নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

বাংলা ভাষা অনেক সুন্দর একটি ভাষা। বাংলা আমার ভাষা। বাংলা আমার দেশ।

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন

আমি কেউ না। কবে যে কেউ হতে পারবো।

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন › বিস্তারিত পোস্টঃ

সেই রায়হান কবির ক্ষমা চেয়েছেন

২৯ শে জুলাই, ২০২০ রাত ৯:১৩

কাতার ভিত্তিক আল-জাজিরা টেলিভিশন নেটওয়ার্কের একটি ডকুমেন্টারিতে সাক্ষাৎকার দিয়ে আলোচনায় আসা সেই বাংলাদেশী মোঃ রায়হান কবির অবশেষে মালয়েশিয়ান কর্তৃপক্ষের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন।


মোঃ রায়হান কবির, আল জাজিরার প্রযোজিত ‘মালয়েশিয়ার লকডাউন’ শীর্ষক একটি তথ্যচিত্রে তাঁর বক্তব্যের জন্য মালয়েশিয়ার জনগণের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন।

মালয়েশিয়ান কর্তৃপক্ষ এর আগে তাকে আটক করেছে এবং জিজ্ঞাসাবাদের পর তাকে দেশে ফেরত পাঠানো হবে।

মোঃ রায়হানের প্রতিনিধিত্বকারী আইনজীবী সি.আর. সেলভের মতে বুধবার (২৯ জুলাই) সকালে ইমিগ্রেশন বিভাগের সদর দফতরে তাদের এক ঘণ্টার বৈঠক অধিবেশনে মোঃ রায়হান এই ক্ষমা চেয়েছেন।

‘‘ বৈঠককালে রায়হান আমাকে সমস্ত মালয়েশিয়ার এবং আইন প্রয়োগকারী সদস্যদের কাছে তার ক্ষমা চাইতে বলেছিলেন, ’’ বৈঠকের পরে গণমাধ্যমের কাছে তিনি এ কথা জানান।

মোঃ রায়হানকে ২৪ জুলাই কুয়ালালামপুরের সেতাপাক থেকে আটক করা হয়। পরে আল জাজিরার ডকুমেন্টারীতে প্রদর্শিত ব্যক্তিকে খুঁজে বের করার জন্য বিভাগ জনসাধারণের সহায়তা চেয়েছিল।

ডকুমেন্টারিটির মাধ্যমে মোঃ রায়হান অবৈধ অভিবাসীদের নিয়ে মালয়েশিয়া কর্তৃপক্ষের সাথে চলা আচরণের বিষয়ে একটি বক্তব্য দিয়েছেন ।
যখন দেশে কোভিড -১৯ এর বিস্তারকে মোকাবেলায় চলাচল নিয়ন্ত্রণ আদেশ (এমসিও) কার্যকর ছিল।

ইমিগ্রেশন বিভাগের মহাপরিচালক দাতুক খায়রুল দাযাইমি দাউদকে ২৫ জুলাই বলা হয়েছিল যে এই ব্যক্তিটিকে চিরতরে মালয়েশিয়ায় প্রবেশ করাবেন এবং তাকে কালো তালিকাভুক্ত করা হবে।

সেলভা বলেছেন যে তার ক্লায়েন্ট বলেছেন যে তার বক্তব্য যা তিনি দেখেছিলেন তার উপর ভিত্তি করেই এই দেওয়া হয়েছিল। যখন তার স্বদেশী বন্ধুদের আটক হওয়ার সময় হাতকড়া দেওয়া হয়েছিল এবং অভিবাসন আইনের প্রয়োগে লরিগুলিতে তুলে নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল।

‘‘ তিনি যা দেখেছিলেন তা তিনি মেনে নিতে পারেন নি এবং এটি ছিল তাঁর ব্যক্তিগত দৃষ্টিভঙ্গি তবে কর্তৃপক্ষকে দোষ দেওয়ার কোনও উদ্দেশ্য ছিল না, ’’ তিনি বলেছিলেন।

সেলভা জানান, মো। রায়হানও তার পদক্ষেপের পরে নির্বাসন আদেশ পেয়েছিলেন।

‘’ তিনি তাকে নির্বাসন দেওয়ার কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছিলেন এবং তাঁর পরিবারকে আবার দেখতেও তিনি অধৈর্য, ​​’’ তিনি আরও বলেন, আটকের সময় তার ক্লায়েন্টের কল্যাণ ভালভাবে দেখা হয়েছিল।

সেলভা যদিও তবুও বলেছিল যে তিনি মোঃ রায়হানের জন্য নির্বাসন তারিখ এখনও পাননি এবং মামলার বিকাশের বিষয়ে বিভাগের সাথে যোগাযোগ অব্যাহত রাখবেন।

S.K. সুমিতা, যিনি মোঃ রায়হানের আইনজীবী, বুধবার মো। রায়হানের সাথে তার বৈঠকের পর বুকিত আমনের প্রতিনিধিরাও তার সাথে দেখা করেছিলেন।

সুমিতার মতে, বুকিত আমান ফৌজদারি কার্যবিধির ধারা ১১২ এর অধীনে তার বক্তব্য নিয়েছিলেন কারণ তিনিও তথ্যচিত্রে উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য ২২ টি রেটিং +১/-০

মন্তব্য (২২) মন্তব্য লিখুন

১| ২৯ শে জুলাই, ২০২০ রাত ৯:১৯

চাঁদগাজী বলেছেন:


এখন তার বিচার হবে, নাকি ক্ষমা করেদেয়া হবে?

২৯ শে জুলাই, ২০২০ রাত ৯:৩৫

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: আমার নিজের ধারণা,তাকে সামান্য "ডলা" দেবে।
তারপর ডিপোর্ট করবে।
কোন "ডলা-মলা" না দিয়েই ছেড়ে দেবে এটা আমার কখনোই মনে হয় না।

২| ২৯ শে জুলাই, ২০২০ রাত ৯:২১

ডার্ক ম্যান বলেছেন: তাকে হয়তো ক্ষমা করে দেশে পাঠিয়ে দিবে

২৯ শে জুলাই, ২০২০ রাত ৯:৩৬

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: তার ভিসা ও ওয়ার্ক পারমিট বাতিল করেছে। তাকে ডিপোর্ট করাও সময়ের ব্যাপার। তার আগে তার জেরার কাজ তো তারা শেষ করবে।

৩| ২৯ শে জুলাই, ২০২০ রাত ৯:৩৯

রাশিয়া বলেছেন: ক্ষমা না করে আচ্ছামত ডলা দিয়েও যদি দেশে ফেরত না পাঠাত, থলে মালয়েশিয়ান সরকারকে ধন্যবাদ দিতাম। এরা বাপের তালুক বিক্রি করে ভিনদেশে গিয়ে অবর্ণনীয় দুঃখ কষ্ট ভোগ করছে দেশের বোঝা হয়ে থাকার জন্য নয়।

২৯ শে জুলাই, ২০২০ রাত ৯:৪৫

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: অলরেডি তার ভিসা বাতিল
ওয়ার্ক পারমিট বাতিল।
এখন ডলা দেয়া শেষ হলে কোন একটা বিমান যদি চলে তাহলে ফেরত পাঠিয়ে দেবে।

৪| ২৯ শে জুলাই, ২০২০ রাত ৯:৪০

খায়রুল আহসান বলেছেন: তার কি জেল-জরিমানা হবার সম্ভাবনা রয়েছে, নাকি বাধ্যতামূলকভাবে স্বদেশে ফেরত পাঠানোর উপর দিয়েই দন্ডাদেশ শেষ হবে বলে মনে হয়?

২৯ শে জুলাই, ২০২০ রাত ৯:৪৪

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন:
তারা তো সিদ্ধান্ত নিয়েই ফেলেছে।
১। আটক।
২। ভিসা বাতিল।
৩। ওয়ার্ক পারমিট বাতিল।
৪। জিজ্ঞাসাবাদ
৫। দেশে ফেরত পাঠানো।

আসলে সেই ভিডিওতে আরো অনেক দেশের লোকই ছিল। তারা এতোটা নজর কাড়েনি।

এখন কেবল অপেক্ষা।

৫| ২৯ শে জুলাই, ২০২০ রাত ৯:৪৪

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: গরীবের কখনো প্রতিবাদ করতে নাই। ডলাও খাইব, চাকরিও যাইব। দেশে আসবে হয়ত পঙ্গু হইয়া। তবে, ১২ লাখ মালয়শিয়া প্রবাসী চাইলে তার পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করতে পারে।

রায়হানের মঙ্গল কামনা করি। সে তো খুন করে নাই, বাংলাদেশেরই ছেলে। কারো না কারো ভাই।

২৯ শে জুলাই, ২০২০ রাত ১০:২৫

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: সঠিক বলেছেন।

৬| ২৯ শে জুলাই, ২০২০ রাত ৯:৫১

চাঁদগাজী বলেছেন:


মালয়েশিয়া জানে বিশ্বের অনেকই ব্যাপারটা দেখছে; ফলে, তাকে শারীরিক শাস্তি না দেয়ার সম্ভাবনা আছে।

২৯ শে জুলাই, ২০২০ রাত ১০:২৪

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: বিশ্ব তো জানবে মিডিয়ার মারফত। সব কিছু কি আর মিডিয়াতে আসবে।

৭| ২৯ শে জুলাই, ২০২০ রাত ১১:০৪

রাজীব নুর বলেছেন: না তাকে ডলা দিবে না।
তবে বাংলাদেশে আসলে তার সমস্যা হতে পারে।

৩০ শে জুলাই, ২০২০ দুপুর ১২:৩৭

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: ডলা অবশ্যই দিবে।
কিন্তু সেই ডলা কেউ দেখতে পাবে না ।
এমন জায়গায় ডলা দেবে যে কাউকে বলতেও পারবেন।

৮| ২৯ শে জুলাই, ২০২০ রাত ১১:২০

আল ইফরান বলেছেন: বিকেলে একটু আগ্রহ থেকে মাইগ্রেন্ট ওয়ার্কার্স কনভেনশন দেখলাম যেইখানে বাংলাদেশ স্টেট পার্টি।
আইনের ছাত্র হিসেবে জানি যে এই জায়গা থেকে একটা প্রতিকার/একশনে যাওয়ার সুযোগ আছে।
তাবেদারির ডিপ্লোমেসি ছাড়া আমাদের সরকার আর কিছুই করতে পারে না।
এই জায়গায় আজকে ফিলিপাইনের একটা শ্রমিক থাকলে ওরা মাঠ গরম করে ফেলতো।

৩১ শে জুলাই, ২০২০ সকাল ৮:৪৮

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: প্রতিকার করলে যে ফলাফল আসবে সেটা আসলে কি হবে?

আমাদের দেশের নাগরিকদের টার্গেট সেখানে কাজকর্ম করে আয় রোজগার করা‌ কিন্তু মালয়েশিয়ান কর্তৃপক্ষ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তাকে আর সে দেশে আর রাখা হবে না । ভবিষ্যতেও ঢুকতে দেওয়া হবে না ।
এর প্রতিকার কী?

৯| ৩১ শে জুলাই, ২০২০ বিকাল ৪:৪৭

চাঁদগাজী বলেছেন:



আপনি আমার পোষ্টে একটা ভিডিও দিয়েছেন, ইহা কোন দেশের ঘটনা?

৩১ শে জুলাই, ২০২০ রাত ৯:০৩

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: মালয়েশিয়াতে নেপালি দারোয়ানদের যথেষ্ট চাহিদা রয়েছে।
উক্ত ভিডিওটি আজকে এখানে প্রকাশিত হয়েছে। এতে একজন মালয়েশিয়ান নেপালি একজন দারোয়ানকে লাঠি দিয়ে পেটাচ্ছে । বিষয়টি আলোচনা জন্ম দিয়েছে।

১০| ৩১ শে জুলাই, ২০২০ রাত ১১:২০

আল ইফরান বলেছেন: আমি দুঃখিত, মালয়েশিয়া এই কনভেনশনের স্টেট পার্টি না।
স্টেট পার্টি না হলে কোন ধরনের ডিসপিউট সেটেলমেন্টের জন্য সংক্ষুব্ধ রাস্ট্রকে যে ধরনের জটিল প্রসিডিউর ধরে এগুতে হয় (উদাহরনস্বরুপ, আইসিজেতে মামলা করা সিভিল ড্যামেজের জন্য), দূর্ভাগ্যবশত আমাদের সেইধরনের সামর্থ্য অথবা ইচ্ছে কোনটাই নাই।

০৩ রা আগস্ট, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৩৭

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: সুন্দর মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ।
ঈদ মোবারক।

১১| ০১ লা আগস্ট, ২০২০ বিকাল ৪:২৫

ইসিয়াক বলেছেন: ঈদের শুভেচ্ছা রইলো ভাইয়া।

০৩ রা আগস্ট, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৩৬

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: ঈদ মোবারক।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.