নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

বাড়ির পাশে আরশিনগর সেথা পড়শী বসত করে, আমি একদিনও না দেখিলাম তারে।

অনিকেত বৈরাগী তূর্য্য

মানুষ পথিক বেশে ঘুরছে দেশে দেশে একটু ছায়াতলে থমকে দাঁড়ায়, স্মৃতিটুকু রেখে শুধু একদিন তো চলে যায়।

অনিকেত বৈরাগী তূর্য্য › বিস্তারিত পোস্টঃ

রবীন্দ্রবিরোধিতার রকমফের, পিনাকীয় ভারতীয় পণ্য বর্জন এবং আসিফের মুম্বাইয়ে গান গাওয়া

১৫ ই মে, ২০২৪ রাত ১১:১৩


বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান জনাব তারেক রহমান প্রতিবারের মতো এবারও রবীন্দ্রনাথের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে ফেসবুকে একটা স্তুতিমূলক পোস্ট দিয়েছিলেন। গত বারের সাথে এবারের পার্থক্য হলো গতবার তার অনুসারীদের গালমন্দে বাধ্য হয়ে পোস্টটা ডিলিট করে দিয়েছিলেন। এবার কিন্তু তা করেননি। এর মানে এই না যে তার অনুসারীরা রাতারাতি রবীন্দ্রপ্রেমী হয়ে গেছে। ফেসবুকে যত রবীন্দ্রবিরোধী আছে, বেশিরভাগই এখনও বিএনপি ঘরানার। এর বাইরে কিছু অন্যান্য রাজনৈতিক দলের অনুসারী এবং বাকিরা কাঠমোল্লা ঘরানার। এরা কখনও সাহিত্য পড়ে না। রবীন্দ্রনাথের সমালোচনা করতে হয় তাই করে।

রবীন্দ্রনাথের বাপ-দাদা কী ছিল, রবীন্দ্রনাথ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় চাননি- এসব তাদের আলোচ্য বিষয়। যথাযথ তথ্যপ্রমাণ চাইতে গেলেই তাদের অস্ত্র গালমন্দ। আসলে রবীন্দ্রনাথ যে মুসলমান নন; এটাই সবচেয়ে বড় সমস্যা। সম্রাট শাহজাহান ১৪ টা বিয়ে করলে সমস্যা নেই, আওরঙ্গজেব সব ভাইকে রাজত্বের জন্য হত্যা করলে সমস্যা নেই; এমনকি আকবর নতুন ধর্মমত চালু করলেও সমস্যা নেই। সমস্যা রবীন্দ্রনাথ জমিদার হওয়ায়।

রবীন্দ্রনাথের বিরোধীরা, যারা বিএনপি সমর্থক; তারা অন্যান্য জায়গায় সমালোচনা করলেও এবার কেন তারেক রহমানের পোস্টে সমালোচনা করল না, সে এক অপার বিস্ময়। নেতা গোস্বা করবে তাই? সাহিত্যমোদীরা রবীন্দ্রনাথের পক্ষ নিয়ে কথা বললে এই সমালোচক শ্রেণি বলে উঠে রবীন্দ্রনাথ পয়গম্বর নাকি যে সমালোচনা করা যাবে না? সমালোচনা করা যাবে কিন্তু এসব সমালোচনায় তো সমালোচনা থাকে না, থাকে আক্রোশ; এ কথা তারা স্বীকার করে না।


সরকারি প্রকল্পে বাটপারি করে ফ্রান্সে ফেরারি পিনাকী ভট্টাচার্য এখন বিএনপি-জামায়াতের মুখপাত্র। পিটার হাস নীরব হয়ে গেলেও, ইলিয়াসের খবর না থাকলেও পিনাকী নিয়মিত বিএনপি-জামায়াতিদের উৎসাহ দিয়ে জাগিয়ে রাখছে। সে নিজে অজ্ঞেয়বাদী হলেও বিএনপি-জামায়াতের লোকজন তাকে পীর মানছে। অন্যান্য জায়গায় গোঁড়া হলেও পিনাকীর পোস্টে এসে কাঠমোল্লারা অসাম্প্রদায়িক হয়ে যায়।

পিনাকী ভারতীয় পণ্য বর্জনের ডাক দিয়েছেন। নিঃসন্দেহে দেশপ্রেমের ব্যাপারস্যাপার। কিন্তু পিনাকী কেন নির্দিষ্ট কিছু পণ্যের প্রচারণা করেন, কেন সব ধরনের দেশীয় পণ্যের প্রচারণা করেন না কে জানে। ভারতীয় ভিসা বর্জন নিয়ে তাকে কিছু বলতে দেখা যায় না। দেশীয় শিল্পকারখানার প্রয়োজনীয় কাঁচামাল বাইরে থেকে আসে; এসব বন্ধ নিয়ে তার কোনো কথা নেই।

বাংলাদেশের প্রাইভেট সেক্টরে বড় বড় পদে অনেক ভারতীয় কাজ করে। তাদের সমালোচনা করে জোশ আনা হয়, কিন্তু দক্ষ লোকজন কেমনে দেশে তৈরি সম্ভব সে নিয়ে তার নসিহত নেই। পিনাকীর বই ব্যবসা ভালো চলেছে। বামের সাথে চললে সুবিধা করতে পারত না, আওয়ামী লীগ তাকে খেদানো দিয়েছে; ধান্ধা করতে হলে আপাতত বিএনপি-জামায়াত ছাড়া সুযোগ নেই। তাদের মনোরঞ্জন করতে তো হবেই।



জাতীয়তাবাদী কর্মীদের একজন কণ্ঠশিল্পী জনাব আসিফ আকবর। তরুণ প্রজন্মের আইকন তিনি। ভদ্রলোকের অনুসারীরা ভারতীয় পণ্য বর্জনের মিছিলে শামিল, কিন্তু আসিফ যে মুম্বাই গিয়ে গান করে এল, এবং ফেসবুকে পোস্ট করে জানানও দিল; সে নিয়ে কারও মাথাব্যথা নেই। অথচ একই কাজ অন্য কেউ করলে এতদিনে তোলপাড় হয়ে যেত।

ঢালিউডের নায়ক শাকিব খান একসময় ভারতীয় সিনেমা আমদানির বিপক্ষে ছিলেন। কলকাতা থেকে যেই অভিনয়ের প্রস্তাব দেওয়া হলো, অমনি সুড়সুড় করে চলে গেলেন। অভিনয়ে নামডাকও করলেন। এখন উনি আর ভারতীয় ছবির বিপক্ষে না।

জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান ভারত থেকে পদক পাওয়ায় হুমায়ুন আহমেদের মেয়ের জামাই, রোকেয়া প্রাচীর সাবেক স্বামী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের শিক্ষক আসিফ নজরুল বলেছিলেন, অমন পদক পেলে নাকি উনি নিতেন না।

জানা যায়, একাত্তর সালে আহমদ ছফা ভারতের নাগরিকত্ব চেয়েছিলেন। দেশ পত্রিকায় উনার লেখা না ছাপায় উনি গোস্বা করেছিলেন। নীলক্ষেতে শওকত ওসমানকে নিয়ে গিয়েছিলেন এটা বোঝাতে আসলে কেউ উনাকে চেনে না। যখন দেখা গেল কেউ চেনে না, তখন নিজেদের টিকিয়ে রাখতে ভারতীয় বই আমদানি বন্ধ করার পদক্ষেপ নিলেন। সব গাঁয়ে শেয়াল রাজা। আসিফ নজরুল, আহমেদ ছফাদের হলো সেই দশা।

মন্তব্য ৪ টি রেটিং +১/-০

মন্তব্য (৪) মন্তব্য লিখুন

১| ১৫ ই মে, ২০২৪ রাত ১১:৫৭

জ্যাক স্মিথ বলেছেন: পিনাকী তো রীতিমত অপুর্বকে থ্রেড দিচ্ছে!!
তারেক জিয়ার আইডি কি হ্যাক হলো নাকি? এত সুন্দর পোস্ট সে কিভাবে করলো?

১৬ ই মে, ২০২৪ সকাল ১১:২১

অনিকেত বৈরাগী তূর্য্য বলেছেন: পিনাকী নিজের স্বাধীনতা চায়, অন্যদের দরকার নেই। আর তারেক রবি ঠাকুরের জন্মদিন নিয়ে প্রতি বছরই পোস্ট দেয়।

২| ১৬ ই মে, ২০২৪ দুপুর ২:৪০

নতুন বলেছেন: রবীন্দ্র গবেষক পিনাকি রবীন্দ্রদর্শনের বইয়ের বিক্রি কেমন এখন?

নানারঙের রবীন্দ্রনাথ
রবীন্দ্রনাথ: অন্য আলোয় ঈশ্বর আত্মা কারণ

১৬ ই মে, ২০২৪ বিকাল ৩:১১

অনিকেত বৈরাগী তূর্য্য বলেছেন: তেমন চলেনি মনে হয়। স্বাধীনতাত্তোর বাংলাদেশ ভালো চলেছে।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.