নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

ছিলাম বইয়ের পোকা, এখন ইন্টারনেটের ।

সাদা মনের মানুষ

বিশ্ব জোড়া পাঠশালা মোর সবার আমি ছাত্র --নানা ভাবে নতুন জিনিস শিখছি দিবা রাত্র 'মুর্খরা সব শোন, মানুষ এনেছে গ্রন্থ, গ্রন্থ আনেনি মানুষ কোন'

সাদা মনের মানুষ › বিস্তারিত পোস্টঃ

পদ্মবিল

৩০ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ রাত ৮:৪৮


ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর থেকে ৩৫ কিলোমিটার দূরে আখাউড়া উপজেলার ত্রিপুরা সীমান্তবর্তী মিনারকোট পদ্মবিল। টিভির খবরটা দেখেই কয়েকজন বন্ধু নিয়ে ছুটে গিয়েছিলাম পদ্মবিল দেখতে। প্রত্যন্ত অঞ্চল হলেও ওখানটায় গাড়ি নিয়ে যাওয়ার মতো ভালোই রাস্তা রয়েছে দেখে চমৎকৃত হয়েছিলাম আমরা। শাপলা ফুলদের মতো অবাধ বিচরণ সারাদেশে পদ্মফুলদের নেই বলে ওদের প্রতি আকর্ষণটা আমাদের অন্যরকম। আগে আমি পদ্মফুলদের দেখার জন্য মাঝে মাঝে ঢাকার বোটানিক্যাল গার্ডেনে চলে যেতাম।

মিনারকোটের পদ্মফুলদের সৌন্দর্য ছুয়ে দেখার জন্য ভাড়ার ডিঙ্গি নৌকায় চড়ে পুরো বিল ঘুরে বেড়ানোর সুযোগ রয়েছে। ভোরের শিশিরগুলো পদ্মের পাতায় টলোমলো আর পদ্মের ফাঁকে পানকৌড়িদের ডুব সাতার খেলা দেখে একটা দিন ওখানে কাটিয়ে দেওয়া যায় অনায়াসেই। মিনারকোটের স্থানীয় মানুষগুলো ও বেশ হাসিখুশি আর হেল্পফুল। আসুন এবার দেখে নেই মিনারকোট পদ্মবিল দেখার ছবিব্লগ।


(২) পদ্মবিলে যাওয়ার পথে আখাউড়ার প্রত্যন্ত এলাকার আকাশটা ছিলো শরতের আকাশ। যদিও শরৎ আসতে একদিন বাকী ছিলো।


(৩) এক সময় আমরা পৌছে গেলাম আমাদের কাঙ্খিত মিনারকোটের পদ্মবিলে।


(৪) ছোট ডিঙ্গিগুলোর মাঝি আরো ছোট ছোট। আমরা নিজেরা যদি ডিঙ্গি চালিয়ে পদ্মবিল ঘুরে দেখি তাহলে ওদের দিতে হবে ২০০ টাকা, আর এমন ছোট এক জোড়া মাঝি সমেত ২৫০ টাকা। আমরা ২৫০ টাকায়ই ছিলাম।


(৫) ফিঙেটা বিলের উপর উড়াউড়ি করে পোকা মাকড় খেয়ে ক্ষণে ক্ষণেই এসে বসছিল বিলের উপড় দাঁড়িয়ে থাকা কিছু গাছে।


(৬/৭) পদ্মরা কেউ সর্বাঙ্গ খুলে কেউবা কিছুটা ঘোমটার ভেতর থেকেই যেন আমাদের সু-স্বাগতম জানাচ্ছিল।



(৮) সংখ্যায় কম হলেও শালুক ফুলেরাও অভ্যর্থনায় পিছিয়ে ছিলো না।


(৯/১০) স্থানীয়দের অনেক কাজ কর্ম চলে এই পদ্ম বিলের উপর দিয়াই।



(১১) বিলের ভেতরে ডুব সাতারে ক্লান্ত পানকৌড়িটা জিড়িয়ে নিচ্ছে কিছুটা সময়।


(১২/১৩) ফুল শেষে পদ্মের ফলের ভেতরের বিচিটাও কিন্তু বেশ মজাদার খাবার।



(১৪/১৫) বিলের ভেতরে পর্যটকবাহী ডিঙ্গিগুলোর চলাচলও কিন্তু অন্য রকম একটা চমৎকারিত্ব সৃষ্টি করে।



(১৬) ক্যালেন্ডারে পাতায় শরতের একদিন বাকী থাকলেও বিলের পাশের কাশফুলেরা তাদের রূপ দেখাতে কার্পণ্য করেনি।


(১৭) পদ্ম আর কাশফুলদের সাথে পাল্লা দিতেই যেনো লজ্জাবতীর ফুলেরাও হেসে উঠেছিলো সেখানে।


(১৮) বিলের এক প্রান্তে ধর্ম জাল দিয়ে ছোট মাছ ধরছে স্থানীয়রা।


(১৯) নানা রঙের ফড়িংদের ব্যাপক আড্ডাবাজি এই পদ্মবিল এলাকায়।


(২০) দর্শনার্থীরা ওখান থেকে প্রচুর পদ্মফুল তুলে নিয়ে আসছে, এটা পরবর্তি দর্শনার্থীদের জন্য অশনি সংকেত।

মন্তব্য ৪৪ টি রেটিং +৫/-০

মন্তব্য (৪৪) মন্তব্য লিখুন

১| ৩০ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ রাত ৮:৫৩

জাহিদ হাসান বলেছেন:

৩০ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ রাত ৮:৫৮

সাদা মনের মানুষ বলেছেন:

২| ৩০ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ রাত ৯:১১

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন: কামাল ভাই, অনেক অনেক শুভকামনা জানবেন।

এমন প্রাণবন্ত ছবি দিয়ে আপনি বরাবরের মতো আমাদের মন জয় করে বসে আছেন। আশাকরি ভ্রমণটি ছবির মতোই প্রজ্জ্বল হয়েছে।
কাশবন আমার কাছে ভালো লাগে, বড্ড ইচ্ছে হয় পবিত্র ধর্মগ্রন্থ নিয়ে সেখানকার বাতাসের গলায় পড়িয়ে তার মালা। (...)
এমন জায়গায় নৌকা ভ্রমণ আসলেই অত্যন্ত আনন্দের।
ধর্মজালকে আমাদের এলাকায় বলে সিটকি জাল। আমার সৌভাগ্য হয়েছে কিছুদিন পূর্বে একদা রাত্রির অর্ধাংশ তাকে নিয়ে কাটানোর। খুব যে বেশি মাছ শিকার করেছি সে রাত্রে তা না, তবে আন্দোলিত হয়েছি খুব।
সবশেষ ছবিটির বাস্তব রূপ আসলেই খারাপ কাজ। তাদের উচিত এমনটি না করা। আশাকরি আপনি তাদেরকে বুঝিয়ে বলেছেন।

৩০ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ রাত ৯:২৭

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: ধন্যবাদ তাজুল ভাই, করোনার পর ইদানিং মনটা খুবই উড়ু উড়ু করছে। কিন্তু সামনের দিন গুলো কেমন কাটবে সেটা নিয়েও শংকার শেষ নাই। স্থানীয় লোকদের আমরা বুঝিয়ে বলে এসেছিলাম সব পর্যটকদের যেনো বুঝিয়ে বলে ফুলগুলো না ছেড়ার জন্য।

৩| ৩০ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ রাত ৯:১৬

প্রামানিক বলেছেন: অনেক দিন পর এমন পোষ্ট চোখে পড়ল। আপনে কিরাম আছেন?

৩০ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ রাত ৯:২৮

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: অনেক ভালো আছি ভাই, আপনি কেমন আছেন? আপনাকে নিয়ে কোথাও একটু ঘুরতে চাই খুব তাড়াতাড়িই। আপনিই দিন তারিখ আর লোকেশন ঠিক করে ফেলুন।

৪| ৩০ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ রাত ৯:৩৮

ইলি বলেছেন: খুবি সুন্দর, ধন্যবাদ।

০১ লা অক্টোবর, ২০২০ সকাল ৭:৪৭

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: ধন্যবাদ ইলি, আপনাকেও আন্তরিক শুভেচ্ছা

৫| ৩০ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ রাত ৯:৪০

শাহ আজিজ বলেছেন: পদ্ম ফুলের আকার বেশ বড় । ভাল দর্শনীয় জায়গা ।

০১ লা অক্টোবর, ২০২০ সকাল ৭:৫৮

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: ধন্যবাদ আজিজ ভাই, আমি বলি বানহলাদেশের সব যায়গাই দর্শনীয়, তবে এখানে বিশেষ কিছু রয়েছে বলে এর আকর্ষণটা একটু বেশীই।

৬| ৩০ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ রাত ১০:০৫

নূর মোহাম্মদ নূরু বলেছেন:
বহুদিন পরে কামাল ভাইকে দেখে প্রীত হলাম
আজ প্রামানিক ভাইও এসেছেন। আপনাদের
উভয়কেই শুভেচ্ছা। করোনাতেও কি ঘোরাঘুরি
চলছে আগের মতো?

০১ লা অক্টোবর, ২০২০ সকাল ৮:০০

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: করোনায় জীবন যুদ্ধের গতি প্রকৃতি সব ঘুরিয়ে দিয়েছে, তাইতো এখন আর আগের মতো ঘোরাফেরার সময়টা খুব বেশী পাওয়া যায় না, তাছাড়া করোনা থেকে নিরাপদ থাকার বিষয়টা তো রয়েছেই, আপনি কেমন আছেন নূরু ভাই?

৭| ৩০ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ রাত ১০:১৩

নেওয়াজ আলি বলেছেন: অসাধারণ 

০১ লা অক্টোবর, ২০২০ সকাল ৮:০২

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: হুমম, ধন্যবাদ

৮| ৩০ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ রাত ১০:৪৬

রাজীব নুর বলেছেন: আপনার সাথে ট্যুরে যেতে মন চায়।

০১ লা অক্টোবর, ২০২০ সকাল ৭:৫০

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: আমারও ইচ্ছে কোন একদিন আপনার কাছ থেকে ফটোগ্রাফি শিখে নেই

৯| ৩০ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ রাত ১১:০১

মনিরা সুলতানা বলেছেন: বাহ ! অনেক সুন্দর ।

০১ লা অক্টোবর, ২০২০ সকাল ৭:৫৫

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: হুমম, সত্যিই সুন্দর আপু, তাছাড়া এলাকাও বেশ নির্জন.........ধন্যবাদ আপু, ভালো থাকুন সব সময়।

১০| ০১ লা অক্টোবর, ২০২০ ভোর ৬:২৭

এম ডি মুসা বলেছেন: ফুল ফুটিতে ছবি দেখে অনেক ভালো লাগছে।

০১ লা অক্টোবর, ২০২০ সকাল ৭:৫৭

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: ফুটন্ত ফুল কিংবা অর্ধ ফোটা ফুল সবই আমার কাছে ভালো লাগে মুসা ভাই, ধন্যবাদ।

১১| ০১ লা অক্টোবর, ২০২০ সকাল ৭:৪৫

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: অশনি সংকেত বলছেন কেন? আমি ওখানে গেলে তো আমার বিবির জন্য সব ফুল ছিঁড়ে নিয়ে আসতাম।

০১ লা অক্টোবর, ২০২০ সকাল ৭:৫০

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: এতো ফুল ছিড়ে না এনে ভাবীকে ওখানে রেখে আসাটাই কি সহজ নয়? :D

১২| ০১ লা অক্টোবর, ২০২০ সকাল ৭:৪৭

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: এতদিন পর পোস্ট দেওয়ার কারণে আপনার এক হাজার কোটি টাকা জরিমানা করা হলো।

০১ লা অক্টোবর, ২০২০ সকাল ৭:৫১

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: টাকা নিতে আপনার বাড়িতে চলে আসবো, কখন আসবো সেটা বলেন?

১৩| ০১ লা অক্টোবর, ২০২০ সকাল ৭:৪৮

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: পাখির নাম পানকৌড়ি কেন? সে কি পান খায়?

০১ লা অক্টোবর, ২০২০ সকাল ৭:৫৩

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: পাখিটা অনেক দূরে ছিলো বলে ওকে জিজ্ঞসেস করার সুযোগ পাইনি, আপনি থাকলে হয়তো কাছাকাছি যাওয়ার চেষ্টাটা করতাম B-)

১৪| ০১ লা অক্টোবর, ২০২০ সকাল ৭:৫৪

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: ৪ নং ছবি। পোলাপানগুলারে বহুত ঠকাইছেন আমনেরা। আরও দুইশ টাকা দেওয়া উচিৎ ছিল। আমি হইলে তো এক হাজার টাকার একখান নোট পুরাই দিয়া দিতাম। আমি খুব দিলদরিয়া মানুষ, বুঝছেন?

০১ লা অক্টোবর, ২০২০ সকাল ৮:০২

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: আসলেই ঠকানো হয়েছে, এখন মনে হচ্ছে ওদের আর কিছুটা বেশীই দেওয়া উচিৎ ছিলো।

১৫| ০১ লা অক্টোবর, ২০২০ সকাল ৭:৫৭

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: হে হে হে! আপনার ভাবীরে ওখানে রাইখা আসলে ভালোই হইত। আর একটা বিয়া করার সুযোগ পাইতাম।

০১ লা অক্টোবর, ২০২০ সকাল ৮:০৩

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: ভীমরতি বয়সে বুইড়া =p~ =p~ =p~ =p~

১৬| ০১ লা অক্টোবর, ২০২০ সকাল ৯:৫৬

আলমগীর সরকার লিটন বলেছেন: খুব সুন্দর কামাল দা

০১ লা অক্টোবর, ২০২০ দুপুর ১২:৩৮

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: ধন্যবাদ লিটন ভাই, শুভ কামনা সব সময়।

১৭| ০১ লা অক্টোবর, ২০২০ সকাল ১০:৩৩

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: খুব সুন্দর

০১ লা অক্টোবর, ২০২০ দুপুর ১২:৪২

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: শুভ কামনা জানবেন আপু।

১৮| ০১ লা অক্টোবর, ২০২০ সকাল ১০:৩৪

নতুন নকিব বলেছেন:


কামাল ভাই, ছবি ক্যাপশন সবগুলোই অসাধারণ হয়েছে। তবে সবকিছু ছাপিয়ে পোস্ট পাঠের আনন্দটাকে অনেক গুণে বাড়িয়ে দিয়েছে হেনা ভাইয়ের সাথে আপনার মজাদার মন্তব্য এবং প্রতিমন্তব্যগুলো। ছবি সবগুলোই ভালো লেগেছে। নিচের কয়টি বেশি ভালো-













০১ লা অক্টোবর, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:৩২

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: ধন্যবাদ নকিব ভাই, এমন চমৎকার প্রকৃতির সনে হারিয়ে যেতে সব সময় ইচ্ছে করে আমার.........শুভ কামনা জানবেন।

কানে কানে বলি হেনা ভাই লুকটা বেশী বালানা, তয় আমি ওনারে খুবই লাইক্করি B-)

১৯| ০১ লা অক্টোবর, ২০২০ সকাল ১০:৪৭

জুন বলেছেন: আপনার দেয়া পদ্মফুলের বিল দেখে মুগ্ধ হোলাম এই সকালে। দেখলেই মনে হয় কি নিস্পাপ মুখ।
টাংগুয়ার হাওড়ে যাবার সময় মনে হয় তাহিরপুর হবে জায়গাটার নাম। কি বিশাল পদ্মবিল। তার রূপে মুগ্ধ আমি সিএনজি চালককে অনুরোধ করেছিলাম থামার জন্য। ঐদিকে ট্রলার অপেক্ষা করছিল তাই নামা হয় নি। চালক আমাকে স্বান্তনা দিয়েছিল ফিরে যাবার সময় থামবে। কিন্তু ফেরার সময় সব পদ্মই ঘুমিয়ে পরেছিল। আজও আমার আফসোস রয়ে গেছে।
+

০১ লা অক্টোবর, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:৩৫

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: ধন্যবাদ আপু, এমন মন খারাপ করা সময় আমারও বেশ কয়েকটি আছে। তাহিরপুরে বেশ কয়েকবার যাওয়া হয়েছে, ওখানের পদ্মবিলের ঠিকানাটা জানিনা। শুভ কামনা জানবেন।

২০| ০১ লা অক্টোবর, ২০২০ দুপুর ১:০৬

রাজীব নুর বলেছেন: লেখক বলেছেন: আমারও ইচ্ছে কোন একদিন আপনার কাছ থেকে ফটোগ্রাফি শিখে নেই

ফটোগ্রাফির আমি কিছুই জানি না। সামান্য জানতাম তাও ভুলে গেছি।

০১ লা অক্টোবর, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:৩৬

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: বলেন কি ফটোগ্রাফি, ড্রাইভিং এসব তো ভোলার কোন সুযোগ নেই, নাকি আমাকে শেখাবেন না বলে বলছেন রাজিব ভাই?

২১| ০১ লা অক্টোবর, ২০২০ দুপুর ২:২৬

দেশ প্রেমিক বাঙালী বলেছেন: চমৎকার চমৎকার যতসব ছবি। ভালো লাগলো।

০১ লা অক্টোবর, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:৩৭

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: ধন্যবাদ বাঙালী, এমন প্রকৃতির সানে আমারও খুবই ভালো লাগে.........শুভ কামনা সব সময়।

২২| ০১ লা অক্টোবর, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:৫১

মা.হাসান বলেছেন: মনমুগ্ধকর ছবি আর লোভনীয় পোস্ট। একটা-দুটা পদ্ম দেখেছি, কিন্তু বিল ভরা হাজার হাজার পদ্ম দেখা হয় নি, বা এরকম যে আছে তা ধারণাতেও ছিলো না।

এক নম্বর ছবিতেতো দেখি আপনার চেয়ে পদ্মফুলই আকারে বড়!

হেনা ভাইকে সাথে নিলে মাঝির চার্জ পঞ্চাশ টাকা বেঁচে যেতো, একটা বিয়ের দাওয়াতও পাইতে পারতেন B-)) । পরের বার ওনাকে বাদ দেবেন না কিন্তু।

++

২৩| ০২ রা অক্টোবর, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:০৯

ইসিয়াক বলেছেন: খুব সুন্দর

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.