নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

আসলে স্বার্থের পৃথিবীতে কেউ আপন নয় ।

ইসিয়াক

একজন অতি সাধারণ মানুষ ।

ইসিয়াক › বিস্তারিত পোস্টঃ

আদনানের ডায়েরী ৫

৩১ শে আগস্ট, ২০১৯ সকাল ১০:০৫


আদনানের ডায়েরী ২আদনানের ডায়েরী ৩আদনানের ডায়েরী ৪
শরৎ এসে গেছে প্রকৃতিতে।সূর্যের তেজ অনেকখানি কমে এসেছে যদিও। তবে রোদ্দুর এখনও গা সওয়া হয়নি ।ভোরে ঘাসের উপর ঝরা শিউলি গুলো বেশ।রোদ উঠতে সেগুলো শুকিয়ে আসে।কালফুল অবশ্য রোদ বেরুলে বেশী ঝলমল করে।দেখতেও সুন্দর লাগে। ঢাকা শহরের এদিকটায় খুব একটা কাশফুল দেখা যায়না। দুরে একটা রাজহাঁস ডাকছে সঙ্গীকে হারিয়ে ফেলেছে মনে হয়।ডাকটা বেশ কর্কশ ।দিগন্ত জোড়া আকাশে অজস্র মেঘের আঁকিবুকি খেলা।আচ্ছা ওই যে ছোট ছোট পাখিগুলির মেঘের কাছাকাছি ঘুরঘুর করছে। কেন? ক্লান্তি বলে কি কিছুই নাই তাদের ।শুধুই ওড়াওড়িনাকি অসীমকে ছুয়ে দেখার বাসনা ।আদনান অবাক হয়ে পাখীগুলো দেখে। হঠাৎ একটা রিকশার ঘন্টার শব্দে ঘোর কাটে।রিকশাওয়ালা সতর্ক করে।
-দেখে পথ চলো বাবু ।
আদনানের হাসি পায় । সে কি এখনও বাবু ।হি হি হি ।পথ চলতে চলতে হঠাৎ সে একটা গঙ্গা ফড়িং এর দেখা পেল । আকাশে বেশ শান্ত হয়ে উড়ছিলো হঠাৎ সে গা ঘেসে উড়ে গেল। আদনান দৌড়ে গেল তার পিছু পিছু । গঙ্গা ফড়িংটা কখনো ঘাসে আবার কখনো গাছের শুকনো ডালে বেশ নেচে নেচে বেড়াচ্ছে ।আদনানের এই গঙ্গা ফড়িংটা চাই ই চাই । লাল রঙের গঙ্গা ফড়িং তার অসম্ভব প্রিয় । চট করে অসম্ভব ক্ষিপ্রতার সাথে সে খুব তাড়াতাড়ি ফড়িংটা ধরে ফেলতে সমর্থ হলো ।
-কোথায় পেলিরে তুই এটাকে।
অন্তু অবাক বিষ্ময়ে প্রশ্ন করে । লাল গঙ্গা ফড়িং তারও খুব প্রিয় । সেই দাদী বাড়ি বেড়াতে গিয়ে পদ্মার চরে উড়ে বেড়াতে দেখে ছিলো । ধরতে পারেনি অবশ্য ।ইশ এই গঙ্গা ফড়িংটাকে সে যদি নিজের করে পেতো ।
-আমায় দিবি।
-কি ।
-ফড়িংটা ।
-তুই ফড়িং নিয়ে কি করবি ।
-সে তোর না জানলে চলবে । বিদেশী চকলেট আছে । হেব্বি মজা । আয় বদলা বদলি করি ।
-না বাবা চাইনা আমার । তুই অন্য কোথাও দেখ।আদনান বইএর ব্যাগের ভিতর থেকে কাটিম সুতো বের করলো ফড়িংটার লেজ বাধবে বলে।
-এই আস্তে ধর ওর ডানা ভেঙে গেলে তো উড়তে পারবেনা।
-জানি জানি আমাকে জ্ঞান দিতে হবেনা।আমারটা আমি বুঝবো ।
-পাঁচ টাকা আর পাঁচটা বিদেশী চকলেট পাবি।
-লোভ দেখাস না ।
-সত্যি বলছি ।
আদনান দ্রুত বিনিময় সেরে ফেলল ।
-শোন পরে কিন্তু আর ফেরত দেবনা ।
-ঠিক আছে ।
আদনানের মনটা খুশিতে ভরে গেল। যাক মিতাকে দেবে চকলেটগুলো।টাকাটাও কাজে লাগবে । স্কুলের দেরী হয়ে যাচ্ছে সে জোরে হাঁটতে লাগলো । জোরে না হাঁটলে ঘন্টা পড়ে যাবে ।টিচার বকাবকি করবে ।মিস জেবা তার শ্রেণি শিক্ষক । খুব ভালো মানুষ । আদনান কে সে খুব ভালোবাসে।আদনান মিস জেবার ক্লাস মিস করতে চায় না ।
সুন্দর একটা দিনে মানুষ সুন্দর সুন্দর স্বপ্ন দেখে । চারদিকের সব কিছু হঠাৎ করেই যেন সুন্দর হয়ে যায় ।আহ পৃথিবীটা সব সময় যদি এমন হতো।বেশ হতো।

মন্তব্য ১৪ টি রেটিং +৬/-০

মন্তব্য (১৪) মন্তব্য লিখুন

১| ৩১ শে আগস্ট, ২০১৯ দুপুর ১:২২

মাহমুদুর রহমান সুজন বলেছেন: দুই একটা টাইপো আছে। এবারের সেটিং চমৎকার। ভাল লাগা সবসময়ের।

৩১ শে আগস্ট, ২০১৯ দুপুর ১:৩৭

ইসিয়াক বলেছেন: আবারো অনেক ধন্যবাদ সুজন ভাইকে ।
ভালো থাকবেন ।

২| ৩১ শে আগস্ট, ২০১৯ দুপুর ১:৫৫

রাজীব নুর বলেছেন: শুধু অর্থ মানুষকে সুখী করে না। অর্থ যে সুখী করে না এটা প্রমাণিত সত্য। তবুও মানুষ জ্ঞানশূন্য হয়ে অর্থের পেছনে ছুটছে কেন? এটা তো একটা ভুল দৌড় মাত্র। এই ভুল দৌড়ের ব্যাপারেও আমাদের ধর্মগ্রন্থ আল-কুরআনে অনেক কথা বলা আছে। মানুষ যদি বুঝত তার জীবনটা অতি সংক্ষিপ্ত, এরপর তার জবাবদিহিতার মুখোমুখি হতে হবে, তা হলে তো এই পৃথিবীতে আরো অনেক বেশি শান্তি বিরাজ করত।

৩১ শে আগস্ট, ২০১৯ দুপুর ১:৫৯

ইসিয়াক বলেছেন: অর্থ আসলেই অনর্থের মূল। এর ঘটনায় যারা ভুক্তভুগী তারাই জানে এ কথার মানে । সামান্য অর্থেও ভালো ভাবে জীবন অতিবাহিত করা যায়।

৩| ৩১ শে আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৩:৪৮

শায়মা বলেছেন: লেখাটা পড়ছি ..... :)

৩১ শে আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৪:২০

ইসিয়াক বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ আপু । আপনাদের সহযোগীতায় আমি আপ্লত ।
ধন্যবাদ

৪| ৩১ শে আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৩:৫০

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: সুন্দর।

৩১ শে আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৪:২১

ইসিয়াক বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া। আপনাদের সহযোগীতায় আমি আপ্লুত ।
ধন্যবাদ

৫| ৩১ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:২১

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন:

আজকের পর্বটা অপেক্ষাকৃত ভালো লাগলো। কিন্তু আপনাকে আরো যত্নশীল হতে হবে পোস্টটিকে ত্রুটিমুক্ত করার জন্য।
"ভোরে ঘাসের উপর ঝরা শিউলি গুলো বেশ।" এখানে ভাব অসম্পূর্ণ রয়ে গেছে। কয়েকটা টাইপো চোখে পড়লো।
কাশফুল/কালফুল, বের হলে/বেরুলে, পাখি/পাখী, আঁকিবুঁকি/আঁকিবুকি

পোস্টে লাইক।
শুভকামনা প্রিয় ইশিয়াক ভাইকে।

৩১ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:৩৩

ইসিয়াক বলেছেন: প্রিয় দাদা
অনেক ধন্যবাদ । কোনো অজুহাত দেবো না ভাবছিলাম তবুও বলি, লিখতে লিখতে অন্য কাজে চলে গেলেই ছন্দ কেটে যায় । অনেক সময় ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও আন্তরিকতার অভাব থেকে যায় ।
ভালো থাকুন ।
ধন্যবাদ

৬| ০১ লা সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ভোর ৬:৪৩

আনমোনা বলেছেন: ভালো লাগলো।

০১ লা সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ভোর ৬:৪৭

ইসিয়াক বলেছেন: ধন্যবাদ এবং শুভসকাল ।

৭| ০২ রা সেপ্টেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১২:১৭

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: আহা ছেলেবেলা
ভালো লাগলো গল্প কথন অতীত বেলা

০২ রা সেপ্টেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১:০৮

ইসিয়াক বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.