নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

জীবন কেবলই ফুরিয়ে যায়।

মোঃ মাইদুল সরকার

একদিন জীবন শেষ হয়ে যাবে তবুও অনেক কিছু করার সাধ জাগে..............

মোঃ মাইদুল সরকার › বিস্তারিত পোস্টঃ

শীতের পিঠা ও রস

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১২:১৯

১।

পাটি সাপটা ঃ

শীত এলেই পিটা খাওয়ার ধুম পড়ে যায় সারা বাংলাদেশে। এছাড়াও সারা বছরই অল্প-স্বল্প পিঠা বানানো ও খাওয়া হয়। এলাকা বেধে একেক পিঠার একেক নাম আবার বানানো ধরনও কিছুটা ভিন্ন হয়। পাটি সাপটা পিঠা খায়নি বা চিনেনা বাংলাদেশে এরকম লোক বিরল। শীতের অন্যতম মজাদার পিঠা। (পিঠা বানানো ছবি ক্রেডিট- আমার সহধর্মিনী)

২।

মেরা/গুল্লি/মারবেল/দইল্লা/লাঠিম পিঠা ঃ

আমাদের এলাকায় এবং কুমিল্লা ও মুন্সীগঞ্জ এলাকার অন্যতম শীতের পিঠা। চালের গুড়ি, গুড়, নারকেট দিয়েই হয়ে যায় এই মজাদার পিঠা তৈরী। কাই বা খামির করে হাতের তালুতে ঘষে গোল গোল বা লাঠিম আকৃতি করে বানিয়ে বানিতে ভাপে সিদ্ধ করলেই হয়ে যায় এই পিঠা।
(পিঠা বানানো ছবি ক্রেডিট- আমার সহধর্মিনী)

৩।


চিতই/খোলা পিঠা ঃ এটাও শীত বা সারা বছরই তৈরী হয় বাংলাদেশ। সাধারণত মাংস, ভর্তা দিয়ে খাওয়া হয়। আর শীত এলে দুধ বা সিরাতে ডুবিয়ে সকালের নাস্তা খাওয়া হয়।(বাসায় তৈরী পিঠার ছবি দেওয়া গেলনা মোবাইলে খুজে পাচ্ছিনা)
(ছবি ক্রেডিট- বিডিনিউট ২৪.কম)

৪।

কুলি/পুলি পিঠা ঃ নারকেল ও চিনি বা গুড়ের পুর বা মিশ্রন তৈরী করে পিঠার ভিতর ভরে ঠিজাইন করে কেটে আকৃতি দেওয়া হয়। তারপর তেলে ভেজে বা ঘন দুধের শিরাতে ডুবিয়ে খাওয়া হয়। (ছবি ক্রেডিট- যুগান্তর পত্রিকা)


৫।

আন্দাসা/তেলে ভাজা/ তেলের পিঠা ঃ কোন ঝামেলা ছাড়াই চালের গোলা ও গুড় বা মিশিয়ে তেলে ভাজলেই এই পিঠা বানানো হয়ে যায়। এটা মিষ্টি হয় প্রচুর। যাদের সমস্যা তাদের জন্য শুধু চালের গোলায় আদা বালা যোগ করেও ঝাল পিঠা বানানো যায়।(ছবি ক্রেডিট- ২৪ লাইভবাংলঅ নিউপ.কম)

৬।


খেজুরের রস ঃ আহা! এক সময় গ্রামে প্রতিবছর খাওয়া হলেও অধুনা গ্রামেও এই রসের দেখা পাওয়া যায়না। গাছীরা আর আসেনা তাই খেজুরগাছে তাড়ি দেওয়া হয়না ফলে রং খাওয়া থেকে বঞ্চিত হাজার হাজার মানুষ। ২০১১ সালের পর নিপা ভাইরাসের কারণে খাওয়া কমিয়ে বা ছেড়ে দিয়েছেন অনেকে। তবে এবার সৌভাগ্য গতকাল সকালে বাসার সামনে রসওয়ালে পেয়ে গেলাম। আর ঠান্ডা মিষ্টি খেজুরের রস পান করালাম। (ছবি-নিজের তোলা)

পিঠা ও রস ছাড়া যেন বাঙালীল শীত অপূর্ণ।

মন্তব্য ৪৪ টি রেটিং +১৩/-০

মন্তব্য (৪৪) মন্তব্য লিখুন

১| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১২:২৭

রানার ব্লগ বলেছেন: চিতই পিঠার উপর পিঠা হয় না , চিতই আর মুরগির ঝোল !!! আহা !!!!

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১২:২৮

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
হুম। গরুর মাংস দিয়েও মজা।

ধন্যবাদ।

২| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১২:৪৭

আলমগীর সরকার লিটন বলেছেন: কত দিন খাই না -
আহা খুব মনে পরে গেলো মাইদুল দা

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১২:৫৬

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
এখন শীত খেয়ে নিন ভাই নয়তো আফসুস থাকবে। ধন্যবাদ।

৩| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১২:৫৫

রামিসা রোজা বলেছেন:
শীতের সাথে বাঙ্গালীদের পিঠা খাওয়াটা আসলেই অনেকটা
উৎসবের মতো । আমরাও এটাকে উপভোগ করি ।
ভাবিকে আমার শুভেচ্ছা দিবেন ।

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১২:৫৭

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
ঠিক যেন তাই। ধন্যবাদ।
আপনার শুভেচ্ছা পৌছে দেব। ভাল থাকবেন।

৪| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১:০৪

কল্পদ্রুম বলেছেন: পুলি পিঠা আর তেলে ভাজা পিঠা বেস্ট।

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ২:০৮

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
আপনার কাছে এই দুটি ভাললাগায় ধন্যবাদ।

৫| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১:০৮

শাহ আজিজ বলেছেন: হুম , দারুন ইচ্ছে হচ্ছে খেতে । পোস্টের জন্য ধন্যবাদ ।

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ২:০৯

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
পিঠা মানেই বাঙালীর রসনাবোধ জেগে উঠা। পাঠ ও মন্তব্যে ধন্যবাদ।

৬| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১:২৮

মোহামমদ কামরুজজামান বলেছেন: মাইদুল ভাই,
কি যে কষ্ট লাগে এসব দেখলে ।কেন যে কষ্ট :(( বাড়ান এসব মজার মজার পিঠা-পুলির পোস্ট দিয়ে।

দেখেন পাটি সাপটা,পুলি পিঠা,বড়াপিঠ/তেলে ভাজা,মেরা পিঠা কবে খাইছি ভুলে গেছি।তবে মাঝে মাঝে চিতই পিঠা খাওয়া হয়।চিতই পিঠা সাথে ভর্তা(নানা রকম,নানা পদের) ব্যাপোক বালা বাই। আর বাকিগুলি জীবনের জটিলতায় বানানোর সময় পায়না ঘরওয়ালী।
আর খেজুরের রস ! তাও কবে খেয়েছি ভুলে গেছি।

কি দরকার ভাই এভাবে আমাদের কষ্ট :P বাড়ানোর মজার মজার ছবি দিয়ে।

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ২:১৬

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
আহারে ভাই! খাওয়া না হলেও স্মৃুতিচারণ তো করা যায় ।

সময় করে বছরে একদিন পিঠা বানানোর ব্যবস্থা করেন। ব্যস হয়ে যাবে পিঠা খাওয়া।

চিতই এর সাথে ভর্তা ও মাংস দারুন জমে।

আমিও ২/৩ বছর পর রস খেলাম।

ধন্যবাদ।

৭| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১:৫৮

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: সব পিঠাই ভালো লাগে খেতে
যদিও আর বানানো হয় না ঘরে :(

ধন্যবাদ

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ২:১৭

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
ব্যস্ততায় অনেকের দোকানের পিঠাই ভরসা। ধন্যবাদ।

৮| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ২:১৯

তারেক ফাহিম বলেছেন: দিনে দিনে আমরা এসব ভুলে গিয়ে ফাস্টফুড আশক্ত হচ্ছি।

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ২:৩০

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
হ্যা ভাই খুব দুঃখজনক। দেশি পিঠা পুলির পরিবর্তে পোলাপান ফাস্টফুড খেতে আগ্রহী।


ধন্যবাদ।

৯| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৩:৪৬

নেওয়াজ আলি বলেছেন: পাটি সাপটা খাওয়া হয়নি অনেক দিন । নানি থাকতে খেজুরর রস দিয়ে খেতাম।

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৪:০২

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
আসলেই পিঠার অনেক স্মৃতি রয়েছে আমাদের। ধন্যবাদ।

১০| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৫:০০

রাজীব নুর বলেছেন: এখনকার বউ ঝিরা পিঠা বানাতে চায় না। বলে, দোকান থেকে কিনে নিয়ে আসো।

২৫ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ৯:২৪

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
দুঃখ দুঃখ। দোকানের পিঠা খাওয়া মানে দুধের স্বাধ ঘোলে মিঠানো।

ধন্যবাদ।

১১| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ সন্ধ্যা ৬:০০

জুন বলেছেন: আমাদের দেশের নানা রকম পিঠা আর সিঙ্গারা, সমুচা, ডালপুরি, পেয়াজু এসবের স্বাদ মরে গেলেও যাবে না মনে হয় :)

২৫ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ৯:২৭

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:

না আপু যাবে। এমন স্বাদের পিঠা পুলি, ডলপুরি, পেয়াজু, সমুচা আর কোথায় গেল বল পাব।

ধন্যবাদ।

১২| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ সন্ধ্যা ৬:২৫

পদ্ম পুকুর বলেছেন: পিঠা তো হারিয়েই যাচ্ছে, তার যায়গা দখল করছে নানা ধরনের কেক, পিৎজা, বার্গার, স্যান্ডউইচ আর বার্বিকিউ.....
এজন্যই লালন বলেছেন- ফকির লালন মরলো জল পিপাসায় রে, কাছে থাকতে নদী মেঘনা..

২৫ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ৯:২৮

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
ঠিক বলেছেন গুণী।

তবু পিঠার কদর থাকবেই। ধন্যবাদ।

১৩| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ রাত ৮:৩৫

জগতারন বলেছেন:
প্রিয় ব্লগার মোঃ মাইদুল সরকার , আজকে আপনার পোষ্টটি খুউব ভাল লাগলো।
তাই এই পোষ্ট একটু মন্তব্য করতেই হয়।
আপনার দেওয়া ২ নম্বর মেরা/গুল্লি/মারবেল/দইল্লা/লাঠিম পিঠা ঃ এবং
৪ নম্বরের কুলি/পুলি পিঠা ঃ সম্বন্ধে আমি পরিচিত না।
আবার ৬ নম্বরে যে খেজুর রস ঃ দেখাইলেন;
ইহা তো খেজুরের রস-এর মতো দেখতে লাগে না,
ইহা দেখতে আমদের দেশে (বৃহত্তর ফরিদপুর) গৃষ্ম কালে যে তালের রস পাওয়া যায় তা'র মতো।
আমাদের দেশে শীতের সক্কাল বেলা ও সন্ধ্যা বেলা গাছে উঠে আমরা যে খেজুর রস খেতাম তা দেখতে আরও স্বচ্ছ দেখতে প্রায় পানির মতো। আর-
৫ নম্বরে যে আন্দাসা/তেলে ভাজা/ তেলের পিঠা ঃ পিঠার কথা বললেন
এই পিঠাকে আমরা বলি আন্দসা পিঠা।
এই পিঠা আমাদের দেশে নতুন জামাই ( মেয়ে বা ননদের স্বামী) বেড়াইতে আসলে বানান হতো।
এই পিঠার এই নামকরনের পিছে যথাযোগ্য যুক্তি আছে; তা নীচে দেওয়া হলো।
আন্দসা = আনন্দ+দসা এই দুইটি শব্দ সন্ধি করে আন্দসা শব্দের সৃষ্টি হয়েছে।
যার শব্দার্থ দাঁড়ায় আনন্দময় বা আনন্দঘন সময়-এর উদ্ভোদন। এখন-
আন্দসা পিঠাকে কেন আন্দসা পিঠা বলা হয় ?
তার কারন নীচে দেওয়া হলোঃ
সামানুপাতিক ভাবে চাউলের গুড়ি+পানি+চিনি বা গুড় মিশ্রন ওড়ং বা বড় চামুচ দিয়ে
যখন আমাদের মা, বোন, নানু ফুটন্ত সরিষার তেল বা বাদাম তেলে ছেরে দিয়েই এই পিঠা বানান।
তখন সেই মূহর্তে যে উৎসব মুখর আনন্দঘন পরিবেশের সৃষ্টি হয় তার যথার্থ নামকরন।

ওড়ং-
নারিকেল-এর চাড়া দুই দিকে ছিদ্র করে ছোট বাশের একটি লাঠির (ছোট) মতো ব্যাবহার করে বড় চামুচ আকৃতি করে বানানো হয়।

* আপনি পোষ্টে বিভিন্ন পিঠার ছবি ও নাম দিয়ে স্পেইস না দিয়ে কোলন ব্যাবহার করেছেন যার জন্য কিছুটা দৃষ্টি কটু হয়েছে।
এই স্পেইস ব্যাবহার না করলে এই সমস্যা হতো না।

২৫ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ৯:৩৩

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
প্রথমেই ধন্যবাদ নেবেন ভাই জগতারন।

সবচেয়ে সুগঠিত মন্তব্যের জন্য কৃতজ্ঞতা।

আন্দসা পিঠার নামকরণ জানা ছিলনা। অবশ্য আমাদের এদিকে তেলের পিঠা নামেই তা পরিচিত।

খেজুরের রস সব গাছের সমান নয়। কোনটা হয় ঘোলাটে কম মিষ্টি। আবার কোনটা হয় পানির মত স্বচ্ছ ও মিষ্টি। অনেকদিন পরে খেজুরের রস যে পেয়েছি তাতেই ধন্য।

ওড়ং আমাদের এদিকে ছিপি নামে পরিচিত। পিঠা পানাতে সঠিক পরিমান গোলা ধারণ ও ঢেলে দেওয়ার সুবিধার জন্য এটি ব্যবহৃত হয়।

শুভকামনা।

১৪| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ রাত ৯:১০

করুণাধারা বলেছেন: চমৎকার পোস্ট- পেট না ভরলেও ছবি দেখে মন ভরে গেল।

সবশেষে যে রসের ছবি দিয়েছেন তা কি জ্বাল দেয়া? আজকাল অনেক খবরে দেখি বাদুড় বসে খেজুর রস খায় খেজুর গাছে লাগানো পাইপ থেকে। এজন্য বলে কাঁচা রস না খেতে।

মিঠা পোস্টে প্লাস।

২৫ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ৯:৩৮

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন: চমৎকার বলেছেন।

এটা কাঁচা রস। জ্বাল দিলে রসের আর স্বাদ ঠিক থাকেনা।

নিপা ভাইরাস মনে হয় এখন কমে এসেছে বা নাই।

ধন্যবাদ।

১৫| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১১:১৪

ঢুকিচেপা বলেছেন: এবারের পিঠা ঠিক আছে, সব মিষ্টি, মিষ্টি।
অনেক বছর পর গত বছর খেজুরের রস খেয়েছি। এবছর এখনো খাওয়া হয়নি।

“(বাসায় তৈরী পিঠার ছবি দেওয়া গেলনা মোবাইলে খুজে পাচ্ছিনা)”
বাসার ঠিকানা থাকলে না হয় গিয়ে খুঁজে দিয়ে আসতাম (যদি পিঠা থাকে)।

২৫ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ৯:৩৮

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
তাই বুঝি। তো ভালই হয় খুজতে এসে পিঠা খেয়ে যাবেন।

ধন্যবাদ জনাব।

১৬| ২৫ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ১১:৫৭

নীল আকাশ বলেছেন: এবার শীতের পিঠা খাওয়া হয়নি। ছবিগুলি দেখে খেতে ইচ্ছে করছে।

২৫ শে জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৪:০৩

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
শীত যাওয়ার আগেই খাওয়ার বন্দবস্ত করুন। ধন্যবাদ ।

১৭| ২৬ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ৮:০৪

সোহানী বলেছেন: এমনিতেই দুক্ষে বাচিঁ না আর তুমি আরো দু:ক্ষ বাড়ায়ে দিলা।

২৬ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ১১:৩০

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
নিন পিঠা খেয়ে দুঃখ ভুলেন। মন ভাল করুন। ভাল থাকুন।

১৮| ২৬ শে জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১০:৫৭

আমি তুমি আমরা বলেছেন: আহা, নস্টালজিক করে দিলেন ভাইটি।

৩১ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ৯:৫১

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
হুম। তাই বটে। ধন্যবাদ ভাইটি।

১৯| ২৭ শে জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ২:৩৭

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: ভালো লেগেছে মাইদুল ভাই।আহা! এমন করে সামনে দিলে কি আর ছেড়ে দেওয়া সাঁজে? সবগুলো খেয়ে ফেললুম। ++‌

কিন্তু আফসোস এখন আর কেউ ডাকেনা। তবে তা যাইহোক শীতের পিঠেপুলির পোস্ট উপভোগ্য হয়েছে।

শুভেচ্ছা জানবেন।

৩১ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ৯:৫৪

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
ধন্যবাদ। শীতের পিঠা না খেতে পারলে শীতকালটাই মাটি ।

২০| ২৯ শে জানুয়ারি, ২০২১ রাত ৯:২৭

খায়রুল আহসান বলেছেন: ছবিগুলো দেখেই মন ভরে গেল! + +
ভাপা, পাটিসাপ্টা আর চিতই ছাড়া এখন আর অন্য কোন পিঠা খাওয়া হয় না। ছোটবেলায় নানী নানারকমের পিঠা বানিয়ে খাওয়াতেন, সে কথা মনে পড়ে গেল!

৩১ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ৯:৫৫

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
আসলেই তাই। দিন দিন পিঠার সংখ্যা কমছে। আগে আরও কত রকম পিঠা খাওয়া হতো।

ধন্যবাদ পাঠ ও মন্তব্যে।

২১| ০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৪:২৪

মোঃমোস্তাফিজুর রহমান তমাল বলেছেন: ছবির সবগুলো আইটেমই গত ১৫-২০ দিনে খাওয়া হয়েছে। এদের সাথে চালের রুটিপিঠাও খেয়েছি,সাথে নারিকেল আর চিংড়ির সংমিশ্রণে তৈরি ঝোল। পোস্ট দেখে আবার খাওয়ার ইচ্ছা জাগলো। আপনাকে ধন্যবাদ পোস্টের জন্য।

০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৪:৩৩

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
যাক শীতে সব ধরনের পিঠা খেয়েছেন জেনে ভাল লাগলো। পাঠ ও মন্তব্যে ধন্যবাদ।

২২| ০৪ ঠা ফেব্রুয়ারি, ২০২১ রাত ১২:২৬

ডঃ এম এ আলী বলেছেন:


উপযুক্ত সময়ের পোষ্ট ।
শিতের পিঠার ছবি দেখে ভাল লাগল ।
ধন্যবাদ রইল আপনার সহধর্মনীর প্রতি ।
শীতের দিনে আপনাদের জন্য রইল
দুধ চিতই পিঠা।

ছবি সৌজন্য - দৈনিক যুগান্তর ।

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২১ সন্ধ্যা ৭:১৫

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন: দুধ চিতই এর জন্য ধন্যবাদ। আপনাকে সাপিসাপটার দাওয়াত রইল।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.