নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সেলিম আনোয়ার

[email protected] Facebook-selim anwar বেঁচে থাকা দারুন একটা ব্যাপার ।কিন্তু কয়জন বেঁচে থাকে। আমি বেঁচে থাকার চেষ্টা করি।সময় মূল্যবান ।জীবন তার চেয়েও অনেক বেশী মূল্যবান।আর সম্ভাবনাময়।সুন্দর।ঢাকাবিশ্বদ্যিালয়ের পাঠ চুকিয়ে নিরস চাকুরীজীবন।সামনে আরও নিরস ভবিষ্যৎ। নিরস জীবন সরসভাবে কাটানোর প্রচেষ্টায় আমি সেলিম আনোয়ার।

সেলিম আনোয়ার › বিস্তারিত পোস্টঃ

কৃষক অথবা অন্নদাতা সমাচার!!!!

২৩ শে এপ্রিল, ২০২০ দুপুর ২:৪০


কৃষকরাই শ্রেষ্ঠ সন্তান এই বিশ্ববিধাত্রীর
তাদের অন্নদানে ক্ষুধা নিবারণ এই পৃথিবীর।
মাথার ঘাম পায়ে ফেলে নিরলস পরিশ্রম
এমনি করে খাদ্য শস্য তাঁরা করেন উৎপাদন।
রোদ বৃষ্টি ঝড়ে জীবন তাদের কাটে অনাদরে
বুভূক্ষূ পৃথিবীটাই যেন শুধু তাদের স্মরণ করে।
তাদের দুহাতে থাকেন যেন স্বয়ং বিধাতা
ধনী গরীব সবার লাগিয়া তাঁরাই অন্নদাতা।
এতো পরিশ্রমের পরও তাঁরা যেন চির বঞ্চিত
মধ্যস্বত্বভোগীরাই সব লুটে নেয় নির্দয়েরই মতো।
ন্যায্য মূল্য পাওয়া তাই কৃষকদের ললাটে যেন সুদূর পরাহত।
আজকের এই ক্রান্তিকালে চরম দূর্দিনে
আমরা সবাই তবেই বেঁচে যাবো,
আমরা যদি খাদ্যে হতে পারি স্বয়ং সম্পূর্ণ ।
সে লক্ষ্য তখনই পূরণ হবে ভাগ্যহীন কৃষক যখন ন্যায্য সম্মান পাবে ,
প্রয়োজন শুধু দক্ষ পরিকল্পনা ও ব্যবস্থাপনার
পুনশ্চ তাদের মূল্যায়নে মনে রাখতে হবে
অর্থ কিংবা সামাজিক অধিকারে
কৃষকরা যেন প্রতিচ্ছায়া স্বয়ং বিধাতার।





মন্তব্য ১২ টি রেটিং +১/-০

মন্তব্য (১২) মন্তব্য লিখুন

১| ২৩ শে এপ্রিল, ২০২০ বিকাল ৩:২৯

চাঁদগাজী বলেছেন:


যথাসমভব, আপনি প্রশাসনের সাথে আছেন; আপনার মনে হয়, বাংলালাদেশের প্রশাসন ( কৃষি বিভাগ, প্ল্যানিং ও ইমপ্লিমেটেশন) কৃষদের অর্থনীতি, তাদের স্বাস্হ্য, তাদের স্বার্থ রক্ষায় কাজ করে?

২| ২৩ শে এপ্রিল, ২০২০ বিকাল ৩:৪৭

নেওয়াজ আলি বলেছেন: ন্যায্য মূল্য পায় না কখনো।

৩| ২৩ শে এপ্রিল, ২০২০ বিকাল ৪:০৭

রাজীব নুর বলেছেন: কবিতাটা বেশ ঠাসা হয়েছে। কিপ ইট আপ।

৪| ২৩ শে এপ্রিল, ২০২০ বিকাল ৫:৫৫

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: কবিতায় নির্মম বাস্তবতা ফুটে উঠল।

৫| ২৩ শে এপ্রিল, ২০২০ রাত ৮:২১

সাইন বোর্ড বলেছেন: এটা সময়ের দাবী, করোনা পরবর্তি বিশ্বে খাদ্যের অভাব দেখা দিতে পারে সারা, তাই এখনি প্রস্তুতি নেওয়া ভাল ।

৬| ২৩ শে এপ্রিল, ২০২০ রাত ৮:৩৯

খায়রুল আহসান বলেছেন: বাংলাদেশের খাদ্যগুদাম সমূহে পর্যাপ্ত পরিমাণে খাদ্য মজুদ আছে বলে জানা যায়। কিন্তু বসে বসে খেলে সাত রাজার ধনও ফুরিয়ে যায়। এ মুহূর্তে খাদ্য সংকট দেখা দিলে বিদেশ থেকে খাদ্য আমদানী করে সে সংকট মোকাবিলা করা প্রায় অসম্ভব। তাই কৃষকদের কল্যাণের দিকে যথাযথ নজর দিতে হবে। বীজ ও সার সংকট যেন না হয়, সে ব্যাপারে আগে থেকেই সতর্ক থাকতে হবে।
বাংলার দরিদ্র কৃষকদের কথা চিন্তা করে কবিতা লিখেছেন, এজন্য ধন্যবাদ।

৭| ২৪ শে এপ্রিল, ২০২০ রাত ৯:২৯

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: শ্রদ্ধেয় চাঁদ গাজী আমি আছি বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের একটি অধিদপ্তরে।

৮| ২৪ শে এপ্রিল, ২০২০ রাত ৯:২৯

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: নেওয়াজ আলি কমেন্ট এবং পাঠে অশেষ কৃতজ্ঞতা।

৯| ২৪ শে এপ্রিল, ২০২০ রাত ৯:৩০

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: রাজীব নুর ধন্যবাদ। প্রচেষ্টায় আছি।

১০| ২৪ শে এপ্রিল, ২০২০ রাত ৯:৩০

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: পদাতিক চৌধুরী অনেক ধন্যবাদ চমৎকার কমেন্টে।

১১| ২৪ শে এপ্রিল, ২০২০ রাত ৯:৩১

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: সাইন বোর্ড কমেন্ট এবং পাঠে অশেষ কৃতজ্ঞতা।

১২| ২৪ শে এপ্রিল, ২০২০ রাত ৯:৩৩

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: খায়রুল আহসান কৃষি ক্ষেত্রে বিপ্লব ঘটাতে পারলে আমাদের অর্থনীতি ও চাঙ্গা হতে পারে খাদ্য শস্য বিদেশে রপ্তানি করে।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.