নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সত্যের অন্বেষণে আছি, কিন্তু পথ খুঁজে পাচ্ছি না! আমি সেই অজ্ঞ মানব!

রাফিন জয়

সত্যের অন্বেষণে আছি, কিন্তু পথ খুঁজে পাচ্ছি না! আমি সেই অজ্ঞ মানব!

রাফিন জয় › বিস্তারিত পোস্টঃ

**"নারী বিদ্বেষী নজরুলের ফাঁসি চাই।"**

২৪ শে জুন, ২০১৮ সকাল ১১:৫৪


বিদ্রোহী কবি কাজি নজরুল ইসলাম একবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কোন একটি সেমিনারে এসেছিলেন অতিথি হিসেবে। সেখানে মঞ্চে বসেই তিনি দুটো গান লিখেন ও সুর করেন। তার এই প্রতিভার প্রতি মুগ্ধ হয়ে এক তরুণী নিজের গলার স্বর্ণালঙ্কার খুলে তাকে উপহার করে। সাথে প্রেম নিবেদনও করে। নজরুল ইসলামও তার প্রস্তাব গ্রহণ করে। সেই থেকে তার ঢাকা আসা যাওয়া শুরু হয়। তার প্রেমও জমে ওঠে।
কিন্তু একটা সময় তার প্রণয়ী বুঝতে সক্ষম হয়, লেখা দিয়ে বিদ্রোহের আগুন জ্বেলে দেয়া যায় বটে, পেটের ক্ষুধার অনল নেভানো যায় না। তিনি নজরুলের চাইতে অধিক বিত্তশালী কাউকে বিয়ে করে নেয়। নজরুল এই ধাক্কার পরে ব্যক্তিকেন্দ্রিক হয়ে পুরো নারী সমাজকে বিচার করে বসে। অবশ্যই তা ক্ষোভ থেকে। তার ক্ষোভের প্রকাশ ঘটে 'পূজারিণী' কবিতায়। সে একটা জায়গায় লিখে,
"নারী নাহি হ’তে চায় শুধু একা কারো,
এরা দেবী, এরা লোভী, যত পূজা পায় এরা চায় তত আরো!
ইহাদের অতিলোভী মন
একজনে তৃপ্ত নয়, এক পেয়ে সুখী নয়,
যাচে বহু জন।"
পূজারিণী কবিতা প্রকাশের পরে ভারত বর্ষের প্রগতিশীল লোকেরা প্রতিক্রিয়াশীল হয়ে শ্লোগান তোলে রাজপথে, "নারী বিদ্বেষী নজরুলের ফাঁসি চাই।" মোটা মোটি পশ্চিম বঙ্গের প্রগতিশীল জনতা রাজপথ কাঁপিয়ে ছেড়ে ছিল। নজরুলও নিজের ভুল বুঝতে পারে। সে অনেক ভাবার পরে এই সিদ্ধান্তেই উপনীত হয় যে, সে ব্যক্তিকেন্দ্রিক বিচার করেছে। তাই পরে তিনি নারী কবিতাটিতে লেখে,
"বিশ্বে যা কিছু মহান সৃষ্টি চির-কল্যাণকর
অর্ধেক তার করিয়াছে নারী অর্ধেক তার নর।"

মন্তব্য ২৭ টি রেটিং +৫/-০

মন্তব্য (২৭) মন্তব্য লিখুন

১| ২৪ শে জুন, ২০১৮ দুপুর ১২:২১

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: জানতাম না তো।

২| ২৪ শে জুন, ২০১৮ দুপুর ১২:২১

খায়রুল আহসান বলেছেন: প্রথমটা ব্যক্তি বিশেষে ঠিক আছে, পরেরটা সার্বজনীনভাবে।

২৪ শে জুন, ২০১৮ দুপুর ১২:২২

রাফিন জয় বলেছেন: সহমত

৩| ২৪ শে জুন, ২০১৮ দুপুর ১২:৩৬

শায়মা বলেছেন: হা হা তাইলে প্রথম কবিতাটি সেই বিশেষ নারীর ক্ষেত্রে প্রযোজ্য বলে দিলেই হত....

কবি তা লিখতেই পারে ..... সবাই কি আর সবার কাছে সমান হয়!!!


তবে পরের কবিতাটি কালজয়ী মানে আমাদের জন্য আমরা তাই খুশি.....


ঐ মেয়েকে নিয়ে যা ইচ্ছা তাই লিখুক..... :P

তবে আমি হলেও যতই কবিকে ভালোবাসি না কেনো... বিয়ে করতে যেতাম না.... ... কবিতা দিয়ে প্রেম চলে বিবাহ নহে....

বুদ্ধিমতী নারী ..... তাকে স্যালুট! :)

২৪ শে জুন, ২০১৮ দুপুর ১২:৫৪

রাফিন জয় বলেছেন: তবে আমি হলেও যতই কবিকে ভালোবাসি না কেনো... বিয়ে করতে যেতাম না.... ... কবিতা দিয়ে প্রেম চলে বিবাহ নহে....[/si

এক বালতি ক্ষোভ প্রকাশ করছি!

৪| ২৪ শে জুন, ২০১৮ দুপুর ১২:৫২

মোছাব্বিরুল হক বলেছেন:
জানা ছিল না।

৫| ২৪ শে জুন, ২০১৮ দুপুর ১২:৫৩

ওবায়দুল হক বলেছেন: @শায়মা ..... সব কবির তাহলে মরণ হোক। বিয়ের পর স্বামী যদি শুধু টাকা দেয় কিন্তু সুখ দিতে না পারে তখন তো অন্য প্রেমিক খুজতে হবে। নজরুল ঠিকই বলেছেন।

নারী অতি লোভী

৬| ২৪ শে জুন, ২০১৮ দুপুর ১২:৫৪

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: যদি বহুজন যাচে তাহলে তো খারাপ ।একজন নারীকে বলেছে। সব নারী কে বলে নি। এটা যে কোন নারী কে জানে? মন্দ কে মন্দ বলা মন্দ নয়। আর কলকাতার একদল কবি তার বিরুদ্ধে লেগেই ছিল।
নজরুল চেতনার কবি। তাকে শ্রদ্ধা জানাই।
শেষের যে দুই চরণ তা হলো অনবদ্য। কবিরা মানুষ ভুলের উর্ধ্বে নয়।
ভালো থাকুন। :)

৭| ২৪ শে জুন, ২০১৮ দুপুর ১:০৪

শায়মা বলেছেন: হা হা ক্ষোভ প্রকাশ করো আমি সত্য প্রকাশ করেছি......

সত্য তো একটু তিতাই হবে আর তাতে ক্ষোভই আসবে... এ আর ভুল কি!!!!!!!! :P



( ওবায়দুল হক বলেছেন: @শায়মা ..... সব কবির তাহলে মরণ হোক। বিয়ের পর স্বামী যদি শুধু টাকা দেয় কিন্তু সুখ দিতে না পারে তখন তো অন্য প্রেমিক খুজতে হবে। নজরুল ঠিকই বলেছেন।

নারী অতি লোভী )

সুখ তুমি কি বড় জানতে ইচ্ছে করে ..... রুনা লায়লার বড় গুরুত্বপূর্ণ মনুষ্য চরিত্র বা মনোজগতের রহস্যময় জটিলতান্ত্রিক প্রশ্নবোধক সঙ্গীতের প্রথম লাইন......

সুখের সংজ্ঞা কি তাহা যেমন আজ পর্যন্ত এই জগতে স্পেসিফিকালী আবিষ্কৃত হয় নাই ঠিক তেমনি ভালোবাসার সংজ্ঞাও বিশ্বকবি রবিঠাকুর হতে রুনা লায়লাও দিতে পারে নাই.....

কাজেই এই সুখ এবং ভালোবাসা সংজ্ঞা বা জগতে এর বিরাজমানতা বড়ই সাংঘর্ষিক ও জটিলতাময় রহস্যাবৃত....

কবি সুখ দেবেন আর একজন টাকাওয়ালা অর্থবান মানুষ তাহা দিতে অপারগ একথাও তাই যেমনই হাস্যকর তেমনি কবির কবিতা ধুয়ে পানি খেয়ে ভালোবাসাদের জানালা দিয়ে পাখি হয়ে উড়ে যেতে দিয়ে প্রেমিকা ও কবি প্রেমিকের দুজনের জীবন ও প্রেমকেও করলাময় করে তোলার কি অর্থ তাহা আমার জানা নাহি।

তোমার জানা থাকিলে বলিও ভাইয়ামনি!!!!!

তাই কবি যাহাই বলুক ..... বুদ্ধিমতী নারীরা ভুল করিবেক না .... ভুল করে মরুক গর্ধবের দল ... বোকা নারী এবং নরেরা! : :P

৮| ২৪ শে জুন, ২০১৮ দুপুর ১:০৮

কামরুননাহার কলি বলেছেন: জানতাম না তো এই কথাটি আগে। তবে ব্যক্তিগত ভাবে রবি ঠাকুরের থেকে আমি নজরুল কে বেশি পছন্দ করি। কিন্তু তিনি যদি এটা বলেই থাকেন তাহলে তিনি ভুল বলেছেন। এবং মেয়েটাকেও তিনি ভুল বুজছেন। কেনো না মেয়েটার ভালো তো মেয়েটাকে দেখতেই হবে। যেমন টা কবিও কিন্তু একদিন ঠিক তিনি তার ভালোটাই নিয়ে ভেবেছিলো। ভালোবেসে বিয়ে করেছিলেন নার্গিসকে, বিয়ের রাতেই পালিয়েছে কবি নিজের ভালোর জন্য। সেখানে মেয়েটা নিজের ভালো টা দেখবে না কেনো বলুন তো?

ওবায়দুল হক বলেছেন তিনি বলেছেন নারী অতি লোভী এই কথাটি কেনো আরও একটু বাড়ালেন না। নর-নারী অতী লোভী। নর যদি নারীকে টাকার অর্থাৎ যৌতুকের জন্য পিটাটে পারে তাহলে নারী কেনো টাকাওয়ালা ছেলেকে বিয়ে করবে না। নারী কি টাকা বিহীন ছেলেকে বিয়ে করে যৌতুকের জন্য বসে বসে মার খাবে। তাই নারীর সুখের জন্য নারী টাকাওয়ালা ছেলেকেই বিয়ে করবে ।

৯| ২৪ শে জুন, ২০১৮ দুপুর ১:১৮

কাওসার চৌধুরী বলেছেন: আপনি একটি জায়গায় লিখেছেন, "সে একটি জায়গায় লেখে"
আরেক জায়গায় লিখেছেন, "সে অনেক ভাবনার পর এই সিদ্ধান্তে উপনীত হয় যে, সে ব্যক্তিকেন্দ্রিক বিচার করেছে; তাই পরে সে নারী কবিতাটি লেখ।"

এই 'সে' শব্দটির পরিবর্তে 'তিনি' লেখলে হয়তো কমেন্ট করতাম না। প্রথমে বলে রাখি, কবি নজরুলের পূজারিনী কবিতাটি আমার পছন্দের কোন কবিতা নয়। কবি কেন কবিতাটি লেখেছেন, অথবা কাউকে উদ্দেশ্য করে কবিতাটি লেখেছেন কিনা তা আমার জানার বিষয় নয়। কিন্তু এত বড় মাপের একজন কবিকে তুচ্ছ তাচ্ছিল্য করার স্পর্ধা আমার নেই, কিংবা থাকাটা উচিৎ নয়।

আপনি কবিকে নিয়ে যে ভাষায় সমালোচনা করলেন, তা রীতিমত অভদ্রতা। পৃথিবীতে কোন মানুষ সমালোচনার উর্ধ্বে নয়। বাংলাদেশের বিখ্যাত মানুষদেরও কেউ সমালোচনার উর্ধ্বে নয়। তবে এসব গুণীজনদের সম্বন্ধে সমালোচনা করার আগে উনাদেরকে নিয়ে দীর্ঘদিন স্টাডি করতে হয়; আর ভদ্রভাবে সমালোচনা করতে হয়।

তবে আপনি নজরুল গবেষণায় কয়েক দশক থেকে নিজেকে নিয়োজিত করেছেন কিনা জানা নেই; না হলে আগে উনাকে চেনার জন্য আজ থেকেই গবেষণাটি শুরু করুন। এতে আপনার জ্ঞান ভান্ডার সমৃদ্ধ হবে নিশ্চিত।

যে দেশে গুণীজনের কদর কম হয়, সে দেশে গুনীজনের জন্মও কম হয়। (ধন্যবাদ)

২৪ শে জুন, ২০১৮ বিকাল ৩:৩১

রাফিন জয় বলেছেন: প্রথমেই দুঃখ প্রকাশ করছি। আসলে আমি নজরুলের অনেক বড় ভক্ত। অমন কিছু মিন করিনি। তাকে আমি সম্মান করি। আমি এখনি লাইনটা ঠিক করছি

১০| ২৪ শে জুন, ২০১৮ দুপুর ১:৩১

মোঃ খুরশীদ আলম বলেছেন: কমেন্টার ২ এর সাথে একমত।
সবাই সুখে থাক, যার যা নিয়ে।
আপনার তথ্যসমৃদ্ধ লেখাটি ভাল লাগল।

১১| ২৪ শে জুন, ২০১৮ দুপুর ২:১৫

কাইকর বলেছেন: জানা হলো। সুন্দর পোস্ট +

১২| ২৪ শে জুন, ২০১৮ দুপুর ২:২২

আবু তালেব শেখ বলেছেন: মিথ্যা কিছু বলেন নি তো কবি। আসলে ওনার সত্যবাদিতা, ন্যায় নিষ্ঠা, দেশপ্রেম,,,, যতই আপনারা ডুবাতে চেষ্টা করেন কোন লাভ হবে না।

১৩| ২৪ শে জুন, ২০১৮ দুপুর ২:২২

লাবণ্য ২ বলেছেন: জানা ছিল না।

১৪| ২৪ শে জুন, ২০১৮ দুপুর ২:৫৯

শায়মা বলেছেন: কামরুন নাহার কলির কমেন্টে ++++ :)


হা হা হা এত তো ভাবিনি...... নারী অতি লোভী তাইলে যৌতুকপ্রেমী ভায়েরা অতি অতি দাঁতাল এনিমেল... :P

২৬ শে জুন, ২০১৮ সকাল ১১:৩৫

রাফিন জয় বলেছেন: শায়মাপা, আপনার ঝগড়া আমার খুব ভালো লাগে।

১৫| ২৪ শে জুন, ২০১৮ বিকাল ৩:২৯

ঋতো আহমেদ বলেছেন: কাজী নজরুল ইসলাম শুধু কবি বা বিদ্রোহী কবিই নন, তিনি আমাদের জাতীয় কবি। উনার সম্পর্কে কিছু লিখতে হলে ভালো করে জেনে বুঝে তারপর লিখুন। উনার উপর গবেষণাধর্মী বেশ কিছু ব‌ই আছে। ওগুলো সংগ্রহ করে পড়ুন।

বিচ্ছিন্ন ঘটনায় অযথা সূত্র স্থাপন করে কাহিনী বানাবেন না। প্রতিটি ঘটনার তথ্য উপাত্ত ও সূত্র উল্লেখ করে লিখুন।

৯ নং মন্তব্যটি ভালো করে পড়ুন ও বোঝার চেষ্টা করুন। কাজী নজরুল ইসলাম সম্পর্কে সন্মান সূচক সর্বনাম ব‍্যবহার করুন।

ধন্যবাদ

২৪ শে জুন, ২০১৮ বিকাল ৩:৩৬

রাফিন জয় বলেছেন: ধন্যবাদ দাদা

১৬| ২৪ শে জুন, ২০১৮ বিকাল ৪:৫২

পদ্ম পুকুর বলেছেন: নজরুলের অনেক কিছুই 'ইন্সট্যান্ট' ছিলো। যেমন বলা হয়, শিল্পী আব্বাসউদ্দিন একবার কবির কাছে আসলেন- উদ্দেশ্য, একটা গান না নিয়ে আজ যাবেনই না। কিন্তু নজরুল অন্য কিছু নিয়ে ব্যস্ত ছিলেন। আব্বাসউদ্দিনও বসে রয়েছেন। এরই ভেতরে নামাজের সময় হয়ে গেলে আব্বাসউদ্দিন কবিকে বললেন- একটা জায়নামাজের ব্যবস্থা হবে কি না। কবি নজরুল শিল্পীকে একটা জায়নামাজ এনে দিলে আব্বাসউদ্দিন নামাজে দাড়ালেন। এদিকে নামাজ শেষ হওয়ার আগেই নজরুল লিখে ফেললেন বিখ্যাত গান- হে নামাজী আমার ঘরে নামাজ পড় আজ.....

আবার ঢাকার নওয়াবের আঁকা একটা নৌকার ছবি কোন গ্রাউন্ডে ছাঁপবেন, এ রকম একটা উৎকন্ঠার মধ্যে নজরুল তাৎক্ষণিকভাবে লিখে দেন বিখ্যাত কবিতা 'খেয়াপাড়ের তরণী'। নজরুল তো এমনই।

আমাদের দুর্ভাগ্য যে আমরা এ রকম একজন কবিকে ঠিকমত অনুধাবন করতে পারলাম না।

২৬ শে জুন, ২০১৮ সকাল ১১:৩৬

রাফিন জয় বলেছেন: নজরুল গবেষণামূলক একটা বই পড়েছিলাম। সেখানে একটা লাইন এমন ছিল যে, নজরুলের পিছে তাকানো হয়ে উঠেনি।

১৭| ২৪ শে জুন, ২০১৮ বিকাল ৪:৫৪

রাজীব নুর বলেছেন: কাজী নজরুল ইসলামকে নিয়ে আমি ১০০ পর্বের ধারাবাহিক একটা লেখা লিখব।

২৬ শে জুন, ২০১৮ সকাল ১১:৩৫

রাফিন জয় বলেছেন: উক্কে

১৮| ২৪ শে জুন, ২০১৮ বিকাল ৫:১০

সিগন্যাস বলেছেন: কবিতাটা ক্লাস নাইনে পড়েছিলাম।এখন তার শানেনজুল জানলাম

১৯| ২৪ শে জুন, ২০১৮ বিকাল ৫:৪৫

চাঁদগাজী বলেছেন:


নজরুল ইসলামও একজন সাধারণ মানুষ ছিলেন, উনার ভাবনা ও প্রকাশ ক্রমে উনাকে কবিতে পরিণত করেছে।

২০| ২৪ শে জুন, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৪১

নিশি মানব বলেছেন: নজরুলের প্রথম কবিতাগুলো দুনিয়ার সব নারীর জন্য।আর শেষের কবিতাগুলো শুধুমাত্র মহিয়সী নারীদের জন্য :-B

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.