নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

আলহামদুলিল্লাহ। যা চাইনি তার চেয়ে বেশি দিয়েছেন প্রিয়তম রব। যা পাইনি তার জন্য আফসোস নেই। সিজদাবনত শুকরিয়া। প্রত্যাশার একটি ঘর এখনও ফাঁকা কি না জানা নেই, তাঁর কাছে নি:শর্ত ক্ষমা আশা করেছিলাম। তিনি দয়া করে যদি দিতেন, শুন্য সেই ঘরটিও পূর্নতা পেত!

নতুন নকিব

যবে উৎপীড়িতের ক্রন্দল-রোল আকাশে বাতাসে ধ্বনিবে না, অত্যাচারীর খড়্গ কৃপাণ ভীম রণ-ভূমে রণিবে না- বিদ্রোহী রন-ক্লান্ত। আমি সেই দিন হব শান্ত।

নতুন নকিব › বিস্তারিত পোস্টঃ

চিরায়ত চিকিতসা পদ্ধতির প্রতি প্রধানমন্ত্রীর অনুরাগ এবং কয়েকটি অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত...

১৮ ই এপ্রিল, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৪৮



এক.

আমরা ভেষজ, আয়ুর্বেদিক, ইউনানি এবং হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা উপেক্ষা করতে পারি না- প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

১৬ এপ্রিল ২০১৯ মঙ্গলবার জাতীয় স্বাস্থ্যসেবা সপ্তাহ ও জাতীয় পুষ্টি সপ্তাহের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমরা ভেষজ, আয়ুর্বেদিক, ইউনানি এবং হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা উপেক্ষা করতে পারি না এবং মানুষের চিকিৎসার সুবিধার জন্য এগুলোর উন্নয়নের জন্য আরও গুরুত্ব দিতে হবে।’

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জনপ্রিয় চিকিতসা পদ্ধতি এ্যালোপ্যাথির পাশাপাশি হোমিওপ্যাথি ও ভেষজ ওষুধের ওপর গুরুত্ব দিতে সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানান তার বক্তব্যে। তিনি বলেন, 'আমাদের দেশে হোমিওপ্যাথিক, ভেষজ ও আয়ুর্বেদিক চিকিৎসা হয়। এগুলো খুব গুরুত্বপূর্ণ। কারণ, এর চাহিদা বাংলাদেশে রয়েছে। এ ধরনের চিকিৎসার দিকে বিশেষ দৃষ্টি রাখতে হবে।'

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন, তিনি অতি মূল্যবান কথা বলেছেন।

যারা হোমিওপ্যাথি চিকিতসা পদ্ধতিকে 'প্যাথেটিক' আখ্যায়িত করতে চান, না জেনে না বুঝে 'পুরাতন', 'বিজ্ঞানসম্মত নয়' ইত্যাদি অপবাদের প্রবক্তা বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা হোমিওপ্যাথি বিদ্বেষী মুষ্টিমেয় সংখ্যক ব্যক্তিবর্গের তথাকথিত গবেষনাকে তুলে ধরে হোমিওপ্যাথি চিকিতসা পদ্ধতির অপনোদনের স্বপ্ন দেখেন- তাদের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এই আশাবাদ এবং ঘোষনা মোটেই সুখকর নয়। তাদের জন্য একরাশ সমবেদনা প্রকাশ ছাড়া এই মুহূর্তে আর কিছুই করতে পারছি না। তবে তারা ক্ষুব্ধ হলেও তাদের সদয় অবগতির জন্য বিনয়ের সাথে জানিয়ে রাখতে চাই, হোমিওপ্যাথি চিকিতসা পদ্ধতির ক্রমবর্ধমান জনপ্রিয়তা দেখে প্রতীয়মান হয়- আগামী দিনে এই চিকিতসা পদ্ধতিটি বিশ্বব্যাপী স্বাস্থ্য সুরক্ষায় আরও জনপ্রিয় হবে।

সময় সুযোগ পেলে হোমিওপ্যাথি চিকিতসা পদ্ধতি নিয়ে বিস্তারিত লেখার ইচ্ছে রয়েছে। ইতোপূর্বে হোমিওপ্যাথি নিয়ে আমার এই লেখাটি দেখার আমন্ত্রণ থাকলো- আমার দেখা- হোমিওপ্যাথি চিকিতসা গ্রহনে জটিল জটিল রোগ নিরাময়ের কিছু বাস্তব ঘটনা এবং ডাক্তার জীবনের টুকরো কিছু স্মৃতি-অভিজ্ঞতা......... সকলের জানার জন্য শেআর করার চেষ্টামাত্র.......... কোনো অবস্থায়ই ইহা বিজ্ঞাপন নয়..........

দেখে নিতে পারেন এই লেখাটিও- কষ্টদায়ক রোগ সাইনোসাইটিস; কারণ, লক্ষণ ও আরোগ্যলাভের উপায় : Sinusitis, a painful disease; reasons, signs and symptoms of healing

সংবাদ সূত্র:

ভেষজ চিকিৎসা উপেক্ষা করতে পারি না: প্রধানমন্ত্রী

চিরায়ত চিকিৎসা পদ্ধতিতে গুরুত্বারোপ প্রধানমন্ত্রীর

গুরুত্ব দিতে হবে হোমিওপ্যাথিক ও ভেষজ ওষুধের ওপর

দুই.

শিক্ষকের অনন্য উদারতা; রিক্সাচালকদের বিনামূল্যে নাস্তা প্রদান

ফরিদপুর সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক (রসায়ন) নূরুল ইসলাম (৪০) প্রতি মাসে সমাজসেবামূলক একটি ভালো কাজ করার লক্ষ্যে ফরিদপুর শহরে ২০০ রিকশাচালকের মধ্যে সম্প্রতি সকালের নাশতা বিতরণ করেছেন।

ফরিদপুর সরকারি রাজেন্দ্র কলেজের সামনের সড়কে রিকশাচালকদের মধ্যে কলা ও সেদ্ধ ডিম বিতরণ করেন শিক্ষক নূরুল ইসলাম। এ সময় সেখানে এক আনন্দঘন পরিবেশের সৃষ্টি হয়।

পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদে জানা গেছে, যাত্রী নিয়ে কিংবা খালি রিকশা চালিয়ে রিকশাচালকেরা যখন যাচ্ছেন, তখন হাতের ইশারা দিয়ে তাদের থামাচ্ছিলেন নূরুল ইসলাম। তারপর তাঁদের হাতে একটি সবরি কলা ও একটি সেদ্ধ ডিম তুলে দিচ্ছেন তিনি।

এই সংবাদটি পড়ে খুবই ভালো লেগেছে। দৈনন্দিন জীবনে হাজারো বড় বড় সংবাদের ভেতরে এটি ছোট্ট একটি খবর কিন্তু এই কাজটিই হতে পারে আমাদের অনেকের জন্য অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত।

সংবাদ সূত্র:

রিকশাচালকদের ডেকে নাশতা খাওয়ান তিনি

তিন.

ভবঘুরেদের পরম যত্নে ব্যক্তি উদ্যোগে নিজ হাতে সেবা দেন তিনি

পুলিশের অ্যান্টি টেররিজম ইউনিটে সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন মো. আওলাদ হোসেইন। ‘পাগল’ বা ভবঘুরেদের পরম মমতায় সেবা দিয়ে আনন্দ পান তিনি। সম্প্রতি রুহুল আমিন নামের জনৈক অপ্রকৃতিস্থ ব্যক্তিকে রাজধানী ঢাকার আসাদগেট এলাকার ফুটপাতে বসিয়ে নিজ হাতে চুল-দাড়ি পরিষ্কার করে, সাবান দিয়ে গোসল করিয়ে, নতুন জামাকাপড় পরিয়ে, খাবার খাওয়ালেন এই মানুষটি। পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করে কিছু টাকাপয়সাও দিলেন তাকে। মূলত: নিজের মনের টানেই এই কাজগুলো করেন তিনি। মানুষের প্রতি অনি:শেষ প্রেমবোধ থেকেই তার এই মহান কাজ। আর মানসিক শান্তি পেতে নিজ থেকেই তিনি করে যাচ্ছেন এ কাজগুলো।

প্রথম আলোতে সংবাদটি পড়ে সত্যিই বিমোহিত হয়েছি সেদিন। আশ্চর্য্য হয়েছি। ভেবে আকুল হয়েছি- এমন মহত, হৃদয়বান মানুষও তাহলে আমাদের সমাজে আছেন। সত্যিকারের মানব প্রেম তো একেই বলে। পুলিশের একজন কর্মকর্তা হয়ে তিনি যা করে দেখালেন তা রীতিমত ভালোলাগার। অনুকরণীয় এবং অনুসরনীয়। এদের কাছ থেকেই আমাদের মানবতার কিছু কিছু পাঠ শিখতে হবে।

সংবাদ সূত্র:

তাঁর মহানুভবতা...

চার

অগ্নিকাণ্ডে মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত প্যারিসের ঐতিহ্যবাহী নটর ডেম ক্যাথেড্রাল পুনর্নির্মাণের জন্য ফ্রান্সের অন্যতম ধনী ব্যক্তি ফ্রাঁসোয়া অঁরি পিনোঁ সাড়ে নয় শ কোটি টাকা দান করার ঘোষনা দিয়েছেন।

এই সংক্রান্ত সংবাদটিও মনযোগ আকর্ষন করেছে। সম্প্রতি ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত প্যারিসের ঐতিহ্যবাহী নটর ডেম ক্যাথেড্রাল। ক্যাথেড্রালটি নতুন করে নির্মাণের ঘোষণাও দিয়েছেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাখোঁ। এর মধ্যেই ৮৫০ বছরের পুরোনো ক্যাথেড্রালটি পুনর্নির্মাণের জন্য বিশাল অঙ্কের অর্থ দান করার ঘোষণা দিয়েছেন ফরাসি ধনকুবের ফ্রাঁসোয়া অঁরি পিনোঁ। বাংলাদেশি টাকায় প্রায় সাড়ে ৯০০ কোটি টাকা দান করার ঘোষণা দিয়েছেন তিনি।

ফরাসি ধনকুবের ফ্রাঁসোয়া অঁরি পিনোঁর জন্য যদিও এই অর্থ খুব বড় কোনো অংক নয়, কিন্তু তার এই বদান্যতা থেকে বিশ্ববাসী বাদবাকি ধনী এবং ধনকুবেরদের জন্য সবক নেয়ার রয়েছে। আমাদের জন্য তার এ দানের ঘোষনা অনুপ্রেরণা হয়ে থেকে যাবে।

সংবাদ সূত্র:

ক্যাথেড্রাল পুনর্নির্মাণে সাড়ে নয় শ কোটি টাকা দান করবেন সালমা হায়েকের স্বামী

ছবি কৃতজ্ঞতাঃ অন্তর্জাল।

মন্তব্য ২৯ টি রেটিং +৩/-০

মন্তব্য (২৯) মন্তব্য লিখুন

১| ১৮ ই এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৯:০০

রাজীব নুর বলেছেন: মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সব সময় ভালো কথা বলেন। দিকনির্দেশনা মূলক কথা বলেন।

১৮ ই এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৯:৫৪

নতুন নকিব বলেছেন:



ধন্যবাদ আপনাকে।

২| ১৮ ই এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৯:০৩

রাজীব নুর বলেছেন: আপনাকে ধন্যবাদ সুন্দর একটি পোষ্ট উপহার দেওয়ার জন্য।

১৮ ই এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৯:৫৫

নতুন নকিব বলেছেন:



দ্বিতীয়বার মন্তব্য রেখে যাওয়ায় আবারও সাধুবাদ।

৩| ১৮ ই এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৯:৩৯

মাহমুদুর রহমান বলেছেন: আমাদের গ্রামে হোমিওপ্যাথি ঔষধের চিকিৎসক হিসেবে যারা নিয়োজিত এদের বেশীর ভাগই আমার কাছে ভন্ড বলে মনে হয়।

১৮ ই এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৯:৫৯

নতুন নকিব বলেছেন:



আপনার ধারণা হয়তো সঠিকই। অনেক অতি লোভী স্বার্থপর টাইপের লোক এই সুন্দর চিকিৎসা পদ্ধতির বদনামের জন্য দায়ী।

আপনার আগমনে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা।

৪| ১৮ ই এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৯:৩৯

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন:
আমাদের দেশে হবে সেই ছেলে কবে/
কথায় না বড় হয়ে কাজে বড় হবে!!

১৮ ই এপ্রিল, ২০১৯ রাত ১০:০০

নতুন নকিব বলেছেন:



সুন্দর কথা বলেছেন।

ধন্যবাদ আপনাকে।

৫| ১৮ ই এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৯:৪২

হাবিব স্যার বলেছেন: হোমিও প‌্যাথিকের দোকান দিলেই সেখানে যৌন রোগের চিকিৎসার কথা ফলাও করে প্রচার করা হয় কেন?

১৮ ই এপ্রিল, ২০১৯ রাত ১০:০৫

নতুন নকিব বলেছেন:



এগুলোর কারণে সম্মানহানি হয় ভদ্রলোকদের। হাতুড়ে চিকিৎসকদের খপ্পর থেকে হোমিওপ্যাথিকে রক্ষা করার সময় সমাগত।

বাকি পয়েন্টগুলোতে কিছু বললেন না যে!

ধন্যবাদসহ শুভকামনা।

৬| ১৮ ই এপ্রিল, ২০১৯ রাত ১০:৩৪

সাহিনুর বলেছেন: আমি ছোট্ট থেকেই হোমিওপ্যাথিকের চিকিৎসা নিয়ে আসছি , এমন কি এখন আমার কোনো কিছু হলে আমি নিজেই ওষুধ কিনে আনি। হোমিও প্যাথিক আমার খুব কাজে আসে ।

১৮ ই এপ্রিল, ২০১৯ রাত ১১:৪০

নতুন নকিব বলেছেন:



অসংখ্য আপনাকে ধন্যবাদ। হোমিওপ্যাথি ব্যবহারে আপনি উপকার পাচ্ছেন জেনে আনন্দিতবোধ করছি। আজকেও এক রুগী এসে ধন্যবাদ জানিয়ে গেলেন তার সমস্যা সেরে যাওয়ায়।

আসল কথা, হুজুগে নাচার মতোই অনেকে শুধু অপপ্রচার অপলাপে বিভ্রান্ত হয়ে হোমিওপ্যাথির প্রতি বিতশ্রদ্ধ হচ্ছেন। আর কিছু লোক হোমিওপ্যাথির নামে টাউটগিরি করে মানুষের পকেট কাটছেন। তাদের রক্ত চুষে খাচ্ছেন। এদের খপ্পরে পরে সাধারণ মানুষের বিশ্বাসে ফাটল ধরছে। আর ফলশ্রুতিতে, ঘর পোড়া গরুর মতো আমরাও সিঁদুরে মেঘ দেখেই হা-হুতাশ করছি। হোমিওপ্যাথির নামে বেহুদা বিষোদগার করে বেড়াচ্ছি।

তবে আশার কথা- বিভ্রান্তি, মিথ্যাচার, অপপ্রচার হোমিওপ্যাথির প্রতি সাধারণ মানুষের আস্থাকে একটুও দমাতে পারেনি। দিনকে দিন হোমিওপ্যাথির প্রতি মানুষের নির্ভরতা ও বিশ্বস্ততা বৃদ্ধি পাচ্ছে। হোমিওপ্যাথি জনপ্রিয় হয়ে উঠছে সর্বস্তরে। হোমিওপ্যাথির আধুনিকায়নেও কাজ চলছে নিরলসভাবে।

ভালো থাকুন সবসময়।

৭| ১৯ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ১২:৩৭

বলেছেন: হোমিওপ্যাথি দিয়ে কে পিওথলির পাথর অপসারণ করা যায়!!!

১৯ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ১২:৪২

নতুন নকিব বলেছেন:



আসসালামু আলাইকুম।

জ্বি, যায়। আপনি কেমন আছেন?

৮| ১৯ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ১২:৫২

বলেছেন: আলাইকুম সালাম প্রিয় ভাই,

আলহামদুলিল্লাহ ভালো আছি -- ধন্যবাদ আপনাকে খবর নেওয়ার জন্য।।।
আপনার জন্য দোয়া রইলো। আশাকরি ভালো আছেন।।।


আধুনিক যুগে হোমিওপ্যাথি দিয়ে কি সিজারিয়ান অপারেশন ছাড়া সন্তান প্রসব করার ব্যবস্হা করা যায়!!!

২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ১০:৪৫

নতুন নকিব বলেছেন:



জ্বি, হোমিওপ্যাথিতে এমন ওষুধ রয়েছে। সিজারিয়ান অপারেশন ছাড়া সন্তান প্রসব করার ব্যবস্হা করা যায়। এটি গর্ভকালীন সময়ে, গর্ভধারণের ৭ম মাস থেকে শুরু করে সন্তান প্রসবের পূর্ব পর্যন্ত নিয়মিত খেয়ে যেতে হয়।

একটা সিজারিয়ান অপারেশন থেকে অবস্থা ভেদে ১০,০০০/- থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ২০,০০০/- কিংবা ৩০,০০০/- টাকা পর্যন্ত যেখানে একজন ডাক্তারের আয় হয়, সেখানে হোমিওপ্যাথির সামান্য টাকার বড়ি আর ডিস্টিল ওয়াটারে মেশানো নগন্য ওষুধ সেবনে সে কাজ যদি সম্পন্ন হয়ে যায়, ডাক্তারদের সেবা প্রদানের বিনিময়ে অর্থোপার্জনের এত সুন্দর একটা সুযোগ যদি হাতছাড়া হয়ে যায়, তাহলে কোন ব্যাটার মাথা ঠিক থাকতে পারে- চিন্তার বিষয় বৈকি! হোমিওপ্যাথির অপনোদন কামনা কেন করা হবে না- সেটাই এখন দেখছি প্রশ্ন হয়ে দাঁড়িয়েছে!

আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ, পুনরায় এসে মূল্যবান মন্তব্য রেখে যাওয়ায়। কৃতজ্ঞতা জানবেন। অনেক অনেক ভালো থাকুন।

৯| ১৯ শে এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ১০:৫৫

তারেক ফাহিম বলেছেন: চারদিকে ধর্ষন, হত্যা, খুন এসবের মাঝেও আপনার পোষ্টের মাধ্যমে কিছু মানবিক খবর পেয়ে ভালো লাগছে।


২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ১১:০০

নতুন নকিব বলেছেন:



অসংখ্য ধন্যবাদ আপনাকে। মানবিক সংবাদগুলো দেখে সত্যিই আনন্দিত হয়েছি। বুকটা ভরে একটু নি:শ্বাস নিতে পেরেছি।

অনেক ভালো থাকবেন।

১০| ১৯ শে এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ১১:০৯

এম.জে. রহমান বলেছেন: অন্য ব্যাপারে জানিনা তবে গলায় মাছের কাটা বিঁধলে হোমিওপ্যাথির বিকল্প নাই।

২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ১১:০১

নতুন নকিব বলেছেন:



ধন্যবাদ আপনাকে। মন্তব্যে আসায় কৃতজ্ঞতা। ভালো থাকুন সবসময়।

১১| ১৯ শে এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ১১:১৭

রাজীব নুর বলেছেন: আমার মন্তব্যের উত্তর দেওয়ার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।

২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ১১:০১

নতুন নকিব বলেছেন:



পুনরায় এসে মন্তব্য রেখে যাওয়ায় আবারও কৃতজ্ঞতা।

অনেক ভালো থাকুন।

১২| ১৯ শে এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৫:৫৯

নীলপরি বলেছেন: খুব ভালো লাগলো পোষ্টের বিষয়গুলো পড়ে ।
শুভকামনা

২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ১১:০২

নতুন নকিব বলেছেন:



অসংখ্য ধন্যবাদ আপনাকে।

মন্তব্যে আসায় কৃতজ্ঞতা অনি:শেষ। ভালো থাকুন নিরন্তর।

১৩| ২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ১:৫৯

নতুন বলেছেন: হমিওপ‌্যাথির এখনো চললে কারন আমাদের দেশে মানুষ এখনো বিশ্বাসে বেশি ভরসা রাখে যৌক্তিক ভাবনা খুবই কম মানুষ করে।

আপনি যদি জিঙ্গাসা করেন কেন হোমিওপ‌্যাথি খান বা কারুর সাথে আলোচনা করেন যে হোমিও ভুয়া জিনিস...

তবে সবাই কিন্তু বললে অমুকের কাজ হয়েছে, তমুকের কাজ হয়েছে... ছোট বেলায় আমার এটা হয়েছিলো তখন হোমিও খেয়ে কাজ হয়েছিলো।

বিশ্বাস আর কিহিনিই গুলিই হোমিওর প্রামান.... এটা আস্তে আস্তে কমে আসবে... কারন আলো আসছে... কুসংস্কার কমছে... :)

আগে মানুষ জীন ভুত, পিশাচ দ্বারা আকান্ত হতো ... এখন কিন্তু এ্মন কাহিনি বাজারে খুবই কম শুনবেন...

এখন জীনের বাদশা মোবাইলে ফোন দেন... জামানা পাল্টে যাচ্ছে....

অস্ট্রলিয়া, ইউকে তে চিকিতসা ব্যবস্হাতে হোমিও কভার করা কমিয়ে দিচ্ছে, ////// আমাদের দেশেও কমে যাবে....


আলো আসতে একটু সময় লাগে আমাদের দেশে.... তবে আসবে... ;)

২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ১১:২৭

নতুন নকিব বলেছেন:



হমিওপ‌্যাথির এখনো চললে কারন আমাদের দেশে মানুষ এখনো বিশ্বাসে বেশি ভরসা রাখে যৌক্তিক ভাবনা খুবই কম মানুষ করে।

বিশ্বাস তো অনেক বড় একটি ব্যাপার। বিশ্বাস তো সবজায়গাতেই থাকতে হয়। সেটা শুধু হোমিওপ্যাথিতে কেন, বিশ্বাস না থাকলে এ্যালোপ্যাথিতেও ওষুধ কি কাজ করে?

আপনি যদি জিঙ্গাসা করেন কেন হোমিওপ‌্যাথি খান বা কারুর সাথে আলোচনা করেন যে হোমিও ভুয়া জিনিস... তবে সবাই কিন্তু বললে অমুকের কাজ হয়েছে, তমুকের কাজ হয়েছে... ছোট বেলায় আমার এটা হয়েছিলো তখন হোমিও খেয়ে কাজ হয়েছিলো।

তো হোমিওপ্যাথি ব্যবহারে রোগ উপশমের বাস্তব অভিজ্ঞতা যদি কেউ বলেন তাহলে সমস্যাটা কোথায়? না কি কেউ বানিয়ে বানিয়ে মিথ্যে গল্প শোনায় যে, আমার অমুক রোগ তমুক রোগ ভালো হয়েছিল হোমিওতে!

বিশ্বাস আর কিহিনিই গুলিই হোমিওর প্রামান.... এটা আস্তে আস্তে কমে আসবে... কারন আলো আসছে... কুসংস্কার কমছে... :)

বিশ্বাস অার কাহিনী না থাকলে এ্যালোপ্যাথিও চলার কথা নয়। জ্বরের উপশমে নাপা খুব ভালো কাজ করে। এটাকে আপনার কাছে কাহিনী মনে হয়? নাপা ভালো কাজ করে কেউ বলতেই পারেন, তাকেই বুঝি আপনি কাহিনী বলবেন? কোনটা যে সংস্কার আর কোনটাকে কুসংস্কার বলতে হয়, আমরা অনেকে তাও জানি না। এটাকে কি আমাদের জাতিগত দুর্ভাগ্য বলা চলে?

আলো আসার প্রয়োজন রয়েছে। আলো এলে হোমিওপ্যাথির আরও উন্নয়ন ঘটবে। বিজ্ঞানসম্মত হবে এই জনপ্রিয় চিকিতসা ব্যবস্থা।

আগে মানুষ জীন ভুত, পিশাচ দ্বারা আকান্ত হতো ... এখন কিন্তু এ্মন কাহিনি বাজারে খুবই কম শুনবেন...

মুসলমানদের ধর্মীয় গ্রন্থ আল কুরআনে জ্বিন বিষয়ক বিস্তর আলোচনা প্রমান করে অবশ্যই জ্বিন রয়েছে। যদি কোনো মুসলিম জ্বিনের অস্তিত্বে অবিশ্বাস করে তাহলে প্রকারান্তরে সে কুরআনে বর্ণিত আয়াতের সত্যতায় সন্দিহান হলো। এতে সে বুঝে কিংবা না বুঝে হোক, বিশ্বাসহারা হবে। এছাড়া অন্যান্য যেগুলোর কথা আপনি বলেছেন, আমাদের ধারণা- শয়তানের বংশ থেকেই ভূত, প্রেত, পিশাচ ইত্যাদির জন্ম। যারা বিশ্বাস করে না তারা বোকার রাজ্যে বাস করে।

এখন জীনের বাদশা মোবাইলে ফোন দেন... জামানা পাল্টে যাচ্ছে....

হ্যা, সেটা খারাপ বলেননি! তাও সাধারণ কোনো জ্বিন নয়! জ্বিনের বাদশাগন রাতের শেষ প্রহরে মোবাইলে আগমন করেন!

অস্ট্রলিয়া, ইউকে তে চিকিতসা ব্যবস্হাতে হোমিও কভার করা কমিয়ে দিচ্ছে, ////// আমাদের দেশেও কমে যাবে....

অস্ট্রলিয়া, ইউকে, জার্মানিসহ ওরা হোমিওর প্রাকটিস আস্তে আস্তে বাড়াচ্ছে! আপনি খবর নিয়ে দেখেনরে ভাই!

আলো আসতে একটু সময় লাগে আমাদের দেশে.... তবে আসবে... ;)

হ্যা, সেটাই। আলো আসবে। তবে একটু সময় লাগবে। হোমিওর সুদিন ফিরে আসতে একটু সময় লাগবে।

অসংখ্য ধন্যবাদ আপনাকে। আপনি অনেক সুন্দর করে প্রতিপক্ষের মতামত খন্ডন করেন। এটা আপনার দারুন বৈশিষ্ট্য।
ভালো থাকবেন সবসময়।

১৪| ২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ১১:১৬

জুন বলেছেন: তবে আমি কিন্ত বিভিন্ন অসুখে হামদর্দের ঔষধে উপকৃত হয়েছি নতুন নকিব। হোমিওতেও।
বিভিন্ন মানবিক উদাহরণ তুলে ধরেছেন তা প্রশংসার যোগ্য।
+

২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ১১:৩৮

নতুন নকিব বলেছেন:



অসংখ্য ধন্যবাদ। আপনাকে এই পোস্টে পেয়ে আনন্দিত হলুম। হামদর্দের ওষুধ সেবনে আমার প্রত্যক্ষ অভিজ্ঞতা রয়েছে। আব্বার শেষ সময়কার ঘটনা, তার বয়স তখন ৯০ এর কিছু কমবেশি হবে। তাকে প্রায়ই হামদর্দের একটি সিরাপ কিনে দিতাম। কি যে প্রশান্তিতে সেই সিরাপ তিনি খেতেন। আর বলতেনও, 'এই সিরাপ খেয়ে আমার ভালো লাগে।'

তাঁর কথা শুনে আমার হাসি পেত। আমাকে হাসতে দেখে আব্বাও হাসতেন।

হোমিওপ্যাথিতেও আপনি উপকার পেয়েছেন জেনে ভালো লাগলো। হোমিওপ্যাথির অনেক অভিজ্ঞতা রয়েছে। সময় সুযোগ হলে শেআর করার ইচ্ছে থাকলো।

পোস্টে + রেখে যাওয়ায় ভালো লাগলো।
ভালো থাকুন নিরন্তর।

১৫| ২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৩৭

নতুন বলেছেন: উইকে তে হোমিও ফান্ডিং কমছে । আরো কমতে থাকবে...
https://www.bbc.com/news/health-43373817
https://www.nhs.uk/conditions/homeopathy/

https://www.hri-research.org/resources/essentialevidence/how-much-is-spent-on-homeopathy-research-homeopathy-treatment/ হোমিও সংক্রান্ত সাইটেই দেখেন ইউকেতে NHS হমিওতে তাদের ফানডিং বন্ধ করেছে...

আর এলোপ‌্যাথির ওষুধের উপর আপনার বিশ্বাস হতে হবে না.... এটা কাজ করবে.... প‌্যারাসিটামলে ব্যাথা কমবে.... কারন এটা মানুষের শরিরের ব্যাথা যেই পদ্বতীতে কাজ করে তার উপরে কাজ করে...

https://ed.ted.com/lessons/how-does-your-body-process-medicine-celine-valery ছোট্ট ভিডিও কিভাবে ওষুধ কাজ করে.... তাই আপনার ব্যথা হলে ওষুধ খেলে আপনার ব্যথা কমে যাবে... আপনার বিশ্বাস না করলেও তার া ঠিক ই কাজ করবে...

আরেকটা বিষয় মানুষ ভুল করে সেটা হলো.... কোরানে জীনের কথা আছে... কিন্তু আমাদের সমাজে যেই সব সমস্যা হয় সেটা যে এই জীনের কাজ সেটা কি কোরানে আছে? সেটা আমাদের কুসংস্কার.... মানুষীক রোগেদের জীনেধরা বলে কিছু মানুষ ধান্দা করে যাচ্ছে....

আলো আসবেই... বাইরের দেশে হোমিও তেমন চলেনা।

২১ শে এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ২:৪৭

নতুন নকিব বলেছেন:



উইকে তে হোমিও ফান্ডিং কমছে । আরো কমতে থাকবে...
https://www.bbc.com/news/health-43373817
https://www.nhs.uk/conditions/homeopathy/
https://www.hri-research.org/resources/essentialevidence/how-much-is-spent-on-homeopathy-research-homeopathy-treatment/ হোমিও সংক্রান্ত সাইটেই দেখেন ইউকেতে NHS হমিওতে তাদের ফানডিং বন্ধ করেছে...


কোনো একটিমাত্র দেশ বা সংস্থা হোমিও বন্ধ করলে সেটাকে বড় করে দেখার কিছু নেই। যারা না বুঝে হোমিওর ফান্ডিং কমিয়ে দিচ্ছেন বা বন্ধ করার পায়তারা করছেন, তারা দেখবেন ধাক্কা খেয়ে আবার হোমিওতে ফিরে আসবেন। এটা অন্ধকারের লক্ষন। হোমিওপ্যাথি বিদ্বেষীদের কাজ। হয়তো খোঁজ নিলে জানা যাবে, সেখানে হোমিওপ্যাথির প্রতি বিদ্বেষপরায়ন লোকজন সংখ্যায় বেশি এবং দাপুটে হওয়ার কারণে এমন অন্ধকারে ফিরে যাওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন। আপনার ভাষাতেই বলি, আলো আসবে। অবশ্যই আসবে। হোমিওপ্যাথি আবারও ফিরে এসে সে সত্যকে বাস্তবে রূপ দিবে।

আর এলোপ‌্যাথির ওষুধের উপর আপনার বিশ্বাস হতে হবে না.... এটা কাজ করবে.... প‌্যারাসিটামলে ব্যাথা কমবে.... কারন এটা মানুষের শরিরের ব্যাথা যেই পদ্বতীতে কাজ করে তার উপরে কাজ করে...

https://ed.ted.com/lessons/how-does-your-body-process-medicine-celine-valery ছোট্ট ভিডিও কিভাবে ওষুধ কাজ করে.... তাই আপনার ব্যথা হলে ওষুধ খেলে আপনার ব্যথা কমে যাবে... আপনার বিশ্বাস না করলেও তার া ঠিক ই কাজ করবে...


কথার পিঠে কথা। হোমিওপ্যাথি হয়তো আপনি ব্যবহার করে দেখেননি। বিশ্বাস করার প্রয়োজন নেই, অরিজিনাল ওষুধ সেবন করে দেখুন, ১০০% কাজ করবে। বাস্তবে দেখেছি।

আরেকটা বিষয় মানুষ ভুল করে সেটা হলো.... কোরানে জীনের কথা আছে... কিন্তু আমাদের সমাজে যেই সব সমস্যা হয় সেটা যে এই জীনের কাজ সেটা কি কোরানে আছে? সেটা আমাদের কুসংস্কার.... মানুষীক রোগেদের জীনেধরা বলে কিছু মানুষ ধান্দা করে যাচ্ছে....

ধান্ধা তো কিছু লোক করেই। বলতে চেয়েছি, জ্বীনের অস্তিত্বকেই যারা স্বীকার করতে চান না, কুরআনের বক্তব্যানুসারে তারা বিভ্রান্তিতে রয়েছেন।

আলো আসবেই... বাইরের দেশে হোমিও তেমন চলেনা।

বাইরের দেশ বলতে বলতে কোন কোন দেশ বুঝাতে চান? বাইরের দেশ বলতে অন্ধকারে ঢিল না ছুঁড়ে ক্লিয়ারলি বলতে পারেন-
১। অমুক দেশে হোমিওপ্যাথি চলে না।
২। তমুক দেশে হোমিওপ্যাথি বন্ধ হয়ে গেছে।
৩। প্রমুখ দেশে হোমিওপ্যাথি চিকিতসা নেই।

এগুলো জানি, বলতে পারবেন না। সুতরাং আবারও সেই পুরনো কথা- আপনার সাথে কন্ঠ মিলিয়েই বলতে হয়- আলো আসবে। অবশ্যই আসবে। হোমিওপ্যাথি আবারও ফিরে এসে সে সত্যকে বাস্তবে রূপ দিবে।

শুভকামনা জানবেন, ভাই।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.