নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

একজন সুখী মানুষ, স্রষ্টার অপার ক্ষমা ও করুণাধন্য, তাই স্রষ্টার প্রতি শ্রদ্ধাবনত।

খায়রুল আহসান

অবসরে আছি। কিছু কিছু লেখালেখির মাধ্যমে অবসর জীবনটাকে উপভোগ করার চেষ্টা করছি। কিছু সমাজকল্যানমূলক কর্মকান্ডেও জড়িত আছি। মাঝে মাঝে এদিক সেদিকে ভ্রমণেও বের হই। জীবনে কারো বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ করিনি, এখন তো করার প্রশ্নই আসে না। জীবন যা দিয়েছে, তার জন্য স্রষ্টার কাছে ভক্তিভরে কৃতজ্ঞতা জানাই। যা কিছু চেয়েও পাইনি, এখন বুঝি, তা পাবার কথা ছিলনা। তাই না পাওয়ার কোন বেদনা নেই।

খায়রুল আহসান › বিস্তারিত পোস্টঃ

এ আনন্দধারা বয়ে চলুক আরো কয়েকদিন, তবে সতর্কতারও প্রয়োজন আছে

২৩ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ৯:২৫

আজ দুপুর বারটার কিছু আগে বা পরে দেখি, সেলফোন থেকে সামহোয়্যারইনব্লগে খুব সহজেই, কোন বিকল্প পদ্ধতি ছাড়াই, প্রবেশ করতে পারছি। পরে ল্যাপটপ খুলে দেখি, সেখান থেকেও ব্লগে প্রবেশ নির্বিঘ্ন, বাধাহীন। এরকম অবশ্য এর আগেও বেশ কয়েকবার হয়েছে, তাই ব্যাপারটাকে তেমন গুরুত্ব দিলাম না। দুপুরে যোহরের নামায পড়ে এসে চেক করে দেখলাম, প্রবেশাধিকার তখনো উন্মুক্ত। ব্লগার কাওসার চৌধুরী ব্লগের ফেইসবুক গ্রুপে একটা পোস্ট দিয়ে জানালেন, তিনি আজ স্বাভাবিক পন্থায় ব্লগে প্রবেশ করতে পেরেছেন, আমারই মত।

মধ্যাহ্নভোজের পর আবার এসে দেখি, তখনো সহজেই প্রবেশ করা গেল। এবারে লক্ষ্য করে দেখলাম, ব্লগে তখন অন লাইনে আছেন ৪০ এর উপর, যা এতদিন ঐ সময়ে ৩০ এর নীচে থাকতো। একটু পর থেকেই ব্লগে এবং ফেইসবুকে একে একে পোস্ট আসতে শুরু করলো, পোস্টদাতারা সবাই নির্বিঘ্নে ব্লগে প্রবেশ করতে পারছেন। সবাই এতে উৎফুল্ল, আনন্দে বিহ্বল। পোস্টের সংখ্যা যেমন বাড়তে থাকলো, মন্তব্যের সংখ্যাও তেমনি। ধীরে ধীরে তা জয়ধ্বনিতে রূপ নিতে থাকলো, ব্লগে আনন্দ বন্যা বইতে শুরু করলো। সবার এই আনন্দ দেখে আমিও আনন্দিত বোধ করতে শুরু করলাম। একে একে সবার পোস্ট, সবার মন্তব্য পড়ে সে আনন্দে সামিল হ’লাম। যতই পড়তে থাকি, ততই আনন্দে আপ্লুত হতে থাকি। গানের চরণে চরণে প্রকাশিত কয়েকজনের শৈল্পিক আনন্দ উচ্ছ্বাস দেখে খুবই ভাল লাগতে থাকলো। মনে হচ্ছিল, এত দিনের আটকে রাখা উচ্ছ্বাস, উৎকন্ঠা, শঙ্কা, অপবাদের অংশীদার হওয়ার গ্লানি এবং অপমানবোধ, ইত্যাদি বহুবিধ অনুভূতি যেন এক্ষণে একটি মাত্র অনুভূতি- “আনন্দে” রূপান্তরিত হয়ে বাঁধ ভাঙা জোয়ারের মত চারিদিকে ছড়িয়ে পড়ছে।

ব্লগ উন্মুক্ত হবার পর পরই ব্লগার হাসান মাহবুব এর একটি সংক্ষিপ্ত পোস্টে এসে ব্লগজননী সৈয়দা গুলশান আরা ফেরদৌস জানা নিম্নোক্ত মন্তব্যটি রেখেছেনঃ
“অনেকেই নিজের ঘরে কোন বাধা ছড়াই প্রবেশ করতে পারছেন জেনে আমারও খুব ভাল লাগছে। তবে, আমাদের আরও কিছু সময় অপেক্ষা করতে হবে। আমি গণমাধ্যম গুলো এবং প্রভাইডারদের সাথে যোগাযোগ করছি। খুলে দিয়ে থাকলে সেটা অবশ্যই গণমাধ্যমে আসা উচিত। বিটিআরসি এবং মাননীয় মন্ত্রীকে ইন্টারভিউ করে বন্ধ এবং খোলার কারণ জানানো উচিত। এটা হলো আমার পেশাদারিত্ব। আমি খুব সাধারণভাবেই এর যত্ন করি। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আমিও যোগ দেবো সবার আনন্দে। আমাকে আর একটু সময় দিন সবাই"।

খুবই যুক্তিসম্মত এবং ন্যায়সঙ্গত এ দাবী। বাংলা ভাষায় প্রকাশিত বিশ্বের সর্ববৃহৎ এ ব্লগটিকে, যেখানে লক্ষ লক্ষ বাংলা ভাষা ভাষী প্রতিদিন ঘন্টায় ঘন্টায় বহু পোস্ট লিখতেন, রক্তে অর্জিত আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের মাস, বাঙালীর আত্মমর্যাদার মাস গত ফেব্রুয়ারী মাসে অতি সন্তর্পণে কোন জনবিজ্ঞপ্তি ছাড়াই পর্ণোগ্রাফীর মিথ্যে অভিযোগ টেনে বন্ধ করে দেয়া হয়েছিল। ঠিক তেমনি করেই আজ আবার তা কোন আনুষ্ঠানিক ঘোষণা ছাড়াই চুপিচুপি উন্মুক্ত করে দেয়া হলো। কাজেই, সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে জিজ্ঞাসার মাধ্যমে এর কারণগুলো জনস্বার্থে গণমাধ্যমে প্রকাশ করার দাবীটা একটা নায্য দাবীই বটে।

যাই হোক, ব্লগটি অপশাসন থেকে মুক্ত হয়েছে, এটাই এখন একটা বড় স্বস্তির বিষয়। শুভবুদ্ধির এ জাগরণ আরো বিকশিত হোক, প্রশাসনের সর্বক্ষেত্রে প্রসারিত হোক, দেশের একজন সুনাগরিক হিসেবে এটাই এখন আমাদের প্রত্যাশা। তবে এ ব্যাপারে আমাদেরও কিছু করণীয় আছে। সকল ব্লগারদেরকে সতর্ক থাকতে হবে, যেন তাদের পোস্টে কেউ অশ্লীল কোন ছবি মন্তব্যের ঘরে পোস্ট করতে না পারে। করলে কর্তৃপক্ষের নিকট দ্রুত অভিযোগ উল্থাপন করে তৎক্ষনাৎ তা মুছে ফেলতে হবে। ব্লগ পরিচালকদেরকেও এ ব্যাপারে সদা সতর্ক থাকতে হবে এবং কোন অভিযোগ পাওয়া মাত্রই তাদেরকে প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা নিতে হবে। সাধারণতঃ এসব ঘটনা বাংলাদেশের স্থানীয় সময় গভীর রাতে ঘটার সম্ভাবনা বেশী থাকে। তাই গভীর রাতে অন্ততঃ একজন মডারেটরকে পালাক্রমে খেয়াল রাখতে হবে। প্রয়োজন বোধে মডারেটরের সংখ্যাও বাড়ানো যেতে পারে।

ব্লগারদেরকে তাদের পোস্টের কনটেন্ট এবং মন্তব্য/প্রতিমন্তব্যের পূর্ণ দায়িত্ব নিতে হবে। চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হলে তাদেরকে যথাযথ সাক্ষ্য প্রমাণসহ নিজ বক্তব্যকে স্বচ্ছতার সাথে প্রতিষ্ঠিত করতে হবে। পোস্টে এবং মন্তব্য/প্রতিমন্তব্যে সরাসরি ব্যক্তি আক্রমণ বা বিদ্বেষমূলক কোন কথাবার্তা থেকে বিরত থাকতে হবে। আলোচনা সমালোচনা অবশ্যই করা যেতে পারে, কিন্তু তা যেন কোনক্রমেই ব্যক্তি আক্রমণে পরিণত না হয়, কোন হুমকি হিসেবে পরিগণিত না হয়। বিশেষ করে ধর্মীয় কোন বক্তব্য বা মন্তব্য প্রকাশ কালে এ ব্যাপারে সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে, তা যেন অন্য ধর্মীয় মতবাদে বিশ্বাসী কোন সম্প্রদায়কে আহত না করে। এসব কথা ব্লগীয় নীতিমালায় অন্তর্ভুক্ত আছে বলে আমার বিশ্বাস, তবুও স্মরণ করিয়ে দিচ্ছি যেন আমরা নতুন কোন অপবাদের শিকার না হই।

এ মুহূর্তে ব্লগে অন লাইনে রয়েছেন ৫৫ জন ব্লগার, ভিজিটর ৯১৭ জন, ৭৭১ জন মোবাইল থেকে। এ সময়ে এরকম পরিসংখ্যান ব্লগ ব্লক হবার পর থেকে দেখা যায়নি। কাজেই এটা ব্লগারদের জন্য একটি আনন্দ সংবাদ। মুখে মুখে কথা ছড়িয়ে যাচ্ছে। যারা এতদিন প্রবেশাধিকার না পেয়ে ব্লগ থেকে দূরে ছিলেন, তারা আবার ফিরে আসছেন। অনেকেই আবার ইতোমধ্যে তাদের পাসওয়ার্ড হারিয়ে ফেলেছেন। তারা ফীডব্যাক ঠিকানায় গিয়ে/ ফেইসবুক পেইজে পোস্ট/মন্তব্যের মাধ্যমে তাদের পাসওয়ার্ড ফিরে পাবার ব্যাপারে মডারেটরের সাহায্য কামনা করছেন। মডারেটরও যথাসম্ভব সাহায্য করে চলেছেন, ইনবক্স বার্তার ভারে তার ইনবক্স সহজে খুলছেনা বলে তিনি জানিয়েছেন। সবাই খুশীর সাথেই ধৈর্য ধারণ করে অপেক্ষা করছেন, এটাও একটা বড় স্বস্তির কথা। আশাকরি, আগামী দু’তিন দিনের মধ্যে ব্লগ আবার স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে যাবে। আসুন, আমরা সবাই মিলে, ইতোমধ্যে অনেক নতুন যোগ হওয়া ব্লগারদের নিয়ে, নতুন-পুরাতন-অতি পুরাতন সবাই মিলে নতুন নতুন পোস্ট লিখে ব্লগকে সমৃদ্ধ করে তুলি। দেশকে নিয়ে ভাবি, দেশের সমস্যা নিয়ে, জনগণের সমস্যা নিয়ে ভাবি ও লিখি, সেই সাথে কিছু সাহিত্য-শিল্প চর্চাও করি, গান-গল্প-কবিতা-প্রবন্ধ-নিবন্ধ-কথিকা লিখি, বেড়িয়ে আসা দেশ নিয়ে ভ্রমণ কাহিনী লিখি, প্রবাসীরা তাদের মজার মজার অভিজ্ঞতার কথা লিখি, এবং অতি অবশ্যই, সচেতনতার সাথে, নির্মোহভাবে চলমান রাজনীতির গতি প্রকৃতি নিয়েও লিখি। যার যে যে বিষয় পছন্দ তিনি সেই সব বিষয় নিয়ে লিখবেন, পড়বেন এবং মন্তব্য করবেন।

সবাইকে শুভকামনা, এবং ব্লকমুক্তির অভিনন্দন! ভাল থাকুন প্রত্যেকেই।

ঢাকা
২৩ অক্টোবর ২০১৯

মন্তব্য ৬৮ টি রেটিং +২৫/-০

মন্তব্য (৬৮) মন্তব্য লিখুন

১| ২৩ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ৯:৩৮

মা.হাসান বলেছেন: আমার আইএসপির সঙ্গে আজ রাত নটায় কথা হলো । ওনারা ওনাদের ডাটাবেজ থেকে সরকারি নির্দেশমালা চেক করে জানালেন এই ওয়েবসাইট খোলা সংক্রান্ত কোনো নির্দেশনা বা চিঠি ওনারা এখনো পাননি । মডারেটরের তরফ থেকে কোনো সুসংবাদ না আসা পর্যন্ত নিশ্চিত হতে পারছি না।

২৩ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ৯:৪৬

খায়রুল আহসান বলেছেন: ধন্যবাদ আপনার এ আপডেটটুকুর জন্য। আমার মনে হয়, আমি সেই লক্ষ ব্লগারদের মধ্যে নগণ্য একজন, যারা আর পিছু ফিরে যাইতে চাইবেন না। সার্ভিস প্রোভাইডারগণ কোন নির্দেশ পান বা না পান, খুলে যাওয়া ব্লগ যেন আবার বন্ধ না হয়, হলে তা দেশের এক বিরাট শিক্ষিত জনগোষ্ঠীর আশাভঙ্গের এবং মনবেদনার কারণ হবে। সেটা নিশ্চয়ই দেশের জন্য কোন সুফল বয়ে আনবে না।
এ ব্যাপারে কোন খোলাখুলি নির্দেশ প্রদান করাটাও কর্তৃপক্ষের জন্য বিড়ম্বনামূলক এবং বিব্রতকর মনে হতে পারে।

২| ২৩ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ৯:৩৯

ইসিয়াক বলেছেন: চমৎকার লিখেছেন ।

২৩ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ১০:৪৬

খায়রুল আহসান বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ। মন্তব্যে এবং প্লাসে প্রীত ও অনুপ্রাণিত।

৩| ২৩ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ৯:৪০

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন:

মহিষের খাঁটি দুধের তৈরি টাটকা দইয়ের শুভেচ্ছা নিবেন।

২৩ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ১১:১৫

খায়রুল আহসান বলেছেন: একটু আগে কিছু রিচ ফুড খেয়ে উঠলাম। খেয়ে উঠেই আপনার এই মহিষের খাঁটি দুধের তৈরি টাটকা দইয়ের ঘটি দেখে সত্যিই খুব খেতে ইচ্ছে হলো। তাই, মনে মনে খেয়ে নিলাম! :)

৪| ২৩ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ৯:৪৪

তারেক ফাহিম বলেছেন: সামু ব্লগ ব্লক মুক্তির অভিনন্দন আপনাকেও।

২৩ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ১১:২২

খায়রুল আহসান বলেছেন: ধন্যবাদ, প্রীত হ'লাম। এখন আরো বেশী বেশী করে লিখুন।

৫| ২৩ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ৯:৪৫

রাজীব নুর বলেছেন: যথাসময়ে গুরুত্বপূর্ন পোষ্ট দিয়েছেন।
আমি বলল সবাইকে আপনার পোষ্টটি মন দিয়ে পড়তে।
দরকার আছে।

২৪ শে অক্টোবর, ২০১৯ সকাল ৯:২৬

খায়রুল আহসান বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ।
আর কেউ পড়ুক বা না পড়ুক, আপনি পড়েছেন এবং এত সুন্দর একটা কথা বলেছেন, এতেও আমি অনেক খুশী।
ভাল থাকুন, শুভকামনা...

৬| ২৩ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ৯:৪৯

পাঠকের প্রতিক্রিয়া ! বলেছেন: জানা আপার মন্তব্যকে সমর্থন করছি। গণতান্ত্রিক দেশে এমন স্বৈরতান্ত্রীক কাজের জবাব চাই।


লেখক, পাঠক ও মডুদের আরো সতর্ক থাকতে হবে।

২৪ শে অক্টোবর, ২০১৯ সকাল ৯:৫৩

খায়রুল আহসান বলেছেন: গণতান্ত্রিক দেশে এমন স্বৈরতান্ত্রীক কাজের জবাব চাই - দেশে এখন জবাবদিহিতার অভাব, তা না হলে কর্তৃপক্ষীয় একটা ঘোষণার মাধ্যমেই অবরুদ্ধ এবং অবমুক্ত করার কারণ ও প্রক্রিয়াটুকু দেশবাসী জানতে পারতো।
পোস্ট পাঠ এবং মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ।

৭| ২৩ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ৯:৫৪

বিদ্রোহী ভৃগু বলেছেন: যথার্থ পোষ্ট!

আনন্দের মাঝেও আতিশায্যের বাইরে এমন দিকনির্দেশনা মুলক পোষ্টও প্রয়োজন।
সকলের আবেগকে এক সুতোয় গেথে দিলেন।
সতর্কতা আর জানাপুর আবেদন্ও পুর্ন পেশাদারীত্বে পূর্ণ এবং ন্যাযসংগতও বটে।

আমরা আনন্দকে বুকে চেপে অপেক্ষা করি
তারপর না হয় ভেঙ্গে পরবো বাঁধ ভাঙা সুখের জোয়ারে ...

আমাদের এই ব্লগ লেখাতেই আনন্দ ;) গাইতে গাইতে

২৪ শে অক্টোবর, ২০১৯ সকাল ১০:৩৫

খায়রুল আহসান বলেছেন: সকলের আবেগকে এক সুতোয় গেথে দিলেন - ধন্যবাদ, প্রীত হ'লাম এমন মন্তব্যে। প্লাসে অনুপ্রাণিত।
আমাদের এই ব্লগ লেখাতেই আনন্দ - ঠিক তাই। :)

৮| ২৩ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ৯:৫৪

সম্রাট ইজ বেস্ট বলেছেন: অবমুক্ত হওয়ার পর আশা করি সামু আর অবরুদ্ধ হবে না!

২৪ শে অক্টোবর, ২০১৯ সকাল ১০:৫২

খায়রুল আহসান বলেছেন: অবমুক্ত হওয়ার পর আশা করি সামু আর অবরুদ্ধ হবে না! - আমিও তাই আশা করি। এ আশাই সত্য হোক!
ধন্যবাদ, অনেকদিন পরে এসে আমার একটি পোস্ট পড়ে যাবার জন্য, এবং এখানে একটি প্লাসও রেখে যাবার জন্য।

৯| ২৩ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ৯:৫৭

মনির হোসেন মমি বলেছেন: অসংখ্য ধন্যবাদ।যদিও আমি সোনেলা ব্লগের ব্লগার কিন্তু এ ব্লগটির সেইফ জুনে আসতে আমাকে প্রায় বছর খানেক সময় লেগেছে।সেই ব্লগটি যখন হঠাৎ কোন কারণ ছাড়াই বন্ধ হয়ে যায় তখন কষ্ট লাগে।
যাক আবার যখন ব্লগ সচল তখন হলই তখন সাথেই আছি।খুব সুন্দর উপস্থাপণা।

২৪ শে অক্টোবর, ২০১৯ সকাল ১১:০১

খায়রুল আহসান বলেছেন: ধন্যবাদ আপনাকেও, ব্লগ অবমুক্তির এই শুভক্ষণে এসে আমার এ ব্লগটি পড়ে যাবাও জন্য এবং প্রশংসা করার জন্য।

১০| ২৩ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ১০:২০

আহমেদ জী এস বলেছেন: খায়রুল আহসান,




আনন্দের পাশাপাশি যে সতর্কতার কথা আপনি জানালেন, আগামী বেশ কয়েকদিন তা মেনে চলতে হবে। চলা উচিৎ কারন আমরা এখনও নিশ্চিত নই আসলেই ব্লগ অবমুক্ত কিনা, যেমনটা ব্লগাধিকারিনী "জানা"ও নিশ্চিত করে বলতে পারেননি। আমি অবশ্য গত পনের/বিশ দিন আগে থেকেই সরাসরিই ব্লগে ঢুকতে পারছিলুম। একটানা ৬/৭ দিন এভাবেই ব্লগিং করেছি। মাঝখানে ৩/৪ দিন আবার বন্ধ ছিলো। আজ সকাল ৭টার পরে কৌতুহল বশতঃ নর্মাল ব্রাউজারে সামু ক্লিক করতেই ঢুকতে পারা গেছে। একটু সন্দেহ হলো , তা হলে কি মুক্তি আসন্ন! দুপুর বেলাতেই দেখি ব্লগ সরগরম। তবুও সম্পূর্ণ শঙ্কা মুক্ত হতে পারছিনে।

তাই আপনার পোস্টটির সতর্কতার কথাগুলো খুব যৌক্তিক এ সময়োপযোগী বলে মনে হলো।
তাই উৎফুল্ল সকল সহব্লগারদের কাছে অনুরোধ, এটা মেনে চলুন যতোক্ষন পর্যন্ত না ব্লগ অফিসিয়ালী অবমুক্ত হয়। হলেও তারপরে এই ট্রাডিশনটা ধরে রাখুন ব্লগে আমাদের নির্বিঘ্ন বিচরণের স্বার্থেই।

২৪ শে অক্টোবর, ২০১৯ দুপুর ১:৫৪

খায়রুল আহসান বলেছেন: এখন অবশ্য নিশ্চিত হওয়া গেছে যে সামু ব্লগ আসলেই গতকাল থেকে অবমুক্ত হয়েছে। সংশ্লিষ্ট মন্ত্রী মহোদয়ের (কিংবা অন্য কারো) বোধোদয় হয়েছে।
মন্তব্যে এবং প্লাসে অনুপ্রাণিত। ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা....

১১| ২৩ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ১১:০২

চাঁদগাজী বলেছেন:



অনেক বড় সুসংবাদ।

তবে, সামু থেকে ব্যাখ্যা না পাওয়া অবধি, ঠিক বুঝা যাবে না, কি হচ্ছে! আমার মনে একটা খারাপ চিন্তা আসছে, এবং আশাকরি, এটি পুরোপুরি ভুল চিন্তা: যারা সামুকে আটকে রেখেছিলো, তাদের সফটওয়ারে (ব্লকিং সুইচ) কোন ধরণের টেকনিক্যাল সমস্যা ঘটলো কিনা, যার ফলে সামু সাময়িকভাবে মুক্তি পেলো!

২৪ শে অক্টোবর, ২০১৯ দুপুর ২:১০

খায়রুল আহসান বলেছেন: তাদের সফটওয়ারে (ব্লকিং সুইচ) কোন ধরণের টেকনিক্যাল সমস্যা ঘটলো কিনা, যার ফলে সামু সাময়িকভাবে মুক্তি পেলো - এখন বোধহয় আর সে শঙ্কাটি নেই। মন্ত্রী মহোদয়ের বোধোদয় হয়েছে। তিনি ফেইসবুকে স্বীকার করেছেন, "প্রযুক্তিকে আটকে রাখা যায় না"

১২| ২৩ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ১১:০৩

আখেনাটেন বলেছেন: [sbআপনি লিখেছেন, 'এ ব্যাপারে কোন খোলাখুলি নির্দেশ প্রদান করাটাও কর্তৃপক্ষের জন্য বিড়ম্বনামূলক এবং বিব্রতকর মনে হতে পারে'। --- আমারও তাই মনে হয়। দেখা যাক।

মসৃন পথচলা হোক এই মুক্ত মত প্রকাশের মাধ্যমটির।

২৪ শে অক্টোবর, ২০১৯ বিকাল ৩:০৪

খায়রুল আহসান বলেছেন: হ্যাঁ, আমার কাছে সেরকমটিই মনে হয়েছে। আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের মাসে বাংলা ভাষায় মুক্তবুদ্ধি ও সাহিত্য চর্চার সর্ববৃহৎ প্লাটফর্ম এই সামু ব্লগের দুয়ারে তালা ঝোলানোর পর আমার মনে হয় মন্ত্রী মহোদয় নিজেও বুঝতে পেরেছিলেন, কাজটি তিনি ঠিক করেন নাই। এ নিয়ে সম্ভবতঃ তার দলের সমর্থকদের কাছেও তিনি প্রশ্নের সম্মুখীন হয়েছিলেন। দুই বাংলা ছাড়াও, বিশ্বের আনাচে-কানাচে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা বাংলা ভাষা ভাষীরা তার এবং তার অধীনস্থ দপ্তরের প্রতি উষ্মা প্রকাশ করে চলেছিলেন। এমতাবস্থায় তিনি হয়তো একটি এসকেপ রুট খুঁজছিলেন। সময় বুঝে চুপি চুপি তিনি সেই পথটি ধরেছেন।

১৩| ২৩ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ১১:১৭

শাহাদাৎ হোসাইন (সত্যের ছায়া) বলেছেন: আজ অনেক ভালো এবং আনন্দ লাগছে।

২৪ শে অক্টোবর, ২০১৯ বিকাল ৩:৪২

খায়রুল আহসান বলেছেন: ভাল থাকুন, আনন্দে থাকুন এবং বেশী বেশী করে পোস্ট লিখুন। আপনি অনেকদিন ধরে ব্লগে অনুপস্থিত ছিলেন। এখন সেটা পুষিয়ে দিন। :)

১৪| ২৪ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ১২:২৪

শায়মা বলেছেন: ব্লগের জন্য শুভকামনা! আর হারাতে চাইনা সামুকে।

২৪ শে অক্টোবর, ২০১৯ বিকাল ৪:০৩

খায়রুল আহসান বলেছেন: আপনার জন্যেও অনেক শুভকামনা! ব্লগের চরম দুর্দিনে আপনি ব্লগের মাটি কামড়ে এখানে পড়ে ছিলেন, সেটা ব্লগবাসী অনেকদিন মনে রাখবে।
পোস্ট পড়ার জন্য ধন্যবাদ।

১৫| ২৪ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ১:১৭

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:



সামহোয়্যারইন আমাদের গর্ব, আমাদের অহংকার। লেখার শুরুতে আমার নামমটি দেখে খুব ভালো লাগলো। গুণীজনের আশীর্বাদ আমাদের জন্য বিশেষ প্রেরণা। আজ ব্লগের বিশেষ দিন। দীর্ঘদিনের অপেক্ষা আর অপমানের গ্লানি থেকে ব্লগাররা মুক্তি পেলেন। এটা অর্জন, এটা সন্তুষ্টি। এই "সামহোয়্যারইনব্লগ" কতশত এমনকি হাজারো সৃজনশীল মানুষের জন্ম দিয়েছে। কত গুণী লেখক জন্ম দিয়েছে তার সঠিক হিসাব কারো কাছে হয়তো নেই। বাংলা ভাষার চর্চা, জ্ঞান অর্জন আর মুক্ত চিন্তার বিকাশের জন্য সামুর অবদান অপরিসীম। সামু বেঁচে থাকবে, বাংলা ভাষা যতদিন বাঁচবে।

২৪ শে অক্টোবর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:২০

খায়রুল আহসান বলেছেন: দীর্ঘদিনের অপেক্ষা আর অপমানের গ্লানি থেকে ব্লগাররা মুক্তি পেলেন। এটা অর্জন, এটা সন্তুষ্টি - ঠিক এই অনুভূতিটাই আমাকে গতকাল থেকে ঘিরে রেখেছে। ধন্যবাদ।
সামু বেঁচে থাকবে, বাংলা ভাষা যতদিন বাঁচবে। - তাই যেন হয়!!
মন্তব্যে এবং প্লাসে প্রীত ও অনুপ্রাণিত।

১৬| ২৪ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ২:২৫

ডঃ এম এ আলী বলেছেন:
এ আনন্দধারা বয়ে চলুক আরো কয়েকদিন, তবে সতর্কতারও প্রয়োজন আছে
আপনার মুল্যবান বক্তব্যের সাথে সহমত ।

২৪ শে অক্টোবর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৪৫

খায়রুল আহসান বলেছেন: আপনার এই ছোট্ট মন্তব্যটিও আমার জন্য অনেক মূল্যবান, ডঃ এম এ আলী
ভাই, আপনার শরীর এখন কেমন আছে? পুরনো সাইটিকার ব্যথাটিই কি আবার মাথা চাড়া দিয়ে উঠেছে, নাকি অন্য কিছু?
আশাকরি, প্রয়োজনীয় বিশ্রামটুকু শরীরের জন্য বরাদ্দে রাখছেন। দ্রুত আরোগ্য লাভ করুন, পরম করুণাময়ের কাছে আমার এই প্রার্থনা রইলো।
মন্তব্যে এবং প্লাসে অনুপ্রাণিত। অনেক, অনেক ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা----

১৭| ২৪ শে অক্টোবর, ২০১৯ বিকাল ৩:১১

ঢাবিয়ান বলেছেন:

সবাই মিষ্টি দিয়ে মুক্তি সেলিব্রেট করছে, আমি আসন্ন শীতের গাঁদা ফুলের শুভেচ্ছা জানালাম সব ব্লগারদের। হ্যাপী ব্লগিং

২৪ শে অক্টোবর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:০৪

খায়রুল আহসান বলেছেন: এ ফুলেল শুভেচ্ছার জন্য ধন্যবাদ ও শুভকামনা----

১৮| ২৪ শে অক্টোবর, ২০১৯ বিকাল ৩:১৪

স্বপ্নবাজ সৌরভ বলেছেন: "প্রযুক্তিকে আটকে রাখা যায় না"।

শুভেচ্ছা নিন স্যার। সুন্দর লেখা প্রিয়তে নিলাম।

২৪ শে অক্টোবর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:২৮

খায়রুল আহসান বলেছেন: সুন্দর লেখা প্রিয়তে নিলাম - অনিঃশেষ কৃতজ্ঞতা, হে সুজনেষু!
প্রীত, অনুপ্রাণিত এবং অভিভূত!

১৯| ২৪ শে অক্টোবর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৩৯

নতুন নকিব বলেছেন:


সময়োপযোগী পোস্ট। গড্ডলিকা প্রবাহে গা ভাসিয়ে না দিয়ে সতর্কতার সাথে সার্বিক পরিস্থিতি লক্ষ্য রেখে পথ চলা উচিত সকলের।

এমন গুরুত্ববহ একটি পোস্টের জন্য অভিনন্দন আপনাকে।

২৪ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ৮:১১

খায়রুল আহসান বলেছেন: সতর্কতার সাথে সার্বিক পরিস্থিতি লক্ষ্য রেখে পথ চলা উচিত সকলের - অবশ্যই! উদ্ভূত পরিস্থিতিতে এটা এখন সকলের অবশ্য-কর্তব্য।
মন্তব্যে এবং প্লাসে অনুপ্রাণিত। অনেক, অনেক ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা----

২০| ২৪ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ৮:২৩

প্রামানিক বলেছেন: খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি পোষ্ট। ভবিষ্যতে যাতে আর কখনও সামু ক্ষতিগ্রস্ত না হয় সেদিকে দৃষ্টি রেখে সবাইকে সতর্কতার সাথে লেখালেখি করা প্রয়োজন।

২৪ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ৯:৫৩

খায়রুল আহসান বলেছেন: ভবিষ্যতে যাতে আর কখনও সামু ক্ষতিগ্রস্ত না হয় সেদিকে দৃষ্টি রেখে সবাইকে সতর্কতার সাথে লেখালেখি করা প্রয়োজন - চমৎকার বলেছেন। এই কথাটিই আমিও বলতে চেয়েছি।
ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা....

২১| ২৪ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ৮:৩৫

সুনীল সমুদ্র বলেছেন: সামহয়্যারকে যদি 'একাল' আর 'সেকাল'-এ বিভক্ত করি, তবে বলা যায় 'একালের সামহয়্যারে' একজন ব্যক্তিত্বের লেখা আমাকে খুব মুগ্ধ এবং অবাক করে দেয়। হ্যাঁ, তিনি আর কেউ নন, প্রিয় লেখক -জনাব খায়রুল আহসান । ... 'একালের ইনি' সেই 'সেকালের আমাদের' মতোই সামহয়্যারকে প্রচন্ড ভালোবাসেন, তা' তার লেখা থেকেই বোঝা যায়। ... কিভাবে সামহয়্যারকে প্রাণবন্ত, সতেজ ও নিরাপদ রাখা যায়, সে বিষয়ে তার সময়োপযোগী এই লেখাটি ভালো লাগলো খুব। তাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।

....... কথাপ্রসঙ্গে বলি ... জনাব খায়রুল আহসান-এর আরও একটি বিষয় আমার নজর কেড়েছে, আর তা হলো, তিনি খুব খুঁজে খুঁজে সেই সেকালের সামহয়্যারের পুরনো দিনের ভালো ভালো লেখাগুলো পড়েন এবং কখনো কখনো সেসব লেখাতে মন্তব্যও লেখেন। ... ফলে সেইসব লেখার লেখক, যারা বহুদিন ধরে সামহয়্যারে অনুপস্থিত, তারা হঠাৎ করে তাদের পুরনো দিনের কোন লেখায় জনাব খায়রুল আহসান-এর মন্তব্য পেয়ে নিশ্চয়ই চমকে ওঠেন, নস্টালজিয়ায় আক্রান্ত হন ... এবং হয়তোবা কেউ কেউ .... আবার নতুন করে ফিরে আসার অণুপ্রেরণাও পান। .... অনেক অনেক ধন্যবাদ, একালের সামহয়্যারের এই বিশিষ্ট লেখক ব্যক্তিত্বকে । ...

২৪ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ১০:২৬

খায়রুল আহসান বলেছেন: আপনি তের বছরেরও বেশী সময় ধরে এ ব্লগে লিখছেন, আপনি এ ব্লগের এক প্রাচীন বটবৃক্ষ। আপনার মত একজন অভিজ্ঞ ব্লগারের কাছ থেকে এমন প্রাণস্পর্শী মন্তব্য পেয়ে আমি সত্যই উচ্ছ্বসিত, অভিভূত। আপনার কিছু লেখা আমি পড়েছি, একেবারে প্রথম লেখাটি পড়েই অভিভূত হয়েছিলাম, মন্তব্যও করেছিলাম। আপনার লেখায় প্রাণের আবেগ থাকে, তাই সহজেই সেসব লেখা অন্যের মনে রেখাপাত করে যায়।
আপনি ঠিকই বলেছেন, এখানে ব্লগিং শুরু করার কিছুদিন পর থেকেই আমি পুরনো ব্লগারদের লেখা খুঁজতে শুরু করি। প্রথমে এ অভ্যেসটা শুরু হয়েছিল কোন একজনের লেখার বা মন্তব্যের লিঙ্ক ধরে ধরে। তার পর নিজেই আন্দাজ করে নিতে পেরেছি, কারা কারা কোন ধরণের লেখক। যাদের লেখা পড়তে ভাল লাগে, তাদের লেখা আমি প্রায়ই পড়ি। অনেক সময় এখনকার আর তখনকার কিছু লেখা পড়ে একটা তুলনামূলক চিত্রও অনুসন্ধান করি।
এ ব্লগে এসে আমি অনেক আলোকিত মানুষের সন্ধান পেয়েছি। ব্লগাররা বেশীরভাগই অন্তর্মুখী হয়ে থাকেন। অন্তর্মুখী মানুষের মনে গল্প বেশী থাকে। সেসব গল্প তাদের লেখা গল্পে, কবিতায়, কথিকায়, আলোচনায়, মন্তব্যে, প্রতিমন্তব্যে শোনা যায়, একটু কান পেতে শুনলেই। লেখালেখির মাধ্যমে চমৎকার এসব গল্পকারদের সান্নিধ্য আমি উপভোগ করি।
বলতে পারি, এ পোস্টে আপনার মন্তব্যটাই এখন পর্যন্ত আমার সেরা প্রাপ্তি। তার সাথে একটি 'লাইক' যোগ করে আমাকে অনেক অনুপ্রাণিত করে গেলেন। সেজন্যে অশেষ ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

২২| ২৫ শে অক্টোবর, ২০১৯ ভোর ৫:০১

সুলতানা শিরীন সাজি বলেছেন: আপনার লেখাটা শুধু আনন্দের প্রকাশ নয়।
সত্যি তাই। সতর্কতার ব্যাপারটাও মাথায় রাখতে হবে।ব্লগ এবং ব্লগার শব্দের প্রতি মানুষের মনোভাব বদলাতে হবে।
আপনার লেখাটা কাল পড়েছিলাম। সাথে সাথে মন্তব্য দেয়া হয়নি। আপনাদের উপস্থিতি ব্লগকে সমৃদ্ধ করেছে। খুব ইচ্ছা করে আবার আসি,বসি লিখি এখানে।বারো বছর হতে চললো এখানকার জীবন,ব্লগ বাড়িতে লেখালেখি।।
এত মায়া এখানে!
কত ভালো লেখা পড়েছি। লেখক,কবিদের সাথে পরিচয় হয়েছে। কিছু মানুষ অজানা নিকের আড়ালে থেকেই হারিয়ে গেছে। সবার জন্যই মায়া হয়।
আমরা সবাই যে যেখানে আছি, ভালো থাকি।
পাশে থাকি। শুভেচ্ছা এবং অভিনন্দন সবাইকে।
ভালো থাকবেন।

২৫ শে অক্টোবর, ২০১৯ সকাল ১০:১৪

খায়রুল আহসান বলেছেন: @সুলতানা শিরীন সাজি, আমি ঠিকই লক্ষ্য করেছিলাম, আমার এ পোস্টটাতে আপনিই সবার আগে প্রথম প্লাসটা রেখে গিয়েছিলেন। পুনর্বার এখানে ফিরে এসে দুটো কথাও বলে যাবার জন্য অশেষ ধন্যবাদ।
আপনাদের উপস্থিতি ব্লগকে সমৃদ্ধ করেছে - আপনারা, পুরনোরা যে ভিত তৈরী করে রেখে গেছেন, আমরা তারই উপর দাঁড়িয়ে আমাদের সামান্য অবদানটুকু রাখার চেষ্টা করে যাচ্ছি। তবুও, আপনার এ মূল্যায়ন নিঃসন্দেহে প্রভূত প্রেরণাদায়ক।
এত মায়া এখানে! - এই মায়ার টানেই তো সবাই আসে!
আশাকরি ভাল আছেন। শুভকামনা---

২৩| ২৫ শে অক্টোবর, ২০১৯ ভোর ৬:০৩

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: সতর্কতা অবলম্বন করা উচিত। আমার একবার মনে হয়েছিল যে আমি ভিপিএন দিয়ে ব্লগে প্রবেশ করবো কেনো। কিন্তু পরে এই ভাবনা এলো যে ভিপিএন দিয়ে হলেও ব্লগিং করবো কারণ এটা মন্দ কিছু নয়। আর আমরা যে অপ্রতিরোধ্য এবং প্রতিদিন ব্লগিং ঠিকই চলছে এটাও বুঝিয়ে দেয়া যাবে।তাই পোস্ট করতে থাকি একের পর একটা।

২৫ শে অক্টোবর, ২০১৯ সকাল ১০:৪৯

খায়রুল আহসান বলেছেন: আমরা যে অপ্রতিরোধ্য এবং প্রতিদিন ব্লগিং ঠিকই চলছে এটাও বুঝিয়ে দেয়া যাবে।তাই পোস্ট করতে থাকি একের পর একটা - আমিও ঐ স্পিরিট থেকেই এখানে নিয়মিত হাজিও থাকাও চেষ্টা করতাম। আমার ব্লগ পরিসংখ্যান বলে দেয়, অবরুদ্ধ অবস্থায় এখানে আমার পোস্ট ও মন্তব্যের সংখ্যা মোটেই কমেনি, বরং বেড়েছে।
মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ, বিশেষ করে সতর্কতা অবলম্বন এর ব্যাপারে একমত হবার জন্য।

২৪| ২৫ শে অক্টোবর, ২০১৯ সকাল ১১:৫১

করুণাধারা বলেছেন: আনন্দধারায় আমিও ভেসেছি সাথে সাথেই, কিন্তু সবার সাথে শামিল হতে দেরি হয়ে গেল 'ফ্লু'তে আক্রান্ত হবার কারণে। তবু এখন পর্যন্ত আনন্দের রেশ মিলিয়ে যায়নি, আমিও শামিল হলাম সবার সাথে...

ফ্রি ভিপিএন আসলে খুব বিরক্তিকর ছিল, মাঝে মাঝেই কেটে যেত আর কানেক্ট হতো না। সেই যন্ত্রণা থেকে মুক্তি পেয়ে খুব ভালো লাগছে। তবে আপনার সাথে সহমত, এখনো সাবধানতা অবলম্বন করা জরুরী, বিশেষ করে লেখার বিষয়বস্তু সম্পর্কে যত্নশীল হওয়া দরকার।

তাৎক্ষণিকভাবে চমৎকার পোস্ট দিয়েছেন, দেরি করে হলেও লাইক।

২৫ শে অক্টোবর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:১৪

খায়রুল আহসান বলেছেন: আমিও শামিল হলাম সবার সাথে... - Welcome on board!
ফ্লু যে আপনার স্পিরিট কে পরাভূত করতে পারেনি, এটা দেখে প্রীত হ'লাম।
এখনো সাবধানতা অবলম্বন করা জরুরী, বিশেষ করে লেখার বিষয়বস্তু সম্পর্কে যত্নশীল হওয়া দরকার - এ কথাটা বরাবরের জন্য প্রযোজ্য, তবে এখনকার মত বোধ হয় আর কখনো নয়।
তাৎক্ষণিকভাবে চমৎকার পোস্ট দিয়েছেন, দেরি করে হলেও লাইক - অনেক ধন্যবাদ। মন্তব্যে এবং 'লাইক' এ প্রীত ও অনুপ্রাণিত হ'লাম।
শুভকামনা রইলো, দ্রুত ফ্লু মুক্ত হউন।

২৫| ২৫ শে অক্টোবর, ২০১৯ বিকাল ৫:০১

মোস্তফা সোহেল বলেছেন: ভাইয়া সালাম নিবেন।অনেক দিন পরে সামুতে এলাম।কারনটা নিশ্চয় বলতে হবেনা।
আশা করি আপনি ভাল আছেন?
বর্তমানে আমি যে অফিসে ট্রান্সফার হয়ে এসেছি এখানে কাজের চাপ একটু বেশি।তাই হয়তো নিয়মিত আসা হবে না।
তবে সময় করে আপনাদের লেখা পড়তে অবশ্যই আসব।আমার জন্য দোয়া করবেন।

২৫ শে অক্টোবর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৩৮

খায়রুল আহসান বলেছেন: ওয়া আলাইকুম আস সালাম!
কারণটা সহজেই অনুমান করে নিতে পারি, আরো অনেকের মত আপনিও ব্লকের কারণে সামুতে এতদিন ধরে প্রবেশ করতে পারেন নি। আমি ভাল আছি, আশাকরি আপনিও সপরিবারে কুশলেই আছেন।
ব্লগে প্রত্যাবর্তনে সুস্বাগতম!

২৬| ২৬ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ৩:২০

মুক্তা নীল বলেছেন:
শ্রদ্ধেয় ভাই ,
আপনাকে ব্লগ মুক্তির শুভেচ্ছা। আমাদের সকলের ভাললাগা ও ভালবাসার জায়গা এই মুক্তির জন্য আপনি যে পোস্টটি দিয়েছেন তা অতি শিক্ষনীয় কিছু বিষয় উল্লেখ করেছেন। অনেক ভালো লাগলো উচ্ছ্বসিত ও আনন্দিত এই পোস্টটি পড়ে।
আন্তরিক ধন্যবাদ জানবেন ‌।

২৬ শে অক্টোবর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৪৬

খায়রুল আহসান বলেছেন: আমাদের সকলের ভাললাগা ও ভালবাসার জায়গা এই মুক্তির জন্য আপনি যে পোস্টটি দিয়েছেন তা অতি শিক্ষনীয় কিছু বিষয় উল্লেখ করেছেন - আপনার এই মন্তব্যে অত্যন্ত প্রীত হ'লাম। আশাকরি, আমি এখানে যে কথাগুলো বলেছি, সবাই তা মেনে চলবেন। তা'হলে ব্লগে ক্যাচাল অনেক কমে যাবে।
অনেক ভালো লাগলো উচ্ছ্বসিত ও আনন্দিত এই পোস্টটি পড়ে - অনেক ধন্যবাদ, আমার আনন্দ এবং উচ্ছ্বাসটুকু খেয়াল করেছেন বলে।
মন্তব্যে এবং প্লাসে অনুপ্রাণিত। অনেক, অনেক ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা----

২৭| ২৭ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ১২:১১

অন্তরন্তর বলেছেন: ব্লগ মুক্তির খবরে খুব আনন্দিত। তবে আপনার মতই বলতে চাই আমাদের এখন হতে অনেক সতর্ক হয়ে পোস্ট অথবা মন্তব্য করতে হবে। শুভ কামনা জনাব।

২৭ শে অক্টোবর, ২০১৯ সকাল ৯:১০

খায়রুল আহসান বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ জানাচ্ছি আপনাকে, পোস্ট পাঠ এবং মন্তব্যের জন্য।
শুভকামনা....

২৮| ২৭ শে অক্টোবর, ২০১৯ দুপুর ১:৫৯

মিথী_মারজান বলেছেন: ব্লগ মুক্তির আনন্দেতে প্রতিটি ব্লগার উদ্ভাসিত।
সবাই মিলে আনন্দ উদযাপনের পাশাপাশি অবশ্যই সতর্ক থাকতে হবে আমাদের।
বিনাদোষে যে মাশুল দিতে হয়েছে ব্লগারদেরকে, সামান্যতম অসতর্কের জন্যও কোন সুযোগ আর কাউকে দেয়া যাবেনা।
সঠিক সময়ে একজন অভিভাবক হয়ে সকলকে সচেতন করিয়ে দেবার জন্য অনেক ধন্যবাদ।

২৭ শে অক্টোবর, ২০১৯ বিকাল ৩:৩৩

খায়রুল আহসান বলেছেন: বিনাদোষে যে মাশুল দিতে হয়েছে ব্লগারদেরকে, সামান্যতম অসতর্কের জন্যও কোন সুযোগ আর কাউকে দেয়া যাবেনা - জ্বী, এ জন্যেই আমি বলেছি, আমাদের আরও সতর্কতার প্রয়োজন আছে।
মন্তব্যে এবং প্লাসে প্রীত ও অনুপ্রাণিত। অনেক, অনেক ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা----

২৯| ২৮ শে অক্টোবর, ২০১৯ ভোর ৫:১০

সোহানী বলেছেন: আমাদের মন্ত্রী বা নেতারা কবে জবাবদিহীতার মাঝে ছিল.... কখনই ছিল না। তাই তাদের কাছে কোন ব্যাখ্যা চাওয়া অবান্তর। খুলে যে দিয়েছে তা আমাদের সাত পুরুষের ভাগ্য। তাই আমি এটি নিয়ে কোন চিন্তাই করি না।

যে নীতিমালার কথা বলেছেন সেটা সবাই যদি মানতো বা বুঝতো তাহলে তো ঝামেলাই হতো না। কিন্তু সেটা খুব কঠিন....। আমাদের চিন্তা-ভাবনা, শিক্ষা, পরিবেশ, ধৈর্য্য, মানসিকতা........ সবই ভিন্ন। তাই কনফ্লিক্ট খুব স্বাভাবিক। কিন্তু সেটা যেন ব্যাক্তি সন্মানকে অতিক্রম না করে সেটাই বড় পাওয়া। মন্তব্য, পাল্টা মন্তব্য থাকবেই কিন্তু নোংরা কথাবার্তা কোনভাবেই কাম্য নয়।

আর হাঁ, মডারেটর এর সংখ্যা অবশ্যই বাড়ানো উচিত। যাতে অপ্রিতিকর ঘটনার মুখোমুখি আবার না হতে হয়। রাত দিনের তফাতের কারনে বরাবরই বলি দেশের বাইরে থেকে ও মডারেটর রাখা উচিত।

সুনীল সমুদ্র এর সাথে শতভাগ সহমত। ব্লগের হাল ধরার জন্য, সবাইকে প্রানবন্ত রাখার জন্য, পুরোনো ব্লগারদেরকে এ্যাক্টিভ রাখা সহ সব অসাধারন কাজটি যে নিরলসভাবে করে যাচ্ছেন তার কাছে কুতজ্ঞতা স্বীকার না করাটা অন্যায় হবে।

অনেক অনেক ভালো থাকেন।

২৮ শে অক্টোবর, ২০১৯ সকাল ৯:৫৫

খায়রুল আহসান বলেছেন: খুলে যে দিয়েছে তা আমাদের সাত পুরুষের ভাগ্য - যে দেশের সংবিধানের চারটি মূলমন্ত্রের অন্যতম একটি হচ্ছে "গণতন্ত্র", সে দেশের নাগরিক হয়ে এমনটি ভাবতে হচ্ছে, তা দেশের জন্য লজ্জাজনক।
কিন্তু সেটা যেন ব্যাক্তি সন্মানকে অতিক্রম না করে - যে অন্যকে সম্মান জানাতে অপারগ, সে নিজে কারো কাছ থেকে সম্মান পাবার যোগ্য নয়।
রাত দিনের তফাতের কারনে বরাবরই বলি দেশের বাইরে থেকে ও মডারেটর রাখা উচিত - এটা করা উচিত। আশাকরি কর্তৃপক্ষ ব্যাপারটা ভেবে দেখবেন।
শেষের কথাগুলোর জন্য সুনীল সমুদ্র এবং সোহানী, উভয়কে আন্তরিক ধন্যবাদ।

৩০| ২৯ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ১:৪৮

নাহিদ০৯ বলেছেন: আমি গুগল সার্চ এ পরশুদিন দেখলাম পুরোনো একটা কবিতা। আপনার মতো আমিও ভেবেছিলাম এরকম তো বেশ কয়েকবার ই হয়েছে। পরে লগিন করে দেখি আপডেট ব্যানার পোস্ট। সবাইকে দেখে খুবই আনন্দ লাগছে।

২৯ শে অক্টোবর, ২০১৯ সকাল ৮:৫৯

খায়রুল আহসান বলেছেন: সবাইকে দেখে খুবই আনন্দ লাগছে - এ আনন্দই সামুর সার্থকতা। বিচিত্র রঙের, গন্ধের সব ফুলকে এক সূতোয় গেঁথে রেখেছে।
ব্লগে প্রত্যাবর্তনে সুস্বাগতম!

৩১| ৩০ শে অক্টোবর, ২০১৯ দুপুর ২:১৬

ধ্রুবক আলো বলেছেন: যদিও দেরি করে কমেন্ট করতে আসলাম তাই একটু মিষ্টি মুখ হয়ে যাক। ব্লগে আছি কম হোক আর বেশি।

৩০ শে অক্টোবর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৩৪

খায়রুল আহসান বলেছেন: পোস্ট পাঠ, মন্তব্য এবং প্লাসের জন্য ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা....

৩২| ৩১ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ১২:৫৫

বলেছেন: সতর্কতারও প্রয়োজন আছে -- স হ ম ত

৩১ শে অক্টোবর, ২০১৯ সকাল ৯:০১

খায়রুল আহসান বলেছেন: সহমত পোষণের জন্য অনেক ধন্যবাদ।

৩৩| ৩১ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ১:৩৯

উম্মে সায়মা বলেছেন: ঠিক বলেছেন। সব ব্লগাররা ব্লগমুক্তিতে যে আনন্দ পেয়েছে সে আনন্দ সদা বহাল থাকুক।

৩১ শে অক্টোবর, ২০১৯ সকাল ৯:১৭

খায়রুল আহসান বলেছেন: সব ব্লগাররা ব্লগমুক্তিতে যে আনন্দ পেয়েছে সে আনন্দ সদা বহাল থাকুক - আমিও তাইই চাই।
মন্তব্যে এবং প্লাসে প্রীত ও অনুপ্রাণিত। অনেক, অনেক ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা----

৩৪| ০২ রা নভেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:২১

মলাসইলমুইনা বলেছেন: লেট্ লতিফ হলেও ব্লগ মুক্তির আনন্দ লেখায় শরিক হতে আসলাম ।
ব্লগ মুক্তির শুধু আনন্দধ্বনীতেই ব্লগ/ ব্লগারদের দায় মুক্তি দেখেননি আপনি সেজন্যই লেখাটা বেশি ভালো লেগেছে । ব্লগে যারা লিখছেন তারা সচেতন হবেন লেখার ভাষা ভঙ্গি, বিষয় বিবেচনায় সেটা খুবই জরুরি ।আপনার লেখা পড়ে সবাই একটু ভাববেন সেই আশা করাই যায় । অনেক ভালো লাগা লেখায় ।

০২ রা নভেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৪৬

খায়রুল আহসান বলেছেন: প্রথমতঃ, ব্লগে আপনার প্রত্যাবর্তন দেখে প্রীত বোধ করছি। পুনরায় সুস্বাগতম!
যেদিন আমাদের সবার প্রিয় এ ব্লগটা "ব্লকমুক্ত" হলো, ঠিক সেদিনই এ লেখাটা লিখেছিলাম। লেখার সময় খুব করে মনে হচ্ছিল, আমরা যেন আমাদের আচরণ কিংবা ভাষা দ্বারা আবার কোন অপশক্তিকে এমন কোন সুযোগ না দেই, যদ্বারা তারা আমাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ উল্থাপন করে আমাদের মনোজগতের এ বসতবাটির দুয়ারে তালা ঝুলিয়ে আমাদেরকে উচ্ছেদ করতে প্রয়াসী হতে পারে।
পোস্ট পাঠ এবং মন্তব্যের জন্য অনেক ধন্যবাদ।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.