নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

দুঃখের হাটে সুখ বেচি, শান্তি খুঁজি অশান্তির বাজারে। দাম দিয়ে কিনি যন্ত্রণা।

গেঁয়ো ভূত

ব্লগে নিজেকে একজন পাঠক হিসেবে পরিচয় দিতেই স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করি। যা সঠিক মনে করি, অন্যায়ের বিরুদ্ধে, অবশ্যই দেশ ও দেশের মানুষের পক্ষে লিখতে চেষ্টা করি।

গেঁয়ো ভূত › বিস্তারিত পোস্টঃ

সামু ব্লগারদের মতে আমজনতার টাকা-পয়সা কোথায় বিনিয়োগ করা যুক্তিসঙ্গত?

২১ শে নভেম্বর, ২০২২ বিকাল ৩:৫১


জানি আমার কিছু বন্ধু এখন আমার দিকে তেড়ে আসবেন। বলবেন, দেখুন সাহেব দুনিয়া জোড়া করুনার ধাক্কা সামাল দিতে না দিতেই শুরু হলো ইউক্রেন যুদ্ধ, ডলারের দাম সর্বোচ্চ, দেশে-বিদেশে মুদ্রাস্ফীতি, আমাদের দেশের ব্যাবসায়ীরা তো আরো এককাঠি সরেস, দ্রব্য মূল্যের বাজারে আগুন! দেশের যা অবস্থা মানুষ তো সংসার চালাতেই হিমসিম খাচ্ছে, আর আপনি আসছেন বিনিয়োগ কোথায় করবেন তাই জানতে। হ্যা, তাও তো ঠিক, টাকাই যদি না জমাতে পারি তাহলে আবার বিনিয়োগের কথা চিন্তা করে ঘুম নষ্ট করা কেন? ওদিকে আবার নোরা ফাতেহির অনুষ্ঠান দেখতে ১৫০০০. ০০ (পনেরো হাজার) টাকা দিয়ে টিকিট কিনতে মানুষের লম্বা লাইন, এজন্যই বোধ হয় "কারো পৌষ মাস কারো সর্বনাশ" কথাটির একচ্ছত্র স্বত্ব শুধু আমাদেরই। যাই হোক "ধান ভানতে শিবের গীত" গেয়ে লাভ নাই।

শুনেছি পিপীলিকা নাকি খুবই সঞ্চয়ী প্রাণী, এরা নাকি শীতের আগেই ভবিষ্যতের জন্য সঞ্চয় করে রাখে। তাই আমাদের জ্ঞানী ব্যাক্তিরা আমাদেরকে পিপীলিকার কাছ থেকে সঞ্চয়ী হওয়ার শিক্ষা নেয়ার উপদেশ দিয়ে থাকেন। সে যাই হোক, যাদের অনেক ধন-সম্পদ আর টাকা-কড়ি আছে তাদের সঞ্চয় প্রবণতা কেমন তা আমার খুব একটা জানা নাই। কারন, পয়সা ওয়ালা লোকদের সাথে আমার কদাচিৎ সাক্ষাৎ ঘটলেও সঞ্চয় নিয়ে কখনো তাদের কারো সাথে আমার কস্মিনকালেও কোনো কথা-বার্তা হয় নাই। তবে, যারা নিম্ন মধ্যবিত্ত তাদের মধ্যে যে সঞ্চয় প্রবণতা প্রবল তা আমি অভিজ্ঞতা থেকেই জানি এবং মানি। আমি এমন অনেক মানুষকে দেখেছি যারা ডালভাত খেয়ে অথবা একবেলা কম করে খেয়ে হলেও ভবিষ্যত বিপদ-আপদের কথা চিন্তা করে দশ টাকা ইনকাম করলে অন্ততঃ একটা টাকা সঞ্চয় করে রাখেন। আবার এমন দু-একজনকে চিনি যারা সঞ্চয় তো দূর কি বাত, সারাজীবন ধার-কর্জের উপর থাকা মনে হয় তাদের কাছে একটা নেশার মতো ব্যাপার।

আমার আজকের আলোচ্য বিষয় আমজনতার টাকা-পয়সা কোথায় বিনিয়োগ করা যুক্তিসঙ্গত? আগে সাধারণ চাকুরিজীবীদের কমপক্ষে একটা ডিপিএস থাকতো, অনেকের বেশিও থাকতো। তারপর ডিপিএস ম্যাচিউরড হলে সেটা ভাঙিয়ে মেয়াদান্তে প্রাপ্ত টাকা কেউ এফডিআর করতেন, কেউ সঞ্চয় পত্র কিনতেন আবার কেউবা আবার পোস্ট অফিস এ মেয়াদি আমানত রাখতেন। এগুলোই মোটামোটি সাধারণের কাছে জনপ্রিয় ছিল। কিন্তু এখন মনে হয় পরিবর্তিত বাস্তবতায় একটু একটু করে লোকজন তাদের সঞ্চয় এবং বিনিয়োগ এর ধরণে পরিবর্তন আনতে একরকম বাধ্যই হচ্ছেন বা হবেন।

ব্যাংকে টাকা জমা রাখার ব্যাপারে বাজারে প্রতিদিন কে বা করা যেন নিত্য নতুন গুজব ছড়িয়েই যাচ্ছেন, কেউ বলছেন ব্যাংক সব দেউলিয়া হয়ে যাচ্ছে, কেউ বলছেন ব্যাংকে টাকা রাখলে ভবিষ্যতে যত টাকাই থাকুক এক লাখের বেশি ফেরত পাওয়া যাবে না। আরো কত কি? যার যা মনে আসতেছে ইচ্ছে মতো বলেই যাচ্ছেন। যদিও বাস্তবে এমন কোনো কিছুই ঘটছে না বা নিকট ভবিষ্যতেও ঘটার সম্ভাবনা আছে বলেও মনে হয়না। ব্যাতিক্রমী কিছু ঘটনা সব দেশেই থাকে সেগুলোকে তো আর উদাহরণ হিসেবে আনা যায় না।

তবে হ্যা ব্যাংকে টাকা রাখলে কিন্তু সত্যিই কমে যায়! কিভাবে?? উত্তরটাও আজকাল অনেকেরই জানা। ধরুন, করিম সাহেব ব্যাংকে একলক্ষ টাকা জমা রাখলেন। এক বছর পরে তিনি মুনাফা সহ পেলেন এক লক্ষ্য দশ হাজার টাকা (যদিও বাস্তবে আরও কম পাবেন হয়তো) । এখন প্রশ্ন হলো আজকে করিম সাহেব এক লক্ষ্য টাকায় যে পরিমান পণ্য (চাল, ডাল, আটা, ময়দা, ইট, বালু, রড, সিমেন্ট, সোনা, রূপা যে কোনো পণ্যই হোক না কেন) কিনতে পারতেন এক বছর পর এক লক্ষ্য দশ হাজার টাকায় সেই পরিমান পণ্য করিম সাহেব কিনতে পারবেন কি? পারবেন না। বিগত অন্তত চল্লিশ বছরে আমরা মুদ্রাস্ফীতির এমনই খেলা দেখে আসছি। তবে ইদানিং যেন বিষয়টি আরও প্রবল হয়ে দেখা দিয়েছে। ব্যাংকের মুনাফার হার বেধে দেয়ার কারনেও বিষয়টি হয়তো দ্রুত ত্বরান্বিত হয়ে থাকতে পারে। তাহলে করিম সাহেব যদি ব্যাংকেই টাকা রেখে দেন তাহলে আস্তে আস্তে কমতে থাকবে এটা যে কেউই অনুমান করতে পারেন, এটা বুঝতে অর্থনীতিবিদ হওয়া লাগে না।

সুতরাং, এ ব্যাপারে সবাই একমত হবেন যে ব্যাংকে যদি টাকা রাখা হয় তাহলে গ্রোস এমাউন্ট বাড়ে কিন্তু নিট এমাউন্ট প্রায় নিশ্চিত ভাবেই কমে যায়। এটা এখনো সবার কাছে দিবালোকের মতো পরিষ্কার যদি নাও হয়ে থাকে তবে টর্চ জ্বালিয়ে একটু দেখে নিবেন প্লিজ। অনেকে ধর্মীয় বিধি-নিষেধের কারনে সচেতন ভাবেই সুদ পরিহার করতে চান।

তাহলে করিম সাহেব এতো কষ্ট করে যে টাকা গুলো জমালেন ভবিষ্যতের জন্য, তার কি হবে??? কেউ বলবেন সোনা কিনে রাখুন, সোনার দাম যে সব সময় বাড়বেই তার কি কোনো নিশ্চয়তা আছে? আবার সোনা যে কিনবেন তা আসল না নকল সে এক প্রশ্ন। ধরে নিলাম আসলটাই কিনলেন কিন্তু আপনার কাছে সোনা আছে মানেই আপনার বিপদ বেড়ে গেল। কেউ বলবেন ডলার কিনুন, ব্যাক্তি পর্যায়ে বিদেশী মুদ্রা কিনে রাখার অনুমতি আপনাকে কে দিয়েছে? কেউ বলবেন গবাদি পশু কিনে পালন করুন, সেই সুযোগ কয়জনের আছে? কেউ বলবেন শেয়ার মার্কেটে যান, কিনলেই লাভ, করিম সাহেব বলেন মাফ চাই দোয়াও চাই, এটা সবার জন্য নয়। কেউ বলবেন ক্রিপ্টো কারেন্সি কিনেন, এটার ঝুঁকি আরো বেশি, আর ক্রিপ্টো এদেশে বৈধ নয়। আমার কাছে একজন পরামর্শ চেয়েছিলেন আমি তাকে বলেছিলাম জমি কিনে রাখেন, সবাই যদি জমি কিনতে যায় তাহলে বেচবে কে? ?? ???

***এটা একটা উম্মুক্ত আলোচনা মূলক পোস্ট সকল সহ ব্লগারদের সুচিন্তিত মতামত আশা করছি। ***

মন্তব্য ৪৪ টি রেটিং +১/-০

মন্তব্য (৪৪) মন্তব্য লিখুন

১| ২১ শে নভেম্বর, ২০২২ বিকাল ৪:২৫

শাহ আজিজ বলেছেন: কিইবা বুদ্ধি দেব , নিজেরগুলো নিয়েই চিন্তায় আছি । ডলার ,সোনা না মাদক মাথায় কিছু ঢুকছে না । একজন ব্যাংকার বললেন তারা সবাই ডলারের পেছনে ছুটছেন কিন্তু ব্যাঙ্কে ডলার নেই , নিজেরাই কিনে রেখেছেন । সোনার খোজ খবর রাখি না , আর মাদক তো ছুয়েও দেখি না ।

আমার কাছে কোন বুদ্ধি নেই , দেখি অন্যরা কি বলে ।

২১ শে নভেম্বর, ২০২২ বিকাল ৫:৫৩

গেঁয়ো ভূত বলেছেন: প্রথম মন্তব্যে অশেষ ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা।

সত্যি কথা বলতে কি মানুষ আসলেই একটা ক্যারাব্যারা অবস্থার মধ্যে আছে। একদিকে দ্রব্যমূলের বাজারে আগুন, সংসার চালাতে লোকেরা আসলেই হিমশিম খাচ্ছে, জীবন নির্বাহ করতে নাভিস্বাস উঠছে, তারপর কষ্টের জমানো টাকা পয়সাগুলো দিনে দিনে কাগজ হয়ে যাবে যদি না সঠিক ভাবে কাজে না লাগানো যায়।

২| ২১ শে নভেম্বর, ২০২২ বিকাল ৫:০২

শেরজা তপন বলেছেন: অর্থ অলস পড়ে থাকলে অনেক রকম চুলকানি হয়। এটা প্রায় দাদ বা বিখাউজের পর্যায়ে যায় যৌবন বয়সে- সে চলকানি মাঝবয়সেও থামে না। একটা বয়সে গিয়ে ফাইনাল কাউন্ট ডাউন শুরু হলে এটা ধীরে ধীরে কমে আসে।
ব্যাঙ্কে ডিপিএস রাখলে নিট এমাউন্ট কমে কারন সুদ কখনই মুদাস্ফিতির সাথে তাল মিলিয়ে চলে না তবে দীর্ঘমেয়াদী ডিপিএস টাকার সুরক্ষা অনেকটা নিশ্চিত করে। কেউ ধার চাইলে বা কেউ খুব লোভনীয় ব্যাবসার মুলো ঝুলালে সেটা কষ্টে সৃষ্টে পাশ কাটানো যায়। হুট হাট সমস্যা ( যেটা অন্যভাবে সমাধানযোগ্য) বা আনন্দ অনুষ্ঠানে খরচের রাশ টানা যায়!
টাকার সবচেয়ে বড় কাজ প্রডাক্টিভিটি খাতে ইনভেস্ট করা। সেটার জন্য বয়স, বুদ্ধি, সময়, ব্যাবসার খাত বড় একটা ফ্যাক্টর। কিছু কিছু ব্যাবসা আছে যার লাভ লস কোনটাই হুলস্থুল নয়। নিজে ইনভল্ভ থাকতে পারলে এখানে ইনভেস্ট করা যায়। অল্প কিছু বৈদেশিক মুদ্রা রাখা যায় সাথে গোল্ড নিদানের সম্বল হিসেবে( তবে সেটা ব্যাঙ্কের ভল্টে রাখলে ভাল হয়- ব্যঙ্কের গ্রেডিং দেখে সেরা ব্যাঙ্কে।)
আসলে এদেশের মানুষ যে কোন পরিমান টাকাতেও নিরাপদ ভবিষ্যত চিন্তা করতে পারেনা। সরকার, ব্যাঙ্ক আর আশেপাশের পরিচিত মানুষ -কাউকে বিশ্বাস করা কষ্ট! সে জন্যই একাংশ টাকা বিদেশে পাচার করে। সত্যিকারে টাকা শতভাগ নিরাপদ কোন ক্ষেত্র নাই। এই দেশে মানুষের জীবন আর অর্থ কোনটাই নিরাপদ নয়।

২১ শে নভেম্বর, ২০২২ সন্ধ্যা ৬:১৬

গেঁয়ো ভূত বলেছেন: চমৎকার মন্তব্যে দারুন বিশ্লেষণ ও বাস্তব চিত্র দারুণভাবে উঠে এসেছে।

সত্যিই তো এদেশের মানুষ যে কোন পরিমান টাকাতেও নিরাপদ ভবিষ্যত চিন্তা করতে পারেনা। সরকার, ব্যাঙ্ক আর আশেপাশের পরিচিত মানুষ -কাউকে বিশ্বাস করা কষ্ট! সে জন্যই একাংশ টাকা বিদেশে পাচার করে। সত্যিকারে টাকা শতভাগ নিরাপদ কোন ক্ষেত্র নাই। এই দেশে মানুষের জীবন আর অর্থ কোনটাই নিরাপদ নয়।

মন্তব্যের জন্য অশেষ ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা।

৩| ২১ শে নভেম্বর, ২০২২ বিকাল ৫:১৪

মিরোরডডল বলেছেন:





ভূত টাকা কোথায় রাখবে এটা নিয়ে চিন্তিত ।
আমার একাউন্টে ট্রান্সফার করে দিক ।
ভুতের কাছে থাকলে খরচ হয়ে যাবে ।
আমি যত্ন করে নিজের মনে করে……… বাকিটা কি বলতে হবে ? :)

I was just kidding.

কোথায় ইনভেস্ট করলে বেস্ট এটা কমপ্লিটলি ডিপেন্ড করে স্থান, কাল, ডিম্যান্ড এবং এমাউন্ট অভ ইনভেস্টমেন্টের ওপর ।

এই মুহূর্তে রেইট খুব হাই বলে মানুষ প্রপার্টির দিকে যাচ্ছে না।
খুব বেশি প্রপার্টি সেল হচ্ছে না, আর ঠিক সে কারনেই যে বা যারা এখন কিনবে, ইট উইল বি ওয়াইজ ।
তবে কেনার সময় লোকেশন সিলেকশনে কেয়ারফুল হতে হবে ।
টেন্যান্সি রেইট হাই এমন কোথাও ইনভেস্ট করতে পারলে সাথে সাথেই ওটা মার্কেটে দেয়া যাবে ।
কারেন্ট রেন্টাল ইজ ভেরি হাই । সো নাথিং টু লুজ ব্যাট গেইন ।


২১ শে নভেম্বর, ২০২২ রাত ৯:০১

গেঁয়ো ভূত বলেছেন: ডিয়ার আপুমনি,
লট অব থ্যাংকস ফ্রম দা কোর অব মাই হার্ট ফর ইওর ওয়াইজ আন্ড ভালুয়েবল সাজেশন।

এখন কথা হইলো আপু আপনি যখন বুইজ্যাই ফালাইছেন ভুতের কাছে বেশ কিছু টাকা জইমা গেছে তয় আর কি করা তাড়াতাড়ি একাউন্ট নাম্বার টা সেন্ড করেন কালকে সকাল সকাল ট্রান্সফার কইরা দিমুনে। =p~ =p~ =p~

মন্তব্যের জন্য অশেষ ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা।
শুভকামনা নিরন্তর।

৪| ২১ শে নভেম্বর, ২০২২ বিকাল ৫:২০

ফুয়াদের বাপ বলেছেন: ভয়বহ একটা বিষয় নিয়ে আলোচনার আলোকপাত করেছেন। ব্যাংকে সঞ্চয় করে পাওয়া বাৎসরিক সুদের হার আর বাৎসরিক মুদ্রাস্ফীতির হার দৃশ্যমান পার্থক্য। বর্তমান প্রেক্ষপটে ব্যাংকে/সঞ্চয়পত্রে টাকা রাখা লাভজনক নয়। প্রবাসী/অবসর প্রাপ্ত মানুষগুলো চাইলেই সহজে অলস অর্থ বিনিয়োগে উদ্যেক্তা হতে পারেননা।

একটাই উপায় মেধা খাটিয়ে লাভজনক উৎপাদনশীল কোন কিছুতে বিনোয়োগ করা। যেই সক্ষমতা সবার সমান নয়।

২১ শে নভেম্বর, ২০২২ রাত ৯:২৩

গেঁয়ো ভূত বলেছেন: অসংখ্য ধন্যবাদ ভাইজান।
ব্যাংকে সঞ্চয় করে পাওয়া বাৎসরিক সুদের হার আর বাৎসরিক মুদ্রাস্ফীতির হার দৃশ্যমান পার্থক্য। বর্তমান প্রেক্ষপটে ব্যাংকে/সঞ্চয়পত্রে টাকা রাখা লাভজনক নয়। প্রবাসী/অবসর প্রাপ্ত মানুষগুলো চাইলেই সহজে অলস অর্থ বিনিয়োগে উদ্যেক্তা হতে পারেননা।
এই বিষয়গুলো আমি বেশ কয়েক বছর আগেই খেয়াল করেছি এবং আমার পরিচিতদের সাথে বিষয়গুলো নিয়ে আলাপও করতাম, কিন্তু এখনকার মতো অবস্থা কখনোই ছিল না। অনেকেই এসব নিয়ে পরামর্শ চায়। কিন্তু বিষয়গুলো নিয়ে রাষ্ট্রের তরফ থেকে আরো আগেই সুষ্ঠূ চিন্তা ভাবনা থাকার প্রয়োজন ছিল। আমার মনে হয় এটা মানুষের মধ্যে একধরণের সোশ্যাল ইনসিকিউরিটি তৈরী করবে।
মন্তব্যের জন্য অশেষ ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা।
শুভকামনা নিরন্তর।

৫| ২১ শে নভেম্বর, ২০২২ বিকাল ৫:২৯

সোনাগাজী বলেছেন:



সাধারণ মানুষের ( যারা ব্যবসায়ী বা শিল্পপতি ) সন্চিত অর্থের পরিমাণ মুদ্রাস্ফিতির পরও যেন বাড়ে, সেটার আইনী ভিত্তি দেয়ার দায়িত্ব কার?

২১ শে নভেম্বর, ২০২২ রাত ৯:৪৯

গেঁয়ো ভূত বলেছেন: সন্চিত অর্থের পরিমাণ মুদ্রাস্ফিতির পরও যেন বাড়ে, সেটার আইনী ভিত্তি দেয়ার দায়িত্ব কার?

সেটাই তো কথা, যার কান্দন সে কান্দেনা কাঁদে নিমাইঢুলী !

৬| ২১ শে নভেম্বর, ২০২২ বিকাল ৫:৪৫

ঋণাত্মক শূণ্য বলেছেন: মিররডল বলে দিয়েছেন।

২২ শে নভেম্বর, ২০২২ সকাল ১১:০২

গেঁয়ো ভূত বলেছেন: আচ্ছা ঠিক আছে। মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ।

৭| ২১ শে নভেম্বর, ২০২২ সন্ধ্যা ৬:০১

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: স্বর্ণে। আর অলস টাকা থাকলে শেয়ার মার্কেটে ৫ বছরের নিয়তে বিনিয়োগ। শেয়ার মার্কেট ৫ বছরে একবার না একবার ফুলে ফেপে ওঠে।

২২ শে নভেম্বর, ২০২২ সকাল ১১:৪৩

গেঁয়ো ভূত বলেছেন: অসংখ্য ধন্যবাদ সাড়ে চুয়াত্তর ভাইয়া।

প্রশ্নটা ছিল আমজনতার টাকা-পয়সা কোথায় বিনিয়োগ করা যুক্তিসঙ্গত?
সুতরাং স্বর্ণ টা ঠিক আছে। সাধারণ পাবলিকের পক্ষে শেয়ার মার্কেট থেকে আর্নিং করা খুবই দুরূহ। আমাদের দেশে স্টক মার্কেটে বরাবরই একটা আস্থার সংকট বিদ্যমান। উনিশশো ছিয়ানব্বই এবং দুই হাজার দশ এর ধ্বস এর পর দেশের শেয়ার মার্কেট আজ পর্যন্ত বলতে গেলে কোমড় সোজা করে দাঁড়াতে পারে নাই। আবু আহমেদ এর মতো বিজ্ঞ অর্থনীতিবিদ এই গেলো বছরই শেয়ার মার্কেট এ বিশাল অংকের প্রতারণার শিকার হয়েছেন। আম-পাবলিকের জন্য মিউচুয়াল ফান্ড বিদেশে একটা ভালো বিনিয়োগের জায়গা হলেও বাংলাদেশে মিউচুয়াল ফান্ড এর অবস্থা বড়োই নাজুক। জানা যায় শেয়ার মার্কেট ৯৫% বিনিয়োগকারী চূড়ান্তভাবে লাভবান হতে পারে না। এটা মূলত বৃহৎ পুঁজিপতিদের জন্য সুইটেবল প্লেস।

শুভকামনা।

৮| ২১ শে নভেম্বর, ২০২২ সন্ধ্যা ৬:১৪

সোনাগাজী বলেছেন:


৫নং মন্তব্যে টাইপো:

সাধারণ মানুষের ( যারা ব্যবসায়ী বা শিল্পপতি *নন ) সন্চিত অর্থের পরিমাণ মুদ্রাস্ফিতির পরও যেন বাড়ে, সেটার আইনী ভিত্তি দেয়ার দায়িত্ব কার?

আমাদের সরকারের দেশ চালনার নীতিতে, বসুন্ধরার বিনিয়োগ বাড়ছে, কিন্তু রিটার্ড প্রাইমারী স্কুল শিক্ষকের বিনিয়োগ বাড়ছে না।

২২ শে নভেম্বর, ২০২২ দুপুর ১:০৯

গেঁয়ো ভূত বলেছেন: আমাদের সরকারের দেশ চালনার নীতিতে, বসুন্ধরার বিনিয়োগ বাড়ছে, কিন্তু রিটার্ড প্রাইমারী স্কুল শিক্ষকের বিনিয়োগ বাড়ছে না।

হ্যা। সম্পদের সুষ্ঠ বন্টন অতি প্রয়োজনীয় বিষয়। কিন্তু আমাদের এখানে কি হচ্ছে?? একেবারে সব কারেন্ট জাল দিয়ে সব ছেঁকে নিয়ে যাওয়ার এক নির্লজ্জ মহোৎসব চলে এখানে। কিন্তু এর সমাধান কি?

একজন বয়োবৃদ্ধ প্রাইমারি স্কুল শিক্ষক জীবন সায়াহ্নে তার অর্জিত অর্থসমূহ ঠিক কিভাবে কাজে লাগাবেন? এটা নিয়ে পরিকল্পনা তো রাষ্ট্রেরই করে দিতে হবে, তা যদি না হয় তাহলে সমাজের বৃদ্ধ মানুষগুলোর কি হবে?

৯| ২১ শে নভেম্বর, ২০২২ সন্ধ্যা ৭:০৬

মরুভূমির জলদস্যু বলেছেন:
- আমার সঞ্চয় নাই, তাই বিনিয়োগের চিন্তাও নাই।

২২ শে নভেম্বর, ২০২২ বিকাল ৪:০১

গেঁয়ো ভূত বলেছেন: ভাইরে ভাই! মরুভূমির জলদস্যু ভাই!! আপনার প্যাটে এত বুদ্ধি!
সেরা খাতে বিনিয়োগ কইরা এখন কইতাছেন আমার সঞ্চয় নাই, তাই বিনিয়োগের চিন্তাও নাই।

অথচ সামু ব্লগের সবাই জানে আপনার গাজীপুরের দেউলিয়া গ্রামে ৩২ কাঠা নেয়া ইতিমধ্যে কমপ্লিট, আরো কত জায়গায় কত কি আছে আল্লাই মালুম। ইতিমধ্যে গাজী সাব তো প্রশ্ন তুললেন আপনার আয়ের উৎস কি? যাই হোক, একটু মজা লইলাম আর কি।

ভালো থাকুন, সকলের বিনিয়োগ নিরাপদে থাকুক। শুভকামনা।

১০| ২১ শে নভেম্বর, ২০২২ রাত ৮:১৩

শায়মা বলেছেন: একটু শুধু চিকিৎসার জন্য বা হঠাৎ বিপদের জন্য রেখে বাকী সব আনন্দের সহিত খরচ করে ফেলাটাই আসলে বুদ্ধিমানের কাজ। :)

আনন্দে যত খুশি খরচ করা হবে। যতটুকু আয় তার ৭৫% ব্যয়। যা মনে চায় টাকা দিয়ে তাই করে ফেলা এটাই আসলে উচিৎ।

কারণ এক সেকেন্ডের নাি ভরষা বন্ধ হইবে রঙ তামাশা।

তখন এই টাকা জমিয়ে কি হবে?

পরবর্তী বংশধরেরা খাবে।

আবার তাদেরটা কে খাবে??
উত্তরাধিকারী।

এমন করে করে তো যাও বা আর্ন করা হলো জীবনেও ভোগ করা হবে না। :(

২২ শে নভেম্বর, ২০২২ বিকাল ৪:৪৪

গেঁয়ো ভূত বলেছেন: শায়মা আপু,

তোমার কমেন্ট টা আমার কাছে সবচাইতে পারফেক্ট মনে হয়েছে। কেন? সবাই বিষয়টিকে শুধু সঞ্চয়, বিনিয়োগ এবং এর সমস্যা নিয়ে কথা বলেছে। এবং এটাই স্বাভাবিক। তবে তুমি বিষয়টিকে দেখেছো ভিন্ন ভাবে, ভিন্ন দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে।

আনন্দে যত খুশি খরচ করা হবে। যতটুকু আয় তার ৭৫% ব্যয়। যা মনে চায় টাকা দিয়ে তাই করে ফেলা এটাই আসলে উচিৎ।

কারণ এক সেকেন্ডের নাি ভরষা বন্ধ হইবে রঙ তামাশা।

তখন এই টাকা জমিয়ে কি হবে?

পরবর্তী বংশধরেরা খাবে।

আবার তাদেরটা কে খাবে??
উত্তরাধিকারী।

এমন করে করে তো যাও বা আর্ন করা হলো জীবনেও ভোগ করা হবে না।


এই কথাগুলো আর কেও বলেনি।

২৫% সঞ্চয়ই হলো পারফেক্ট। তবে হ্যা, আপু, আমাদের সমাজে অনেক মানুষ রয়েছে যাদের শত ভাগ খরচ করেও জীবন চালানো ভার।
মন্তব্যের জন্য অশেষ ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা।
শুভকামনা নিরন্তর।

১১| ২১ শে নভেম্বর, ২০২২ রাত ৮:২৮

রিফাত হোসেন বলেছেন: আপনি বিভক্ত করে বিনিয়োগ করতে পারেন। যদি সামান্য কিছু থাকে তা দিয়ে সব বিভাগে বিনিয়োগ সম্ভব নয়। সেক্ষেত্রে বলব ব্যবসা করতে পারেন। upcoming trend যারা ধরতে পারে তারা অধিকাংশ সফল ব্যবসায়ী হয়। মানুষের সাথে যোগাযোগ বৃদ্ধি করতে হতে পারে। বেশি আয়ের আশা করা যাবে না, অল্প লাভে ব্যবসা ক্রমাগত চালিয়ে যেতে হবে ধীরে ধীরে লট এমনিতেই বৃদ্ধি পাবে। এজন্যই একই পণ্য অতি মুনাফার আশায় ধরে রাখে। যা সামগ্রিকভাবে বাজারকে চাপে রাখে। তা হতে বেরিয়ে আসতে হবে। লেগে থাকা বা ধৈর্য্য যাদের নাই তাদের জন্য বিনিয়োগ নয়। সেটা crypto, gold, wholesale, land যাই হোক না কেন। তাদের জন্য চাকুরী প্রযোজ্য। সেখানে আয় সীমাবদ্ধ থাকবে, ভবিষ্যৎ অনেকের অনিশ্চিত থাকতে পারে।

২২ শে নভেম্বর, ২০২২ বিকাল ৫:৫০

গেঁয়ো ভূত বলেছেন: সুন্দর মন্তব্য। রিস্ক ম্যানেজমেন্ট এর ক্ষেত্রে বিনিয়োগ ডাইভার্সিফিকেশন একটি গ্রহযোগ্য এবং ভালো উপায়। upcoming trend যারা ধরতে পারে তারা অধিকাংশ সফল ব্যবসায়ী হয়। এটাও সর্বজন স্বীকৃত।

মন্তব্যের জন্য অশেষ ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা।
শুভকামনা নিরন্তর।

১২| ২১ শে নভেম্বর, ২০২২ রাত ৯:০৮

নিমো বলেছেন: বর্তমান অর্থনৈতিক ব্যবস্থায় আমরাই এর নিয়ন্ত্রকদের জন্য বিনিয়োগ। আমাদের আর আলাদা করে বিনিয়োগের সুযোগ কোথায়? সুন্দর পোস্ট লিখেছেন।

২৩ শে নভেম্বর, ২০২২ সকাল ১০:৪০

গেঁয়ো ভূত বলেছেন: মন্তব্যের জন্য অশেষ ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা। ভাল থাকবেন।
শুভকামনা নিরন্তর।

১৩| ২১ শে নভেম্বর, ২০২২ রাত ৯:৩৫

রাজীব নুর বলেছেন: ভালো পোষ্ট দিয়েছেন। লোকজন যথাযথ মন্তব্য করেছেন।

২৩ শে নভেম্বর, ২০২২ সকাল ১০:৪৮

গেঁয়ো ভূত বলেছেন: মন্তব্যের জন্য অশেষ ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা। ভাল থাকবেন।
শুভকামনা নিরন্তর।

১৪| ২১ শে নভেম্বর, ২০২২ রাত ১০:২২

জুল ভার্ন বলেছেন: আমার মতে, যাদের বিনিয়োগ করার মতো টাকা আছে তারা জমি কিম্বা গোল্ডে বিনিয়োগ করতে পারেন।

২৩ শে নভেম্বর, ২০২২ সকাল ১১:৫১

গেঁয়ো ভূত বলেছেন: মন্তব্যের জন্য অশেষ ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা। এখন পর্যন্ত এই দুইটি খাতই লাভজনক। তবে, সোনার চাইতে জমিতে অনেক বেশি রিটার্ন আসে। আবার সোনার ব্যবসা তো সবাই জানেও না। সুতরাং আমার মতে অলস পরে থাকা টাকায় জমির চেয়ে ভাল বিনিয়োগ আর নাই। ভাল থাকবেন। শুভকামনা নিরন্তর।

১৫| ২১ শে নভেম্বর, ২০২২ রাত ১০:৩৩

রেজাউল৮৮ বলেছেন: সামুর শেয়ার কিনে ফেলুন। অনেক লাভ।
কিভাবে?
হিসাব দিচ্ছি।

সামুতে কিছুদিন পর পর দেখি সেরা ছাগল নির্বাচন প্রতিযোগিতা হয়। কয়েকদিন আগে দেখলাম একজন অনলবর্ষী ছাগল নতুন ছাগল প্রতিযোগিতার নির্বাচন দাবি করেছে।

মডারেটর সামুর কিছু শেয়ার বাজারে ছাড়তে পারে। প্রতিমাসে সেরা ছাগল নির্বাচনের ব্যবস্থা করতে পারে, তবে শুধুমাত্র শেয়ার হোল্ডাররাই ভোট দিতে পারবে এই নিয়ম থাকবে।
শেয়ার বিক্রি করে সামু কিছু চলমান লস কাভার করতে পারবে।
যেহেতু শুধুমাত্র শেয়ার হোল্ডাররাই ভোট দিতে পারবে, ভোট প্রার্থীরা সেরা ছাগল হওয়ার জন্য ভোটারদের খুশি করতে ব্যস্ত থাকবে। একজন সম্মানিত শেয়ার হোল্ডার হিসেবে আপনি দাবি করতেই পারেন যে নগদ টাকা ছাড়া কাউকে সেরা ছাগল হিসেবে আপনি ভোট দিবেন না।
মডারেটর যদি প্রতিমাসের শেষে এ মাসের সেরা ছাগল প্রতিযোগিতার নিয়মিত আয়োজন করেন, তবে তিন চারজন ভোট প্রত্যাশীর দয়ায় শেয়ার হোল্ডাররা সহজেই বিনিয়োগের টাকা তুলে ফেলে কিছু লাভ করতে পারবেন বলে মনে করি।

২৩ শে নভেম্বর, ২০২২ দুপুর ১:০০

গেঁয়ো ভূত বলেছেন: মন্তব্যের জন্য অশেষ ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা।

দুঃখিত, আমি বুঝতেই পারিনি আপনার মন্থব্যের সাথে এই পোস্ট এর সম্পর্ক কি? কারণ, এটা তো ফান পোস্ট নয় আবার সার্কাজমও নয়।

সামু যদি জয়েন্ট স্টক কোম্পানি হতো বা ভবিষ্যতে হয় তাহলে শুধু আমি না অনেকেই সামুর শেয়ার কিনে নিবে শুধু লাভের জন্য নয়, তাঁরা সামুকে ভালোবাসে বলে।

ভাল থাকবেন।
শুভকামনা নিরন্তর।

১৬| ২২ শে নভেম্বর, ২০২২ সকাল ১০:৪৮

নতুন বলেছেন: দেশের প্রক্ষীতে বিনিয়ওগ আসলেই জটিল হিসাব। নিজের টাকা অন্য কারুর ব্যবসায় বিনিয়োগ দেশে নিরাপদ না। ব্যাংকে সুধুমাত্র ওয়েজ আর্ণারস বন্ডে ১২% এবং ৫ বছর মেয়াদ শেষে ১৫.৫% লাভ দেবে, শেখানে হয়তো মুদ্রাস্ফিতির পরেও কিছু লাভ থাকবে। কিন্তু অন্য সব ডিপজিট স্কিমে লাভ দেখি না।

স্বর্ন বছরে ৮-১০% দাম বাড়বে,

আজ ২৪ কেরেট স্বর্ন আউন্স ১৭৪৪$ যেটা ২০৩৪ এ ৪৭০০$ পযন্ত যেতে পারে।

তার জন্য ২৪ ক্যারেট ১০ ভরীর বার কিনে রাখতে হবে। তাও দেশে এই জিনিস কোথায় নিরাপদে এতো দিন রাখা যাবে সেটাও বিরাট একটা প্রশ্ন :|

২৩ শে নভেম্বর, ২০২২ বিকাল ৩:২৮

গেঁয়ো ভূত বলেছেন: মন্তব্যের জন্য অশেষ ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা।

বাস্তব পরিস্থিতি খুব সুন্দরভাবে তুলে ধরেছেন। কখনো যদি সোনা কিনি বা কেউ কিনতে চায় তাহলে আপনার পরামর্শ কাজে লাগানো যাবে।
দেশে এই জিনিস কোথায় নিরাপদে এতো দিন রাখা যাবে সেটাও বিরাট একটা প্রশ্ন রয়েই গেলো।

১৭| ২২ শে নভেম্বর, ২০২২ সকাল ১১:৫০

বাকপ্রবাস বলেছেন: আমার জমা টাকা পয়সা নাই, তবুও ভয় হয় যদি ব্যাংক দেউলিয়া হয়ে যায় ওদের কথা ভেবে। গরীবি হাল ভাল লাগেনা

২৩ শে নভেম্বর, ২০২২ সন্ধ্যা ৬:১৮

গেঁয়ো ভূত বলেছেন: মন্তব্যের জন্য অশেষ ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা।
আমি মূলত আমজনতার টাকা-পয়সা কোথায় বিনিয়োগ করা যুক্তিসঙ্গত? এই প্রশ্নটি মাথায় রেখেই পোস্ট টি করেছিলাম। তবে এখানে অনেকেই এটাকে আমার ব্যাক্তিগত প্রশ্ন মনে করে মতামত প্রদান করেছেন।
ভাল থাকবেন।
শুভকামনা নিরন্তর।

১৮| ২২ শে নভেম্বর, ২০২২ দুপুর ১:৩১

কাঁউটাল বলেছেন: রুপায় বিনিয়োগ করা যায়?

২৩ শে নভেম্বর, ২০২২ সন্ধ্যা ৭:০০

গেঁয়ো ভূত বলেছেন: রূপার বিষয়টা জানা নাই, আর ইহার চাহিদাও খুব বেশি আছে বলে জানিনা। আপনার কোনো আইডিয়া থাকলে অবশ্যই জানাতে পারেন। মন্তব্যের জন্য অশেষ ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা। ভাল থাকবেন।

১৯| ২২ শে নভেম্বর, ২০২২ দুপুর ২:২১

রানার ব্লগ বলেছেন: বাংলাদেশে গোবর ভর্তি মাথার সগখ্যা অনেক । তাই এদের পরামর্শ না নিয়ে নিজে ভাবুন আপনি কি করতে চান। সঞ্চয়পত্র আগে মোটামুটি লাভ জনক ছিলো এখন তা আর নাই । শেয়ার মার্কেটে চোর বসে আছে । আর ব্যাবসার অবস্থা মন্দা কিন্তু আপনি যদি নিজেকে কন্ট্রল করে নিজের অভিজ্ঞতা কে কাজে লাগিয়ে করতে পারেন সময় লাগলেও সফল হবেন । চোরা পথে কেউই ধনী বা সফল হতে পারেন নাই। সে বিল গেটস হোক আর টাটা হোক । নিজের অভিজ্ঞতা কে কাজে লাগান সেই সাথে অর্থের সুষ্ঠ ব্যাবহার নিশ্চিত করেন ।

২৪ শে নভেম্বর, ২০২২ সকাল ১০:৫০

গেঁয়ো ভূত বলেছেন: চমৎকার মন্তব্যের জন্য অশেষ ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা।
অল্প কথায় অনেক কিছুই বলে দিয়েছেন। কন্ট্রল করে নিজের অভিজ্ঞতা কে কাজে লাগিয়ে সময় লাগলেও সফল হওয়া কঠিন কিছু নয়। নিজের অভিজ্ঞতা কে কাজে লাগান সেই সাথে অর্থের সুষ্ঠ ব্যাবহার নিশ্চিত করাই আসল কাজ।

ভাল থাকবেন।
শুভকামনা নিরন্তর।

২০| ২২ শে নভেম্বর, ২০২২ দুপুর ২:২৬

রাজীব নুর বলেছেন: আবার এলাম পোষ্টে কে কি মন্তব্য করেছেন সেটা জানতে।

২৪ শে নভেম্বর, ২০২২ বিকাল ৩:৫৫

গেঁয়ো ভূত বলেছেন: পূনরায় মন্তব্যে ফিরে আসার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ। পোষ্টে কে কি মন্তব্য করেছেন সেটা জানতে আমি নিজেও অনেকের পোস্ট এ বার বার যাই, জানার ইচ্ছে হয় বিভিন্ন জনের বিভিন্ন ধরণের মন্তব্যের সাধ।

তবে, এই পোস্ট এ আপনার মতামত জানার খুবই ইচ্ছে ছিল, কিন্তু আপনি কোনো মতামত প্রদান করেননি। আমার ইচ্ছে টা কি অপূর্ণই রয়ে যাবে ??

২১| ২২ শে নভেম্বর, ২০২২ বিকাল ৪:১৬

মরুভূমির জলদস্যু বলেছেন:
অথচ সামু ব্লগের সবাই জানে আপনার গাজীপুরের দেউলিয়া গ্রামে ৩২ কাঠা নেয়া ইতিমধ্যে কমপ্লিট, আরো কত জায়গায় কত কি আছে আল্লাই মালুম।
আশ্রম আছে, সেইটার খবর সবাই জানে সামুতে। তবে আশ্রম আমাদের ৫ বন্ধুর, আমার একার না।
এখন একটা অতি বাজে যায়গায় বিনিয়োগ করতেছি। বাড়ি নির্মাণ। এমন একটা কাজ যেখান থেকে সম্ভবতো আমার জীবনদশায় লোন পরিশোধের পরে লাভের মুখ দেখা হবে না।

ইতিমধ্যে গাজী সাব তো প্রশ্ন তুললেন আপনার আয়ের উৎস কি?
গাজী সাহেবকে অন্ততো ৭ বার উত্তর দিয়েছি আমার একমাত্র আয় বাড়ি ভাড়া।

২৪ শে নভেম্বর, ২০২২ বিকাল ৪:১৮

গেঁয়ো ভূত বলেছেন: পূনরায় মন্তব্যে ফিরে আসার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ।
প্রিয়জন, মরুভূমির জলদস্যু ভাই,
আপনার আগের কমেন্ট এর জবাবটা জাস্ট মজা করার জন্যই দিয়েছিলাম। বিষয়টির গভীরতা খেয়াল করি করি নাই। এখানে যারা ব্লগে আছেন তাদের একটি অভিন্ন উদ্দেশ্য রয়েছে। কিন্তু কারো ব্যাক্তিগত তথ্য কাউকে দিতে কেউ বাধ্য নয় এবং কারো ব্যাক্তিগত বিষয় নিয়ে কারো অতিরিক্ত আগ্রহ থাকাটাও শোভন নয়।

একজনকে আপনার একই প্রশ্নের উত্তর আপনাকে সাতবার দিতে হয়েছে এটা খুবই দুঃখজনক !


মন্তব্যের জবাবে অবাঞ্চিত কথা বলার জন্য আমি শর্তহীন ভাবে ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি।

ভাল থাকবেন।
শুভকামনা নিরন্তর।

২২| ২৪ শে নভেম্বর, ২০২২ বিকাল ৫:৩৮

মরুভূমির জলদস্যু বলেছেন:
- ভাইজান আমি আপনার মন্তব্যকে খবার ভাবে নেইনি। ক্ষমা চারওয়ার কোনো কারণ নেই।

২৫ শে নভেম্বর, ২০২২ সকাল ৮:১০

গেঁয়ো ভূত বলেছেন: ভাই সাহেব, অসংখ্য ধন্যবাদ আবারো। আপনি বলেছেন আমার মন্তব্য খারাপ ভাবে নেননি, এটি আপনার উদারতা, আর আমি ক্ষমা চেয়েছি আমার ব্যাক্তিগত দায়বদ্ধতা থেকে।
ভাল থাকবেন।
শুভকামনা নিরন্তর।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.