নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

চার হাত থেকে আধ হাত কম..

সৈয়দ তাজুল ইসলাম

নিভৃত গ্রহচারী

সৈয়দ তাজুল ইসলাম › বিস্তারিত পোস্টঃ

সিলেটে চলছে ব্যতিক্রমী এক কিতাবমেলা ২০১৯

২৯ শে নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১২:১৩



২৭ নভেম্বর থেকে শুরু হওয়া সিলেটের কিতাবমেলার আজ শেষদিন । গত ২৭ নভেম্বর ২০১৯ইং. থেকে সিলেটের দরগা গেইটস্থ কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদে চলছে ব্যতিক্রমধর্মী এক কিতাবমেলা। আয়োজনে রয়েছে মাকতাবাতুল আযহার ও কালান্তর প্রকাশনী। সিলেটের এই ব্যতিক্রমী কিতাবমেলায় দেশের ইসলামি ঘরানার স্বনামধন্য সকল প্রকাশনী অংশগ্রহণ করেছে। বড়দের পাশাপাশি ছোট্টমনিদের জন্যও রয়েছে অত্যাধুনিকতার সাথে শৈল্পিকভাবে লেখা বইয়ের বিশাল সমাগম । মেলা চলছে প্রতিদিন সকাল ১০ থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত। সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত নারীদের জন্য রয়েছে বিশেষ ব্যবস্থা।

মেলা উপলক্ষে প্রতিটি প্রকাশনীর বই-এ তাদের নির্ধারিত ডিসকাউন্টের পর অতিরিক্ত ১০% ছাড়ে বিক্রি হচ্ছে। এ ছাড়াও বিভিন্ন পুরস্কারের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে মেলা আয়োজক কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে।
*** যারা স্বস্ত্রীক কিতাবমেলায় আসছেন তারা গিফট পাচ্ছেন আল্লামা তাকি উসমানির সদ্য প্রকাশিত ‘পারিবারিক কলহ ও প্রতিকার’ বইটি।
*** তিনদিনে যারা সর্বোচ্চ টাকার বই ক্রয় করবেন, তাদের মধ্য থেকে তিনজনকে বিশেষভাবে পুরস্কৃত করা হবে।
*** এ ছাড়া প্রতিদিন ২ হাজার টাকার বেশি বই যারা ক্রয় করবেন তাদের মধ্য থেকে তিনজনকে পুরস্কৃত করা হচ্ছে। এভাবে তিনদিনে নয়জনকে পুরস্কৃত করা হবে।
*** কিতাবমেলায় ইসলামি বিভিন্ন শিল্পীগোষ্ঠী প্রতিদিন ইসলামি সংগীত পরিবেশন করবে এবং বইয়ের মোড়ক উন্মোচন হবে।


মেলায় প্রথম দিন থেকেই সিলেটের আলিমসমাজ, সুশীলসমাজ, শিক্ষাবিদ, লেখক, কবি, সাংবাদিক, রাজনীতিবিদ, জনপ্রতিনিধি ও বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গরা নিয়মিত আসা যাওয়া করছেন।


১ম দিন> কিতাবমেলার প্রস্তুতির শেষ লগ্ন


ধীরেধীরে পাঠকদের আগমন (১)

(২)

(৩)

(৪)

(৫)


২য় দিন> কিতাবমেলায় আগত একদল পাঠকদের তৃপ্তিময় আন্দোলিত মুহূর্ত (১)


সকলেই ব্যস্ত কিতাবের প্রেমে (২)

(৩)

(৩)

(৪)

(৫)


ইসলামি সাহিত্যকে ঘরে ঘরে পৌঁছাতে, মেলাকে সফল ও প্রাণবন্ত করতে আসতে পারেন পবিত্র প্রেমে ভরপুর এই আঙিনায়।


কালান্তর প্রকাশনীর প্রকাশক আবুল কালাম আজাদ ভাই থেকে সংগৃহিত ও লেখক কর্তৃক স্বল্প পরিমার্জিত ।


#ব্লগারদের কেউ চাইলে আমাকে মেইল করে আসতে পারেন। সিলেটে আসার পর থেকে অনেকদিন হয়ে গেলো ব্লগার কাওসার ভাই ছাড়া অন্য কোন ব্লগারের সাথে সাক্ষাৎ হয়নি। বিশেষত: ব্লগারদের সাথে চা পানে চায়ের স্বাদে এক অসাধারণ মুগ্ধতা উপলব্ধ হয় :`>
[email protected]

মন্তব্য ১৮ টি রেটিং +৩/-০

মন্তব্য (১৮) মন্তব্য লিখুন

১| ২৯ শে নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১২:২৩

নুরহোসেন নুর বলেছেন: আমি মন্তব্যের জবাব পেয়ে এসে দেখি লেখাটি সরানো হয়েছে।
আদৌ কি সেটা ঘটে ছিলো।

২৯ শে নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১২:৩৭

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন: হ্যা নুর ভাই,
অনাকাঙ্ক্ষিত ভাবে..!
ধন্যবাদ আপনাকে আবার এসে দেখার জন্য।
প্রথম মন্তব্যকারী হিসেবে আপনাকে ;)


নির্মল শুভিকামনা জানবেন।

২| ২৯ শে নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১২:৪৯

নূর মোহাম্মদ নূরু বলেছেন:
তোমরা জাহান্নামের অগ্নি থেকে
নিজকে রক্ষা কর এক টুকরা
খেজুরের বিনিময়ে হলেও।
[ সহীহ বুখারী – ৬১১৭ ]

২৯ শে নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১:০৮

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন: ইকরা বিসমি রাব্বিকাল্লাজী খালাক - পড় তোমার প্রভুর নামে, যিনি তোমাকে সৃষ্টি করেছেন
- আল কুরআন
কন্ঠকে নয়, শব্দকে ধরে তোলো | মনে রেখো- ঝড় নয়, বৃষ্টিতেই ফুল বেড়ে ওঠে
- জালাল উদ্দিন মুহাম্মদ রুমি
বিদ্যাশিক্ষার ডিগ্রী আছে জ্ঞানের কোনো ডিগ্রী নেই; জ্ঞান ডিগ্রীবিহীন ও সীমাহীন
- আরজ আলী মাতুব্বর

সুন্দর জ্ঞানপূর্ণ মন্তব্যের জন্য অনেক অনেক ভালোবাসা সাংবাদিক নূরু ভাই

৩| ২৯ শে নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১২:৫১

একজন অশিক্ষিত মানুষ বলেছেন: খুব ভালো একটা বিষয় জানলাম। জানানোর জন্য ধন্যবাদ।

২৯ শে নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১:১১

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন: আপনাকে ধন্যবাদ মন্তব্যের জন্য ।


অফিস থাকায় কিতাবমেলায় বেশি সময় দিতে পারি না, তবে প্রতিদিনই একবার ঘুরে আসি । আসার সময় নিঃসঙ্গতা দূর করে নতুন সঙ্গী; পবিত্র সঙ্গী ।

৪| ২৯ শে নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১:১৩

সোহানী বলেছেন: চমৎকার উদ্যোগ।

২৯ শে নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১:২৬

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন: সোহানী আপু, স্বাভাবিক আমাদের মধ্যে অধিকাংশরা ভাবেন মাদ্রাসা পড়ুয়ারা একাডেমিক বইয়ের বাহিরে অন্য বইগুলো খুবই কম পড়েন। আসলে এই ধারণাটা সম্পূর্ণ ভুল। যা সম্প্রতি আয়োজিত এসব কিতাবমেলাগুলোই তার প্রমাণ বহন করছে।

আমাকে এই কিতাবমেলাটি অন্যান্য বইমেলা থেকে একটু বেশি মুগ্ধ করেছে; মহিলাদের প্রতি সশ্রদ্ধ সম্মান প্রদর্শন করার কারণে। নারীদেরকে কিতাব পড়ার প্রতি আকৃষ্ট করার কৌশলটি আমার কাছে অনেক ভাল লেগেছে। বড়াপা, যদি আমার কোন পবিত্রি থাকতো, তবে আমিও যেতাম ফ্রিতে ঐ বইটি নিয়ে আসতে ;)। তাদের নিজেদের পরিশ্রমে পাঠক মহলে মেলাটি প্রধন্যতা পেয়েছে। তাদের ঋণ শহরবাসী শোধ করতে পারবে না।


আল্লাহ সবাইকে সঠিক বুঝ দান করুন, আমীন।

৫| ২৯ শে নভেম্বর, ২০১৯ রাত ২:০৫

সোহানী বলেছেন: হাহাহাহা........... পবিত্রি এর জন্য বই পড়ে কলহ মোকাবেলা করতে হবে না। এমনিতেই নারীরা কলহ পছন্দ করে না ;) যদি না বিপরীত পক্ষ পায়ে পাড়া দিয়ে শুরু না করে ।

প্রার্থনা, যেন একজন কলহ অপ্রিয় কাউকে খুঁজে পান যার জন্য বইটি লাগবে না। (বাই দা ওয়ে, এতো রাত জেগে ব্লগ ঘাটলে কলহ হতে বাধ্য :#) )

১৪ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৯:৫২

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন: আপু, আমি চাই এমন একজন পবিত্রি যে আমার সাথে তালাবাসন নিয়ে ছুড়াছুড়ির মাধ্যমে যুদ্ধ চালিয়ে যাবে ;) তবে আমাদের মধ্যস্থতার জন্য যেই আসবে সেই লজ্জার সাগরে ডুবে মরবে :)


(আমি এখন আর ব্লগে আগের মত সক্রিয় থাকতে পারি না। বিশেষ টান ও অপ্রাণ চেষ্টায় যতটুকু সময় পারি এখানে থাকতে চেষ্টা করি।)

৬| ২৯ শে নভেম্বর, ২০১৯ সকাল ১০:৩৪

রাজীব নুর বলেছেন: বইমেলার চেয়ে সুন্দর জিনিস দুনিয়াতে নাই।
প্রতিটা জেলায় জেলায় নিয়মিত বই পড়া উচিত।

১৪ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৯:৫৪

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন: অবশ্যই এটা সুন্দরতম একটা মহান জিনিস। ।

হু, প্রচুর প্রচারণার সাথে বইমেলা হওয়া উচিত

৭| ২৯ শে নভেম্বর, ২০১৯ রাত ৮:৩৫

হাবিব স্যার বলেছেন: ্ওয়াও....... দারুণ আয়োজন। আমি যদি থাকতে পারতাম!!!!!!!

১৪ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৯:৫৫

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন: সামনের বার দাওয়াত দিবনে! আসবেন ঘুরবেন আর দাওয়াত খেয়ে যাবেন ইনশাআল্লাহ

৮| ২৯ শে নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১১:২৭

সৈয়দ সদানন্দ বলেছেন: হ্যা, ওরা ধর্র্মের বাহিরের জ্ঞানটুকুও অর্জন করুক । বন্ধাত্বটাই ওদের জন্য কাল !

১৪ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৯:৫৬

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন: সবাই বন্ধাত্বে আবদ্ধ নয়।

শুভকামনা আপনার জন্য।

৯| ৩১ শে ডিসেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১:৫১

মনিরা সুলতানা বলেছেন: বাহ ! দারুণ ......।
তুমি কি এখন সিলেটেই থাকো ?

১৪ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৯:৫৭

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন: হ্যা আপু, সিলেটেই। আসবেন নাকি?

আসলে নক কইরেন; পূর্বে...

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.