নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সব কিছুর মধ্যেই সুন্দর খুঁজে পেতে চেষ্টা করি............

জুল ভার্ন

সামু, আমার প্রিয় সামু-প্রত্যাশা পুরণে ব্যার্থতার ভারে নূহ্য! বর্তমান সামু কোনো দিন প্রত্যাশিত ছিলনা-তাই আপাতত সামু চর্চা বন্ধ। আপাতত সামু নষ্টদের দখলেই থাকুক। যদি মডারেটর চান-তাহলেই সামু আবার ফিরে আসবে স্বমহিমায়, ফিরে আসবো আমিও অনেকের মতই। ভালো থেকো প্রিয় বন্ধুরা। সকলের জন্য শুভ শুভ কামনা। * প্রানবন্ত কল্পনাশক্তির প্রয়োগে স্বচ্ছ ভাবনা আর বাস্তবতার মিশেলে মানুষ ক্রমশই সংকীর্ণ আর ক্ষুদ্র গন্ডিতে আবদ্ধ হয়ে যাচ্ছে।সব কিছু ছোট হয়ে যাচ্ছে, ছোট হয়ে যাচ্ছে আমাদের চিন্তা শক্তি-ছোট হয়ে যাচ্ছে আমাদের মন। আসুন পারস্পরিক মূল্যবোধ বিনিময়ে নিজ নিজ ভুল্গুলো শুধরে নিয়ে নিজেকে বিকশিত করি।

জুল ভার্ন › বিস্তারিত পোস্টঃ

প্রাক মোবাইল যুগ এবং বর্তমান....

০৩ রা ডিসেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৫৯

প্রাক মোবাইল যুগ এবং বর্তমান.....

প্রাক মোবাইল যুগে পারস্পরিক সৌহার্দ্যতা অনেক বেশী ছিল। এখন মোবাইলে নিমেষে যুক্ত হবার সুবিধেটা আমাদের অনেক দূরে নিয়ে চলে গেছে। পরিবারের একে অপরের সাথে আমাদের কথা বলার সময় নেই। বন্ধুর সাথে মুখোমুখি সাক্ষাতের ইচ্ছেটাই চলে যাচ্ছে। কেউ এখন আর এসে মেশে না, সবই চলে SMS করে! তবে যদি কেউ ছোটবেলাটা ফিরে পেতে চান- উপায় আছে.....

আমি গত কয়েক মাস যাবত আত্মীয় স্বজন, বন্ধুদের যেকোনো ধরনের দেখা সাক্ষাৎ এবং যেকোন গেটটুগেদার এড়িয়ে চলি। ইন্টারনেট ছাড়া সেলফোন ব্যবহার করি। চলাফেরা নিয়ন্ত্রিত। এমতাবস্থায় কয়েক বন্ধু আমাকে নিয়ে বিভিন্ন যায়গায় বেড়াতে যাওয়ার প্রস্তাব দেয়। ঢাকার বাইরে এক সপ্তাহের জন্য একটা শর্তে আমি যেতে রাজি হই। শর্তঃ 'সাথে কেউ ইলেকট্রনিকস গ্যাজেট (সেলফোন, ল্যাপটপ, ট্যাব) নিতে পারবেনা'। রেজাল্টঃ নানান অজুহাতে কেউ আর বেড়াতে যাবেনা! 'মোবাইল ছাড়া জীবন! সেতো অক্সিজেন ছাড়া বেঁচে থাকা"- বললেন একজন। আর একজন বলেন, "মাই গাড! কি সাংঘাতিক!! ড্রাকুলার সিনেমাও এতো ভয়ংকর নয়!"

আমাদের শৈশব ও প্রাক যৌবন ভালো ছিল-এটা আমরা সকলেই মানি। তখন জটিলতা কম ছিল। নিজের একটা কল্পনার জগত ছিল, আমিই ছিলাম সেই জগতের রাজা/রানী। কোন কিছু সুন্দর হতেই পারে যদি সেটা সুন্দর করে সাজানো যায়। আর সেই সুন্দরতা তৈরিতে কিছু জিনিষ যোগ করতে হয়, পাশাপাশি কিছু জিনিষ বিয়োগ করতে হয়। প্রাক মোবাইল যুগটা একবার মনে করার চেষ্টা করুন। সেই সময়ে হয়তো আমরা অনেক বেশী একে অপরের সাথে আত্মীক ছিলাম। এখন মোবাইলে নিমেষে যুক্ত হবার সুবিধেটা আমাদের দেখা সাক্ষাৎ এবং স্পর্শ থেকে অনেক দূরে নিয়ে গেছে। পরিবারের একে অপরের সাথে আমাদের কথা বলার সময় নেই। বন্ধুর সাথে মুখোমুখি সাক্ষাতের ইচ্ছেটাই চলে যাচ্ছে। কেউ এখন আর কাছে এসে মেশে না, সবই চলে SMS-এ। তার ওপর আছে এখন নানান ভার্চুয়াল ফ্যাসিলিটিস। বন্ধু সেথা হাজারে হাজারে। এত বন্ধুর ভিড়ে টিফিন ভাগ করে খাওয়ার, ঝগড়া করে নিমেষে জড়িয়ে ধরার বন্ধুরা কই! নেই! সব কেড়ে নিয়েছে প্রযুক্তি। সেলফোন, ইন্টারনেট!
আমরা যারা মোবাইল ব্যবহার করি তারা প্রত্যেকেই বলি ‘আমার মোবাইল’। আসলে পরিস্থিতি ঠিক উল্টো ‘মোবাইলের আমি’!

কিন্তু তবুও উপায় আছে। উপায় লুকিয়ে আছে আপনার ইচ্ছেতে। মোবাইলের আসক্তি থেকে বেড়িয়ে আসা যারা মুশকিল মনে করছেন তারা অন্তত এইটুকু চেষ্টা করতেই পারেন, অন্তত তাতেও যদি কিছু সময়ের জন্য হলেও প্রাক মোবাইল যুগটা ফিরিয়ে আনা যায়। সপ্তাহে নির্দিষ্ট একটা গোটা দিন সবই করুন, শুধু নিজের মোবাইলটা বন্ধ রাখুন। দেখবেন কোথা থেকে যেন অনেকটা অবসর হাতে চলে এসেছে। সেটা দিন পরিবার ও বন্ধুদের, আপনজনদের।।

মন্তব্য ৩৪ টি রেটিং +৮/-০

মন্তব্য (৩৪) মন্তব্য লিখুন

১| ০৩ রা ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৮:৩৫

সম্রাট ইজ বেস্ট বলেছেন: বন্ধ রাখি, শুক্রবারে বেশিরভাগ সময় নেট বন্ধ করে ঠেসে ঘুম দিই।

০৩ রা ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৮:৪৯

জুল ভার্ন বলেছেন: রাত সাড়ে দশটায় সব সময় মোবাইলফোন বন্ধ করে ঘুমাই এবং সকাল আটটায় অন করি। শুক্রবার সকাল সাড়ে দশটায় বন্ধ করে দুপুর তিনটায় অন করি।

২| ০৩ রা ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৮:৫৮

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আমি শোয়ার সময় মোবাইল বন্ধ করে দেই। অনেকে বলেন এতে কারো বিপদ আপদ হলে সংবাদ পাওয়া যাবেনা। আমি বলি - কারো বিপদের সংবাদ শুনে নিজের টেনশন বাড়ানো ছাড়া আমি কি কোন উপকার করতে পারব?

০৪ ঠা ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ৭:৫১

জুল ভার্ন বলেছেন: ঠিক একই কথা আমিও বলি। তাছাড়া ঘরে আরও অনেকেরই মোবাইলফোন, ল্যান্ড ফোন আছে সেগুলোয় ফোন করে জরুরি মেসেজ দিতে পারবে, আমি আমার ফোন বন্ধ রাখবোই।

৩| ০৩ রা ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৯:১৬

তারেক ফাহিম বলেছেন: বড্ড মুশকিল।

৬০+ বয়সের লোকও এমন কাজ করতে পারবে কিনা সন্দেহ আছে :D

০৪ ঠা ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ৭:৫৫

জুল ভার্ন বলেছেন: ধন্যবাদ।

৪| ০৩ রা ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৯:২৪

বিদ্রোহী ভৃগু বলেছেন: আমাদের ছিল সেই সোনালী দিন

সেই কাগজের নৌকা বৃস্টির জমা জলে ভাসিয়ে খেলা
জাম্বুরাকে বল বানিয়ে বৃিষ্টর জলে হুটুপুটি
ছিল প্রাণ মন ভেজানো আন্তরিকতা!
আহা

অনুজেদর দেখলে মায়া হয়!
চোখ দুটো তো যাচ্ছেই ছোট স্ক্রীনে... মনটাও যাচ্ছে মরে!
জীবনটাই হয়ে যাচ্ছে ভার্চুয়াল . . .

সত্যিকারের আবেগ ছুঁয়ে যাক অনুভূতিপ্রবণতায় শুভকামনা রইল

০৪ ঠা ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ৭:৫৩

জুল ভার্ন বলেছেন: বাহ কী সুন্দর করে বলেছেন!!!

৫| ০৩ রা ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৯:৫১

মনিরা সুলতানা বলেছেন: চমৎকার উপায় ! কিন্তু প্রিয়জন পরিজন কাছে থাকলে ফোন বন্ধ করে রাখা একটু টেনশন কাজ করে।

০৪ ঠা ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ৭:৫৫

জুল ভার্ন বলেছেন: একবার শুরু করেই দেখুন - একটা নির্দিষ্ট সময় নিজেকে ফিরিয়ে নিন প্রাক মোবাইল যুগে।

৬| ০৩ রা ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:০৪

আসোয়াদ লোদি বলেছেন: আগে কী সুন্দর দিন কাটাইতাম ! এখন মোবাইল যন্ত্রনায় দিনের সৌন্দর্য আর দেখি না।

০৪ ঠা ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ৭:৫৫

জুল ভার্ন বলেছেন: ধন্যবাদ।

৭| ০৩ রা ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:১১

অপু তানভীর বলেছেন: আমি মোটামুটি ইন্টারমিডিয়েট পর্যন্ত সময় কাটিয়েছি মোবাইল ছাড়া । ভার্সিটির প্রথম বছরটা যদিও মোবাইল ছিল তবে সেই সমটা এতো আসক্তি ছিল না মানুষের মাঝে । তাই পার্থক্যটা খুব পরিস্কার ধরা পরে ।
একটা সাধারন হিসাব দেই । মোবাইল আসার আগে আমার বছরে কম করে হলেও ১২০-১৫০টা বই পড়া হত । আর এখন বছরে ৫০টা বই পড়া হয় না ঠিক মত ।

এই আসক্তি সত্যিই বড় কঠিন ।

০৪ ঠা ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ৭:৫৮

জুল ভার্ন বলেছেন: অথচ একটা বই হাতে নিয়ে পড়ার আনন্দের সাথে তুলনা কি মোবাইল ফোনের কোনো কিছুর সাথে তুলনীয় হতে পারে!

৮| ০৩ রা ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ১১:১৭

রাজীব নুর বলেছেন: মোবাইল আমাদের অনেক কিছু কেড়ে নিয়েছে।
আজকের কথাই বলি- চার বন্ধু চায়ের দোকানে আড্ডা দিতে গিয়েছি। অথচ আমরা চারজনই মনের অজান্তেই মোবাইল নিয়ে ব্যস্ত। কোনো কথা নেই।

০৪ ঠা ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ৮:০০

জুল ভার্ন বলেছেন: ওইযে বললাম "আমিই মোবাইলের" হয়ে যাওয়া মানুষ আমরা!

৯| ০৪ ঠা ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ৮:৫৮

হাবিব স্যার বলেছেন: মোবাইল থেকে যতটা দূরে থাকা যায় ততই ভালো।

০৪ ঠা ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ১১:১১

জুল ভার্ন বলেছেন: একমত।

১০| ০৪ ঠা ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:১৯

এস সুলতানা বলেছেন: চমৎকার উপায় ! কিন্তু প্রিয়জন পরিজন কাছে থাকলে ফোন বন্ধ করে রাখা একটু টেনশন ও কাজ করে। সময়ের সাথে সাথে সময়ের পরিবর্তন। কেউ এই পরিবর্তন ভালো কাজে ব্যবহার করে কেউ করে খারাপ কাজে। মাদক নেশার থেকে আরো ভয়াবহ নেশা এই ইন্টারনেট। যদি সেটা আমি/ আমরা নেশা হিসেবে সেবন করি।আমরা ভাত খাই জীবন বাঁচাতে , ভাতে কিন্তু নেশা আনে না। ঠিক তেমনি জীবনের প্রয়োজনে সেল ফোন বা ইন্টারনেই । প্রয়োজনের বাইরে যদি ব্যবহার না করে তবে সেটা ঘুমতে যাওয়ার সময় বন্ধ রাখার প্রয়োজন হয় বলে আমার মনে হয়না।

০৪ ঠা ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ১১:১৬

জুল ভার্ন বলেছেন: ঘুমের সময় ফোন বন্ধ রাখার কারণ, একশ্রেণীর নিশাচর মানুষের উটকো ফোন, মেসেজ থেকে নিরাপদ থাকা। কারো ভুল ফোনের জন্যও আপনার ঘুমের ব্যাঘাত না ঘটা।
সুন্দর মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ।

১১| ০৪ ঠা ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ১১:২৭

শাহিদা খানম তানিয়া বলেছেন: হা হা হা । মন থেকে যদি মধ্যযুগীয় ভাবধারা প্রকাশ হয়েই যায় বুঝে নেবেন আমি মধ্যযুগীয় একজনা। বেমানান হলে মানাবেন কিনা আপনার বিবেচনা।

শুভ ব্লগিং (আধুনিক শুভ কামনা)

১২| ০৪ ঠা ডিসেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১২:২১

জুল ভার্ন বলেছেন: স্যরি, আর কখনো আমার কোনো মন্তব্য আপনাকে বিব্রত করবেনা।

১৩| ০৪ ঠা ডিসেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১২:৩১

রাতুল রেজা বলেছেন: আমি আর আমার স্ত্রী, ২ জন ই পাশাপাশিই ই থাকি অফিস থেকে আসার পরে। কিন্তু ২ জনের ই চোখ থাকে মবাইলের স্ক্রীনে। অফিস থেকে আসার পর ১০ মিনিট ও ২ জনের কথা বা মুখ দেখা দেখি হইয় বলে আমার মনে হয় না। কি একটা অবস্থা :|

০৪ ঠা ডিসেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১:৫৪

জুল ভার্ন বলেছেন: আপনি নির্দিধায় সত্য বলেছেন - এটাই বাস্তবতা।

১৪| ০৪ ঠা ডিসেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:৩৫

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
আর ফেসবুকতো সেটাকে উসকে দিয়েছে।

রাত নেই দিন নেই পড়ে থাকো মোবাইলে, ইন্টারনেটে। সেফবুকে কেউ না থাকলেই আনসোসাল বলা দিচ্ছে ।

হায়রে কি দিন এলো, সমাজিক যোগাযোগ নাম ধারী মাধ্যম গুলো অসামাজিক করে দিচ্ছে আমাদের।

০৪ ঠা ডিসেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৫:০৬

জুল ভার্ন বলেছেন: ঠিক বলেছেন।

১৫| ০৪ ঠা ডিসেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:৪৬

পদ্ম পুকুর বলেছেন: সেই কত আগেই না 'দৃষ্টিপাতে' যাযাবর বলে গিয়েছেন "বিজ্ঞান আমাদের দিয়েছে বেগ, কেড়ে নিয়েছে আবেগ"...

০৪ ঠা ডিসেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৫:০৭

জুল ভার্ন বলেছেন: জ্বি।

১৬| ০৪ ঠা ডিসেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৫:০০

রাজীব নুর বলেছেন: লেখক বলেছেন: ওইযে বললাম "আমিই মোবাইলের" হয়ে যাওয়া মানুষ আমরা!

আমাদের সাবধান হতে হবে।
নিজেকে মোবাইলের কাছে সমর্পণ করা ঠিক হবে না।

০৪ ঠা ডিসেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৫:০৯

জুল ভার্ন বলেছেন: মোবাইল ইন্টারনেট কিশোর তরুণদের বেশী ক্ষতি করছে যা পরবর্তী প্রজন্মের জন্য বিপদজনক।

১৭| ০৪ ঠা ডিসেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:০৯

কিরমানী লিটন বলেছেন: বিজ্ঞান দিয়েছে বেগ, কেড়ে নিয়েছে আবেগ ! যুক্তির ভীড়ে তাই আমরা সবার মধ্যে থেকেও একলা.....

চমৎকার লিখেছেন! অনেক শুভকামনা রইলো। ++++

০৪ ঠা ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৮:৩০

জুল ভার্ন বলেছেন: ধন্যবাদ।

১৮| ০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১২:৫৪

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: আসলে অবাক হই । যোগাযোগের এত সহজলভ্যতা তবু আগের সেই অনুভূতি আবেগ অতিক্রম করতে পারিনি আমরা । সম্পর্কের গভীরতা বরং কমে গেছে ।

০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:৪০

জুল ভার্ন বলেছেন: কারণ একটাই- বিজ্ঞান প্রযুক্তি আমাদের আবেগ কেড়ে নিয়ে রোবট বানিয়ে দিয়েছে।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.