নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

চুপচাপ, অসামাজিক মানুষ। পেশায় জীববিজ্ঞানী। আর লেখালাখিটা নেশা (কিংবা লুকানোর জায়গা)। বাস দূরের গ্রহে। অথচ মন পড়ে থাকে ফুলার রোড, টিএসসি আর কার্জন হলে। সেখানেই জন্ম, বড় হওয়া আর পড়াশোনার সিংহভাগ। ছোট একটা ছেলে আছে। হাবাগোবা মায়ের একেবারে উল্টোটা। এই তো।

রিম সাবরিনা জাহান সরকার

ভিনদেশী শহর ঘেরা স্ফটিকের দেয়াল// আটকে পড়া আমার হাজারো খেয়াল...।

রিম সাবরিনা জাহান সরকার › বিস্তারিত পোস্টঃ

বউপ্রীতি

০৮ ই জুন, ২০১৮ দুপুর ১:০৩



তখন আমি মাত্র মাস্টার্সের পাট চুকিয়ে ফেলেছি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড বায়োটেকনোলজি নামের এক খটোমটো বিষয়ের হাত থেকে মুক্তি পেয়ে আমি তখন খাঁচা ছাড়া পাখি। মুশকিল হচ্ছে, বহুদিন বন্দী থাকার পরে খাঁচা খুলে দিলেও গাধা টাইপ পাখিটা ঠিকই খাঁচার চারপাশ ঘুরঘুর করতে থাকে। একই কারণে আমি ক্যাম্পাসের আশে পাশে ঘুরঘুর করে বেড়াচ্ছি। পড়াশোনার বাইরের এক্সট্রা কারিকুলার ব্যাপারে বরাবরই আমার ভীষন আগ্রহ। সেই আগ্রহ আর টিএসসিতে বেলা-অবেলায় ঘুরে বেড়ানোর অজুহাতে আপাতত বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিউক অফ এডিনবার্গ এ্যাওয়ার্ড প্রোগ্রামের অধীনে ক্যাম্পাসের ডে কেয়ার সেন্টারে স্বেচ্ছাসেবকের কাজ করছি। এখানে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বাচ্চাকাচ্চারা থাকে। নাম ছায়ানীড়। ছোটবেলায় আমি নিজেও এই ছায়ানীড়ে ছিলাম। জীবনের একটা আনন্দঘন সময় কেটেছে এখানে। আজকে মজার ঘটনা ঘটেছে। নিলয়ের বয়স তিন কি সাড়ে তিন। তার বেজায় মন খারাপ। অনেক চাপাচাপি করেও কারণ উদ্ঘাটন করা গেল না। তখন বাঙ্গালীর ছেলের উপর শেষ অস্ত্র হিসেবে চিরাচরিত চালাকিটা করতেই হলো।
বলা হল “নিলয়, বিয়ে করবে?”।
সাথে সাথে নিলয়ের অন্ধকার মুখ ষাট ওয়াটের বাল্বের মত জ্বলে উঠলো। “হ্যাঁ”।
তখন জানতে চাওয়া হল, “বিয়ে যে করবে, বউ আনবে কোত্থেকে?”
এমনিতেই তার জীবনের সবচেয়ে বড় খায়েশ আজকের এই দুর্বল মুহূর্তে ধরা পড়ে গেছে- এই লজ্জাতেই সে বাঁচে না। তার উপর বউ যোগাড় করার গুরুদায়িত্বও ঘাড়ে এসে পড়ল। প্রায় শোনা যায় না এমন অনুচ্চ স্বরে ভীষণ লাজুক ভঙ্গিতে সে বলল, “নিউমার্কেট থেকে কিনে আনব।”
যিনি প্রশ্ন করছেন, তিনি এতক্ষণে মজা পেয়ে গেছেন। খুঁটিয়ে খুটিয়ে জানতে চাইলেন, “ওরা তো তোমাকে এমনি এমনি বউ দিয়ে দিবে না। কি করবে তাহলে?”
“আমি টাকা দিব তো ওদেরকে। দেড়শ টাকায় একটা বউ হবে না?”
এইখানে জাহানারা আন্টি আর হেসে বাঁচেন না। আন্টি ছায়ানীড়ের একজন শিক্ষক। যাইহোক, নিলয় খুব অপ্রস্তুত হয়ে দাঁড়িয়ে আছে। দেড়শ টাকা দিয়ে বউ কিনতে চাওয়ার ভেতর সে কোন অসংগতি খুঁজে পাচ্ছে না। তার ভাবভঙ্গি দেখে মনে হচ্ছে দামটা সে অনেক বাড়িয়েই বলেছে। আন্টি কোনরকমে হাসি চেপে আবারো জিজ্ঞেস করলেন, “খালি বউ কিনলেই হবে? বউয়ের জন্যে গয়না কিনতে হবে না?”
উত্তরদাতা একটু ভেবে উত্তর দিলো, “আম্মুর কাছে থেকে তাহলে তো দেড়শ’র চেয়ে আরেকটু বেশি নিতে হবে। আচ্ছা আমি কালকে টাকা নিয়ে আসব। টিচার তুমি আমার সাথে বউ কিনতে নিউমার্কেটে যেও কিন্তু।” এই বলে নিলয় খুব ফুরফুরে মন নিয়ে লেগো সেট দিয়ে খেলতে বসে গেল। ওদিকে আর আমরা বড়রা হেসে কুটিকুটি।

ঘটনা এখানেই শেষ না। একটু পর কয়েকজন মিলে হাড়িপাতিল খেলছে। নিলয়ও আছে তাদের সাথে। অনেকগুলি মেয়ের ভেতর সে আর অতুল ছেলে। তাদেরকে তাই বাজারে পাঠিয়ে দেয়া হল পোলাওয়ের চাল আর মুরগী আনতে। আমি খুব আগ্রহ নিয়ে তাদের কর্মকান্ড দেখছি। নিলয় বাজার এনেই কই যেন দৌড় দিল। আমি খপ করে হাত ধরে জিজ্ঞেস করলাম, কই যাও? “ছাড়ো, ছাড়ো, আপিসে যাই, আমাকে গয়নাগাটি কিনতে হবে তো।” আমি হতভম্ব। এই এক ফোঁটা ছেলের অন্তরাত্মা এখন বউ নামক এক মহার্ঘ বস্তুর চিন্তায় আচ্ছন্ন। শুধু মায়ের উপর তার বিশেষ ভরসা নাই। তার কাছে যদি টাকা না পাওয়া যায়? এই ভয় থেকে এখন সে আফিস করে কামাই রোজগার করবে বলে ঠিক করেছে। বউ কেনা কি সহজ কথা! পুরো ব্যাপারটাকে সে খুব সিরিয়াসলি নিয়ে নিয়েছে। আমি তার হাত ছেড়ে দিলাম। এই আনুবীক্ষনিক মানবের সুগভীর বউপ্রীতিতে আমি মুগ্ধ। কিন্তু কালকে যদি সে সত্যি সত্যি বউ কিনতে নিউমার্কেটে যেতে চায়, তো মুশকিলে পরে যাব। তখন ভগ্নহৃদয় ক্ষুদে বরের কান্নাকাটি কি দিয়ে থামাবো তাই ভাবছি।

- ড. রিম সাবরিনা জাহান সরকার: মিউনিখ, জার্মানী

মন্তব্য ২৭ টি রেটিং +২/-০

মন্তব্য (২৭) মন্তব্য লিখুন

১| ০৮ ই জুন, ২০১৮ দুপুর ১:২৪

কাওসার চৌধুরী বলেছেন: লেখাটি ভাল লেগেছ। শুভ কামনা আপনার জন্য।

০৮ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৫:০২

রিম সাবরিনা জাহান সরকার বলেছেন: আপনার মূল্যবান মন্তব্যের জন্যে অনেক ধন্যবাদ।

২| ০৮ ই জুন, ২০১৮ দুপুর ১:৩৫

লাবণ্য ২ বলেছেন: চমৎকার!

০৮ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৫:০৩

রিম সাবরিনা জাহান সরকার বলেছেন: ধন্যবাদ সময় নিয়ে পড়েছেন বলে।

৩| ০৮ ই জুন, ২০১৮ দুপুর ১:৩৫

রাখালছেলে বলেছেন: আপনি কে বলেন তো !আপনার লেখা আমার কাছে খুব পরিচিত মনে হচ্ছে !

০৮ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৫:০৬

রিম সাবরিনা জাহান সরকার বলেছেন: আমি খুবি সাধারণ একজন। অতি ব্যস্ততায় লেখালিখি ভুলতে বসেছিলাম। এখন সে অহেতুক ব্যস্ততার ডালপালা ছেঁটে আবার বেরিয়ে আসতে চাইছি।

৪| ০৮ ই জুন, ২০১৮ দুপুর ২:৩১

মোঃ খুরশীদ আলম বলেছেন: এমন একটা বয়সে আমিও বউ জামাই খেলেছিলাম। আমার তখনকার বউটা হয়তো অন্যকারো বউ। আপনার লেখা পড়ে শিশু বয়সে হারিয়ে গেলাম কিছু সময়ের জন্য। অনেক ভাল লাগল আপনার লেখা।

০৮ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৫:০৬

রিম সাবরিনা জাহান সরকার বলেছেন: খুব ভালো লাগল আপনার মজার মন্তব্যটা। দোয়া করবেন।

৫| ০৮ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৩:০৯

ঋতো আহমেদ বলেছেন: সুন্দর এবং মজার গল্প।

০৮ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৫:০৭

রিম সাবরিনা জাহান সরকার বলেছেন: আপনাকেও ধন্যবাদ সুন্দর মন্তব্যের জন্যে।

৬| ০৮ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৩:২৩

পদ্ম পুকুর বলেছেন: এমনিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সংযোগ আছে দেখলেই আলাদা একটা আত্মীয়তা বোধ হয়, সেই টান থেকেই ঢুকলাম লেখায়। ভাবলাম নতুন, কিন্তু প্রোফাইলে ঢুকে দেখি আট বছর পার করে দিয়েছেন। নয় বছরে নয়টা পোস্ট দিলে আর চোখে পড়বে কিভাবে!
কিন্তু আপনার লেখাতো বেশ সাবলীল, ঝরঝরে, তাহলে এত কম লেখেন কেন? আপনিওতো টুম্পাখানের মত 'অপরাধী' হয়ে যাবেন।

স্ট্যাডিজে পড়তো, শামসুননাহারে থাকতো আমার এক ফ্রেন্ড ফারহানা জাহান রলি, জার্মানির একটা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ছেএখন। বাই এনি চান্স, যোগাযোগ আছে নাকি?

০৮ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৫:১২

রিম সাবরিনা জাহান সরকার বলেছেন: এক অদ্ভূত আড়ষ্টতা আর ভুতুড়ে ব্যস্ততায় মাঝের অনেক বছর ঘাপটি দিয়ে ছিলাম। এ লেখাটাও আগের। পরিমার্জন করে ছাপালাম। আস্তে আস্তে আবার গর্ত থেকে বেরিয়ে আসছি। আপনার বান্ধবীর খোঁজ নিয়ে জানাবো।

৭| ০৮ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৩:৪১

চাঁদগাজী বলেছেন:


পোষ্ট ভালো লেগেছে

০৮ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৫:১৩

রিম সাবরিনা জাহান সরকার বলেছেন: ভালো লেগেছে জেনে আমারো ভালো লাগছে। উৎসাহ পেলাম।

৮| ০৮ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৩:৫৭

বাবুরাম সাপুড়ে১ বলেছেন: আগে নিলয়রা মেলা থেকে বউ কেনার বায়না ধরত , এখন নিউ মার্কেট থেকে ! এই যা পার্থক্য। .....দাদা পায়ে পড়ি রে মেলা থেকে বউ এনে দে.......তুই দাদা বউকে লিয়ে সুখে করিস ঘর। ......!
বেশ লিখেছেন।

০৮ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৫:১৪

রিম সাবরিনা জাহান সরকার বলেছেন: হা হা, , আপনার মন্তব্যটাও তো বেশ সরেস। মজা লাগল সাপুড়ে ভাই।

৯| ০৮ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৪:১৭

অর্থনীতিবিদ বলেছেন: সুন্দর হয়েছে।

০৮ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৫:১৫

রিম সাবরিনা জাহান সরকার বলেছেন: পড়েছেন জেনে কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।

১০| ০৮ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৪:২৭

বিজন রয় বলেছেন: আপনি তো উত্তর দেন না মন্তব্যের।
কোন সমস্যা?

০৮ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৪:৩৭

রিম সাবরিনা জাহান সরকার বলেছেন: কাজের চাপে একটু হাত বাঁধা। তাই চাইলেই উত্তর দিতে পারি না। নিজ গুনে ক্ষমা করবেন। আজই সবার মন্তব্যের উত্তর দেবো ইনশাল্লাহ।

০৮ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৫:১৭

রিম সাবরিনা জাহান সরকার বলেছেন: তাড়া খেয়ে সবার মন্তব্যের দ্রুত উত্তর দিলাম। এরকম তাগাদা দেবার জন্যে ধন্যবাদ।

১১| ০৮ ই জুন, ২০১৮ বিকাল ৫:৩৩

বিজন রয় বলেছেন: হা হা হা ..... আরে না, এমন কিছু না।

তবে আমি মনে করি সুন্দর ব্লগিং এর জন্য পারস্পারিক যোগাযোগটা জরুরী।

আপনি তো দেশের বাইরে থাকেন, তাইনা?
ব্লগে নিয়মিত থাকুন।

শুভকামনা রইল

০৮ ই জুন, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:২৪

রিম সাবরিনা জাহান সরকার বলেছেন: জী, ধন্যবাদ। এদিকটা খেয়ালে রাখব। ঠিক, দেশের বাইরে আছি। কিন্তু মানসিকভাবে ঢাকায় থাকি সবসময়।

১২| ০৮ ই জুন, ২০১৮ রাত ৮:৫৪

রাজীব নুর বলেছেন: সহজ সরল সুন্দর একটি পোষ্ট।
আপনি তো ভালো লিখেন। তাহলে নিয়মিত ব্লগে আপনার লেখা পাই না কেন?

১০ ই জুন, ২০১৮ দুপুর ১:৪৮

রিম সাবরিনা জাহান সরকার বলেছেন: কাজের চাপ, শিশুপালন আর সংকোচ ডিঙ্গিয়ে লিখতে বসা খুব দূরহ ঠেকে।

১৩| ০৮ ই জুন, ২০১৮ রাত ৯:৩৯

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: আপনার লেখা পড়‌তে খুবই আরাম লা‌গে। লেখায় গ‌তি আ‌ছে।

১০ ই জুন, ২০১৮ দুপুর ১:৪৯

রিম সাবরিনা জাহান সরকার বলেছেন: আমি চেষ্টা করবো আরো লিখতে। দোয়া করবেন।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.