নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সেলিম আনোয়ার

[email protected] Facebook-selim anwar বেঁচে থাকা দারুন একটা ব্যাপার ।কিন্তু কয়জন বেঁচে থাকে। আমি বেঁচে থাকার চেষ্টা করি।সময় মূল্যবান ।জীবন তার চেয়েও অনেক বেশী মূল্যবান।আর সম্ভাবনাময়।সুন্দর।ঢাকাবিশ্বদ্যিালয়ের পাঠ চুকিয়ে নিরস চাকুরীজীবন।সামনে আরও নিরস ভবিষ্যৎ। নিরস জীবন সরসভাবে কাটানোর প্রচেষ্টায় আমি সেলিম আনোয়ার।

সেলিম আনোয়ার › বিস্তারিত পোস্টঃ

হোমকোয়ারেন্টাইন ভেঙে!!!!

১৫ ই জুলাই, ২০২০ বিকাল ৫:২২


আজিকে আমি রিকশা যাত্রি হলেও—
হেঁটেছি বিস্তর পথ,
রিকশায় চড়ে ঘরের বাইরে
বেইলী রোড থেকে শান্তি নগরে
কাকরাইল মোড় বিজয়নগর মগবাজার মৌচাক অতঃপর
দেখা হলো বিশৃঙ্খল এক নগর
যেন পঙ্গপালের মতো মানুষ ঝাঁকে ঝাঁকে চলছে
কাটছে সময় মৃত্যুর ছায়া মাথায় আড্ডারত কাণ্ড জ্ঞান শূন্য।
কেউ যেন মানছে না আইন
মাস্ক নেই মুখে, তবুও যে হচ্ছে না ফাইন।
আশি বছরের এক বৃদ্ধ মৌচাকের গলিতে নির্ভয়ে দিচ্ছে সুখটান।
যেন করোনাতঙ্ক বলে কিছু আর নেই
যা আছে তা হলো কিছু বুভুক্ষু আর অর্ধনগ্ন মানুষের,
অসহায় আকূতি; অন্ন নেই বস্ত্র নেই ..
যদিও সংখ্যায় তারা নগন্য পঙ্গপালের তুলনায়।
অনেকের মুখে মাস্ক, কতকের মাস্ক সমেত শিল্ড
মাথা আবৃত, কতকের পরণে পিপিই—
কতকের মুখে ফেনা ওঠে গেছে কথা বলে বলে
মাস্ক বিহীন।
অবশেষে যেন তাদের জীবন ধন্য হলো
বদ্ধ ঘরে শ্বাস রূদ্ধ অবস্থার অবসানে।
মানুষ চলছে ছুটে এলোপাথাড়ি
তবে বেড়েছে জীবনের গতি
কতকের হয়েছে সুমতি
তবুও অনেকের হয়নি রয়ে গেছে আনাড়ি।
গলাকাটা দামে চলছে পণ্য বিক্রি
আমিও মৌমাছির মত সংগ্রহ করেছি
জীবনের উপকরণ ;
তোমার আমার অপার সম্ভাবনার সমীকরণ
তুমি ও সঙ্গী ছিলে তাই
আমি ঘুরেছি ঢাকা শহরে অনেক ক্ষণ হেঁটে হেঁটে
আমি যতক্ষন হেঁটেছি তুমি যেন স্পষ্টতর হয়ে ওঠেছো
মম স্মৃতির মানসপটে
তুমি কেমন আছো, কি করছো? এসব বৃত্তান্ত
সঙ্গী করেই আমার পথচলা;
যেন সেই সুদীর্ঘ কাল থেকে তুমি সঙ্গী আমার
করোনার পৃথিবীতে অনেক পরিবর্তন লক্ষ্যনীয়
আমাদের প্রেম যেন আরও প্রগাঢ় হলো
যদিও মৃত্যু স্কন্ধে যেন ফেলে শ্বাস
স্বাস্থ্য বিধি মেনে না চলায় শহরের আনাচে কানাচে
তবুও মৃত্যু নিয়ে ভাবিনা আর
আমাদের মিথোজীবিতা সমৃদ্ধতর হয়
স্রষ্টার অলৌকিক ইশারায় আশীর্বাদে
জানি যমদূত ঘুরে বেড়ায় এই নির্বোধ নগরে
মরণ উপত্যকায় রন্ধ্রে রন্ধ্রে দূর্নীতির প্রশ্রয়ে
মৃত্যু হতে পারে খুব সন্নিকটে
তবুও তা হতে পারে
তোমার আমার দাম্পত্যের বহুদিন পর।
তোমার আমার প্রেম— তীব্র করোনা বিনাশক
তোমার ওষ্ঠে রয়েছে অমৃত সুধা
তোমার আমার সঙ্গমের পর
করোনা থাকবে না আর
তোমাকে নিয়ে শব্দ সাজাই— অপার নিরবতায়
তুমি সমৃদ্ধ হয়ে ওঠো দিনে দিনে
কবিতার মিছিলে।
তাই তো তুমি ক্রমাগত এত সুন্দর,
তোমার আমার প্রেম চুম্বকের মতো কাছে টানে
আমাদের আশীর্বাদে
পৃথিবী হয় জনাকীর্ণ নিরাপদ ..



ছবিঃ নিজস্ব অ্যালবাম

মন্তব্য ২১ টি রেটিং +৩/-০

মন্তব্য (২১) মন্তব্য লিখুন

১| ১৫ ই জুলাই, ২০২০ বিকাল ৫:৪৪

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন:




ঢাকা শহরে মগবাজার যাবেন মানুষজন দেখে মনে হবে ঢাকার ঘন-বসতি সম্ভবত মগবাজারে! মিরপুর যাবেন তখন মনে হবে না না মিরপুর! ঢাকায় সবচেয়ে বেশী মানুষ থাকেন মিরপুর! মোহাম্মদপুর যাবেন তখন মনে হবে সব ফেইল মিরপুর মগবাজার না, বাংলাদেশের সব লোকজন থাকেন মোহাম্মদপুর।

ঢাকা শহরের কবরস্থানেও নিরবতা নেই

১৫ ই জুলাই, ২০২০ বিকাল ৫:৫৭

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: তাদের চলাচলে মনে হয় দেশে কোন রোগ ব্যাধি নেই । আনন্দে উল্লাসে ক্ষণে ক্ষণে কেপে ওঠে অসহায় রাজপথ দেয়াল আর আক্কলসম্পন্ন মানুষের মন । সরকার প্রবর্তিত বিধি নিষেধ মেনে না চললে ধ্বংস নেমে আসাটা খুব স্বাভাবিক ।

২| ১৫ ই জুলাই, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৫৯

পগলা জগাই বলেছেন: গলাকাটা দামে চলছে পণ্য বিক্রি
আমিও মৌমাছির মত সংগ্রহ করেছি
জীবনের উপকরণ ;


ওরা গলা কাটবেই, আর আমরা এভাবেই জীবনের উপকরণ সংগ্রহের জন্য চেষ্টা করে যাবো।

১৫ ই জুলাই, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:০২

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: বেচে থাকতে হয় যে আর ব্যবসায়ী নয় শুধু সবার দায়বদ্ধতা থাকা উচিৎ। যখন ত্রাণ বিতরণ কর্মসূচি বিদ্যমান তখন একটু কম মুনাফা করে মানুষের সেবা করা যায় । কারণ অনেকের এখন আয় বন্ধ।

৩| ১৫ ই জুলাই, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:২৯

চাঁদগাজী বলেছেন:


প্রসাসন ও সরকার মানুষকে আশার বাণী শুনাতে পারছে না; মানুষ হতাশ ও বেপরোয়া।

১৫ ই জুলাই, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:৩৯

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: আমি বাইরে গিয়েছি ভিসা আর ক্রেডিট কার্ডের জরিমানা গুনতে। সিটি ব্যংকের উপর বিরক্ত হয়ে কার্ড দুটো ক্লোজ করলাম।সে বিস্তর ইতিহাস। সহজ কারণ দেখালাম আর্থিক কারণে চালাতে পারছি না । বিষয়টি সত্য নয়। মিথ্যা হলে সাদা মিথ্যা। বাংলাদেশের ব্যাংকগুলো সম্পর্কে আাপনার কি ভাবনা । এরা লা ইসেন্সধারী ডাকাত আমার মতে বিশেষ করে প্রা ইভেট ব্যাংকগুলো । এর তদবির করে রাষ্ট্রায়ত্ত্ব ব্যংকগুলোর সুযোগ সুবিধা কমিয়ে রাখে।এমন ভয়ানক পরিস্থিতির মধ্যেও তাদের কাছে যেতে বাধ্য হলাম। আর ঢাকা শহরের পরিস্থিতি দেখেতো আক্কেল গুড়ুম ।

কমেন্টে ধন্যবাদ ।

৪| ১৫ ই জুলাই, ২০২০ রাত ৯:৩১

মোহাম্মদ গোফরান বলেছেন: তোমাকে নিয়ে শব্দ সাজাই- অপার নিরবতায়, তুমি সমৃদ্ধ হয়ে উঠ দিনে দিনে কবিতার মিছিলে।

চমৎকার কবিতা।

১৬ ই জুলাই, ২০২০ বিকাল ৪:৪২

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: কমেন্টে অনুপ্রাণিত। নিরন্তর শুভকামনা আপনার জন্য ।

৫| ১৫ ই জুলাই, ২০২০ রাত ১০:০৫

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: কথাগুলো পরিচিত পরিচিত লাগছে।আপনার কবিতাটা ইতিপূর্বে আরো একজায়গায় মনে হচ্ছে পড়েছি।কখনো ব্লগে, কখনোবা ফেবুতে।
কবিতায় ভালো লাগা।
শুভেচ্ছা জানবেন।

১৬ ই জুলাই, ২০২০ বিকাল ৪:৪৩

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: ফেবুতে পড়ে থাকবেন । ধন্যবাদ কমেন্টে এবং ভালো লাগায় ।

৬| ১৫ ই জুলাই, ২০২০ রাত ১০:১৫

আকিব ইজাজ বলেছেন: ভীত হতে হতে এখন আমরা ভয়টাকে পাশে রেখে চলতে শিখছি, কিংবা নিয়তিকেই মেনে নিয়েছি।

কবিতায় ভালোলাগা

১৬ ই জুলাই, ২০২০ বিকাল ৪:৪৪

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: কমেন্টে এবং ভালো লাগায় অনেক ধন্যবাদ। নিরন্তর শুভকামনা ।

৭| ১৫ ই জুলাই, ২০২০ রাত ১০:২০

নেওয়াজ আলি বলেছেন: আচ্ছা আমরা কি আর কোন ভালো খবর পাবো না । কাল পরশু অথবা আরো পরে

১৬ ই জুলাই, ২০২০ বিকাল ৪:৪৬

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: স্রষ্টার রহমত থেকে নিরাশ হই না ।এদেশের মানুষের উপর ভরসা পাই না ।

৮| ১৫ ই জুলাই, ২০২০ রাত ১১:৪৩

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন:




লেখক বলেছেন: আমি বাইরে গিয়েছি ভিসা আর ক্রেডিট কার্ডের জরিমানা গুনতে। সিটি ব্যংকের উপর বিরক্ত হয়ে কার্ড দুটো ক্লোজ করলাম।সে বিস্তর ইতিহাস। সহজ কারণ দেখালাম আর্থিক কারণে চালাতে পারছি না । বিষয়টি সত্য নয়। মিথ্যা হলে সাদা মিথ্যা। বাংলাদেশের ব্যাংকগুলো সম্পর্কে আাপনার কি ভাবনা । এরা লা ইসেন্সধারী ডাকাত আমার মতে বিশেষ করে প্রা ইভেট ব্যাংকগুলো । এর তদবির করে রাষ্ট্রায়ত্ত্ব ব্যংকগুলোর সুযোগ সুবিধা কমিয়ে রাখে।এমন ভয়ানক পরিস্থিতির মধ্যেও তাদের কাছে যেতে বাধ্য হলাম। আর ঢাকা শহরের পরিস্থিতি দেখেতো আক্কেল গুড়ুম । - এতো প্রফিট পৃথিবীর আরো কোনো ব্যাংক করে? জানা নেই - আসলেই জানা নেই।

নেওয়াজ আলি বলেছেন: আচ্ছা আমরা কি আর কোন ভালো খবর পাবো না । কাল পরশু অথবা আরো পরে - বাংলাদেশ জন্মের পর আর কোনো গুড নিউজ দিতে পারেনি। ৫০ বছর যাবত বেড নিউজই শোনে আসছি এখন একটু কম বেড নিউজটাকে মনে হয় ভেরি ভেরি গুড নিউজ।

সেলিম আনোয়ার ভাই, আপনার কখনো মনে হয় এই দেশে ১৭ কোটি মানুষ! ভাই আমার মনে হয় এই দেশে ২৫ কোটি ছাড়িয়ে গেছে - - - -


৯| ১৫ ই জুলাই, ২০২০ রাত ১১:৫৮

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: বিজ্ঞ ঠাকুর মাহমুদ ঢাকা শহরের মানুষ কত তা আমার জানা নেই। এটা স্পষ্ট লকডাউনের সময় ও প্রচুর মানুষ বাইরে আছে। এদের করোনা ভীতি নেই। কবিতা তে যতটুকু সম্ভব তুলে ধরেছি সিটি ব্যাংক এমন একটি ব্যাংক কার্ড ডিসক্লোজ করতে বিজয় নগর শাখা থেকে মৌচাক শাখায় আসতে হয়েছে। এরা প্রাইভেট ব্যাংক ওয়ান স্টপ সার্ভিস আছে কি না জানা নাই। ঢাকায় ২০ লাখ মানুষ মারা গেলেও গুণে ২ কোটি দেখিয়ে একজন ও মরে নাই দেখানোর মত মানুষ এই শহরে আছে। আমার তাই মনে হয়। আমি কিন্তু ব্যাংকের সিনিয়র অফিসার পদের চাকরি ছেড়ে দিয়েছি ২০১১ সালে।

১০| ১৬ ই জুলাই, ২০২০ রাত ১২:০৯

রাজীব নুর বলেছেন: আমি আশাবাদী মানূষ। আমি বিশ্বাস করি আগামী দুই মাস পর থেকে করোনার প্রকোপ কমতে শুরু করবে আমাদের দেশে।

১৬ ই জুলাই, ২০২০ বিকাল ৪:৪১

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: আমিও আশাবাদী তবে আশাভঙ্গ হতে হয় বাধ্য হয়ে ।

১১| ১৬ ই জুলাই, ২০২০ বিকাল ৫:৩৭

কবিতা পড়ার প্রহর বলেছেন: ভয়ের বাঁধ ভেঙ্গে যাচ্ছে।

১৬ ই জুলাই, ২০২০ বিকাল ৫:৪৪

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: ভয় কে করো জয় কে জানে ভয় অনেক সময় দরকারি ভায় জীবন বাঁচিয়ে দিতে পারে

১২| ২৪ শে জুলাই, ২০২০ রাত ১১:৩৪

খায়রুল আহসান বলেছেন: যে পরিস্থিতির বর্ণনা দিলেন, তার পরিণতি মারাত্মক হবার কথা!

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.