নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

জানার আছে অনেক কিছু, শিক্ষা নিবে কতজন?

শাইয়্যানের টিউশন (Shaiyan\'s Tuition)

সবার জন্যে শিক্ষা। আমার জন্যে তো বটেই। নিজে আগে শিক্ষা নিয়ে আরেকজনের মাঝে তা ছড়িয়ে দেওয়া...এটাই থাকবে আমার লেখাগুলোর উদ্দেশ্য।

শাইয়্যানের টিউশন (Shaiyan\'s Tuition) › বিস্তারিত পোস্টঃ

হাও উই কেন ডাই বিফোর ডাইং

২৫ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ রাত ১১:০৫



"আমি কি আমার জীবন পরিবর্তন করতে প্রস্তুত, আমি কি নিজেকে পরিবর্তন করতে রাজি?''- এগুলো এমন ধরণের প্রশ্ন যা জীবনের যে কোন মুহুর্তে করা যায়। আমাদের যত বয়সই হোক, যে কোন পরিস্থিতি’র মধ্য দিয়ে আমরা যা-ই না কেন, সব কিছু আবার নতুন করে শুরু করা সম্ভব। আমাদের প্রতিটি দিন যদি আগের গত হওয়া দিনের মত একই থাকে, তা জীবনে দুর্গতি বয়ে নিয়ে আসে। ভেবে দেখুন তো, প্রতিটি দিন আপনার একই রকম কাটছে, একই খাদ্য গলাধঃকরণ করতে হচ্ছে, জীবনটা একঘেয়েমীতে পূর্ণ হয়ে উঠবে না? তা তো হয়ে উঠবেই। আর বৈচিত্র্যহীন জীবন কে বা কাটাতে চায়!

আমাদের প্রত্যেকটি নিঃশ্বাস নতুন করে বেঁচে উঠার আশ্বাস দেয়, দেয় জীবনকে সামনে বয়ে নিয়ে যাওয়ার প্রতিজ্ঞা। কিন্তু, এই পুনর্জন্ম পেতে হলে, আসল মৃত্যু আসার আগেই, আমাদের মরতে শিখতে হবে। নিজেকে প্রশ্ন করে দেখুন তো একবার, তা কিভাবে হতে পারে?
*
*
এই পৃথিবী একটি পর্বতের মতো। জীবনের কোলে দাঁড়িয়ে আপনি যে শব্দ করবেন, পৃথিবী আপনাকে তা-ই ফিরিয়ে দেবে।
আপনি যদি ভালো কোন কিছু চিৎকার করেন, ঠিক ঐ জিনিসটাই আপনার কাছে প্রতিধ্বনিত হয়ে ফিরে আসবে। আর যদি কোন খারাপ কিছু করেন? ফলাফল ঐ একই, অর্থাৎ, খারাপটাই আপনার কাছে ফিরে এসে চলার পথে দেয়াল হয়ে দাঁড়াবে। তাই, এমনকি কেউ যদি আপনার প্রতি খারাপ ব্যবহারও করে, তার প্রতি ভালো ব্যবহার করুন, তার সম্পর্কে ভালো কথা বলুন। পুরো পৃথিবীকে পরিবর্তন করতে আগে নিজের হৃদয়কে পরিবর্তন করুন।
*
*
ভালোবাসাহীন জীবন একটি অপচয়মাত্র। জীবনকে তাই ভালোবাসায় পূর্ণ করে তুলুন। সে নিজের জন্যেই হোক কি অপরের জন্যে, ভালোবাসা প্রকাশ করুন। এখানে মনে রাখার চেষ্টা রাখতে হবে- ভালোবাসার কোন রকমফের নেই। তাই, ‘আমি কি আধ্যাত্মিক ভালোবাসার খোঁজ করবো, নাকি বস্তুগত বা দেহের ভালোবাসাই হবে সুখ অন্বেষণের উপায়?’- এমন কোন প্রশ্ন করে নিজেকে বিভ্রান্ত করবেন না। বৈষম্য জীবনে আরেকটি বৈষম্যের জন্ম দেয়। ভালোবাসার কোন নাম, শ্রেণীবিভাগ কিংবা সংজ্ঞার প্রয়োজন নেই। কারন, ভালোবাসা নিজেই একটি বিশ্ব। হয় আপনি এর একদম মধ্যিখানে আছেন, অথবা পুরোই বাইরে...শত ক্রোশ দূরে লোভ-লালসায় পরিপূর্ণ এক সত্ত্বা।
*
*
মন আর ভালোবাসা ভিন্ন ধাতুতে তৈরী, তাই কাজও ভিন্ন। মনের রসায়ন প্রেমের রসায়ন থেকে ভিন্ন। মন সর্বদা সতর্ক, সন্দেহে পরিপূর্ণ হয়ে পায়ে পায়ে সামনের দিকে অগ্রসর হয়। সে সব সময় উপদেশ দিয়ে চলে- ‘সাবধানে থাকো, নিজেকে রক্ষা করো’। অন্যদিকে, হৃদয় বলে- ‘স্বাধীনভাবে সামনে এগিয়ে যাও।‘ মন দৃঢ়, কখনো নিচে পড়ে যায় না। আর, হৃদয় থেকে আসা ভালোবাসা? নিজেই নিজেকে আঘাত করে, সর্বনাশ করে ধ্বংসস্তুপে পরিণত করে। কিন্তু, ধ্বংসস্তুপের নিচেই কি বেশিরভাগ সময় গুপ্তধন পাওয়া যায় না? একটি ভাঙ্গা হৃদয়ে কত ধনই না লুকিয়ে থাকে!

মন্তব্য ৪ টি রেটিং +১/-০

মন্তব্য (৪) মন্তব্য লিখুন

১| ২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ রাত ৩:৫১

চাঁদগাজী বলেছেন:


জীবনের কি বদলাতে হবে?

২| ২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১:১৮

রাজীব নুর বলেছেন: আমাদের গ্রামে একটা কথা আছে। যদিও কথাটা বেশ অশ্লীল। ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি।

পেটে গু থাকলে জিলাপির প্যাঁচে হাগা যায়।

৩| ২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ দুপুর ২:১৩

বিজন রয় বলেছেন: ভাল লেগেছে বিশ্লেষণ।
তবে জীবনকে অপচয় করতে চাই না।

৪| ২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৪:০১

স্বপ্নবাজ সৌরভ বলেছেন: ভালো লেগেছে।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.