নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সবাই যখন নীরব, আমি একা চীৎকার করি \n--আমি অন্ধের দেশে চশমা বিক্রি করি।\n

গিয়াস উদ্দিন লিটন

গিয়াস উদ্দিন লিটন › বিস্তারিত পোস্টঃ

বইমেলায় জামাল খানের বই; কিঞ্চিৎ অশ্লিলতা দোষে দুষ্ট রম্য :P :P

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১:০৬




যেকালে স্কুলে ভর্তি হতে হতেই ছেলেমেয়েদের দশ বার বছর বয়স লেগে যেত, সেকালের ছাত্র ছিলেন আমাদের জামাল খান। স্কুলে তিনি মন বসাতে পারেন নি। সেখানে বসে বই খাতা নিয়ে ফাইট করে সময় নষ্ট করার চেয়ে এই সময়টাকে কাজে লাগিয়ে, প্রতিবেশির গাছ থেকে এককাঁদি সুপারি কিংবা দুটা ঝুনা নারিকেল চুরি করে নলদিয়ার যাত্রাপালার পাথেয় সংগ্রহ করায় তিনি অধিক মনযোগী ছিলেন।

বিড়ির টাকার যোগান দিতে সহপাঠির বই চুরি ইতিহাসের এই জীবন্ত নায়ক, ক্লাশ থ্রি সেকেন্ড ইয়ারের সময় হেড মাস্টার উমেশ বাবুর পার্কার কলম চুরি করে সেই যে স্কুল থেকে ভেগেছেন আর জীবনে ওমুখো হননি। সেই থেকে আর Book স্পর্শ করেননি জামাল। Book এর প্রতি কোন আকর্শন না থাকলেও আরেক প্রকার বুক এর প্রতি উনার আগ্রহ সীমাহীন। তাইতো স্কুল ছাড়ার কিছুদিন পরেই আক্কাস মাঝির মেয়ে জমিলার অভিযোগের ভিত্তিতে তার ভাইদের হাতে ‘সাপ মারা’ মার খেয়েছিলেন।

এ বুকের প্রতি আকর্ষণ থেকেই তিনি এখন Book এর প্রতিও আসক্ত!এ Book কাগজের কোন Book নয় এ হচ্ছে FaceBook.
দুম্বা চরানো ভিসায় বেশ কয় বছর সৌদি ছিলেন।সেখানে থাকাকালীন শিক্ষদিক্ষায় তারই সমগোত্রিয় একজনকে খেপচা,খবুজ খাইয়ে Gamal Khan নামে আইডি খুলে এখন দেদারসে ফেসবুক গুতান। মাঝে মাঝে ‘মুরাদ টাকলা’ ভাষায় স্ট্যাটাসও দেন।
এইতো সেদিন লিখলেন- amar a duti cock pathar to noy... 'আমার এ দুটি কক পাঠার তো নয়...' পড়ে একজন কমেন্ট করে বসল, তোর দুটি কক এল কোত্থেকে? পাঁঠার থেকে ধার নিয়েছিস? নইলে পাঁঠার কথা এল কেন? :P

এখানে ‘মুরাদ টাকলা’ ভাষা বিষয়ে একটু বলি-ইদার্নিং ফেসবুকে হু হু করে বেড়ে চলেছে মুরাদ টাকলার সংখ্যা। বাংলার ফেসবুকের আকাশে আজ মুরাদ টাকলার ঘনঘটা। টাকলা ভাষা ঠিকমত বুঝতে না পারায় অনেক সময় বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়তে হয়। ঘটে যায় অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা!

হয়তো আপনার কোন টাকলা বান্ধবী আপনাকে মেসেজ করল- amar vagina dekhchen? আপনি উত্তর করলেন- আস্তাগফিরুল্লাহ! ব্যস এখানেই আপনি হয়ে গেলেন আনফ্রেন্ড,ব্লক সবিশেষ ব্রেকাপ।

মুরাদ টাকলা বাংলা ভাষার কীবোর্ড-বিপর্যয়জাত বিকৃত একটি রূপ। অভ্র পুর্ব যুগে ডিজিটাল মাধ্যমে রোমান হরফে বাংলা লিখতে গিয়ে ভাষাগত অজ্ঞতাবশত এই ভাষার উদ্ভব। একবার কোন এক ব্যক্তি কারও উপর ক্ষুব্ধ হয়ে ফেসবুকে লিখতে চাইলেন,'তোর এত বড় সাহস! মুরোদ থাকলে সামনে আয়!' কিন্তু সেই ব্যক্তি বাংলায় টাইপ না জানার কারনে ইংলিশ হরফে লিখলেন,

'tor ato bara sahos. murad takla samna ay!(তোর আত বাড়া সাহোস,মুরাদ টাকলা সামনা আয়)এই লাইনের murad takla (মুরোদ থাকলে) শব্দদ্বয়কেই পরবর্তীতে টাকলা ভাষাভাষীদের আইডেন্টিটি হিসেবে গ্রহন করা হয়। মুরাদ টাকলা (Murad Takla)'র আক্ষরিক বাংলা অর্থ "মুরোদ থাকলে"। এর সাথে মুরাদ নামের কোনো ব্যক্তির সংশ্লিষ্টতা নেই।

উপরে আপনার বান্ধবীটি তার ভাগিনাকে কোলে নিয়ে ছবি পোস্ট করেছেন, তাই তিনি আপনাকে লিখেছেন-
amar vagina dekhchen?(আমার ভাগিনা দেখেছেন?) আর আপনি কি না ভাগিনাকে ভেজাইনা পড়ে বলে বসলেন- আস্তাগফিরুল্লাহ! অনুরুপ আমাদের Gamal Khan লিখেছিল- amar a duti cock pathar to noy...
(আমার এ দুটি চোখ পাথর তো নয়--।) আমরা পড়লাম- 'আমার এ দুটি কক পাঠার তো নয়...'

তিনি আরেকদিন স্ট্যাটাস দিয়েছেন- koe den kub bigi cilam. onak kicu taka dura cilam. sobay onak moga korca. ami banchot holam. (কঈ দেন কুব বিগি সিলাম। অনাক কিসু টাকা দুরা সিলাম। সবায় অনাক মগা করসা। আমি বাঞ্চোত হলাম।) আসলে তিনি লিখতে ছেয়েছেন- কয়দিন খুব বিজি ছিলাম।অনেক কিছু থেকে দূরে ছিলাম।সবাই অনেক মজা করছে।আমি বঞ্চিত হলাম।

ফেব্রুয়ারী মাস এলেই আমাদের এই জামাল খান অনেকের একই টাইপের কিছু স্ট্যাটাস দেখেন, সেখানে সবাই বলে এবার বই মেলায় বই বের করলাম। এই দেখে দেখে জামাল খানের খুব শখ তিনিও বইমেলায় বই বের করবেন। একদিন তিনি সত্যি সত্যি বইমেলায় বই বের করেন। হাতে বই নিয়ে টাকলা ভাষায় একটা স্ট্যাটাস দেন,যার অর্থ-এবার বই মেলায় আমিও বই বের করলাম।
বইটি উলটো ধরা ছিল তাই নাম পড়তে না পেরে একজন কমেন্ট করে- বইয়ের নাম কি?
তিনি উত্তর দেন- নাম খেয়াল করিনি, ভাগিনার টেবিল থেকে ব্যাগে নিয়ে বইমেলায় গিয়ে বের করেছি ! =p~ =p~



পুনশ্চঃ বইমেলায় যান,সম্ভব হলে বাচ্ছাদের সাথে নিন। তাদের পছন্দের বই কিনে দিন।প্রকাশিত ছয়হাজার বই থেকে অন্তত ছয়টি বই হলেও কিনুন। মেলা থেকে ফিরে আসার সময় কারো পকেটের চিপায় চাপায় যদি কিছু টাকা অবশিষ্ট থাকে, তা দিয়ে ছবির বইটিও কিনুন। কথা দিচ্ছি আপনার সব টাকা জলে যাবেনা, এরকম একটা বই দিয়ে আমি ছোট বেলায় এক খাবলা কটকটি পেয়েছিলাম! :D
বইটি পাওয়া যাচ্ছে ৫৮৭ নং এক রঙ্গা এক ঘুড়ি স্টলে।

মন্তব্য ৪৭ টি রেটিং +১০/-০

মন্তব্য (৪৭) মন্তব্য লিখুন

১| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১:২০

এলে বেলে বলেছেন: দূদান্ত, চরম। মুখের থেকে হাসি এখনও সরছে না।

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১:৩৩

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আপনি অনেক পুরোনো ব্লগার। বাট পরিচিত হওয়ার সুযোগ হয়নি। আজ আপনাকে প্রথম পেয়ে ভাল লাগছে।
ফাগুনের শুভেচ্ছা নিন এলে বেলে।

২| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১:৩২

ইফতেখার ভূইয়া বলেছেন: ভীষণ মজা পেলাম, সোজা প্রিয়তে। =p~ B-)

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১:৩৬

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: সিনিয়র একজন ব্লগারের মন্তব্যে অনুপ্রাণিত হলাম।
আপনি একজন রসবোধসম্পন্ন পাঠক, তিন পুরুষের রম্য কথা বইটি মুলত আপনাদের জন্য।

৩| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১:৩৪

সাইন বোর্ড বলেছেন: পড়ে মজা পাইলাম এবং আপনার বই এর জন্যে শুভকামনা রইল ।

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১:৩৮

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ এন বাসন্তি শুভেচ্ছা রইল।

৪| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১:৪৯

রাজীব নুর বলেছেন: বই কেনার জন্য অনুরোধ করতে হয়, কি দিন আসলো। বই তো এমনি সবার কেনা উচিত, পড়া উচিত।

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১:৫৪

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আমার বই প্রকাশিত হয়েছে, এটা না জানালে পাঠক জানবে কিভাবে? তাছাড়া খারাপ জিনিষের বিজ্ঞাপন লাগেরে ভাই !!

৫| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ দুপুর ২:০৯

দেশ প্রেমিক বাঙালী বলেছেন: সুন্দর লেগেছে। তবে কথায় আছেনা - প্রচারেই প্রসার।






ভালো থাকুন নিরন্তর।

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৫:৪৮

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ জানবেন দেশ প্রেমিক বাঙালী ।

৬| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ দুপুর ২:১৩

পদ্ম পুকুর বলেছেন: বিজ্ঞাপন ভালো হয়েছে। রম্য বইয়ের রম্য বিজ্ঞাপন, যথার্থ। কোন প্রকাশনীতে আছে, গেলে একবার ঢুঁ মারবো।

উপ্রের ছবিতে কি আপনার সংশ্লিষ্টতা আছে?

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৫:৫৩

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: উওরের ছবি আমার অস্তিত্ব বিদ্যমান।
আর বইএর স্টল নং পোস্টের নিচে দেয়া আছে জনাব।

৭| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ দুপুর ২:২৬

হাবিব ইমরান বলেছেন:

লিটন সাহেব, কালকে ভালোবাসা দিবসে আপনার ফ্ল্যাট বিজনেস তো ভালোই হবে। :D
বইয়ের জন্য শুভকামনা।

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৫:৫৫

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: :D :D :D
আপনিও শুভ কামনা নিন হাবিব ইমরান।

৮| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৩:০৯

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: বাহ চমৎকার রম্য বিজ্ঞাপন, শুভকামনা রইলো।

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৫:৫৬

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ধন্যবাদ জানবেন তারেক_মাহমুদ।

৯| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৫:১৬

এমজেডএফ বলেছেন: নতুন বইয়ের জন্য অভিনন্দন ও শুভকামনা রইলো।
পৃথিবীতে সব ভাষায় কালের প্রবাহে কিছু কিছু শব্দ হারিয়ে যায়, আবার কিছু কিছু নতুন শব্দের সৃষ্টি বা সংযোজন হয়। আপনার এই রম্য পোস্টে এরকম কয়েকটি যুগোপযোগী নতুন বাংলা শব্দ আমার খুব পছন্দ হয়েছে। যেমন: 'সাপ মারা', 'মুরাদ টাকলা' এবং 'দুম্বা চড়ানো ভিসা'। এই ভাষার মাসে বাংলা একাডেমি কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলছি, এই শব্দগুলোকে বাংলা অভিধানে অন্তর্ভুক্ত করা হোক।

লিটন ভাই, বইমেলা থেকে অনেক দূরে থাকার কারণে আপনার বইটি সরাসরি কিনতে পারছি না। তবে তালিকায় রাখলাম। সম্ভব হলে আপনার বইয়ের প্রকাশনীকে বলবেন, কিছু কপি রকমারিতে দেওয়ার জন্য। তাহলে দূরের পাঠকেরা অনলাইনে কিনতে পারবে। ভালো থাকুন।

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:১৮

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: এক রঙ্গা এক ঘুড়ির সকল বই রকমারীতে পাওয়া যায়।
আমার আগের বইগুলিও রকমারীতে আছে।
সুন্দর মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ নিবেন জনাব এমজেডএফ।

১০| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:৩০

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন:




কয়েকদিন আগে কারো পোষ্টে পড়েছি “ হুমায়ূন আহমেদের বইয়ের এখন আর কোনো নাম ধাম নেই”। হয়তোবা - হয়তোবা না। ব্লগে হুমায়ূন আহমেদ সম্পর্কে ভুল তথ্য বিচরণ করে প্রচুর যেমনটা ফেসবুকে। তবে হুমায়ূন আহমেদের ছবি যে এখনো সচল আছে তা আপনার প্রচ্ছদে প্রমাণ করছে। ধন্যবাদ।। বাংলাদেশে বই কিনে পড়তে হবে এটি শিক্ষা দিয়েছেন কাজী আনোয়ার হোসেন আর হুমায়ূন আহমেদ।

শুভ কামনা রইলো। আপনার বই প্রকাশ স্বার্থক হোক এই কামনা করছি।


১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ রাত ৯:০২

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: হুমায়ুন সাহিত্যের আবেদন যুগ যুগ ধরে টিকে থাকবে।
তিন পুরুষের রম্য কথার বিষয়বস্তু নিয়ে আরেকটা পোস্ট করার ইচ্ছা আছে।
শুভ কামনার জন্য ধন্যবাদ নিন ঠাকুরমাহমুদ ।

১১| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:৫৭

শাহিন-৯৯ বলেছেন:



dame koto? দাম কত?
সব গল্পগুলো কি এই টাইপের? আগামী সোমবার বইমেলায় যাওয়ার পরিকল্পনা, জানিনা কতগুলো বই কিনতে পারবো, পকেট খুব বেশি স্বাস্হ্যবান অবস্থায় নেই।

একখানা গোপন কথা বলি- আমার ফেসবুক লিষ্টের বন্ধুদের প্রকাশিত বই কিনতে গেলে আমার কমপক্ষে দুই টাকা লাগবো!! অন্যদের বই দেখার সেীভাগ্যও হবে না!! তাই সিধান্ত নিয়েছি, চুপি চুপি যাব, প্রথম পাতা পড়বো, ভাল লাগলে কিনবো।

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ রাত ৮:৫৮

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: সব গল্পগুলো কি এই টাইপের? না-
এই গ্রন্থে আমি রবীন্দ্রনাথ,নজরুল ও হুমায়ুন আহমেদকে এক মলাটে নিয়ে এসেছি। গ্রন্থের আলোচ্য বিষয় এই তিনজনের রচনা প্রাচুর্যতা বা রচনা বৈচিত্র্য নয়, এখানে আলোচনা হয়েছে তিনজনের রসবোধ তথা রম্যকথা নিয়ে। যেমন-
একবার এক কবি রবীন্দ্রনাথের কাছে কলম ধার চাইলেন।ইনি আগেও উনার কাছ থেকে কলম ধার নিয়ে আর ফেরত দেননি। তিনি কলম চাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে রবিন্দ্রনাথ ঠাকুরকে জিজ্ঞেস করলেন, আপনি কি এই কবিতার দ্বিতীয় লাইনটা জানেন? প্রথম লাইনটা হচ্ছে ‘সকল পক্ষী মৎস্য ভক্ষী, মৎস্যরাঙ্গী কলঙ্কিনী'।
রবীন্দ্রনাথ কলমটা দিয়ে বললেন, 'নিশ্চয়ই জানি। লাইন দুটো দাঁড়াল এ রকম : সকল পক্ষী মৎস্য ভক্ষী, মৎস্যরাঙ্গী কলঙ্কিনী। সবাই কলম ধার চেয়ে নেয়, আমিই শুধু কলম কিনি!'

বিজলী ধর নামে নজরুলের এক ভক্ত অটোগ্রাফ নিতে এলে তিনি লিখে দিলেন ‘বি-জলি’। মানে Be jolly, অর্থাৎ হাসিখুশির মধ্যে থাক

পুরোদস্তুর মজার মানুষ যাকে বলে, সেই রকম একজন হুমায়ূন আহমেদের জীবনে অগণিত মজার ঘটনা আছে। সেখান থেকে নির্বাচিত কিছু মজার ঘটনা ও রসিকতা বইএর এক অংশে অধ্যায়ে তুলে ধরা হয়েছে।
এই তিনজনের মজার মজার সব কান্ড কথা নিয়ে এই বইয়ের উৎপত্তি।

১২| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ রাত ৮:৩৭

নেওয়াজ আলি বলেছেন: ভালো বই। ভালো সাথী । ভালো বই কিনা যাবে।

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ রাত ৯:০৩

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: বইটি যতক্ষন পড়বেন ততক্ষন আনন্দে থাকবেন বলেই আমার বিশ্বাস !

১৩| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ রাত ৯:৪১

ইসিয়াক বলেছেন: অভিনন্দন শুভেচ্ছা ও শুভকামনা রইলো প্রিয় ব্লগার।
ভালো থাকুন সবসময় ।

১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৪৬

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আপনিও ভ্যালেন্টাইন ডের শুভেচ্ছা নিন ইসিয়াক।

১৪| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ রাত ১০:১৬

এলে বেলে বলেছেন: লিটন ভাই আপনাকেও ফাগুনের শুভেচ্ছা। বসন্তের ফুল ফুূটুক আজ সবার হৃদয়ে।

১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৪৬

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ জানবেন এলে বেলে।

১৫| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ রাত ১১:৩৬

মা.হাসান বলেছেন: Khub bal laglo.

Cobi to goto barar ta dilen . Cukrubar gecilam , tokhono boi aseni.

১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৫৭

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ছবিতে একজনকে দেখা যাচ্ছে- তিনি অনুমান করার চেস্টা করছেন- আমার হাতের বইটা দিয়ে কি পরিমান কটকটি পাওয়া যাবে !! :P
আশা করছি শিঘ্রই ব্লগার আড্ডার ডেট ঘোষণা হবে। আরো আশা রাখছি মা.হাসান ভাইয়ের সাথে সেখানে দেখা হবে।

১৬| ১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ রাত ১২:০৫

মাহমুদুর রহমান সুজন বলেছেন: মজার পোস্টটি পড়ে মজাই পেলাম, বইটির বিপুল বিপনন কামনা করছি।

১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৪৯

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ জানবেন জনাব মাহমুদুর রহমান সুজন

১৭| ১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ রাত ১২:৩২

সোহানী বলেছেন: উহাকে এইবারও পাইলাম না... ইয়ে মানে মুরাদ টাকলা নয় আপনার বই!!!!

হোপ ফর নেক্সট্ টাইম..........

১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৫৪

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: মুরাদ টাকলারা আমাদের আশেপাশে আছে। সেদিন একজন ইনবক্স করেছে- i lik yor buk.
উহাকে এইবারও পাইলাম না... ইয়ে মানে মুরাদ টাকলা নয় আপনার বই!!!! কটকটি খাওয়ার মত বই অনেক আছে, কিন্তু সোহানী আপু একজনই। আফসোস উনার সাথে দেখা হলনা !

১৮| ১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ রাত ১২:৪৩

কাতিআশা বলেছেন: শুভকামনা রইল ভাইয়া!

১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:০৪

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ধন্যবাদ জানবেন কাতিআশা

১৯| ১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ সকাল ১০:৩৪

নূর মোহাম্মদ নূরু বলেছেন:
রম্যকথন অনেক রমজা করে
পাঠ করলাম। মেলায় প্রকাশিত
এধরনের বইয়ের পরিসংখ্যান আছে?

১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:০৭

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: না।
পত্রিকা মারফত জেনেছি গত মেলায় রম্য বই বেরিয়েছিল ৩টি, ১৮ সালে ২টি।

২০| ১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১:৫১

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: দুর্দান্ত। চরম বিনোদন হয়েছে। চেষ্টা করেছিলাম বাংলিশ দিয়ে লিখতে কিন্তু পারলাম না।
তিন পুরুষের অঙ্গ (রম্য) কথার জন্য অনেক অনেক শুভেচ্ছা রইল।

শুভেচ্ছা মান্যবর লেখক মহোদয়কেও।

১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:০৯

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: প্রথম ছবিতে আমি আপনাকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছিলাম। :D

২১| ১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ রাত ৮:৫৯

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: হেহেহে প্রতিমন্তব্যে আবার আসা। শুধু ছবিতে শুভেচ্ছা কেন, আমিতো হৃদয় থেকে তার অনেক আগেই পেয়ে গেছি।হেহেহে

১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ রাত ৯:৩১

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: অনেক অনেক ধন্যবাদ রইল পদাতিক চৌধুরি ।

২২| ১৫ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ রাত ৯:৪৪

অগ্নি সারথি বলেছেন: তিন পুরুষের রম্য কথার জন্য একটা প্রতীক্ষা তো রয়েছেই,উপরের ছবির জন্য আপাতত ধন্যবাদ।

১৬ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:০৭

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আমার প্রতীক্ষাও শেষ হচ্ছেনা সারথি ভাই।
আপনিও ধন্যবাদ নিন।

২৩| ১৮ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ রাত ৮:৫১

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: বেশতো ।কটকটি বহুদিন খাইনা । এরকম বুক কটকটি খেতে সহায়ক হবে নিশ্চয়ই । তাই সংগ্রহে থাকা আবশ্যক । :)

২৪| ০৬ ই মার্চ, ২০২০ রাত ৯:৪২

বিদ্রোহী ভৃগু বলেছেন: রম্য রাজের রম্য
বোঝা নয কম্ম
খালি হেসে যাই
বহুত মগা ;) পাই

হা হা হা

শেষটায়তো আমারেই টাশকিত করছিলেন প্রায়!
চিপা চুপার টাকা দিয়া ছবির বই কিনতে কইলেন ;) আমিতো কই সারছে এ দেখি টুইন ওয়ান :P
পরে বুঝলাম না আমাগো ছবির না ফুটুক দেয়া ছবির বইয়ের কথা কচ্চেন :P =p~ =p~

+++++

২৫| ১৪ ই এপ্রিল, ২০২০ সকাল ৯:৪৩

খায়রুল আহসান বলেছেন: চমৎকার রম্য বিজ্ঞাপন। পড়ে আনন্দ পেলাম।
কিন্তু বইটি প্রকাশ নিয়ে আপনাকে যেমন দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে, সেকথা স্মরণ করে খারাপও লাগছে।
দোয়া রইলো, বইটি দ্রুত আলোর মুখ দেখুক।
অনেকদিন ধরে ব্লগে আসছেন না বোধ হয়। ভাল আছেন তো?
সুস্বাস্থ্যে থাকুন সপরিবারে। শুভকামনা---

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.