম্বর, ২০১৬ রাত ১০:০২

জে আর সিকদার বলেছেন: লেখকের জন্য অনেক অনেক শুভ কামনা রইল, প্রিয়তে রইলো।

১০ ই ডিসেম্বর, ২০১৬ রাত ৮:০৮

বোকা মানুষ বলতে চায় বলেছেন: ধন্যবাদ ভাই, আপনার জন্যও রইল অনেক শুভকামনা। ভাল থাকুন সবসময়।

১১| ১২ ই ডিসেম্বর, ২০১৬ সন্ধ্যা ৬:০০

বাকি বিল্লাহ বলেছেন: ভাই কলকাতা - দিল্লী-কলকাতা ২৫০০/- কেম্নে হয়?

১৩ ই ডিসেম্বর, ২০১৬ দুপুর ১২:৪৪

বোকা মানুষ বলতে চায় বলেছেন: ভাই, উপরে দেয়া দিল্লী ভ্রমণের পোস্ট পড়লেই পেয়ে যাবেন ট্রেনের নাম, সময়সূচী এবং ভাড়া। যে সকল ট্রেনে স্লিপার ক্লাস আছে, সেখানে ঢুঁ মারুন, ভাড়া ৬০০-৮০০ রুপী, ওয়ান ওয়ে। রাউন্ড ট্রিপে ১৫০০ রুপি'র মধ্যে টিকেট হয়ে যায়। যা টাকায় কনভার্ট করলে এমনিতে হয় ১,৮০০ টাকা। আপনি যদি, ঢাকা থেকে টিকেট করেন তবে একটু খোঁজ খবর করলে আরামসে ২,৫০০ টাকায় পেয়ে যাবেন, তবে অবশ্যই যাত্রা তারিখের মাস দুয়েক আগে টিকেট করতে হবে। কারন, ভারতের রেলের টিকেট অনেক আগেই করে রাখতে হয়, নইলে পাওয়া যায় না।

ধন্যবাদ, ভাল থাকুন সবসময়।

১২| ২১ শে আগস্ট, ২০১৮ রাত ১:৪৪

সাহাদাত উদরাজী বলেছেন: চলুক। ভাল লাগলো।

২১ শে আগস্ট, ২০১৮ রাত ১০:০২

বোকা মানুষ বলতে চায় বলেছেন: ধন্যবাদ।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.