নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

দীপ ছিলো, শিখা ছিলো, শুধু তুমি ছিলেনা বলে...

শায়মা

দিয়ে গেনু বসন্তেরও এই গানখানি বরষ ফুরায়ে যাবে ভুলে যাবে, ভুলে যাবে,ভুলে যাবে জানি...তবু তো ফাল্গুন রাতে, এ গানের বেদনাতে,আঁখি তব ছলো ছলো , সেই বহু মানি...

শায়মা › বিস্তারিত পোস্টঃ

আনন্দ রে আনন্দ, তুই কোথায় থাকিস বল...

১৭ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:২৮


আনন্দ রে আনন্দ, তুই কোথায় থাকিস বল।
তুই কি ভোরে ফুলের বুকে শিশির টলমল??
তুই কি সারা দুপুর জুড়ে খাঁ খাঁ রোদের খেলা?
নাকি সবুজ ঘাসের বুকে প্রজাপতির মেলা?
মাঝে মাঝেই আমি যখন আনন্দে ভাসি তখন আমার আহসান হাবীবের লেখা এই কবিতার এই লাইনগুলি মনে পড়ে। আর এই মনে পড়ার কারণ আমার আনন্দ কই থেকে আসে, কেনো আসে, কিভাবে আসে আমি তা প্রায়ই ঠিকঠাক বুঝে উঠতে পারি না। শুনেছি ডোপামাইন আর সেরাটোনিন এই দুই হরমোনের খেলায় নাকি মানুষের মস্তিস্কে আনন্দ বেদনার সৃষ্টি হয়। মাঝে মাঝে আমার সন্দেহ হয় আমার মাঝে এই সেরাটোনিন নিশ্চয়ই মাঝে মাঝেই বেড়ে যায় নইলে অকারনেই এত আনন্দ আসে কেনো আমার মাঝে হঠাৎ হঠাৎ? :P
যাইহোক বলছিলাম আনন্দ নিয়ে। আসলেই তো আনন্দ মানে কি?
একবার আমার এক আত্মীয়ার বিষন্নতা রোগ হলো। তাকে ডক্টর দিলেন সেরাটোনিন ওয়ালা এক মেডিসিন। সেই তখন থেকেই জানা হল সেরাটোনিন বিষন্ন মানুষকে আসন্ন ওপস স্যরি আনন্দিত করে। তারপর সেই রোগীর তো আরও ভয়াবহ অবস্থা। যেই মানুষ মুখ গোমড়া করে পড়ে থাকতো ঘরের কোনে সারাদিন সেই মানুষটাই অকারণে হে হে করে হাসে। খুশিতে এইদিকে দৌড়ায়, ঐ দিকে লাফায়। তার লাফ ঝাঁপ ডিগবাজী দেখে তো তাড়াতাড়ি তার সেরাটোনিন মেডিসিন বন করে দেওয়া হলো। কিন্তু হ্যাঁ তার সেরাটোনিনের প্রভাব দেখে সেই প্রভাব পড়লো গিয়ে আমার উপর। হা হা হা মানে তার পাগলামী আনন্দ দেখে আমার পাগলামী আনন্দ বহুগুন বেড়ে গেলো। আমি তো হাসতে হাসতেই শেষ। সেরাটোনিন মেডিসিন ছাড়াই। B:-)

যাইহোক আমি অনেক ভেবে দেখেছি এবং খুঁজে বের করেছি আমার মাথায় আসলেও বুঝি সেরাটোনিন একটু বেশিই আছে। নইলে কারণে অকারনে আমার আনন্দ আসবে কেনো? যেমন দুনিয়ায় কত শত গল্প নাটক নভেল আছে এবং তার মাঝে যে সব পড়েওছি আমি তবুও সবার মাঝে আমার সবচেয়ে মজাদার বইটাই যা এই জীবনে পঞ্চাশ ষাটবার পড়েছি সেটাই হাস্যরসের শিবরাম রচনা সমগ্র হবে কেনো?
শিবরাম রচনা সমগ্র
ওহ ডোপামাইনও নাকি আনন্দের এক বিশাল কারণ। এই ডোপামাইনের কার্য্যকলাপ পড়তে গিয়ে তো আমি একদম আমার আনন্দের উৎস খুঁজে পেলাম। ডোপামাইন বা ডোপামিন নাকি আমাদের সার্বিক মুড বা মনের ভাবকে নিয়ন্ত্রণ করে। আবেগ বা উত্তেজনায় আমরা কিভাবে সাড়া দেব, তাও ডোপামিন নিয়ন্ত্রণ করে। ডোপামিনকে নাকি ফিলিং গুড হরমোনও বলা হয়।
যে কাজে পুরস্কার লাভের সম্ভাবনা আছে সেই কাজ করার প্রেরণা যোগায় ডোপামিন। আরে এত দেখছি একেবারেই আমি। ছোট থেকেই আমাকে এই করতে হবে সেই করতে হবে। এই প্রেরনা তাহলে ডোপামিনই যোগালো!!!!! আচ্ছা! :) :) :)
আরও দেখি ডোপামিনের প্রভাবে কি কি হয় আমাদের মাঝে। ডোপামিন এর প্রভাবে একটি তাৎপর্যপূর্ণ কাজ যেমন ভালো পরীক্ষা দেওয়া, বিশেষ কোনো কাজ আয়ত্ত করা যেমন সাইকেল, গাড়ি, নৌকা ( নৌকাটা অবশ্য শেখা হয়নি) চালানো বা সাঁতার শেখার মত কাজ করে আমরা তৃপ্তির আস্বাদ পাই। আরো ভালো করে কাজ করার প্রেরণা পাই। ঠিক ঠিক নৌকা চালানোটা খুব তাড়াতাড়ি শিখে ফেলতে হবে। কারন আমার মধ্যে ডোপামিন আছে। :)

ডোপামিনেরই অনুপ্রেরণায় আমরা নাকি ঝুঁকিপূর্ণ কাজে নিজেকে নিযুক্ত করতে পারি। এর মধ্যে পড়ে স্কিইং, স্কাই ডাইভিং, সি সার্ফিং,প্যারা গ্লাইডিঙ,রিভার রাফটিং,মাউন্টেনিয়ারিং বা স্কুবা ডাইভিং এর মত এডভেঞ্চারাস স্পোর্টস। :( :( :( হায় হায় এইসব শুনে তো আবার আমার সন্দেহ হচ্ছে। :( :( :( যাকগে সব কিছু ডোপামিন আমাকে দিয়ে করাতে পারবে নাকি! ফুহ!

যাইহোক আবারও বলছি আমার আনন্দ নিয়ে। এই দুনিয়ায় কত শত অস্কার পাওয়া ম্যুভি হয়, কত কি হয় তবুও আমার পছন্দ কেনো সবচাইতে বেশি মিঃ বিন ? থ্রী স্টুজেস? ডোনাল্ড ডাক কার্টুন বা টম এ্যান্ড জেরী?? হুম!! সবই ডোপামিন, সেরোটোনিন এর খেলা। খুব বুঝা হয়েছে আমার!!!!
মিঃ বিন
যাইহোক আবারও বলি আমার আনন্দের কথা। কত শত নাচই তো দেখি, কত শত নাচই তো নাচি। তবুও কেনো ঐ নাচটাই সবচেয়ে পছন্দের? ঐ যে ঐ যে মম চিত্তে নিতি নৃত্যে কে যে নাচে তা তা থই থই তা তা থই থই তা তা থই থই .....
তাই তো আমি মাঝে মাঝে ক্লাস ট্লাস ফেলে আমার বাচ্চাদেরকে নিয়ে নেচে উঠি -
Don't think about it
Just move your body

Don't think about it
যাক নাচ গান গল্প, সিনেমা অনেক আনন্দ নিয়ে কথা হলো এইবার আসি গোমড়ামুখো দুঃখী মানব মানবীরা কেমনে হাস্যমুখী হতে পারে সেই বুদ্ধিটা নিয়ে। অঞ্জন দত্তের একটা গান আছে।
ভেংচি কেটে দেখ, লেংচে হেঁটে দেখ......
একটা ডিগবাজী পাচ্ছে হাসি খেক......

ভেংচি কেটে দেখ, লেংচে হেঁটে দেখ
হা হা হা খুবই পাগলাটে গানা হলেও কথা কিন্তু সত্য। সকল গোমড়ামুখো ভাইয়া আপুনিরা তোমরা যদি নিজেদের মাঝে আনন্দের হরমোন সেরাটোনিন ডোপামিন বাড়াতে চাও তো এখুনি আয়নায় দাঁড়িয়ে পড়ো। ভেংচি কাঁটো, লেংচে হাঁটো বা একটা ডিগবাজী খেয়ে দেখো আমি হলফ করে বলতে পারি আনন্দ বা হাসি পাবেই পাবে এবং খুশ হয়ে যাবেই যাবে। হা হা হা

শুনলাম এক মেয়ে অলিভিয়া তার নাম তার নাকি দুঃখ বেদনা, যন্ত্রনা কিছুই নেই। নেই খানাদানা নেই ঘুম তাই নাকি সে রোবট মানবী কিংবা এলিয়েন। বাপরে এটা কি জিনিস জানিনা আমি।

শেষে একটা মজার কথা বলি-
কিছুদিন যাবৎ পেঁয়াজ পেঁয়াজ করে মানুষজন নিজেরাই পেঁয়াজীবড়া হয়ে পড়েছেন। আমি অবশ্য পেঁয়াজ রসুন তেল নুনের খবরে আমার মূল্যবান সময় নষ্ট করি না। কিন্তু সবার এত পেঁয়াজ পেঁয়াজ দুঃখ দেখে আমি ঘোষনা দিলাম আমরা এখন থেকে আর পেঁয়াজই খাবো না।
শুধু শুধু দুঃখ পাবার আমি বান্দা না। পেঁয়াজ না খেলে কি কেউ মরে যায়? মোটেও না কখনও না। হু হু সেরাটোনিন ডোপামিনের আনন্দে ভাসা মানুষ আমি। এই জীবনে কেউ দুঃখ দিতে পারলো না আর দেবে কিনা ঐ ফেসফেসে পেঁয়াজ!!!!!!! কাভি নাহি!!!!!!!!

কাজেই বসে বসে বের করে ফেললাম কিছু নিউ স্টাইল মজাদার রেসিপি। আর তারপর আনন্দে ভাসলাম আবারও- :) :) :)
আমার নিউ স্টাইল কিছু খানা খাদ্য রেসিপি-
১। চিকেন পেঁয়াজাড়িয়া-( পেঁয়াজ+এড়িয়া বা এভোয়েডিয়া)
গরম মসলা সব রকম,হলুদ মরিচ গুড়া, লবন আর পানি দিয়ে মুরগী টুকরা সিদ্ধ করে নিতে হবে। তেলে কাঁচা মরিচ ফালি দিয়ে ভেঁজে নিতে হবে। তাতে আদা রসুন বাটা মসলা দিয়ে নাড়তে হবে। কিছু টোমাটো টুকরা দিতে হবে। জিরা ধনে গোল মরিচের গুড়া দিতে হবে।
সিদ্ধ মুরগীর টুকরো গুলো দিয়ে নাড়তে হবে। একটু পানি দেওয়া যেতে পারে। পানি শুকিয়ে নিয়ে হাল্কা বা বেশি ঝোল যা ইচ্ছে তাই রাখা যাবে। হয়ে গেলো মজাদার চিকেন পেঁয়াজাড়িয়া বা পেঁয়াজ+এড়িয়া বা এভোয়েডিয়া। :)
চিকেন পেঁয়াজাড়িয়া

২। চিকেন পেঁয়াজাছাড়িয়া (পেঁয়াজ+ ছাড়িয়া)
তেল কড়াতে দিয়ে গরম হলে মাংসগুলো ছেড়ে দিতে হবে। নেড়ে চেড়ে কিছুটা ভেঁজে নিয়ে তুলে নিতে হবে। সেই তেলে টোমাটো পেস্ট, মরিচ বাটা দিতে হবে। জিরা ধনে, লবন, হলুদ গুড়া দিতে হবে। গরম মসলা দিয়ে নেড়ে চেড়ে ঢেকে দিতে হবে। এবার চিকেন টুকরোগুলো দিয়ে নেড়ে চেড়ে নিতে হবে। একটু পানি দিয়ে ঢেকে দিতে হবে। হয়ে গেলো মজাদার চিকেন পেয়াজাছাড়িয়া। উপরে কাঁচামরিচ দিয়ে সাজিয়ে দেওয়া যায়।
চিকেন পেঁয়াজাছাড়িয়া

৩। মাখনি মাখন চিকেন পেয়াজাহীনা (পেঁয়াজ+ হীনা)
চিকেন টুকরো, আদা বাটা, রসুন বাটা মরিচ গুড়া লবন দিয়ে মাখিয়ে রাখতে হবে। ১৫ মিনিট পরে হাল্কা তেলে ভেঁজে নিতে হবে।
অল্প তেলে টোমেটো, আদা রসুন, লবন দিয়ে ভাঁজতে হবে একটু পানি দিতে হবে। ২ টেবিল চামচ ভিনেগার দিতে হবে। অল্প একটু চিনি, গরম মসলা পাউডার, একটু মরিচ গুড়া নেড়ে চেড়ে নিতে হবে ১৫ মিনিট। নরম হয়ে আসলে চুলা বন্ধ করে দিয়ে ভালো করে ঘুটে ছেঁকে নেওয়া যায় বা ব্লেন্ড করা যাবে। এই ব্লেন্ডটার মধ্যে মাখন আর ভাঁজা চিকেনগুলো দিয়ে কিছু গুড়া মেথি দিয়ে নাড়তে হবে। মেথি গুড়া আর ক্রিম দিয়ে পরিবেশন করা যায়।
মাখনি মাখন চিকেন পেয়াজাহীনা
শুধু কি চিকেন? ফিসও রেঁধেছি আনন্দ নিয়ে। :) :) :)

দূরদূর পেঁয়াজা মাছের কালিয়া
রুই বা কাতলা টুকরো হলুদ লবনে মেখে নিতে হবে। চুলায় সরিষার তেল দিয়ে মাছগুলো ভেঁজে নিতে হবে। আলু টুকরো করে কেটে ভেঁজে নিতে হবে। কাঁচা জিরা, তেজপাতা, শুকনা মরিচ, দারচিনি এলাচ গরম তেলেনেড়ে নিয়ে টোমাটো টুকরা দিতে হবে। আদা রসুন বাটা, মরিচ গুড়া, হলুদ লবন, নেড়ে একটু পানি দিয়ে কষিয়ে প্রথমে আলু এবং আলু সিদ্ধ হয়ে আসলে মাছের টুকরোগুলো ছেড়ে দিতে হবে। ঝোল কষে আসলে গরম মসলা জিরা গুড়া ও একটু ঘি ছড়িয়ে দিতে হবে। এই মজার দূর দূর পেঁয়াজা রুই কালিয়া খেলে আর কেউ ভুলবেই না।
দূরদূর পেঁয়াজা মাছের কালিয়া
ভাগ যা পেঁয়াজ ইলিশ সরিষা/ ভাপা ইলিশ/ইলিশ পাতুরী ( ইলিশে তো পেঁয়াজের চৌদ্দ গুষ্ঠিরও কোনোই প্রয়োজন নেই) :) :) :)
পেঁয়াজাবিহীন সব্জী সব্জা ইউটিউবে দেখে নেওয়া যায় হাজার হাজার

মুলাজী
একটু আগে খেলাম মুলাজী। মুলাজী হলো পেঁয়াজীর সৎভাই। পেঁয়াজীর মূমুর্ষ শয্যায় সে আমাদের মনোরঞ্জনে এসেছেন।
চিকন করে মুলা কেটে নিয়ে তাদে ডাল বাটা, কাঁচামরিচ আর লবন দিয়ে মেখেই ভেঁজে নিয়েছি পেঁয়াজীর সৎ ভাই মূলাজী!!!!!!!! ইয়াম্মী!!!!!!!!! :) :) :) :)

কাজেই নো মোর দুঃখ!!!!!!! শুধুই আনন্দে বাঁচো!!!!!!!!! আনন্দে হাসো, আনন্দে কাঁদতেও পারো...... সেরাটোনিন ডোপামিন তোমার হাতের মুঠোয়, পেঁয়াজের সাধ্য কি কাঁদায় তোমাকে !!!!!!!!!! ভেংচি কাটি, লেংচে ছুড়ি, ডিগবাজী দিয়ে ছুড়েই ফেলি পেঁয়াজকে আর পেঁয়াজের চৌদ্দ গুষ্ঠিকে.......... :) :) :)

ভেংচি কেটে দেখ, লেংচে হেঁটে দেখ......
একটা ডিগবাজী পাচ্ছে হাসি খেক......


ভেংচি কেটে দেখ, লেংচে হেঁটে দেখ

মন্তব্য ১০২ টি রেটিং +১৯/-০

মন্তব্য (১০২) মন্তব্য লিখুন

১| ১৭ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:৩৭

নুরহোসেন নুর বলেছেন: আমি কোন কিছুতেই আনন্দ পাইনা হোক তা দম ফাটানো হাসির বিনোদন, একমাত্র বই পড়া ছাড়া।

১৭ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:৪৪

শায়মা বলেছেন: বুঝেছি তোমার জন্য সেরাটোনিন লাগবে। ডক্টরের কাছে গেলেই দিয়ে দেবে ভাইয়া। তখন আবার অতি হাসিখুশি থামাতে কি মেডিসিন দেবে তা আমার জানা নেই।


যাইহোক তবুও ভালো যে একমাত্র বই ই তোমার আনন্দ!!!

তোমার জন্য আনন্দ পাবলিশার্সের বই এর লিস্টি! :) :) :)

https://www.rokomari.com/book/category/1914/anando-literary-award


আমাদেরকে তোমার প্রিয় বই এর ৩ টা নাম সাজেস্ট করো ভাইয়ামনি!!!!!! :)

২| ১৭ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:৪১

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: এসেছিলাম প্রথম মন্তব্য করব বলে দেখলাম হলোনা। আপাতত ডোপামিন এর কার্যকারিতা সম্পর্কে পড়লাম। সময় পেলে ভেংচি কাটতে আসবো খন আপু।
হাহাহা

১৭ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:৪৮

শায়মা বলেছেন: হা হা ভেংচি কেটেই দেখো না।

তবে আয়নার সামনে ভেংচি কাটলে বিষন্নতা দূর হবে। :)




:P

৩| ১৭ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:৫০

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: আমার আম্মু ইলিশের কিযেন পিয়াজিড়া রান্না করে খাওয়ালেন খেতে ভালৈ লাগলো। ভাই দা ওয়ে সুন্দর পোষ্ট।
আনন্দ নিয়ে বাঁচি
যতদিন এই ধরাতে আছি।

সুন্দর শ্লোগান । আমরা যেন আনন্দ নিয়েই বেঁচে থাকি।

১৭ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:৫৪

শায়মা বলেছেন: পেঁয়াজের এই দূর্দিনে পেঁয়াজ বর্জন না করে আবার ইলিশ পেঁয়াজী খাচ্ছো ভাইয়া!!!!!!!

নাউজুবিল্লাহ!!!!!! :-/

৪| ১৭ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:৫৭

করুণাধারা বলেছেন: কবিতা টবিতা দেওয়ায় প্রথমে পড়তে ভালই লাগছিল, হঠাৎ বুঝলাম এটা শিক্ষামূলক পোস্ট- সেরাটোনিন আর ডোপামিন সম্পর্কে সহজ শিক্ষার ক্লাস...

রাতে কিছু শিখতে পারি না সহজে :( । দেখি কালকে ভালো করে তোমার পোস্ট পড়ব।

১৭ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১১:০০

শায়মা বলেছেন: আপুনি!!!!!!!!!!!!!!!!!

এটা আনন্দ শিক্ষা পোস্ট!!!


সব রকমের আনন্দের পরে অতি প্রয়োজনীয় মাংস নান্না উপাদান পেঁয়াজ দূরীকরণ আনন্দ শিক্ষা পোস্ট.........

দেখো আমি কেমন পেঁয়াজাহীনা, পেঁয়াজাড়িয়া, পেঁয়াছাড়িয়া রান্না শিখেছি!!!!!!!!

এখন থেকে দোঁপেয়াজার বদলে হবে নোপেঁয়াজা! :)

৫| ১৭ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১১:০০

ইসিয়াক বলেছেন: আমি খুব ভোজন রসিক তাই সরাসরি দেরী না করে ডাউনলোড করলাম ।
৥ THAKUR BARIR RUI KALIA | WITHOUT ONION AND GARLIC | ANJANA NATH
৥ CHICKEN CURRY WITHOUT ONIONS AND TOMATOES|CHICKEN CURRY WITH NO ONIONS AND NO TOMATOES
৥ Without Onion, Ginger & Garlic Chicken Recipe||How to cook Chicken curry without onion & Garlic
বিঃদ্রঃ আমার সেরাটোনিন বা ডোপামাইন কোন দরকার নেই বাবা । এমনিতে আমার হাসির জ্বালায় সবাই অস্থির। কেউ কেউ তো আমায় পাগল ও বলে । হুহ .....
পোষ্টে ভালো লাগা।

১৭ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১১:০২

শায়মা বলেছেন: আমাকেও বলে ভাইয়া!

কিচ্ছু হবে না পাগল বললে কিচ্ছু হয় না!

তবে এই রান্নাগুলো শিখে নাও আর পেঁয়াজের বাচ্চাকে দূর দূর করে তাড়িয়ে দাও.......

আর নিউ রেসিপি কালকে এড করে দেবো দোঁপেঁয়াঁজাঁরঁ ( ভূতের বাচ্চা হয়ে গেছে) বদলে নোপেঁয়াজা! :)

৬| ১৭ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১১:০১

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: পেঁয়াজের কী দোষ?
দোষ তো কালোবাজারির ।

আগে শুনতাম কাঁচা পেঁয়াজের দুর্গন্ধে ফেরেশতা আসে না। তাই অনেকে কাঁচা পেঁয়াজ খায়না।

এখন পেঁয়াজের যে দাম এখন বোধহয় সুঘ্রাণ বেড় হয়।
যাইহোক পেঁয়াজের বদনাম করো না। তোমার রান্নার রেসিপি র মধ্যে ইলিশের দোপেঁয়াজা আমার অন্যতম পছন্দ।

১৭ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১১:০৪

শায়মা বলেছেন: নো মোর দোপেঁয়াজা ভাইয়া!!!!!!!!!!!


এখন নিউ রেসিপি নোপেঁয়াজা!!!!!!!!

৭| ১৭ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১১:০৮

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: দাম কমলে কিন্তু আমি আবারও দোপেঁয়াজো খাবো এখন নোপেয়াজো।

১৭ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১১:১২

শায়মা বলেছেন: জীবনেও না!

নো মোর দোপেঁয়াজা!

নিউ রেসিপি নো পেঁয়াজা......

শুনেছি পেঁয়াজ থাকা সত্বেও নাকি ব্যবসায়ীরা লুকিয়ে রেখে মানুষকে কষ্ট দেয়। তাই পেঁয়াজ ব্যাবসায়ীদেরকেই কত্ত পেতে হবে। :)

৮| ১৭ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১১:১০

রুমী ইয়াসমীন বলেছেন: একসাথে অনেককিছু জানলাম আপু আপনার লিখাটায়.... ডোপামিন ও সেরাটোনিন যে মানুষের মনে আনন্দ বেদনাকে নিয়ন্ত্রণ করে এই ব্যাপারটা সম্পুর্ণই নতুন করে জেনেছি আজকে আপনার মাধ্যমে। :)
আর পেঁয়াজ ছাড়া রান্নার বিষয়টা আগামীকাল হতেই আমি এপ্লাই করব ইনশাআল্লাহ এই ছাড়া তো কোনো গতি দেখছি না আপাতত। :(

১৭ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১১:১৪

শায়মা বলেছেন: আরও আছে ডোপামিন সেরাটোনিন ছাড়াও। মোটমাট চারটা! হা হা হা

যাইহোক পেঁয়াজের আসলেই কোনোই দক্কাল নাই!!!!!!

কত্ত কিছু রাঁধা যাবে পেঁয়াজ ছাড়া!

মরুক ডুবে পেঁয়াজ মেয়াজ!


এখন থেকে রাঁধবো আমরা রুই মাছের নোপেঁয়াজা....... ডালের মুলাজু :) রসুন মরিচের ভর্তা :)

৯| ১৭ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১১:১৬

বলেছেন: মুলাজি!!!

মাথায় ঝামেলা বাড়িহয়ে দেওয়ার মতো পোস্ট।।।

১৭ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১১:১৮

শায়মা বলেছেন: নো ঝামেলা ভাইয়া!!!!!!!!!

পেঁয়াজ নিয়ে এত ঝামেলা কমাতেই তো আমি আনন্দ নিয়ে এলাম! পেঁয়াজহীনা নান্না বান্না!

এখন মরুক পেঁয়াজ তার বদমাইসী নিয়ে! :)

১০| ১৭ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১১:১৯

রাজীব নুর বলেছেন: খাবারের ছবি দিলেন?
আহ হা!!!

যাই হোক, পরী পাশে থাকলেই আমার আণন্দ লাগে। আমার আর কিচ্ছুর দরকার নাই।

১৭ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১১:২৩

শায়মা বলেছেন: ঠিক ঠিক ! সেই তো তোমার আনন্দ ভাইয়া!!!!!

আর সুরভীভাবী থাকলে বুঝি দুঃখ লাগে!!!!!!

১১| ১৭ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১১:২৩

এমজেডএফ বলেছেন: প্রচুর পরিমাণে সেরাটোনিন আর ডোপামিন আছে এরকম একটা খাবারের রেসিপি দিলে উপকৃত হতাম :) । হাসি-খুশি ব্যাপারটা অনেক সময় ছোঁয়াচে রোগের মতো কাজ করে। এই যে আপনার মতো হাসি-খুশি কিছু ব্লগার এখনো আছে বলেই আমরা সেরাটোনিন আর ডোপামিনশূন্যতার রোগীরা সময় পেলেই ব্লগে চলে আসি।

সুন্দর পোস্টের জন্য ধন্যবাদ। রেসিপিগুলো সময় নিয়ে রান্না করে দেখবো। ভালো থাকুন।

১৭ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১১:২৬

শায়মা বলেছেন: প্রচুর পরিমাণে সেরাটোনিন আর ডোপামিন আছে এরকম একটা খাবারের রেসিপি দিলে উপকৃত হতাম .......

এ আর কঠিন কি !!!!!!!!

ওয়েট দিচ্ছি ......... এখুনি!!!!!!!!!!!


ভাইয়ামনি তুমি কেমন আছো??

১২| ১৭ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১১:৩০

শায়মা বলেছেন:


এই খানা খেলে একদম প্রচুর পরিমান সেরোটোনিন, ডোপামিন, আনন্দমিন সব এসে যাবে ভাইয়ামনি! হা হা হা

১৩| ১৭ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১১:৩৬

শায়মা বলেছেন:

এইগুলাও ফুল অব সেরাটোনিন ভাইয়া!!!!!!!

১৪| ১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১২:২০

আখেনাটেন বলেছেন: সুন্দর! সুন্দর! জীবনে হাসি-খুশি থাকতে পারাটাই বড় ব্যাপার। আমি নিজেও সময় পেলেই টম অ্যান্ড জেরি দেখতে বসে পড়ি। :P


আপনার ডোপামিন ও সেরাটোনিনের কথায় মনে পড়ল:

আচ্ছা, হাড়ভাঙা খাটনির পরেও যে কৃষকেরা ন্যায্য মূল্য না পেয়ে পথে বসার দশা হচ্ছে, তাদেরকে সরকার থেকে বিনামূল্যে ডোপামিন-সেরাটোনিনের স্পেশাল ট্যাবলেট সরবরাহ করলে ক্যামন হয়।

১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১২:২৫

শায়মা বলেছেন: খুবই ভালো হয় ভাইয়া।

সেরাটোনিন আর ডোপামিনের প্রভাবে হাড় ভাঙ্গার দুঃখ বা বেদনাও বোধ হবে না আবার খানা পিনা কাপড় জামা না থাকলেও তারা হাসিমুখেই থাকবে।

তবে ভাইয়া এই সব ডোপামিন সেরাটোনিন আবার খানা না পেলে কাজ করে না ! :(

কি যে বিপদ! চিন্তা করে বের করতে হবে। :(

১৫| ১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১২:৩৫

আখেনাটেন বলেছেন: তবে ভাইয়া এই সব ডোপামিন সেরাটোনিন আবার খানা না পেলে কাজ করে না ! --- সেটারও সমাধান আছে। সরকার থেকে ঝাঁমা ইট কিংবা পাথর সরবরাহ করা যেতে পারে। কৃষকেরা সেটা কষে পেটে বেঁধে ডোপামিন ট্যাবলেট কোঁৎ করে গিলে খাবে। এরপর সুখি লাইফ।
এতে সরকারের আরো লাভ হল, পাথরের বা ইটের ব্যবসাও বাড়ল, দেশের জিডিপিও স্ফিত হল, সাথে ভুখানাঙা প্রান্তিক মানুষেরাও হাসিখুশি থাকল। সুখং সর্বতং ছড়িয়ং।

১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১২:৪৫

শায়মা বলেছেন: সবচেয়ে ভালো হয় chromosome 6p deletion শরীরে ঢুকায় দিলে। এতে ধনী দরিদ্র কারোরই ক্ষুধা বা ঘুম পাবে না। সবাই যেমনই নিখরচায় কাজ করতে পারবে তেমনি ঘুমেরও দরকার নেই বলে অক্লান্ত পরিশ্রম। এতং উন্নতিং অবশ্যং সম্ভাবং :) :) :)

১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১২:৪৭

শায়মা বলেছেন: ব্যাথা, ঘুম ও ক্ষুধাহীন জীবন

১৬| ১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১২:৫৩

সোহানী বলেছেন: তোমার লেখা মানেই এক সাথে অনেক কিছু.........।

এক্সট্রা হরমোন ছাড়াই যে তুমি আনন্দে থাকো তা জেনে ভালো লাগছে। আমাদেরতো হরমোন পুষ করেও আনন্দে আনা যায় না ....হাহাহাহাহাহা

তোমার রেসিপিতে সুপার প্লাস। আমাকে আর পেয়াজ কাটা নিয়ে ঝামেলায় পড়তে হবে না ;)

১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ২:৩৪

শায়মা বলেছেন: হা হা আসলেই আমি নিজেই কনফিউজ হয়ে যাই মাঝে মাঝে......

মাথার ভেতরে, শরীর ও মনে .......
কি আনন্দ কি আনন্দ কি আনন্দ....
দিবা রাত্রী নাচে মুক্তি নাচে বন্ধ!!!!

হা হা হা


১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ২:৩৫

শায়মা বলেছেন: উফফ!!! আনন্দে তো আমি চিৎ কাত হয়ে গেলাম!!!!!!!!

১৭| ১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১২:৫৮

এমজেডএফ বলেছেন: আপুমনি, আপনার দেওয়া সেরোটোনিন, ডোপামিন এবং আনন্দমিন সমৃদ্ধ খাবারের ছবি দেখে আমার হাসি তো আর বন্ধ হয় না :D ! ছবি দেখেই এই অবস্থা, খাওয়ার পরে নির্গাত পাগলা গারদে যেতে হবে !:#P

অনেক অনেক শুভেচ্ছা রইলো আপুমনি। আপনার হাসি-খুশি-আনন্দ দীর্ঘজীবি হউক।

১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ২:৩৭

শায়মা বলেছেন: হা হা হা হা হা আনন্দমিন খানা পিনা তার থেকেই বেশি আনন্দমিন খানা পিনার সাজ!!!!!!! এতেই আমি আনন্দে আত্মহারা.....

তারই সঙ্গে ছুটি রঙ্গে পাছে পাছে
তা তা থই থই তা তা থই থই তা তা থই থই

১৮| ১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:১১

সুলতানা শিরীন সাজি বলেছেন: তোমার লেখার লিংক ধরে আজ সামুতে এলাম। এত মজার মজার খাবারের ছবি দেখে আর কি বলবো। আর লেখা আর ছবিতো সবসময়ই সুন্দর।
ভালো লাগলো। পিয়াজহীন রান্না দেখে মজাই লাগলো ।খেতে কেমন তোমরাই বলতে পারবে। তবে কোন কিছুই অপরিহার্য নয় সংসারে। দেখো, সব কিছু মানিয়ে নেই আমরা।
ভালো থেকো।
এমনই থেকো আনন্দে,সদা হাসি খুশি।
ভালোবাসা শায়মা

১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:০৩

শায়মা বলেছেন: আপুনি আজ আমরা রেঁধেছি পাবদা চচ্চড়ি উইথ মূলা আর আলু টোমাটো কুঁচি পুড়পুড়ে!!!


কি যে মজা হয়েছে!

অসভ্য পেঁয়াজের আর কোনোই দরকার নেই! বেটা বদমাস পেঁয়াজ কাঁটতে গেলেই কাঁদাতে থাকে শয়তানটা!
কাজেই মরুক পেঁয়াজ তার দাম নিয়ে! জাহান্নাম যাক ......

আসলেই পৃথিবীতে এমন কিছু নেই যা ছাড়া মানুষ চলতে পারবেনা । শুধুই জীবনটা নিয়ে মানুষ দ্বীপান্তরেও ফলমুল খেয়ে বাঁচতে পারবে...... কালাপানি দ্বীপান্তরেও মানুষ বেঁচে থাকে তাই না!!!!!!

১৯| ১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:২৯

স্বপ্নবাজ সৌরভ বলেছেন: সেই থেকে আর কান্না আমার পায়না কিছুতেই
ভুতও গেছে মিলিয়ে কোথায়, গানটাতো আছে :)

খাবার দাবারের বিশাল আয়োজন !! ++

১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:০৫

শায়মা বলেছেন: আমারও আর কান্না পায়না......

লাস্ট কবে কেঁদেছি সেদিন ভাবছিলাম। যত কান্না সেই টিন এজেই কেঁদে নিয়েছি!

তাই কান্না ফুরিয়ে গেছে.....


তিন কাল গিয়ে এককালে ঠেকা কান্না কি আর ধারে কাছে আসতে পারে বলো!!!!!! হা হা হা
লাত্থি ঝাঁটা মার খাবার কি তার কোনো ইচ্ছা হবে আর বলো!!!!!! :P

২০| ১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:৪৮

অবেলার পানকৌড়ি বলেছেন: আসুন পেঁয়াজ কে না বলি

১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:০৬

শায়মা বলেছেন: আমি তো না বলেই দিয়েছি!!!!!!

সবাই বলো না - না
পেঁয়াজের দামটি হয় না
পৃথিবীতে পেঁয়াজের নেই দরকার
পেঁয়াজকে তাই পাঠাই চলো আজই পর পার ......

২১| ১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:৫৯

হাবিব স্যার বলেছেন: আনন্দ স্থায়ী হোক এই কামনা করি। আপনার কথা, বর্ণনা, পোস্ট দেখলেই বুঝা যায় আপনি কতটা আনন্দে থাকেন।

১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:০৯

শায়মা বলেছেন: আনন্দ রে আনন্দ, বল
কোথায় রে তোর বাসা,
তুই কি আমার মা, নাকি তুই
মায়ের ভালবাসা?
বাবার হাতে তুই কি উথাল
মাটিতে ধান বোনা?
মায়ের হাতে কুলোয় ভরা
ধানের মতো সোনা?

হা হা হা আনন্দে থাকাটা খুব একটা কঠিন না ভাইয়ামনি......

২২| ১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ সকাল ১১:৫৯

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: আনন্দ ধরে রাখাও কষ্টকর
কিন্তু আপুনি তুমি একটা সেরা মানুষ
সব দিকেই তোমার জ্ঞান অঢেল
ভাালো লাগে সব কর্মকান্ড। (দুএকটা বাদে)

সুন্দর পোস্ট

১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:১২

শায়মা বলেছেন: হা হা হা দু একটাও ভালো লাগাও আপুনি!!!!!!!!!

দেখবে আনন্দ উছলি পড়িছে তোমারও আশে পাশে.......

‘আনন্দ উছলি যায় সুনীলিম গগনে
হাসিতেছে চারদিক দিনমণি কিরণে
হাসিতেছে তরু শির হাসিছে ফুলরুচির
সাঁতারে সমীর ধীর নিচে পবনে।’

২৩| ১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১২:৪৭

কিরমানী লিটন বলেছেন: ঠিক বলেছেন আপু, পিঁয়াজ না খেলে মানুষ মরে না। হিম্দু ধর্মীয় বিপত্নীক মহিলারা পিঁয়াজ খায় না- পিঁয়াজ বিহনে তারা কেউ মরেছে বলে শুনিনি। তাদের গড় আয়ুও নব্বইয়ের কাছাকাছি।

আপনার পিঁয়াজের এই মহা- আয়োজিত রেসিপি দেখেতো তাজ্জব বনে গেলাম। এগুলির আদি উৎস নিশ্চয়ই গণভবন? অবশ্য আমার মতো নাদান প্রান্তিকজনের কাছে মূলাজী ছাড়া অন্যগুলো পঠিত ছাড়া আর কোন প্র্যাকটিক্যালে কাজে লাগবে না। পিঁয়াজ গবেষনার এই ধারনাটি আপনি আমাদের মাননীয়াকে দিলে উনার নোবেল পাওয়ার পথটা আর এক ধাপ এগুতো৷! পিঁয়াজের উপর এই প্রশান্তির ধারনার জননী হিসাবে তাঁর শান্তিতে নোবেলের দাবীটা আরও জোরালো হতো =p~

গুণীর হাতের ছোঁয়ায় সব কিছুই অমূল্য রতন হয়ে যায়। আপনার এই পোষ্ট সেই ধারনাকে প্রবল করলো। শুভকামনা প্রিয় শায়মা'পু......

১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:১৫

শায়মা বলেছেন: কিরমানী লিটন বলেছেন: ঠিক বলেছেন আপু, পিঁয়াজ না খেলে মানুষ মরে না। হিম্দু ধর্মীয় বিপত্নীক মহিলারা পিঁয়াজ খায় না- পিঁয়াজ বিহনে তারা কেউ মরেছে বলে শুনিনি। তাদের গড় আয়ুও নব্বইয়ের কাছাকাছি।


ঐ ভাইয়া তোমার কি আমাকে হিন্দু বিপত্নীক মহিলা মনে হলো!!!!!!!!!!! X((

আর তাছাড়াও বিপত্নীক মহিলা হয় নাকি!!!!!!!

এই তোমার কবিত্ব ভ্যোকাবুলারী!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!

হা হা হা হা হা হা হা হা হা হা হা হা হা হা হা হা হা হা

আনন্দের পোস্ট লিখেছিলাম আনন্দে ভেসে হেসে গেয়ে এখন তো তোমার মহিলা বিপত্নিক শুনে হাসতে হাসতে পেট ফেটে মরেই গেলাম!!!!!!!!!!!!!!!!!!!! :P

২৪| ১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১২:৪৭

কিরমানী লিটন বলেছেন: ঠিক বলেছেন আপু, পিঁয়াজ না খেলে মানুষ মরে না। হিম্দু ধর্মীয় বিপত্নীক মহিলারা পিঁয়াজ খায় না- পিঁয়াজ বিহনে তারা কেউ মরেছে বলে শুনিনি। তাদের গড় আয়ুও নব্বইয়ের কাছাকাছি।

আপনার পিঁয়াজের এই মহা- আয়োজিত রেসিপি দেখেতো তাজ্জব বনে গেলাম। এগুলির আদি উৎস নিশ্চয়ই গণভবন? অবশ্য আমার মতো নাদান প্রান্তিকজনের কাছে মূলাজী ছাড়া অন্যগুলো পঠিত ছাড়া আর কোন প্র্যাকটিক্যালে কাজে লাগবে না। পিঁয়াজ গবেষনার এই ধারনাটি আপনি আমাদের মাননীয়াকে দিলে উনার নোবেল পাওয়ার পথটা আর এক ধাপ এগুতো৷! পিঁয়াজের উপর এই প্রশান্তির ধারনার জননী হিসাবে তাঁর শান্তিতে নোবেলের দাবীটা আরও জোরালো হতো =p~

গুণীর হাতের ছোঁয়ায় সব কিছুই অমূল্য রতন হয়ে যায়। আপনার এই পোষ্ট সেই ধারনাকে প্রবল করলো। শুভকামনা প্রিয় শায়মা'পু......

১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:২৩

শায়মা বলেছেন: আপনার পিঁয়াজের এই মহা- আয়োজিত রেসিপি দেখেতো তাজ্জব বনে গেলাম। এগুলির আদি উৎস নিশ্চয়ই গণভবন? অবশ্য আমার মতো নাদান প্রান্তিকজনের কাছে মূলাজী ছাড়া অন্যগুলো পঠিত ছাড়া আর কোন প্র্যাকটিক্যালে কাজে লাগবে না। পিঁয়াজ গবেষনার এই ধারনাটি আপনি আমাদের মাননীয়াকে দিলে উনার নোবেল পাওয়ার পথটা আর এক ধাপ এগুতো৷! পিঁয়াজের উপর এই প্রশান্তির ধারনার জননী হিসাবে তাঁর শান্তিতে নোবেলের দাবীটা আরও জোরালো হতো =p~


আদি উৎস যেখানেই হোক তোমার জন্য বা সকলের জন্য উপকারী কিনা সেটা বলো ভাইয়ু!!!!!!!!!!!!!!
দেখো দূর্জনেরা দূর্দিনে দূর্যোগের দূর্মতি সহযোগে আরও দূর্দশা বাড়িয়ে দূর্দমনীয় আনন্দ পায়। তুমি কি দূর্জন নাকি যে আমার এত কষ্টে আবিষ্ক্বত শিখিত এবং লিখিত রেসিপিকে নিয়ে কুচক্রীর ভাই দুচক্রী টাইপ কথা বলিতেছো!!!!!!!! না ভাইয়া না তোমার কাছে ইহা মোদের আশাতব্য না। :(

বরং যে কোনো দূর্দশার কাছে দূর্বিনীত থাকো। যে কোনো দূর্গমনতাকে কাটিয়ে উঠতে বদ্ধ পরিকর থাকো! দেখো পেঁয়াজ কেনো, পেঁয়াজের দাদা নানা চাচারও সাধ্য নেই আমাদেরকে ঠেকায়........ :) :) :)

তুমি আমি ছাড়া কে আর দেশের জন?
কোথা নেই বার্তা নেই কেনোই তুমি গণভবন টানো!!!!!

২৫| ১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১:৪০

মা.হাসান বলেছেন: কিরমানি লিটন ভাই বলেছেনঃ এগুলির আদি উৎস নিশ্চয়ই গণভবন?

অনুমান করি আপনি গন ভবন বা বঙ্গভবন থেকেই সংগ্রহ করেছেন।

মুরগি গুলোকে সিরাটোনিন বা ডোপামিন ইনজেক্ট করেছিলেন নাকি? নিশ্চয়ই ওরা এসে বলেছিলো আমারে খাও আমারে খাও।

যারা পেঁয়াজের দাম বাড়া, রেল দূর্ঘটনা সব কিছুতেই ষড়যন্ত্র খোঁজে, ডোপামিন-সেরাটোনিনে কি তাদের চিন্তার পরিবর্তন হবে?

আমার প্রিয় বই-- ব্যাংকের পাশ বই। আগে বছরে দুইবার আপডেট হতো, এখন মাসে মাসে হয়, কি মজা!
আমার প্রিয় টিভি প্রোগ্রামঃ শেয়ার মার্কেটের খবর।
আমার কষ্টের মাসঃ নভেম্বর, ইনকাম ট্যাক্স দিতে হয়। তবে সারা বছর ধরে কাটে, এজন্য বেশি দিতে হয় না। এর পরেও কিছু ডোপামিন খয়ে নেব।

কোন কারনে মন বেশি খারাপ হলে বউ কোপামিন দিয়ে দেয় :-& , ঝামেলা শেষ।

১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:৩০

শায়মা বলেছেন: ভাইয়া তুমিও গনভবন, বঙ্গভবন খুঁজে বেড়াচ্ছো!!!!!!!!

আমার মত ব্লগানামধন্য রাঁধুনীর রেসিপিতে তোমার আজও সন্দেহ আছে!!!!! হায় হায় হায় হায় হায় :|

না না মুরগীগুলো সেরাটোনিন, ডোপামিন খাওয়াইনি বটে তবে বুদ্ধিখানা খারাপ না। মুরগীগুলোকে এইসব খাওয়ালে আর কষ্ট করে ওদের পিছে দৌড়িয়ে ধরে জবাই করতে হবে না। ওরা নিজেরাই উড়ে উড়ে ধরা দেবে...... পেটের মধ্যেও উড়ে উড়ে চলে যেতে পারে। :)


(যারা পেঁয়াজের দাম বাড়া, রেল দূর্ঘটনা সব কিছুতেই ষড়যন্ত্র খোঁজে, ডোপামিন-সেরাটোনিনে কি তাদের চিন্তার পরিবর্তন হবে?)
হবে না মানে অবস্যই হবে। বিশ্বাস না হলে কিরমানীভাইয়াকে সেরাটোনিন বা ডোপামিন ইনজেক্ট করেই দেখো! :)

(আমার প্রিয় বই-- ব্যাংকের পাশ বই। আগে বছরে দুইবার আপডেট হতো, এখন মাসে মাসে হয়, কি মজা!
আমার প্রিয় টিভি প্রোগ্রামঃ শেয়ার মার্কেটের খবর।
আমার কষ্টের মাসঃ নভেম্বর, ইনকাম ট্যাক্স দিতে হয়। তবে সারা বছর ধরে কাটে, এজন্য বেশি দিতে হয় না। এর পরেও কিছু ডোপামিন খয়ে নেব।)

গুড গুড ভেরী গুড! তোমার মাঝে সেরাটোনিন ও ডোপামিন ভালোই আছে। :)

কোন কারনে মন বেশি খারাপ হলে বউ কোপামিন দিয়ে দেয় :-& , ঝামেলা শেষ।

আর ভাবীজির কোপামিনও খারাপ না! কথায় আছে না কোপামিনের উপরে ঔষধ নাই! :)

২৬| ১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ২:১০

নীল আকাশ বলেছেন: ১। কিরমানি লিটন ভাই বলেছেনঃ এগুলির আদি উৎস নিশ্চয়ই গণভবন? অনুমান করি আপনি গন ভবন বা বঙ্গভবন থেকেই সংগ্রহ করেছেন।
২। মুরগি গুলোকে সিরাটোনিন বা ডোপামিন ইনজেক্ট করেছিলেন নাকি? নিশ্চয়ই ওরা এসে বলেছিলো আমারে খাও আমারে খাও।
৩। সময় পেলে ভেংচি কাটতে আসবো খন আপু।
৪। এটা শিক্ষামূলক পোস্ট- সেরাটোনিন আর ডোপামিন সম্পর্কে সহজ শিক্ষার ক্লাস...
৫। এই যে আপনার মতো হাসি-খুশি কিছু ব্লগার এখনো আছে বলেই আমরা সেরাটোনিন আর ডোপামিনশূন্যতার রোগীরা সময় পেলেই ব্লগে চলে আসি।
৬। হাড়ভাঙা খাটনির পরেও যে কৃষকেরা ন্যায্য মূল্য না পেয়ে পথে বসার দশা হচ্ছে, তাদেরকে সরকার থেকে বিনামূল্যে ডোপামিন-সেরাটোনিনের স্পেশাল ট্যাবলেট সরবরাহ করলে ক্যামন হয়।
৭। পিঁয়াজ গবেষনার এই ধারনাটি আপনি আমাদের মাননীয়াকে দিলে উনার নোবেল পাওয়ার পথটা আর এক ধাপ এগুতো৷! পিঁয়াজের উপর এই প্রশান্তির ধারনার জননী হিসাবে তাঁর শান্তিতে নোবেলের দাবীটা আরও জোরালো হতো

যাদের সিরাটোনিন বা ডোপামিন নিয়ে সমস্যা আছে তারা ঘন ঘন এই মন্তব্যের কালেকশন দেখে যেতে পারেন। সম্রাট পিয়াজের কসম, লিটন পিয়াজবাগী রত্ন খচিত গ্যারান্টি দিচ্ছেন এই ব্যাপারে।

যা হোক সিরাটোনিন বা ডোপামিন নিয়ে যে আপনার কোন সমসা নেই সেতা আমি লিখিত গ্যারান্টি দিতে পারি। চেহারা-বই নামক জায়গায় আপনার মন্তব্যগুলি পড়লেই সেটার হৃদয়ে অনুরণন হয়।

হৃদয়বিহীন মেয়েদের মতো পিয়াজবিহীন রান্না করার জন্য আজকেই কেকা ফেরদৌসিকে খুজছিলাম অফিসে, আপনাক পেয়ে ভালই হলো। এক ঢিলে ২পাখি উড়ে চলে গেল। সাবাস!

পানিতে সাতার কাটছেন না সিনক্রোনাইজড সুইমিং করছেন!!!!

টম অ্যান্ড জেরি, মিস্টার বিন হলো আমার ফেভারিট প্রোগ্রাম। সময় থাকলেই ২ বাচ্চার সাথে আমি বসে বসে এইসব কার্টুন দেখি। এখন ভালো লাগছে টিন টাইটানস। টেরাই করে দেখতে পারেন। বিনোদন আনলিমিটেড।

১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:৩১

শায়মা বলেছেন: এই মাথা ঘোরানো কমেন্টের রিপ্লাই আমি মাথা খাঁটিয়ে এক গ্লাস ষষ্ঠি মধু চা খেয়ে এসে দিচ্ছি!!!!!! :)

১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৪৫

শায়মা বলেছেন: যাদের সিরাটোনিন বা ডোপামিন নিয়ে সমস্যা আছে তারা ঘন ঘন এই মন্তব্যের কালেকশন দেখে যেতে পারেন। সম্রাট পিয়াজের কসম, লিটন পিয়াজবাগী রত্ন খচিত গ্যারান্টি দিচ্ছেন এই ব্যাপারে।

উঃ ঘন ঘন এই মন্তব্যের কালেকশন দেখলেও সেরাটোনিন ডোপামিন বেড়ে যাবে ভাইয়া!!!!!!! হা হা হা আমার তো যা ছিলো তার দশ গুন বেড়ে গেছে আজ হাসতে হাসতে ! হা হা হা

যা হোক সিরাটোনিন বা ডোপামিন নিয়ে যে আপনার কোন সমসা নেই সেতা আমি লিখিত গ্যারান্টি দিতে পারি। চেহারা-বই নামক জায়গায় আপনার মন্তব্যগুলি পড়লেই সেটার হৃদয়ে অনুরণন হয়।

উঃ- চেহারা বই কেনো তুমি বুঝি আমার ব্লগ বই এর মন্তব্যগুলো পড়ো না? আমি তো চেহারা বই এর মানুষই না আমার আসল ঠিকানা ব্লগাকাশ!!!! সোহেলী আপু, মেহবুবা আপু, সাঁজি আপু, সোহানী আপুরা বলে তাদের মন খারাপ থাকলে নাকি আমার কমেন্ট আনসার পড়ে মন ভালো করে নেয়! হা হা হা

হৃদয়বিহীন মেয়েদের মতো পিয়াজবিহীন রান্না করার জন্য আজকেই কেকা ফেরদৌসিকে খুজছিলাম অফিসে, আপনাক পেয়ে ভালই হলো। এক ঢিলে ২পাখি উড়ে চলে গেল। সাবাস!

উঃ - পেঁয়াজবিহীন রান্নায় কোনোই প্রবলেম নেই ভাইয়া! সত্যি বলছি!!!!

পানিতে সাতার কাটছেন না সিনক্রোনাইজড সুইমিং করছেন!!!!
উঃ এটাকে বলে সিনক্রোনাইজড স্যুইম ডান্স! হা হা হা ভিডিওটা দেখলে তো হাসতে হাসতে মরেই যাবে ভাইয়ামনি!!!!

টম অ্যান্ড জেরি, মিস্টার বিন হলো আমার ফেভারিট প্রোগ্রাম। সময় থাকলেই ২ বাচ্চার সাথে আমি বসে বসে এইসব কার্টুন দেখি। এখন ভালো লাগছে টিন টাইটানস। টেরাই করে দেখতে পারেন। বিনোদন আনলিমিটেড।

উঃ অবশ্যই টেরাই করিবোক!!!!!!!! :) :) :)

১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৫৮

শায়মা বলেছেন: ভাইয়া বেবি'স ডে আউট বা হোম এলনও সেরোটোনিন ডোপামিন সহায়ক!!!!! :)

২৭| ১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ২:২১

রাজীব নুর বলেছেন: লেখক বলেছেন: ঠিক ঠিক ! সেই তো তোমার আনন্দ ভাইয়া!!!!!
আর সুরভীভাবী থাকলে বুঝি দুঃখ লাগে!!!!!!

না, তারা দুইজনই আমার আনন্দ। এক আকশ আনন্দ।

১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:৩২

শায়মা বলেছেন: হা হা হা

আনন্দরে আনন্দ তুই কোথায় থাকিস বল?
আনন্দরে খুঁজতে সবাই সুরভীভাবীর বাড়ি চল...... :)

২৮| ১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:২৪

কিরমানী লিটন বলেছেন: ধুর আপু আমি কি বললাম আর তুমি কি বুঝলে- সাংবিধানিক দায়িত্বে থেকে কেউ কেউ পিঁয়াজ না খাওয়ার ঘোষনা দিয়েছে - আমি তাদের ইঙ্গিত করেছি। তুমি বিপত্নীক হতে যাবে কেন- আপু? তিৃিতো আমাদের পরী আপু- বালাই সার!!!

আমিও মজাই করেছি- তুমিই সিরিয়াস পয়েন্ট অব অর্ডারে দাঁড়িয়েছে। আমার কবিত্বের যতটুকু তাতো তোমাদের ছোঁয়ায় গড়ে উঠা.....

১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:৩৮

শায়মা বলেছেন: হা হা হা না না আমি সিরিয়াস হবো কেনো???

আনন্দে ভাসলে কেউ সিরিয়াস হতেই পারে না!!!!!!!!! কিন্তু!!!!!!!!!!! সাংবিধানিক দায়িত্বে থেকে কেউ যদি পেঁয়াজ না খাবার ঘোষনা দেয় তো সমস্যা কি ভাইয়া? বুঝিয়ে বলো!!!!! আমি যা করে উপকৃত হই তাই তো মানুষকে বলবো! নয়তো সমস্যার মোকাবেলার উপায়টাও আমি বলে দেবো যদি অন্যরা সেটা না পারে। এই যে আমি সাংবিধানিক দায়িত্বে না থেকেও পেঁয়াজকে দূর দূরিয়া খেতাব দিয়েছি তাতে কি হলো??? নো সমস্যা!!!!!!!! বি পজিটিভ ভাইয়ামনি! বি পজিটিভ এন্ড বি হ্যাপী! জাস্ট লাইক মি..... দেখবে আনন্দধারা বহিছে ভূবনে....... পেঁয়াজ রসুনের সাধ্য কি সমস্যা করে মোদেরও জীবনে!!!!!!! :) :) :)

আর বিপত্নীক হয় যাদের পত্নী মরে যায় ইহা শুধু পুরুষবাচ্য। :) :) :)

মহিলারা হয় বিধবা মানে যাদের পতী মরে !!!!!!!!!! ভাইয়া হা হা হা হা হা হা আমি তো আবারও মরা থেকে উঠেছিলাম আবারও মরে গেলাম হাসতে হাসতে!!!!!!!!!!!!!!!

২৯| ১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:২৯

কিরমানী লিটন বলেছেন: তাছাড়া তুমি কি পিঁয়াজ খেতে নিষেধ করেছো? পিঁয়াজের উপর নির্ভরশীল না হয়ে তার বিকল্পগুলো দেখিয়েছো- এবং তা শুধু মুখে বলেই দায় সারনি- চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছো। তার জন্য তোমাকে অবশ্যই অভিবাদন।

আর আমি কবি নই - কমই.... বোধ কম, তাই বুঝাও।

১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:৩৯

শায়মা বলেছেন: হা হা হা কবি হলে বুঝি মহিলাদেরকেও বিপত্নীক বলা যায় !!!!!!!!!! হা হা হা হা হা হা হা হা হা

ইজ দ্যাট এবস্ট্রাক্ট পয়েট্রী ভ্যোকাবস!!!!!!!!!!! :P

৩০| ১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:৪৭

কিরমানী লিটন বলেছেন: আমি বীপত্নীকই বলেছি এবং তা জেনে বুঝেই। তুমিতো মহিলা তাই তোমাকে মিন করিনি - সেটাও বলেছি। আর আমার মতে দেশে একজনই পুরুস বাকী আট কোটি নিরানব্বই লাখ নিরানব্বই হাজার নয়শত নিরানব্বই জন ভেড়া আর নয় কোটি মহিলা। এখন আর একটু হাসো আপু....

১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:১৫

শায়মা বলেছেন: ভাইয়া ডোন্ট ট্রাই টু ঢাকাঢাকি ইওর জিওল মাছ উইথ শাক! হা হা হা হা হা হা হা

ইয়া খোদা!!!!!!! কি বললে এইটা!!!!!!!!!

কিরমানী লিটন বলেছেন: আমি বীপত্নীকই বলেছি এবং তা জেনে বুঝেই। তুমিতো মহিলা তাই তোমাকে মিন করিনি - সেটাও বলেছি। আর আমার মতে দেশে একজনই পুরুস বাকী আট কোটি নিরানব্বই লাখ নিরানব্বই হাজার নয়শত নিরানব্বই জন ভেড়া আর নয় কোটি মহিলা। এখন আর একটু হাসো আপু....


হায় হায় হায় ভাইয়া নিজে ভেড়া হয়েছো বলে সবাইকেই ভেড়া ভেড়া লাগছে!!!!!!!!! হা হা হা হা হা হা হা

কিন্তু তুমি বা সবাই মহিলা হলে তো বিপদ!!!!!!!
কেয়ামত সন্নিকট!!!!!! #:-S

শুনেছি কেয়ামতের আগে সবাই নাকি মহিলা হয়ে যাবে আর দু একজন পুরুষ থাকবে!

যাক বাবা তবুও তোমার মতে.......

(এখন আর একটু হাসো আপু....)

হা হা হা হা হা এখন তখন মানে তখন থেকেই হাসছি!!!!! :P


৩১| ১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:৫৫

কিরমানী লিটন বলেছেন: তবে হ্যা, হিন্দু বিধবা হবে বিপত্নীক নয়। সেটা যাকে তাক করেছি টার্গেটে। তাকে ভাবতে গিয়েই সে বাক্যে তা সংক্রমিত হয়েছে।

১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:১৭

শায়মা বলেছেন: হ্যাঁ তোমার টার্গেট মিসফায়ার হয়ে গেছে!!!!

এইবার ফাঁসিও হতে পারে বলে ভয় হচ্ছে!!!!!!!! :((

৩২| ১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৫:৪২

ভুয়া মফিজ বলেছেন: ডোপামিন আর সেরাটোনিনের কচকচানি পড়ে প্রভাবিত হয়ে আমি শিবরামের লিঙ্কে ক্লিক করেই স্পীকার বনে গেলাম! তোমার লিঙ্ক এটা বলে,


এখন আমার ডোপামিন আর সেরাটোনিনের কি হবে!! :((

পেয়াজের রান্না নিয়ে কিছু বললাম না। কারন আমি রান্নাতে সবসময়েই প্রচুর পেয়াজ ব্যবহার করি.....আর সেটা এখনও করতে পারছি। গত দেড়যুগে এখানে পেয়াজের দামে খুব একটা হেরফের হয় নাই! B-)

১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:২৬

শায়মা বলেছেন: ভাইয়া শিবরাম রচনা সমগ্র ডাউনলোড দাও। হাসতে চাইলে সেরোটোনিন ছাড়া আনন্দে বাঁচতে চাইলে শিবরাম অতুলনীয়.......

ভাইয়া এখ কাজ করো ওখান থেকে তুমিই আমাদেরকে পেঁয়াজ সাপ্লাই এর কাজটা নাও!!!! :) :) :)

৩৩| ১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:২০

ফয়সাল রকি বলেছেন: আপাতত ছবি দেখে চলে যাই, পরে এসে পড়ে যাবো।

১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:২৬

শায়মা বলেছেন: ভাইয়া!!

পড়ে পরীক্ষা দিয়ে যাবে!

নইলে আজীবনের জন্য ফেইল!!!!!! :)

৩৪| ১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৩০

রূপম রিজওয়ান বলেছেন: আমার তো দেখছি সেরাটোনিনের অনেক অভাব! কি হবে আমার?ওষুধে চলবে না।লিভার,কিডনি রিপ্লেস কিংবা রক্ত ট্রান্সফিউশনের মত সেরাটোনিন ট্রান্সফিউশনের কোন ব্যবস্থা আছে নাকি???

১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৩৯

শায়মা বলেছেন: ভাইয়া!!!!!!!! কি বলো!!!!!!! তোমার মত ব্রিলিয়ান্ট পুচ্চি ভাইয়ার আবার সেরাটোনিনের অভাব হয় নাকি!!!!!!

হা হা হা হা

এখুনি যাও ভেংচি কেটে আসো আয়নায়!!!!!!

৩৫| ১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৫২

রূপম রিজওয়ান বলেছেন: ভালো কথা,ডোপামিনের অভাবে কিন্তু পারকিন্সন হয়।বক্সার মুহাম্মাদ আলী এ রোগে ভুগেই কি না দুনিয়া থেকে নক্ড আউট হয়েছিলেন!!

১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৫৪

শায়মা বলেছেন: ঠিক ঠিক ঠিক বলেছো ভাইয়ামনি!!!!!!

এই কারণেই নো ডোপামিন নো সেরাটোনিন ডেফিসিয়েন্সি!!!!!!!!


প্রান ভরে নিয়ে শ্বাস নাও!!!!!!!

বেঁচে থাকো আনন্দে!!!!!!!!!!!


গানে গানে আর ভালোবাসায়!!!! :)

১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৫৭

শায়মা বলেছেন: গায়ে আমার পুলক লাগে চোখে ঘনায় ঘোর

এই গানা তোমার জন্য পিচ্চু!!!!!!

৩৬| ১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ৮:৪৩

আহমেদ জী এস বলেছেন: শায়মা,




ধেঁই ধেঁই করে নেচে তো গেলেন ডোপামিনের ডোপে কিন্তু জানেন কি আপনার এই ইউফোরিয়ার আসল কারন কি ? কারনে অকারনে আপনার এই আনন্দ আসবেই বা কেন ?
বিজ্ঞান বলে, এই ইউফোরিয়া বা উচ্ছাস বা খুব বেশী রকমের আবেগের পেছনে থাকে কিছু প্রাকৃতিক পুরষ্কার ( নেচারাল রিওয়ার্ডস ) যা আপনার মগজে থাকা একটি পদ্ধতি যা আপনার অবস্তু ঘটিত আচরণ নিয়ন্ত্রন করে যেমন- খাবারের মজা, জুয়া খেলায় জেতার মজা, সাজুগুজু করার মজা, শপিং করার মজা। এর পাশাপাশি গান গাওয়া, নৃত্য ইত্যাদিও আপনার ইউফোরিয়ার কারন হতে পারে। আপনি তো এর অনেকগুলিতেই নাচুনে বুড়ি , ঢোলের বাড়ি পেলেই হয়। :P রোয়িং, গ্লাইডিং, ক্লাইস্বিং এর মতো ব্যায়ামগুলোও কিন্তু আপনার এই "আনন্দ রে আনন্দ"তে বগল বাজাতে পারে। এটাতে আপনার ঘাটতি আছে। বাকী থাকে রোমান্টিক লভ। এটা আছে কিনা জানিনে। :(
আর এই "আনন্দ রে আনন্দ"র সবচেয়ে বড় যে কারন তা হলো - নিউরোলোজিক্যাল বা নিউরোসাইকিয়াট্রিক ডিসঅর্ডার। আপনার লম্ফঝম্ফ করে আনন্দের পেছনে এ ছাড়া আর কারন দেখিনে। :)
আপনার "নোপেঁয়াজা" র সব রেসিপি দেখে মনে হয় আনন্দে ডিগবাজী খাওয়ার কারনে মাথার তার ছিঁড়ে গেছে আপনার। B-)
নইলে পাবলিকের ঘরে ঘরে পেঁয়াজের ঘাটতির মতো আপনার টেবিলে নোপেঁয়াজের চিকেন বা ফিস ডিশের এতো ঘাটতি কেন? তিনটার দুইটাতেই তো "রাইসিয়া" ডিসই মূখ্য! B-))

আনন্দে আনন্দে এই মন্তব্য লেখার পরে বুঝলুম, হয় আমারও ডোপামিন লেভেল ডায়াবেটিক লেবেল ছাড়িয়ে চলে গেছে নইলে মাথার কিছু তার ছিঁড়ে গেছে। :((

রেসিপিগুলোর গন্ধে ধিতাং ধিতাং বোলে- মাদলে তাল দোলের মতো জিভে পানি আসার পোস্ট। :-P





১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ৯:৩০

শায়মা বলেছেন: ভাইয়া!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!

আমার আনন্দের কারণ নিউরোলজিক্যাল বা নিউরোসাইকিয়াট্রিক ডিসঅর্ডার!!!!!!!!!!!!! দাঁড়াও দেখাচ্ছি মজা!!!!!!!!!



হা হা হা হা হা হা ভাইয়া আসলেও চিন্তায় পড়লাম। সত্যিই তো এই কথা মানে ডিসওর্ডার শুনবার পরেও কেনো এত হাসি পাচ্ছে!!!!!! মজাও লাগছে আসলেও দেখছি এ এক ডিসঅর্ডার! কদিন আগে শুনলাম এখ বিস্ময় বালিকার নাম ক্রোমোজমের ত্রুটির কারণে তার ব্যাথাই লাগে না ! হায় হায় তাইলে দেখি আমার সেই অবস্থা!!!!!!! 8-|

যাক বাবা তবুও আমি সেই নিয়েই খুশিত!!!!!!!! মানে আনন্দিত!!!!!!!!! :)

(রোয়িং, গ্লাইডিং, ক্লাইস্বিং এর মতো ব্যায়ামগুলোও কিন্তু আপনার এই "আনন্দ রে আনন্দ"তে বগল বাজাতে পারে। এটাতে আপনার ঘাটতি আছে।) ঘাটতি মানে একটু ভয় আছে আর কি তবে ভয়কে জয় করা আমার জন্য কোনো ব্যাপারই না!~!!! :) :) :)

বাকী থাকে রোমান্টিক লভ। এটা আছে কিনা জানিনে। <<<<<<<<<<<<<< হা হা হা হা হা হা সত্যিঈঈঈঈ মরে গেলাম! আসলেই মনে হয় নেই! নইলে পেনপেনানি সহ্যই হয় না কেনো আমার মন দিয়ে কৃত কোনো কাজে বাঁধা দিলে!!!!!!!!! X((

ভাইয়া রাইসিয়া ছবি ছাড়া উপায় ছিলো না। চিকেন নোপেঁয়াজা বা মুলাজীর ছবি তোলা হয়নি! আনন্দের নৃত্য করতে গিয়ে এবারে ছবি তোলা হলো না!!!!!! তবে নো ফিসিয়া ইজ ইজি!!!!!!! সবাই পাব্বে! হলুদ মরিচে গড়িয়ে নিয়ে ফিসভাজোয়া!!!! :)

:) :) :)

১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ৯:৩৫

শায়মা বলেছেন:


এই নাও ফিস ভাঁজোয়ার পুরানো ছবি। পোলাও এর উপর থেকে বেরেস্থাগুলো ফেলে দিও ভাইয়ামনি! :)

৩৭| ১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১১:৩০

রাজীব নুর বলেছেন: লেখক বলেছেন: হা হা হা

আনন্দরে আনন্দ তুই কোথায় থাকিস বল?
আনন্দরে খুঁজতে সবাই সুরভীভাবীর বাড়ি চল.....

বাসায় কেউ এলে সুরভি খুব খুশি হয়।

১৮ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১১:৪২

শায়মা বলেছেন: তাহলে তোমাদের বাড়িতে আমাদের দাওয়াৎ ভাইয়া! :)

৩৮| ১৯ শে নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১:০০

ডঃ এম এ আলী বলেছেন:



পেয়াজের ঝাজে
আনন্দ হাসি ছেড়ে
কপোল জুরে যখন
কেবলি শুধু অশ্রু ঝড়ে।
তখন এই পোষ্ট নজরে পরে।
হাসি আর রসালো আনন্দের কথা
শুনলে কেমনে বলি 'হাসব না না না !”
মরি ত্রাসে ওই বুঝি তিনি আসল বলে !
হাতে ধরিয়ে থলে সস্তা পেয়াজের তরে
রাস্তায় গিয়ে লাইন ধরেই দাঁড়াতে বলে ।
এড়াবার উপাই নাই মেয়র পারে যে কাজ
সেকাজ কেন পারবনা দেখেও শিখিনা কেনে
কত যে বলি দেখনা কেন রাণী মাতার বাড়ীতে
পেয়াজ ছাড়া কত কত মঝার শাহী রান্না হতেছে
বলি কি সে জান, সেতো শুধু সম্ভব রাজরানীদের ঘরে
এইবার এই পোষ্ট খানি তুলে দেখাই দেখ শুধু নয় রানী
পেয়াজ ছাড়া কত স্বাদের রান্না করে এদেশের এক মাষ্টারনী।
হাত হতে কেড়ে নিয়ে লেপ টপ বলে সর, এত সব মজাদার রান্না
দেখার কর্ম তোমার নয়,বিরক্ত না করে ভাল করে দেখতে দাও দেখি
বলতো দেখি কি করে লিখি মন্তব্য,পরে যে ফের আসতে হবে তা নিশ্চিত
তবে যাওয়ার বেলায় আনন্দদায়ী পোষ্টটিকে অলক্ষে প্রিয়তে নিয়ে গেলাম।
শুভেচ্ছা রইল

১৯ শে নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:০৫

শায়মা বলেছেন: হা হা হা হা
ওহে ভাইয়ামনি,
আঁখি হলো ভোল ভোলো
পেঁয়াজ পেঁয়াজিনীর ঝাঁঝালো শনি
হাসো হাসো এই বেলা ভাসো আনন্দলোকে
আনন্দে বাঁচো, আনন্দে মরো তবুও থেকো নাকো শোকে ......

৩৯| ১৯ শে নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১:১৪

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: হা হা...

আপু পেয়াজের এই অকালে, এই রেসিপিগুলা জানা সম্পর্কে জানা খুব দরকার ছিলো। মন্ত্রী সাহেব বলেছিলেন, তিনি পিয়াজহীন ২২ পদ রান্না জানেন। আপনি বর্ণন দিলেন। দুইদিন আগে চোখে পড়লে, রেসিপিগুলা কপি কইরা চৌদ্দগুষ্টির সোশ্যাল একাউন্টের ইনবক্সে পাঠাই দিতাম। দারুন কাজে লাগতো।

১৯ শে নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:০৬

শায়মা বলেছেন: এখনও পাঠাতে পারো!!! :)


তবে কি বললে!!!!!!!!!!!

মন্ত্রী ২২ পদ জানে!!!!!!!!!!!!!

তাইলে আমি ৪৪ পদ জানবো!!!!!!!

৪০| ২০ শে নভেম্বর, ২০১৯ সকাল ৭:১৭

অবেলার পানকৌড়ি বলেছেন: কিছুই নাই যে করার,
পেঁয়াজের কমে গেল দাম,
গুজব এখন লবনের,
হবে কি ২০০ ফের ?
:(

২০ শে নভেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৩৪

শায়মা বলেছেন: ২০০ যদি ফের হয়
করো না তো এর ভয়।
যে চাইবে এমন দাম
ভুলিয়ে দেবে বাপের নাম!!!!

৪১| ২০ শে নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৪:৫৯

রেজওয়ান তানিম বলেছেন: লেখাটা ইন্টারেস্টিং লগল। হরমোনাল চিকিৎসা নিয়ে আনন্দ পেতে হবে আগামীতে হয়ত আমাদের অনেককেই.।.।.।

শুভেচ্ছা

২০ শে নভেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৩৬

শায়মা বলেছেন: হা হা হা না না কারো কারো এমনিতেই সেরাটোনিন ডোপামিন বেশি থাকে মনে হয়! এই দেখো যেমন আমার! তবে জি এস ভাইয়া বলেছে এটা নাকি আমার নিউরোলজিক্যাল ডিসওর্ডার! হা হা হা হা

আমি অবশ্য এই ডিসওর্ডার নিয়েই আনন্দিত!!!!!!


আনন্দ রে আনন্দ তুই কোথায় থাকিস বল??
তুমি আমার ডিসওর্ডার নাকি দুঃখ ভোলার ছল???

৪২| ২০ শে নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৫:১৫

ঢাবিয়ান বলেছেন: রান্নার একটা স্কুল খোলেন আপু ।যখন যেই সামগ্রীর দাম বাড়বে তখন সেই সামগ্রী বিহীন রান্না শেখানোর কোর্স। এখন পেয়াজ বিহিন এরপরে হয়ত লবন বিহীন , মরিচ বিহীন, হলুদ বিহীন রান্না শেখানোর প্রয়োজন দেখা দিতে পারে। আবার দুধেও ভেজাল। তাই দুধ বিহীন ডেজার্ট সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয়তা পাওয়ার সম্ভাবনা =p~

২০ শে নভেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৪১

শায়মা বলেছেন: হা হা লবন বিহীন তো কালকেই ভেবে ফেলেছিলাম!!!!!

দই মিষ্টি ফলমূল!!!!

হলুদবিহীন, মরিচবিহীন তো কোনো কথাই নেই সবাই পাব্বে! :)

দুধবিহিন ডেজার্ট!!!!!! দাড়াও একটু পরে ছবি এনে দেখাচ্ছি!

৪৩| ২০ শে নভেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৫৮

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: আমার ১২০০ তম পোস্ট কী কবিতাই হবে?? #:-S

২০ শে নভেম্বর, ২০১৯ রাত ৮:০৬

শায়মা বলেছেন: বাপরে!!!!

১২০০!!!!!!!!!!!!!

রম্যও হতে পারে! :)

৪৪| ২০ শে নভেম্বর, ২০১৯ রাত ৮:০৮

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: গ্রাউন্ড ওয়াটার ম্যানেজমেন্ট এর উপর পোস্ট দেবো এটা এখন মা্স্ট হয়ে গেছে এখন বিজ্ঞানীই হওয়া লাগবে । সামনে ভয়াবহ চ্যালেঞ্জ। প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়ার এখনই সময় । ঢাকার চারদিকের নদীতে দূষিত পানি সেগুলো পানের অযোগ্য আর ভূগর্ভস্থ পানির অবস্থা প্রপার ম্যানেজমেন্টের অভাবে প্রকটাকার ধারণ করছে । এখনইা দরকার সম্মিলিত প্রচেষ্টা দেশ দেশের মানুষ যেন বাচে সে বিষয়ে গুরুত্ব দিতে হবে ।

২০ শে নভেম্বর, ২০১৯ রাত ৮:১০

শায়মা বলেছেন: গুড!

৪৫| ২০ শে নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:৩৫

রেজওয়ান তানিম বলেছেন: লেখাটা ইন্টারেস্টিং লগল। হরমোনাল চিকিৎসা নিয়ে আনন্দ পেতে হবে আগামীতে হয়ত আমাদের অনেককেই.।.।.।

শুভেচ্ছা

২০ শে নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১১:০১

শায়মা বলেছেন: ঐ ভাইয়া,

এক কমেন্ট বার বার কপি পেস্ট কেনো!!!!!!

হা হা হা

তুমি কি ভেবেছিলে মুছে গেছে বা পোস্ট হয়নি আগের কমেন্ট!!!!!!!!!

৪৬| ২১ শে নভেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:২১

রেজওয়ান তানিম বলেছেন: হ্যা, নেট বড় দুষ্টামি করছে।

২১ শে নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১১:৪৮

শায়মা বলেছেন: আমার নেটেরও একই অবস্থা ছিলো!

সেই ৯ টার থেকে একটা পোস্ট দিতে গিয়ে দিতেই পারলাম না! :(

৪৭| ২২ শে নভেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:২২

মলাসইলমুইনা বলেছেন: আপনার মুলজি খেয়ে সবার কি প্রতিক্রিয়া হবে জানিনা কিন্তু আপনার লেখা পড়ে সবারই ডোপামিন আর সেরোটোনিন অনুভূতি হচ্ছে বোঝা গেলো কাৰণ আমার মন্তব্য ৪৭তম স্থান পেয়েছে (ভাগ্যিস এটা কোনো জব সিলেকশন পরীক্ষা না বা জিসিডি ধরণেরও কিছু এক্সাম না! )! বাট বলছি তাতেও আমিও ডোপামিন প্রভাবে প্রভাবান্বিত । আপনার দুটো ডোপামিন সেরোটোনিন ব্যাপার আমার সব সময়ই প্রিয় -শিবরাম বচনাবলী আর থ্রি স্টুজেস । এখনো সুযোগ হলেই মো, ল্যারি আর কার্লিকে দেখতে বসে যাই । পিয়াজ কান্ড নিয়ে বলি ।এখানে পিয়াজ সমস্যা নেই কিন্তু থাকলেও মঈন হয় তেমন অসুবিধা হতো না । কেমন করে যেন খানিকটা ট্রাম্পি হয়ে গেছি । টু পার্সেন্ট মিল্ক আর ওটমিল সিরিয়াল রাতে আমার পছন্দের ডিনার । সপ্তাহে অন্তত তিন দিন । বাটার দিয়ে হুইট ব্রেড খুবই প্রেফার্ড লাঞ্চ আমার যেকোনো সময় । পেঁয়াজ নিয়ে তেমন সমস্যা নেই (তাই তাই পিয়াজ কান্ড নিয়ে সিরিয়াস কিছু না লিখে একটা রম্যও লিখেছিলাম । লেখাটা সরিয়ে নিয়েছি কিন্তু মন্তব্যের জন্য বাকি রাখা ধন্যবাদটা নিন এখন )। তবুও আপনার নতুন রেসিপি পড়লাম । যদি দেশে বেড়াতে এসে কখনো কাজে লেগে যায় ! ব্লগে সবার ডোপামিন আর সেরোটোনিন অনুভূতি জাতীয় রাখুন এ'রকম লেখায়, রেখায়, বাদ্যে আর খাদ্যে ।

২২ শে নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ২:১১

শায়মা বলেছেন: হা হা ভাইয়ু!!!!!! তুমি নিজেও একজন সেরোটোনিন ডোপামিন! পুরাই শান্তিদায়ক কথা বার্তা ভাবনা চিন্তার মানুষ! তুমি এত সুন্দর করে কেমনে থাকো???

অবাক হয়ে যাই!! জানতে ইচ্ছা করে তুমি কি রেগে যাও কখনও! খুবই ভালো এংগার ম্যানেজমেন্ট শিখেছো মনে হয় ভাইয়ামনি!!!!!

তুমি দেখতেও মনে হয় শান্তশিষ্ঠ ইয়োগা মেডিটেশন করা মানুষ! আমার মনে হয় তুমি কেমন দেখতে জানো?
লম্বা ছিপছিপে ফরসা টাগর টাগর সম্রাট শাহজাহান টাইপ অক্ষি, টিকালো নাসিকা এবং তা দেওয়া চিক্কন মচুয়া টাইপ শান্ত ভদ্র মানুষ। মস্তিস্কে বিচক্ষন এবং রাগ্র( রাগে ব্যাঘ্র হয়ে যাওয়া মানুষ) দমন রাখা কুল হেডেড মনুষ্য!

ওহ যদিও আমি ওট মট কট কিছুই খাবো না! সৃষ্টিকর্তা যতদিন চর্ব্য চোষ্য লেহ্য পেয় খানা খাবার তৌফিক দান করিবেন ততদিন তাহাই খাইবো তবুও মানুষের পেঁয়াজ আহাজারী শুনে একটু রেসিপি নিয়ে চিন্তা করতেই হলো আর মূলাজীর মত আবিষ্কারের আবিষ্কারক হতে হলো!!!!! :) :) :) :)

আমি এখন মহা সুখী জন!!!!! :)

৪৮| ২৩ শে নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ২:২৯

অবেলার পানকৌড়ি বলেছেন: কবে কিভাবে টাকা পাঠাতে হবে কিছু বললেন না যে! :(

২৩ শে নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:১৪

শায়মা বলেছেন: ওহ কোথায় টাকা পাঠাবে!!!!!!!!! #:-S

হায় হায় তুমি আমার আনন্দলোকে টাকা পাঠাবে কেনো কেনো কেনো!!!!!!!!!!

আমি কি কারো কাছে টাকা চেয়ে দোষী হই নাকি!!!!!!

আই ডোন্ট নিড এনি মানি ফ্রম এনি ওয়ান!!!!!!!!!

#:-S #:-S #:-S

কোথাকার মেসেজ কোথায় দাও ভাইয়া????????????? :P

৪৯| ২৩ শে নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:৩৭

অবেলার পানকৌড়ি বলেছেন: !:#P

২৩ শে নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:৪১

শায়মা বলেছেন: ব্লগ ডে পোস্ট বা স্টিকি পোস্টে নিবন্ধনের নিয়ম দেখো ভাইয়া তারপর সব বুঝে যাবে!!!!! :)

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.