নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সম্পাদক, শিল্প ও সাহিত্য বিষয়ক ত্রৈমাসিক \'মেঘফুল\'। প্রতিষ্ঠাতা স্বেচ্ছাসেবী মানবিক সংগঠন \'এক রঙ্গা এক ঘুড়ি\'।

নীলসাধু

আমি খুব সহজ এবং তার চেয়েও বেশী সাধারন একজন মানুষ । আইটি প্রফেশনাল হিসেবে কাজ করছি। টুকটাক ছাইপাশ কিছু লেখালেখির অভ্যাস আছে। মানুষকে ভালবাসি। বই সঙ্গে থাকলে আমার আর কিছু না হলেও হয়। ভালো লাগে ঘুরে বেড়াতে। ভালবাসি প্রকৃতি; অবারিত সবুজ প্রান্তর। বর্ষায় থৈ থৈ পানিতে দুকুল উপচেপরা নদী আমাকে টানে খুব। ব্যাক্তিগতভাবে বাউল, সাধক, সাধুদের প্রতি আমার দুর্বলতা আছে। তাই নামের শেষে সাধু। এই নামেই আমি লেখালেখি করি। আমার ব্লগে আসার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। শুভকামনা রইলো। ভালো থাকুন সবসময়। শুভ ব্লগিং। ই-মেইলঃ [email protected]

নীলসাধু › বিস্তারিত পোস্টঃ

ঘুড়ি ইশকুল

০৫ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৪:২৩



আজকের ঘুড়ি ইশকুল এর চিত্র।
কজন মন দিয়ে আঁকছে। কেউবা খেলছে। দু একজন দুষ্টামি করছে।
আজ রুটিনে আনন্দ ক্লাস। কাউকে নির্দিষ্ট কোন বিষয় পড়তে হবে না। যার যেমন ইচ্ছে সে তাই করবে। টিচার তাদের শুধু সহায়তা করার জন্য ক্লাসে উপস্থিত থাকে।

স্কুলের শুরুটা হয়েছে প্রায় ১৩ মাসের বেশি হলো। আমরা এই সময়টায় নিজেদের তহবিল থেকেই তাদের জন্য শিক্ষা সামগ্রী ব্যবস্থা করছি। মাঝে মাঝে নাশতা/খাবার দেই (সব সময় পারছি না, তবে দেয়ার ইচ্ছে আছে। আমরা দেখেছি অনেক শিশু না খেয়ে স্কুলে আসে) খেলাধুলার ব্যবস্থা করেছি। মাঝে মাঝে তাদের নিয়ে বাইরে যাই আমরা।

আশেপাশের এলাকার বস্তির শিশু এরা। তারা তাদের অধিকারের কথা জানে না। তারা জানে না তাদের বেড়ে উঠা নির্বিঘ্নের হবে কিনা।
এই অনিশ্চিত জীবনে স্বস্তি সুন্দর আর আনন্দের জায়গা ঘুড়ি ইশকুল। এখানে এলে তারা অনেক কিছু পায়। যা তারা পরিবারে পাচ্ছে না, এই সমাজ রাষ্ট্র দিতে ব্যর্থ তা দিতেও আমরা সচেষ্ট। আমরা আমাদের সাধ্য অনুযায়ী চেষ্টা করছি। এখন পর্যন্ত এই স্কুল চলছে পকেট ডোনার আমরা যারা আছি তাদের সহায়তায়। আমাদের পাশে থাকতে পারেন আপনিও। শিক্ষা শিশুর অধিকার। তার এ অধিকার পুরনে যুক্ত হতে পারেন আপনিও।

ধন্যবাদ।

ঘুড়ি ইশকুল
৩২/২ শুক্রাবাদ
নিচতলা, ঢাকা ১২০৭


#childrights #ghurischool #teamghuri #EREG #SDG


















মন্তব্য ৭ টি রেটিং +৩/-০

মন্তব্য (৭) মন্তব্য লিখুন

১| ০৫ ই নভেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:০১

রাজীব নুর বলেছেন: ঘুড়ি স্কুলের সাফল্য কামনা করি।

২| ০৫ ই নভেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:২৩

মা.হাসান বলেছেন: নিরন্তর শুভ কামনা। ঘুড়ির পোস্টে যখনই আসি, মন ভালো হয়ে যায়। ঘুড়ির কার্যক্রম আরো বিস্তৃত হোক এই কামনা করি।

৩| ০৫ ই নভেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:২৩

সালু সরকার বলেছেন: আমারও ইচ্ছে করে এই বাচ্চাদের জন্য কিছু করতে। নিজের জন্যই কিছু করতে পারি না এদের জন্য কি করব। আপনি , আপনার ঘুড়ি স্কুল আরও সামনের দিকে এগিয়ে যাক এই প্রত্যাশা করি।

৪| ০৫ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ৮:১৫

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন: নীল দা ভাই,
অনেক অনেক দুআ আপনার/আপনাদের জন্য।

৫| ০৫ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ৯:৫৩

জোবাইর বলেছেন: নীলসাধু ভাই, আপনাদের প্রকল্পটির ব্যাপারে জেনে খুবই ভালো লাগলো। শুধু সাফল্য- আর শুভকামনা দিয়ে তো প্রকল্প চলবে না। প্রকল্পের খরচের জন্য টাকাপয়সাও দরকার। সহজ পদ্ধতিতে কিভাবে টাকা পাঠানো যায় জানালে সামর্থ্য অনুযায়ী সহায়তা করার চেষ্টা করতে পারতাম।

৬| ০৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ সকাল ৮:৫৬

ডট কম ০০৯ বলেছেন: ঘুড়ি স্কুলের সাফল্য কামনা করি।

৭| ০৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ২:৪৯

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: আপনাদের মত উদ্যমী ও পরোপকারী মানুষ এদেশে আছে বলেই এই দেশ এগিয়ে যাবে।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.