নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

মরুভূমির জলদস্যু

মরুভূমির জলদস্যু

মরুভূমির জলদস্যুর বাগানে নিমন্ত্রণ আপনাকে।

মরুভূমির জলদস্যু › বিস্তারিত পোস্টঃ

পাক-পাখালি – ০৯

১৬ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ সকাল ১১:৪৬

সবুজ বাঁশপাতি



অন্যান্য ও আঞ্চলিক নাম : বাঁশপাতি, পত্রিঙ্গা, সুইচোরা, নরুন চোরা।
Common Name : Green Bee-eater
Binomial name : Merops Orientalis


সবুজ বাঁশপাতি বাংলাদেশের সহজ লভ্য একটি ছোট আকারের শিকারী পাখি। এই পাখি জলের ধারে বন-জঙ্গলে দলবদ্ধভাবে বসবাস করে। । ‘ট্রিউ ট্রিউ’ করে তীক্ষ্ম শব্দে ডাকে।




সবুজ বাঁশপাতির ইংরেজি নাম Green Bee-eater, তবে পোকামাকড় ধরে খেলেও এটি মূলত মৎস-শিকারী পাখি। ছোট ছোট মাছ ধরে এরা খায়। বিশেষ করে চাষের জমিতে যখন অল্প জল জমে সেখানে তাকা ছোট মাছ শিকার করে এরা দলবেঁধে।




সবুজ বাঁশপাতি লম্বায় প্রায় ৮ ইঞ্চির মতো হয়। এদের গড়ন ছিপছিপে । এদের গাত্রবর্ণ উজ্জ্বল সবুজ বলেই নাম হয়েছে “সবুজ বাঁশপাতি” । সবুজের মাঝে মস্তক ও পৃষ্ঠদেশের ঊর্ধাংশে সোনালি পালক রয়েছে এদের। ঠোট সুচালো ও কৃষ্ণবর্ণ এবং একটু বাঁকানো।





সবুজ বাঁশপাতির চোখের দুই পাশে 'কাজলরেখা' রয়েছে, যা ঘাড়ের সঙ্গে মিশে গেছে। পাখিটির চিবুক ও গলায় কাছে রয়েছে নীল ছটা আর গলার নিচে আছে মালার মতো কালো টান। সবুজ বাঁশপাতির লেজের মাঝ বরাবর দুটি পালক দুই ইঞ্চি পরিমাণ বর্ধিত। উজ্জ্বল সবুজ রং আর এই লেজের বর্ধিত পালকের কারণে খুব সহজেই এদের চেনা যায়।



পাখিরা সাধারণত গাছে তাদের বাসা বানায়, কিন্তু সবুজ বাঁশপাতি গাছে বাসা বাধতে জানে না। এরা নদীর কূলে বা খাড়া মাটির ঢালে গর্ত করে বাসা বানায়। গর্তের গভীরে স্ত্রী পাখিটি ধবধবে সাদা রংয়ের ৫ থেকে ৭টি ডিম পারে। স্ত্রী-পুরুষ দুজনেই ডিমে তা দেয়। ডিম থেকে বাচ্চা ফুটতে ২১ থেকে ২৭ দিন সময় লাগে।




ছবি তোলার স্থান : মশাখালী, গফরগাঁও, ময়মনসিংহ, বাংলাদেশ।
ছবি তোলার তারিখ : ২৫/১২/২০১৬ ইং


=================================================================
সিরিজের পুরনো পর্বগুলি দেখতে -
পাক-পাখালি - ০১
পাক-পাখালি - ০২
পাক-পাখালি - ০৩
পাক-পাখালি - ০৪
পাক-পাখালি - ০৫
পাক-পাখালি - ০৬
পাক-পাখালি - ০৭
পাক-পাখালি - ০৮

মন্তব্য ১৬ টি রেটিং +৩/-০

মন্তব্য (১৬) মন্তব্য লিখুন

১| ১৬ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ১২:৩০

আলমগীর সরকার লিটন বলেছেন: খুব সুন্দর---------------

১৬ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ১:১১

মরুভূমির জলদস্যু বলেছেন: ধন্যবাদ

২| ১৬ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ১:০২

শেরজা তপন বলেছেন: ছবি ও লেখায় ভাল লাগা

১৬ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ১:১১

মরুভূমির জলদস্যু বলেছেন: ধন্যবাদ আপনাকে ভালো লাগা জানানোর জন্য।

৩| ১৬ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ১:০৩

রাজীব নুর বলেছেন: ভাইজান আমি দুঃখিত ছবি গুলো চমৎকার হয়নি।
আপনার কাছে আপনি দূর্দান্ত ছবি আশা করি। ছবি গুলোর ফ্রেমিং ঠিক হয় নি। এছাড়া আরও কিছু সমস্যা আছে। সমস্যা গুলো আপনিই ধরতে পারবেন।

১৬ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ১:১৫

মরুভূমির জলদস্যু বলেছেন: আমি খুব ভালো ছবি তুলতে পারি তা কিন্তু না।
তাছাড়া পাখির ছবি তোলার মতো ভালো লেন্স আমার নেই। ছবি তুলে ক্রোপ করে নিয়েছি। ভালো লেন্স থাকলেও এর চেয়ে ভালো কিছু তোলা আমার পক্ষে সম্ভব হতো বলে মনে হয় না।
২টি ছাড়া বাকি গুলির ফ্রেমিং ঠিক আছে বলেই আমার মনে হয়।
অশেষ ধন্যবাদ আপনাকে চমৎকার মতামতের জন্য।

৪| ১৬ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ১:২৮

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: অনেক সুন্দর পাখির ছবি

অট: ফেইসবুকে কাইয়ুম খাজা নামে একজন ফটোগ্রাফার আমার দেখা এ যাবত কালের সেরা ফটোগ্রাফার এসব পাখির ছবি তিনি যে নিখুত ভাবে তোলেন মাশাআল্লাহ। অথচ তারও ক্যানন ক্যামেরা, আমি পারি না পাখির ছবি তুলতে । আপনি কি চিনেন ভাইয়া উনাকে?

১৬ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ১:৩৬

মরুভূমির জলদস্যু বলেছেন: চিনি কিনা ঠিক বলতে পারবো না। না চেনার সম্ভবনাই বেশী।
পাখির ভালো ছবি তোলার জন্য ভালো একটা ক্যামেরা অবশ্যই দরকার। কিন্তু যতভালো ক্যামেরই থাক দূরপাল্লার ভালো মানের একটা ল্যান্স না থাকলে কখনোই পাখির ভালো ছবি তুলতে পারবেন না। আমার লেন্স নাই। এগুলি সব ক্রোপ করা ছবি। ফলে পাখির ডিটেইল্স দেখতে পাবেন না। যেমন চোখ। ছবিগুলি যদি ক্রোপ করা না হতো বা কম ক্রোপ করা হতো তাহলে পাখির চোখগুলি চকচকে হতো।

৫| ১৬ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ১:৩৫

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: পুচ্ছ ও ঠোট অতি সুচারু। অনেকটা মিগ বিমানের মতো।

১৬ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ১:৩৬

মরুভূমির জলদস্যু বলেছেন: ওরা উড়েও মিগের মতোই।

৬| ১৬ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ২:০০

নেওয়াজ আলি বলেছেন: আপনি সত্যই প্রকৃতি প্রেমিক

১৬ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ২:০৯

মরুভূমির জলদস্যু বলেছেন: হে, তা বলতে পারেন।

৭| ১৭ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ বিকাল ৫:০০

মা.হাসান বলেছেন: খুব সুন্দর ছবি। রাজীব নুর ওনার তোলা ছবি দিলে তুলনা করতে পারতাম ওনারটা কত ভালো । পাখি খুব একটা চিনি না। প্রথমটা দেখে মনে হলো টিয়া, পরেরটা মাছরাঙা :( মুরগি, কাক, হাস (বাড়িতে যেটা পালা হয়), ময়ুর এগুলো মনে হয় ভুল করবো না, বাকি গুলো নিয়ে সমস্যা।

১৭ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ বিকাল ৫:৩২

মরুভূমির জলদস্যু বলেছেন: আমিও পাখি বেশী চিনি না। কমন পাখিগুলি চিনি, বাকি গুলিকে........
ধন্যবাদ মন্তব্যের জন্য।

৮| ১৭ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ রাত ১১:১৫

ঢুকিচেপা বলেছেন: পাখিগুলোকে খুব সুন্দর লাগছে।

১৭ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ রাত ১১:১৭

মরুভূমির জলদস্যু বলেছেন: পাখিগুলি আসলেই খুব সুন্দর। তবে আকারে বেশ ছোট।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.