নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

বাংলা ভাষা অনেক সুন্দর একটি ভাষা। বাংলা আমার ভাষা। বাংলা আমার দেশ।

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন

আমি কেউ না। কবে যে কেউ হতে পারবো।

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন › বিস্তারিত পোস্টঃ

অপসারিত হলেন মালয়েশিয়ার পার্লামেন্টের স্পিকার

১৪ ই জুলাই, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:৩২

সাবেক প্রধানমন্ত্রী তুন ডাক্তার মাহাথির এবং সাবেক উপ-প্রধানমন্ত্রী উয়ান আজিজাহ উয়ান ইসমাইল এর সাথে বিদায়ী স্পিকার

অপসারিত হলেন মালয়েশিয়ার পার্লামেন্টের স্পিকার Yang Berhormat Tan Sri Dato' Mohamad Ariff Md Yusof।

মালয়েশিয়ার পার্লামেন্টের স্পিকারকে অপসারণ করা হয়েছে। মালয়েশিয়ার ইতিহাসে এই প্রথম কোনো ক্ষমতাসীন দলের স্পিকারকে মেয়াদপূর্তির আগেই অপসারণ করা হলো।

2018 সালে মাহাথির মোহাম্মদ এর নেতৃত্বে নতুন জোট পাকাতান হারাপান আগামী নির্বাচনে জয়লাভ করলে নতুন নেতৃত্বে নতুন সরকার গঠিত হয় সেই সময় তিনি স্পিকার নির্বাচিত হন। (16 July 2018 – 13 July 2020)।

এবছর ফেব্রুয়ারিতে রাজনীতির মারপ্যাঁচে মাহাথির মোহাম্মদ পদত্যাগ করেন। রাজনীতির কূটকৌশলে ক্ষমতায় আসেন তারিখ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মুহিদ্দিন ইয়াসিন।

মোদির পদত্যাগ করার পর পরই তার পছন্দের অ্যাটর্নি জেনারেল তামিল নাগরিক আমি পদত্যাগ করেন। সেই সময় মা ছেলের পন্থীরা সংসদের অধিবেশন আহবানের দাবি জানিয়েছিলেন যাতে নতুন প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে অনাস্থা আনার কথা ছিল সেই অনুষ্ঠান চিঠি গ্রহণ করেননি অপসারিত এই স্পিকার ধারণা করা হয়েছিল তিনি নতুন প্রধানমন্ত্রীর আস্থাভাজন হওয়ার চেষ্টা করছেন কিন্তু হঠাৎ করেই সংসদে তাকে অপসারণের জন্য প্রস্তাব আনা হয়। সেই প্রস্তাব সংসদে পাস হয়েছে।

সরকারপন্থিরা বলেছেন এটা প্রধানমন্ত্রী তনুশ্রী আবেদন ইয়াসিনের সংসদের এক ধরনের আস্থাভোটে জয় লাভ। কেননা বোঝাই গেল সংসদে এখন কাদের সমর্থন বেশি আছে।

২০১৮ সালে পার্লামেন্ট নির্বাচিত হবার পর তিনি তার রাজনৈতিক দল থেকে পদত্যাগ করে পুরোপুরি দলনিরপেক্ষ ব্যক্তিকে পরিণত হন।

সাবেক স্পিকারের প্রতিক্রিয়াঃ
সংসদে অপসারিত হবার পর বিদায়ী স্পিকার মিডিয়া ব্রিফিং এ ব্যাপক দুঃখ প্রকাশ করেন ।
তিনি বলেন, পৃথিবীর ইতিহাসে ক্ষমতাসীন অবস্থায় স্পিকারকে অপসারণের ঘটনা নজিরবিহীন। এর আগে ত্রিনিদাদ ও টোবাগোর স্পিকারকে অবস্থান করা হয়েছিল দুর্নীতির দায় কিন্তু মালয়েশিয়ার কোন দুর্নীতিতে জড়িত ছিলেন না।

সদর সাবেক দেওয়ান রাকিয়াত স্পিকার তান শ্রী মোহামাদ আরিফ মোঃ ইউসুফ বলেছেন যে , স্পিকারের পদ থেকে তাকে সরিয়ে দেওয়ার বিষয়ে তাঁর কোনও সমস্যা নেই । কারণ এটি সংবিধান মেনেই করা হয়েছে।

“আমার কোনও সমস্যা নেই কারণ আমি আগেই বলেছিলাম যে বিধি ও সংবিধানের ভিত্তিতে যদি এটি করা হয় তবে আমি এই পদত্যাগ করবো।

সংসদের লবিতে এক সংবাদ সম্মেলনে মোহাম্মদ আরিফ বলেছেন, "প্রধানমন্ত্রী বা মন্ত্রিসভা নয়, সংসদ সদস্যরা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

তিনি উল্লেখ করেন, যে এটি সাংবিধানিক এবং গণতান্ত্রিক নীতি যা স্পিকার এবং তার ডেপুটি নিয়োগের ক্ষেত্রে অবশ্যই বহাল থাকবে।

যদিও তাকে অপসারণের প্রস্তাবটি একটি কম সংখ্যাগরিষ্ঠের সাথে গৃহীত হয়েছে। , তবে মোহামাদ আরিফ বলেছেন যে তিনি সিদ্ধান্তটি মেনে নিয়েছেন। কারণ এটি সংসদ সদস্যরা করেছেন।

“যে নিয়োগ দেয় তার অপসারণ করার ক্ষমতা রাখে। এটিই সংবিধানের মূলনীতি, ”তিনি বলেন।

তবে তিনি সাবধান করে দিয়েছেন যে তাঁর অপসারণ দেশকে বিপজ্জনক নজির হিসাবে ইতিহাস হয়ে থাকবে।

ডেপুটি স্পিকার এনগা কোর মিংও তার পদ থেকে তাত্ক্ষণিক পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছেন।

“মোহামাদ আরিফের সাথে সংহতি জানিয়ে আমি জনগণের দ্বারা নির্বাচিত সরকারকে সেবা দিচ্ছি।

"আমি এই দ্বারা সম্মতি ও নীতি হিসাবে অবিলম্বে প্রভাব দিয়ে আমার পদ থেকে পদত্যাগ করার ঘোষণা দিয়েছি," তিনি বলেছিলেন।

এর আগে এনগা তার পদত্যাগপত্র দেওয়ান রাকিয়ত সচিবালয়ে জমা দিয়েছিলেন।
দেওয়ান রাকিয়াত আজ মোহামাদ আরিফকে ১১১ / ১০৯ ভোটে অপসারণের একটি প্রস্তাব অনুমোদন করেছে।

বিরোধী সংসদ সদস্যরা এর আগে প্রধানমন্ত্রী তন শ্রী মুহিউদ্দিন ইয়াসিনের প্রস্তাবিত প্রস্তাবটি নির্ধারণের জন্য ব্লক ভোট দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছিলেন।


দেওয়ান রাকায়েতের প্রাক্তন স্পিকার তান শ্রী মোহামাদ আরিফ মোঃ ইউসুফ বলেছেন, মালয়েশিয়া এখন সম্ভবত বিশ্বের একমাত্র দেশ।

আজ এক সংবাদ সম্মেলনে প্রাক্তন আদালতের আপিল বিচারক বলেছিলেন যে ত্রিনিদাদ ও টোবাগো একমাত্র জাতি যা তার সংসদীয় স্পিকারকে সরিয়ে দিয়েছে, তবে দুর্নীতির কারণেই।

“একটি সাধারণ পরিস্থিতিতে, একটি সাধারণ নির্বাচনের পরে, সরকার যে সাধারণ নির্বাচনটি জিতবে তাকে স্পিকার হওয়ার জন্য কাউকে মনোনীত করবে। এখন যা ঘটেছিল তা অসাধারণ, এবং ত্রিনিদাদ ও টোবাগো বাদে অন্য কোনও জাতি আছে যারা এ জাতীয় কিছু করেছিল তা আমি জানি না।

“ত্রিনিদাদ ও টোবাগো ১৯৯০ এর দশকে স্পিকারকে সরিয়ে দিয়েছিলেন, কারণ স্পিকার দুর্নীতির সাথে জড়িত ছিলেন। এর অন্য কোনও উদাহরণ নেই। যুক্তরাজ্যে, ৮০০ বছর ধরে হাউস অফ কমন্সে সংসদ ভেঙে দেওয়ার আগে স্পিকারকে কখনই বরখাস্ত করা হয়নি। কমনওয়েলথ দেশগুলির দ্বারা অনুশীলন করা সিস্টেমটি এটি হওয়া উচিত, "তিনি বলেছিলেন।

মোহামাদ আরিফ বলেছিলেন যে তাঁর সাথে যা ঘটেছিল তা অসাধারণ হলেও তিনি উল্লেখ করেছিলেন যে কোনওভাবেই সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত।

“তবে আমার জন্য, এটি ততটা যথাযথ নয়, যদি না আমরা ত্রিনিদাদ ও টোবাগোর মতো হয়ে উঠতে চাই, তবে এগিয়ে যান।

“একরকম, হ্যাঁ,” তিনি যখন জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল যে, দেওয়ান রাকিয়তের সিদ্ধান্তটি আজ বিশ্বের নজির স্থাপন করেছে কিনা।

“ঠিক আছে, আমি জানি না এটি ভাল নজির কিনা, তবে অবশ্যই এটি অসাধারণ কিছু। সংসদ ভেঙে যাওয়ার জন্য তাদের অপেক্ষা করা উচিত ছিল, ”যোগ করেন তিনি।

মোহামাদ আরিফ উল্লেখ করেছিলেন যে একজন স্পিকারকে এখনকার সরকারের পক্ষে সমর্থন করা উচিত নয়, বরং যে প্রতিষ্ঠানের নেতৃত্ব দেওয়ার দায়িত্ব তাকে দেওয়া হয়েছে তাকেই প্রতিনিধিত্ব করুন।

"যে স্পিকার কেবল সরকারের পক্ষে স্পিকার হয়ে যায় সে উপযুক্ত স্পিকার নয়," তিনি আরও যোগ করেন।

তিনি গণমাধ্যম সদস্যদের অবিচ্ছিন্ন কভারেজের জন্য ধন্যবাদ জানিয়েও যোগ করেন যে, প্রেসের স্বাধীনতা জাতির জন্য সর্বজনীন।

মন্তব্য ৪ টি রেটিং +০/-০

মন্তব্য (৪) মন্তব্য লিখুন

১| ১৪ ই জুলাই, ২০২০ রাত ৯:৫০

চাঁদগাজী বলেছেন:


মালয়েশিয়ায় অবৈধ প্রবাসী শ্রমিকদের উপর অত্যাচার করা হয়?

১৬ ই জুলাই, ২০২০ বিকাল ৩:৪৮

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: শ্রমিকরা কম বেশি সবাই নির্যাতিত।

২| ১৪ ই জুলাই, ২০২০ রাত ১১:০৫

রাজীব নুর বলেছেন: স্পিকার অপসারন নিয়ে আমি মোটেও চিন্তিত না। তবে প্রবাসীরা ভালো নেই। তাদের কাজ নেই। কেউ কেউ অসুস্থ চিকিৎসা করার টাকা নেই।

১৪ ই জুলাই, ২০২০ রাত ১১:১৪

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: আমি চিন্তিত। যা খুশী তাই করা ঠিক না। সম্মানী লোককে সম্মান দিতে জানতে হবে।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.