নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

যে কোনো ভূমিকায় সমানে লড়ে যাই, আপনি যেমন চান আমি ঠিক তাই।

নান্দনিক নন্দিনী

লেখালেখি হচ্ছে প্রেমে পড়ার মতন একটা ব্যাপার, কোনো ধরনের কর্তৃত্ব জাহির করা নয়।

নান্দনিক নন্দিনী › বিস্তারিত পোস্টঃ

আমাদের দেখা হোক সুখের শহরে…

১৮ ই অক্টোবর, ২০২০ রাত ১২:৪৬



আজ প্রাক্তনকে ক্ষমা করার দিন। ২০১৮সাল থেকে এই দিনটা পালন করা শুরু হয়েছে। প্রশ্ন উঠতে পারে, ক্ষমা কি আয়োজন করে করার মত বিষয়। আবার অনেকে আক্ষেপ করে বলেন, কেউ কি ক্ষমা চেয়েছে যে ক্ষমা করবো? কিছু কিছু ক্ষমা তো মানুষকে তার নিজে জন্যই করতে হয়। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে মহা ধ্বংসযজ্ঞ শেষে জীবনের সব হারানো মানুষগুলো একটা গনজামায়েত করে চিৎকার করে ক্ষমা করে দিয়েছিলেন তাদেরকে যারা নির্বিচারে হত্যাযজ্ঞ চালিয়েছিল।

চেনামানুষ সময়ের আবর্তে অচেনা হলে যা হয়, মনের ভিতর প্রশ্নের প্রতিযোগ; কেমন আছো, ঘুম হয় ঠিক মতো, চোখের নিচে কালি কেন? জানতে ইচ্ছে করে, প্লে লিষ্টে কী গান চলে... নানান চিন্তার প্রতিফলন দেয়ালের গায়ে নিঃসঙ্গ প্রজাপতির মতো ঘুরে বেড়ায়। মানুষের মনের ক্ষত সম্ভবত তার ঘৃণার সমান বড়। গল্প-উপন্যাস আপনাকে শেখাবে কিভাবে একটা পুরো জীবন ক্ষমা না করে, অভিমান পুষে রেখে কাটিয়ে দেয়া যায়। আমি বলি কি, প্রাক্তনের সাথে সহজ মনোভাব নিয়েও বেঁচে থাকা যায়। ভালোবাসা অনুভব করার ক্ষমতা তো সবার থাকে না। আর ক্ষমা যদি না করতে পারেন তাহলে জীবনে সামনে এগোবেন কিভাবে?

আজকাল মানুষ বিচ্ছেদকে ভয় পায় না, মানুষ বিকল্পকে ঘৃণা করে। মানুষ মেনে নিতে চায় না তার স্থলাভিষিক্ত হয়েছেন কেউ একজন, ইগোতে লাগে। আরে ভাই, কেউ একজন আপনাকে ছেড়ে অন্যকে নিয়ে ভালো আছে তাতে ক্ষতি কী? বুদ্ধিমান মানুষ হিসেবে আপনারও উচিত সমমানসিকতাসম্পন্ন কারো সাথে ভালো থাকা, টু সাম এক্সটেন্ড সুখে থাকা। অনবদ্য প্রেমেও ছেড়ে না যাবার প্রতিশ্রুতি দিয়েও অনেকক্ষেত্রে সবাই রক্ষা করতে পারে না। মানুষের সীমাবদ্ধতা তো অসীম। অনেক সময় দেখা যায় হৃদয় ক্ষমা করে দিতে চায়, মন তখন বাধ সাধে। কেন ক্ষমা করবো? কিংবা পেছনে ফেলে আসা মানুষকে কি চাইলেই ক্ষমা করা যায়? ধরেন, জীবনে পাওয়া তো হয়না কত কিছুই। তাই বলে ক্ষমাহীন ভাবে বেঁচে থাকাটা খুব সুখের না। যদিও ক্ষমা করা বেশ কষ্টের ব্যাপার, তার চেয়েও কষ্টের বিষয় হচ্ছে মানুষকে ভুলভাবে চেনা। আর ক্ষমা করতে না পারলে কোনো একদিন স্মৃতির দাবানলে মৃত্যু হয় শেষে।

অনেক সময় দেখা যায় কেউ হয়ত কাউকে প্রতিশ্রুতি দিয়ে বসে আছেন। কিন্তু সেই মানুষটির প্রতি কোনো রকম আকর্ষণ অনুভবই করছে না। কিন্তু তাকে ছেড়ে দিতেও মন চাইছে না কেবলমাত্র একে ওপরের কাছে প্রতিশ্রুতি বদ্ধ থাকেন বলে। মানুষকে কাছ থেকে নয় বরং দূর থেকে দেখেই তাকে আমরা বিচার করতে থাকি। যার ফলে ভবিষ্যতে অনেক সময়ই বড় রকমের ধোকা খেতে হয়। সব সম্পর্ক সুন্দর সমাপ্তি হয় না। মাঝ পথে পথা আলাদা হয়ে গেলেই কেন ক্ষমাহীন হয়ে যেতে হবে। হিন্দি সিনেমা ‘ডিয়ার জিন্দেগী’তে কিছু সুন্দর এডভাইজ আছে। আমরা আসলে প্রেমিক-প্রেমিকার মধ্যে সব ভালোলাগার বিষয়গুলো একসাথে পেতে চাই। একটা চেয়ার পছন্দ করার আগে আমরা যেমন আরো দুই একটা চেয়ারে বসে কম্ফোর্টনেসটা যাচাই করে নিই। সম্পর্কের ক্ষেত্রেও তেমনটা করা বা হওয়া উচিত। অন্তহীন আমার আরেকটা প্রিয় সিনেমা। রাগ-ক্ষোভ-ঘৃণা নয়, বরং শর্মিলা ঠাকুর কি অসাধারণ মুগ্ধতা নিয়ে একজন স্বল্পপরিচিত মানুষকে সারাজীবন ভালোবেসেছেন। অথচ বেশিরভাব মানুষের কেবল চাই চাই ভাবনা।

নেতিবাচক ঘটনাকে পুংক্ষানুপুংক্ষভাবে মনে রাখার দারুন ক্ষমতা থাকে সবার। জীবনটাকে কেঁদে না ভাসিয়ে হেসে ঊড়িয়ে দেয়াই বোধহয় উত্তম। তাই চলুন বরং প্রার্থনা করি, ঈশ্বর আমাদেরকে শক্তি দিন এমন বিষয় মেনে নিতে, যা আমরা বদলাতে পারবো না। জালাল উদ্দিন রুমির একটা কোটেশন আছে, বৃক্ষের মতো হও, আর মরা পাতাগুলোকে ঝরে পড়তে দাও।

বি. দ্র. প্রাক্তনকে শুধু ক্ষমা করলেই চলবে না, এমনদিনে প্রয়োজনে প্রাক্তনের কাছেও ক্ষমা চেয়ে নিতে পারেন।

মন্তব্য ২৪ টি রেটিং +৬/-০

মন্তব্য (২৪) মন্তব্য লিখুন

১| ১৮ ই অক্টোবর, ২০২০ রাত ১:২৯

নেওয়াজ আলি বলেছেন: ফেসবুকে অনেক ছেলে প্রথম আলোর ছবি দিয়ে পোষ্ট দিয়েছে প্রাক্তনকৈ ক্ষমা করে

১৮ ই অক্টোবর, ২০২০ রাত ১:৪৮

নান্দনিক নন্দিনী বলেছেন: দেখছেন মেয়েরা কত স্মার্ট, তারা ভুলেই যায় প্রাক্তন বলে কেউ আছে।

২| ১৮ ই অক্টোবর, ২০২০ রাত ২:০৩

কালো যাদুকর বলেছেন: এরকম ধারনা এই প্রথম শুনলাম। একদিন হয়ত পরিবার প্রথা ও থাকবে না।

১৮ ই অক্টোবর, ২০২০ রাত ২:১৩

নান্দনিক নন্দিনী বলেছেন: প্রাক্তনকে ক্ষমা করে দেয়ার সাথে পরিবার প্রথা ভেঙে যাওয়া বা না থাকার সম্পর্ক কোথায়?

৩| ১৮ ই অক্টোবর, ২০২০ রাত ২:২৫

কালো যাদুকর বলেছেন: পশ্চিমে টলারেন্স ব্যাপারটা আছে। আমার কাছে মনে হয়েছে, প্রাক্তনকে ক্ষমা করাটাও টলারেন্সের মধ্যে পরে। পরিবার প্রথা ভাঙ্গবে বলিনি। পরিবার প্রথা প্রয়োজন হবে না বলেছি। পশ্চিমে টলারেন্স এত বেশী যে বেশীর ভাগ সম্পর্ক মেনে নেয়া হয়। সেজন্য পরিবার প্রথা (গতানুগতিক পরিবার) পরিবর্তন হচ্ছে। আমার কাছে তাই মনে হয়েছে সম্পর্ক আছে।

আমি প্রাক্তনকে ক্ষমা করার পক্ষ্যেই আসলে।

১৮ ই অক্টোবর, ২০২০ রাত ২:৩৯

নান্দনিক নন্দিনী বলেছেন: রাগ এমন একটা জিনিস যা মেটাতে পারলেই ভাল্লাগে। তাই ক্ষমার মতো উদারতা অনেকে দেখাতে চায় না।

৪| ১৮ ই অক্টোবর, ২০২০ ভোর ৬:৪৯

নুরুলইসলা০৬০৪ বলেছেন: ক্ষমার মতো উত্তম বিষয় আর নেই।

১৮ ই অক্টোবর, ২০২০ সকাল ১১:১৮

নান্দনিক নন্দিনী বলেছেন: ক্ষমাহীনতার সাথে আত্মার বিরোধ চিরকালের।

৫| ১৮ ই অক্টোবর, ২০২০ সকাল ৯:০০

নূর আলম হিরণ বলেছেন: কোনো কাজকাম না থাকলে এসব আজগুবি দিন রাত পালন করে মানুষ।

১৮ ই অক্টোবর, ২০২০ সকাল ১১:৫৮

নান্দনিক নন্দিনী বলেছেন: আজ বিশ্ব হাতধোয়া দিবস।
প্রাক্তনকে (যদি থাকে) ক্ষমা করেন আর না করেন; আজ অন্তত হাত ধুয়ে ফেলেন।

৬| ১৮ ই অক্টোবর, ২০২০ সকাল ১০:৪২

ইসিয়াক বলেছেন: ক্ষমা করে দিলেই কি সব স্মৃতি মুছে ফেলা যায়?তবে কেন স্মৃতি গুলো ফিরে আসে বারবার।তবুও ক্ষমা করে দেওয়াই উত্তম।থাকুক সে তার মতো ভালো থাকুক যেমনটি সে চেয়েছে।

১৮ ই অক্টোবর, ২০২০ সকাল ১১:২৬

নান্দনিক নন্দিনী বলেছেন: যাপনের জন্য যখন জীবনটাকে জমিয়ে রাখা যাচ্ছে না, তাই ক্ষমা করে সামনে এগিয়ে যাওয়াই মঙ্গলজনক।

৭| ১৮ ই অক্টোবর, ২০২০ সকাল ১০:৪২

পদ্ম পুকুর বলেছেন: আমাদের রক্ষণশীল সমাজে আগে প্রেম ভালোবাসাগুলোও রক্ষণশীল ছিলো, সম্পর্কগুলো মজবুত হতো। আলপটকা ভেঙে বা ছিড়ে যাওয়ার মত হতো না। এ কারণে যে অর্থে এখানে 'প্রাক্তন' বলা হচ্ছে, সেভাবে প্রাক্তন থাকতো না, ক্ষমার প্রশ্নও আসতো না। সে সময়ে পূর্ণতা না পাওয়া সম্পর্কগুলোতেও আজীবন ভালোবাসা থেকেই যেতো, রাগ নয়। তাই ক্ষমার বিষয়টাও বোধহয় ছিলো না। তবে হ্যাঁ, প্রাক্তন স্বামী বা স্ত্রীর ক্ষেত্রে হয়তো রাগের বিষয়টা আসতে পারে।

কিন্তু এখনকার জিএফ, বিএফ, এক্স এর যুগে সম্পর্কগুলো এতটাই দুর্বল হয় যে এখানে একাধিক প্রেম, একাধিক প্রাক্তন যেমন থাকে, তেমনি সেখানে ভালোবাসার সম্পর্কের চেয়ে রাগ-বিরাগ, চাওয়া-পাওয়া বেশি থাকে.... এখানে এ রকম আনুষ্ঠানিক ক্ষমাদিবস থাকতেই পারে!!! তাদের জন্য এটা প্রয়োজন।

সুশীল পাক্ষিক যায়যায়দিন এদেশে ভালোবাসা দিবস প্রচলন করে আনুষ্ঠানিকভাবে যে দ্বার উম্মুক্ত করে দিয়েছিলো, এখনকার সুশীল দৈনিক প্রথমআলো তারই দ্বিতীয় ধাপ তৈরী করতে চাচ্ছে হয়তো এ দিবসের মাধ্যমে।

একটা কথা ভাল্লাগলো- নেতিবাচক ঘটনাকে পুঙ্খানুপুঙ্খুভাবে মনে রাখার দারুণ ক্ষমতা থাকে সবার.....। এবং সেই ক্ষমতাকে কাজে লাগিয়ে কিছু অসুখকে পেলে পুষে সুখ পায় অনেকে।

১৮ ই অক্টোবর, ২০২০ দুপুর ১২:৩১

নান্দনিক নন্দিনী বলেছেন: গত ৩ অক্টোবর ছিল বিশ্ব প্রেমিক দিবস। ছাত্রদের প্রেমিক দিবসের শুভেচ্ছা জানিয়ে জানতে চাইলাম 'প্রেম কী'। বেশিরভাগ নিরুত্তর, কয়েকজন বললো দায়িত্ববোধ, গুটিকয়েক জানালো মায়া।

যে কোনো প্রশ্নের আমার নিজের একটা উত্তর থাকে। তো বললাম, আমার কাছে প্রেম হচ্ছে নির্দিষ্ট কারো পাশে কোনো কারণ ছাড়াই চুপচাপ বসে থাকার ব্যাকুলতা। স্বভাবতই এই টপিকের সম্পূরক প্রশ্ন আসে তাহলে ভালোবাসা কী। তো আমার উত্তরটা এমন, যার সাথে থাকলে আমার পূর্ণতাবোধ হয় (কমপ্লিট ফিলিং) সেটাই ভালোবাসা।

'দিল সে' আমার খুব প্রিয় একটা সিনেমা। প্রীতিজিনতা এবং শাহরুখের মেহেন্দি উৎসবে অতিথি মনীষা কৈরালা এসে দাঁড়ালে, মনীষার দিকে তাকানো শাহরুখের দৃষ্টির যে ব্যাকুলতা তার জন্য একটাই প্রশংসাসূচক শব্দ আমার ভান্ডারে আছে সেটা হলো 'অনবদ্য প্রেম'।

'মিস্টার এন্ড মিসেস আয়ার' সিনেমায় রাহুল বোস এবং কংকনা সেনশর্মার যে কমপ্লিট ফিলিং কিংবা 'অনুরণন' সিনেমাতে রাহুল বোস এবং রাইমা সেনের যে কমপ্লিট ফিলিং সেই পারস্পরিকতাবোধ (কমপ্যাটিলিটি) বড় দূর্লভ!

ভালোবাসার চেয়ে সুন্দর কিছু নেই (হোক সেটা ভালোবাসা দিবসকে কেন্দ্র করে) আর
ক্ষমার চেয়ে স্বস্তিবোধ আর কিছুতে নেই (হোক সেটা প্রাক্তনকে ক্ষমা করা দিবসকে কেন্দ্র করে)।

৮| ১৮ ই অক্টোবর, ২০২০ সকাল ১১:৪২

রাজীব নুর বলেছেন: ক্ষমা করে দেওয়া ভালো। কাউকে ক্ষমা করে দিলে মনে শান্তি পাওয়া যায়। আমি অতি সহজেই ক্ষমা করে দেই।

১৮ ই অক্টোবর, ২০২০ দুপুর ১২:৩৩

নান্দনিক নন্দিনী বলেছেন: ভালো

৯| ১৮ ই অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৩:৪৫

জনৈক অপদার্থ বলেছেন: ক্ষমা করে দিয়েছি অনেক আগেই। তবে নিজেকে এখনো ক্ষমা করতে পারিনি

১৮ ই অক্টোবর, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:১২

নান্দনিক নন্দিনী বলেছেন: চেষ্টা অব্যাহত থাকুক

১০| ১৯ শে অক্টোবর, ২০২০ রাত ২:৪৮

রাজীব নুর বলেছেন: সামু'ই ও আপনার লেখার হাতে খড়ি। তাই নয় কি?
দেশের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে কিছু লিখেন।

১৯ শে অক্টোবর, ২০২০ রাত ৩:০৮

নান্দনিক নন্দিনী বলেছেন: কী লিখবো, দেশের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে সবাই সবকিছু জানে। নতুন করে বলার কিছু নাই।

১১| ২০ শে অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৪:৪৭

পদ্ম পুকুর বলেছেন: প্রেম হচ্ছে নির্দিষ্ট কারো পাশে কোনো কারণ ছাড়াই চুপচাপ বসে থাকার ব্যাকুলতা। স্বভাবতই এই টপিকের সম্পূরক প্রশ্ন আসে তাহলে ভালোবাসা কী। তো আমার উত্তরটা এমন, যার সাথে থাকলে আমার পূর্ণতাবোধ হয় (কমপ্লিট ফিলিং) সেটাই ভালোবাসা।

খুব সুন্দর বলেছেন।

২০ শে অক্টোবর, ২০২০ রাত ৮:০৯

নান্দনিক নন্দিনী বলেছেন: ধন্যবাদ! অনেক অনেক ধন্যবাদ।

১২| ২১ শে অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৩:৩৩

সাহাদাত উদরাজী বলেছেন: অপরাধ বেশী হয়ে গেলে ক্ষমা করা যায় না! বেইমানী মেনে নেয়া যায় না! হা হা হা

২১ শে অক্টোবর, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:০৩

নান্দনিক নন্দিনী বলেছেন: ঘৃণাও একধরনের সম্পর্ক-ই বটে!

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.