নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

Our sweetest songs are those that tell of saddest thought (Shelly).

রূপক বিধৌত সাধু

মন রে, কৃষিকাজ জানো না; এমন মানবজমিন রইলো পতিত আবাদ করলে ফলতো সোনা! রামপ্রসাদ সেন

রূপক বিধৌত সাধু › বিস্তারিত পোস্টঃ

অব্যক্ত প্রণয়

২২ শে আগস্ট, ২০১৬ রাত ৯:৪৯


সেদিন সন্ধের পর সেনবাড়ি রোড ধরে মেসে ফিরছিলো অনিকেত । যথারীতি তার কাঁধে ঝোলানো ছিলো একটা থলে । তার থলে সবসময়ই বিভিন্ন প্রকার বইয়ে পরিপূর্ণ থাকে । আজও তার ব্যতিক্রম ছিলো না । সার্কিট হাউজ মাঠে একটা বিশেষ কাজে গিয়েছিলো । ওটা সারতে সারতে বেলা গড়িয়ে যায় । অবশ্য মাঝে মাঝেই সে সার্কিট হাউজ, কিংবা পার্কে যায় । বিশেষত শুক্রবার দিন পার্কে যাওয়া তার নিত্য-নৈমিত্যিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে । বৈশাখী মঞ্চের পাশে কতিপয় সাহিত্যিকদের খোলামেলা আড্ডা হয় । সে-ও তাদের সাথে শরিক হয় ।
সেনবাড়ি রোডে হঠাৎ কী কাজে দাঁড়িয়েছে অনিকেত! আচমকা রাস্তার ওপাশে নজর গেলো । এ যে অধরা! দেখতে আগের চেয়ে সুন্দরী হয়েছে । তার সাথে আরও একজন, বান্ধবী হবে হয়তো । অধরা বোধহয় অনিকেতকে দেখেনি । মাথা নিচু করে চলে যাচ্ছে । আবার এমনও হতে পারে, দেখেও না দেখার ভান করছে ।
অনিকেত আর অধরা একই কলেজে পড়তো । সুন্দরী থাকায় কলেজে অধরার বেশ পরিচিতি ছিলো, নামডাক ছিলো । কলেজের ছেলেরা ওর পেছনে লেগেই থাকতো । টগর নামের একটা ছেলে তো পড়ালেখাই ছেড়ে দিলো । অধরা কাউকে পাত্তা দিতোনা ।
অনিকেত রক্ষনশীল পরিবারের সন্তান । নারীর প্রতি কখনোই তার কোন আকর্ষণ ছিলোনা । থাকলেও তা প্রকাশ পেতোনা । মেঘে ঢাকা চাঁদের মত ছিলো তার যৌবন । মনের আকাশ হতে সে মেঘ সরাতে পারেনি কখনো ।
সহপাঠিরা অনিকেতকে নানা আর অধরাকে নানী বলে ডাকতো । এমন কী একজন শিক্ষকও অধরাকে নানী ডাকতেন । সে শুধু হাসতো । প্রথম প্রথম খুব বিব্রত হতো অনিকেত । ধীরে ধীরে সয়ে গিয়েছিল সব । মনের মাঝে কী একটা অদ্ভুত অনুভুতি দাঁনা বাঁধতে লাগলো ধীরে ধীরে; যা একসময় মহীরুহে পরিণত হয় ।
অধরার পায়ে একটা সমস্যা ছিলো । হাঁটার সময় বাঁ পা একটু বেঁকে যেতো । প্রবাল ব্যাপারটা প্রথমে লক্ষ্য করেছিলো । যারে ভালো লাগে, তার ছোটখাটো সমস্যাও ভালো লাগে ।
অনিকেত আর তুহিন প্রতিদিন টেম্পুযোগে কলেজে আসতো । তুহিন অনিকেতের কলেজের বন্ধু । কলেজে বেশির ভাগ সময় তারা এক সাথে-ই কাটাতো । ফেরার পথে টেম্পু স্ট্যান্ডে অধরার অপেক্ষায় তারা কতো সময় যে কাটিয়েছে, আজ ভাবলে খুব হাসি পায় অনিকেতের ।
চৌরাস্তা হতে উঠতো তুহিন আর বাজার হতে উঠতো অনিকেত । অধরা আসত বনকুয়া হতে । প্রায়ই তাদের দেখা হয়ে যেতো । কেউ কোন কথা বলতোনা । সকলের মাঝে এক প্রকার দ্বিধা কাজ করতো । কেন যে দ্বিধা কাজ করতো, অদ্যাপি আবিস্কার করতে পারেনি অনিকেত ।
অধরা একটা ছেলেকে ভালবাসতো । সে নানান মুখরোচক কথাবার্তা বলতো অনিকেতের সাথে । অনিকেত বিশ্বাস করতোনা কোনকিছুই । কিন্তু একসময় বিশ্বাস হলো, যখন সেই ছেলে কিছু আপত্তিকর খুদেবার্তা দেখালো । বুকের মাঝে কেমন যেনো একটু ব্যথা লাগলো অনিকেতের ।
সবকিছু জানার পরও অধরাকে খুব ভালো লাগতো অনিকেতের । তাকে নিয়ে কতো কবিতা লিখেছে, না ঘুমিয়ে কতো রাত কাটিয়ে দিয়েছে । কেন এমন হয়, সে তখনো কিছু বুঝেনি । এখন অবশ্য সবই বোঝে । এখন বোঝে তো কোন ফায়দা নেই । অনেক দেরি হয়ে গেছে ।
টেস্ট পরীক্ষা দিয়ে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার প্রস্তুতি নিতে দুজন দুই কোচিং সেন্টারে ভর্তি হলো । পরস্পরের দেখা হয়নি অনেকদিন । একদিন এক ছেলের সাথে রিক্সার হুড তুলে কোথাও যাচ্ছিলো অধরা । অনিকেতকে দেখে সে মুখ ঢেকে রেখেছিলো । অনিকেত পরে জেনেছিলো অধরা ঐ ছেলেকে ভালোবাসে; ছেলেটার নাম রানা । কিছুদিন পর অনিকেত জানতে পারলো, রানা অধরাকে বাসে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেছে ।
উচ্চ মাধ্যমিক পাস করার পর দীর্ঘদিন অধরার সঙ্গে দেখা হয়নি অনিকেতের । শুনেছিলো রানার সাথে অধরার সম্পর্ক ভেঙে গেছে । পারিবারিক কারণে অধরার পড়ালেখা একবছর বন্ধ ছিলো ।
অনিকেত আর অধরা এখন একই বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ে । অধরা অনিকেতের এক ক্লাস জুনিয়র । পরস্পরের কদাচিৎ দেখাও হয়েছে, কথাও হয়েছে কয়েকবার ।
অধরা এখন অাবার নতুন প্রেম কাহিনী শুরু করেছে । মাঝে মাঝে তাকে প্রেমিকের সাথে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাদে দেখা যায় অন্তরঙ্গ অবস্থায় ।

১২ ভাদ্র ১৪২১ বঙ্গাব্দ
সেনবাড়ি রোড, ময়মনসিংহ ।

মন্তব্য ৫৩ টি রেটিং +৫/-০

মন্তব্য (৫৩) মন্তব্য লিখুন

১| ২২ শে আগস্ট, ২০১৬ রাত ১০:০৬

প্রামানিক বলেছেন: সুন্দর কাহিনী।

২২ শে আগস্ট, ২০১৬ রাত ১০:০৯

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: প্রীতি ও শুভেচ্ছা রইলো । ভালো থাকুন সতত!

২| ২২ শে আগস্ট, ২০১৬ রাত ১০:১১

এডওয়ার্ড মায়া বলেছেন: সাধু-বাস্তবে যা যা ছিল গল্পে দিলে আরো জমত ।
এটাও কিন্তু মন্দ বলছি না।
এক্কান কুসচেন-অনিকেত কি এখনো অধরা কে ভালবাসে :)

২২ শে আগস্ট, ২০১৬ রাত ১০:১৭

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: বাস্তবের সবকিছু উল্লেখ করা বোধহয় ঠিক হতোনা! এখানে অনেককিছুই নিজের কাছেই অপ্রয়োজনীয় মনে হয়েছে, তারপরও লিখেছি ।
প্রশ্নের উত্তরে বলবো, "বোধহয় ।"

৩| ২২ শে আগস্ট, ২০১৬ রাত ১০:১৬

সাহসী সন্তান বলেছেন: অনিকেতের কাছে 'অধরা' তাইলে শেষ পর্যন্ত অধরাই থেকে গেল? অনুগল্প হিসাবে পোস্টটা খুব ভাল হইছে! শুভ কামনা সাধু ভাই!

২২ শে আগস্ট, ২০১৬ রাত ১০:১৯

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: নারী সে তো সবসময়ই চির অধরা!

শুভেচ্ছা রইলো ।

৪| ২২ শে আগস্ট, ২০১৬ রাত ১০:২৭

সুমন কর বলেছেন: অধরা দেখি, অনেক ছেলেকেই ভালবাসতো ...........
গল্প মোটামুটি লাগল।

২২ শে আগস্ট, ২০১৬ রাত ১০:৩৩

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: মোটামুটি তিন-চারজনকে- এই আর কী!

যাক, সুমনদার হাত থেকে পার পেয়ে গেলাম!

৫| ২২ শে আগস্ট, ২০১৬ রাত ১০:৩৮

পুলক ঢালী বলেছেন: সুন্দর লিখেছেন । অনুগল্প কিন্তু অনেক স্পীডি। এক লহমায় ঘটনা শেষ। :)

২২ শে আগস্ট, ২০১৬ রাত ১১:০৫

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: হুম; ঘটনার ব্যাপ্তি অনেক কিন্তু দ্রুতই শেষ করার প্রয়াস ছিলো ।

শুভেচ্ছা ।

৬| ২২ শে আগস্ট, ২০১৬ রাত ১০:৫৫

সামিয়া বলেছেন: বাস্তব গল্প, ভালোলাগলো।

২২ শে আগস্ট, ২০১৬ রাত ১১:০৬

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: শুভেচ্ছা । ভালো থাকুন ।

৭| ২২ শে আগস্ট, ২০১৬ রাত ১১:১৫

শামছুল ইসলাম বলেছেন: বেদনাদায়ক গল্প।

ভাল থাকুন। সবসময়।

২২ শে আগস্ট, ২০১৬ রাত ১১:৫৭

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: হুম, বেদনাদায়ক বটে!

শুভেচ্ছা জানবেন ।

৮| ২২ শে আগস্ট, ২০১৬ রাত ১১:২০

চাঁদগাজী বলেছেন:





আত্মকাহিনী টাহিনী নয় তো? সেটা যদি না হয়, প্লট খুবই দুর্বল।

২২ শে আগস্ট, ২০১৬ রাত ১১:৫৬

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: সত্যকাহিনী!

৯| ২৩ শে আগস্ট, ২০১৬ সকাল ৮:৫৬

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: এটাই জীবন, কখনো থেকে থাকেনা.......শুভেচ্ছা জানিয়ে গেলাম

২৩ শে আগস্ট, ২০১৬ সকাল ৯:০২

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: সেটাই । জীবন স্বাভাবিক গতিতেই চলতে থাকে ।

শুভেচ্ছা ।

১০| ২৩ শে আগস্ট, ২০১৬ সকাল ৮:৫৭

সাদা মনের মানুষ বলেছেন:
চাঁদগাজী বলেছেন:


আত্মকাহিনী টাহিনী নয় তো?

২৩ শে আগস্ট, ২০১৬ সকাল ৯:০০

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: গুণী মানুষ তো; সবকিছু আগেই বুঝে ফেলেন ।

১১| ২৩ শে আগস্ট, ২০১৬ সকাল ৮:৫৮

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: রেল লাইনের ছবিগুলো দেখলেই মনটা উতলা হয়, ঢাকা টু সিলেট হাটাটা এখনো শেষ করতে পারিনি বলে

২৩ শে আগস্ট, ২০১৬ সকাল ৯:০৩

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: বিশেষ কোন কাহিনী আছে কি? আমার জীবনের সবচে স্মরণীয় ঘটনা এই রেলস্টেশন ঘিরেই!

১২| ২৩ শে আগস্ট, ২০১৬ সকাল ৯:০৬

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: আমি রেল লাইন ধরে ঢাকা থেকে হেটে চট্টগ্রাম পর্যন্ত গিয়েছি, অতপর ঢাকা টু সিলেট হাটা শুরু করেছিলাম কিন্তু উপযুক্ত সঙ্গীর অভাবে সেটা শেষ করতে পারিনি, ব্লগে আমার অনেক পোষ্ট আছে দেখে নিতে পারেন

২৩ শে আগস্ট, ২০১৬ সকাল ৯:১৩

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: ক্যামনে কী! বিশাল অবস্থা তো! ইশ! আমি আপনার কাছাকাছি থাকলে হয়তো ভ্রমণ সঙ্গী হতাম । এই হাঁটাহাঁটির অভ্যেসটা আমার মধ্যেও আছে ।

১৩| ২৩ শে আগস্ট, ২০১৬ সকাল ৯:১১

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: Click This Link

http://www.somewhereinblog.net/blog/sadamonarmanus/29953483

দুটি লিঙ্ক দিলাম

২৩ শে আগস্ট, ২০১৬ সকাল ৯:১৪

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: পড়ছি ।

১৪| ২৩ শে আগস্ট, ২০১৬ সকাল ১০:০৩

কল্লোল পথিক বলেছেন:






চমৎকার কাহিনী।

২৩ শে আগস্ট, ২০১৬ সকাল ১১:৫৬

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: ধন্যবাদ । ভালোবাসা জানবেন ।

১৫| ২৩ শে আগস্ট, ২০১৬ সকাল ১০:৩২

অগ্নি সারথি বলেছেন: অধরা এখন অাবার নতুন প্রেম কাহিনী শুরু করেছে । মাঝে মাঝে তাকে প্রেমিকের সাথে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাদে দেখা যায় অন্তরঙ্গ অবস্থায় । - আর অনিকেত?

২৩ শে আগস্ট, ২০১৬ সকাল ১১:৫৫

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: সেই দুঃখের কাহিনী আর বাড়িয়ে কী হবে?

১৬| ২৩ শে আগস্ট, ২০১৬ দুপুর ১২:০২

দিশেহারা রাজপুত্র বলেছেন:
নতুনের শেষ নেই। দরজার বাইরের দিকটা পরিপাটি এর মানে এই নয় যে ভেতরের দিকটাও গোছানো।

২৩ শে আগস্ট, ২০১৬ দুপুর ১২:০৬

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: যা বলেছো, রাজপুত্তুর!

১৭| ২৩ শে আগস্ট, ২০১৬ দুপুর ১২:৩৭

ঢাকাবাসী বলেছেন: গল্প তো নিজের জীবনের ঘটনার ঘষামাজা করা ছবি হতেই পারে। ভাল লাগল, কষ্ট পেতে পারতুম।

২৩ শে আগস্ট, ২০১৬ দুপুর ১২:৪১

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: কষ্ট পাননি? হায় হায় ঢাকাবাসীরা এতো নিষ্ঠুর ক্যানো?

১৮| ২৩ শে আগস্ট, ২০১৬ দুপুর ১:৩০

প্রামানিক বলেছেন: এটা যে কিছুটা হলেও আত্মকাহিনী তা আগেই একটু অনুমান করেছিলাম।

২৩ শে আগস্ট, ২০১৬ বিকাল ৩:১২

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: কাহিনীর ধরণ দেখে বুঝতে পারাটাই অবশ্য স্বাভাবিক ।

১৯| ২৩ শে আগস্ট, ২০১৬ দুপুর ২:৩৩

কানিজ ফাতেমা বলেছেন: অনিকেত সৌভাগ্যবান । আপাতত অধরা, অধরাই থাকুক । নর্দমার জন্য ফোটালেও বিশুদ্ধ হয় না ।

২৩ শে আগস্ট, ২০১৬ বিকাল ৩:০৯

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: নর্দমার জল ফোটালেও বিশুদ্ধ হয়না ।" চমৎকার বলেছেন । এটাই হয়তো অনিকেত এর জন্য সান্ত্বনা!

২০| ২৩ শে আগস্ট, ২০১৬ রাত ৯:৩৪

নীলপরি বলেছেন: কাহিনী করুন হলেও বলার স্টাইল ভালো লাগলো । মন ভারাক্রান্ত করলেন ।

কিছুটা এরকম লেখা আগে লিখেছেন কি ? ভুলও হতে পারে !

তবে আপনার উত্তরটা দেখে আশাহত হলাম । আপনার মতো লেখকের কাছ থেকে অনিকেত এর জন্য এরকম সান্ত্বনা বাক্য মানায় না ! আশাহত হলাম । এটা অনিকেত এর জন্য থাকলো --

“If my weeping should cause her to smile, what wonder?
Though the cloud weep, the cheek of the rose-bush smiles.”


আমার লেখা নয় । জাহাঙ্গীর নামা থেকে ! আমার মন এখন শুধুই সেলিমময় ! :)

২৩ শে আগস্ট, ২০১৬ রাত ১০:৫২

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: এরা দেবী এরা লোভী,
এক পেয়ে সুখী নয় যাচে বহুজন!"

লেখকের অনিকেত এর প্রতি সহানুভূতিশীল হওয়া অস্বাভাবিক নয় । এই মেয়ে অনিকেত এর জীবনে না এসে ভালোই হয়েছে!

২১| ২৪ শে আগস্ট, ২০১৬ সকাল ৯:২৩

নীলপরি বলেছেন: আমি যে ভালো লিখিনা তা জানতাম ! কিন্তু একটা ছোটো মন্তব্যও বুঝিয়ে করতে পারি না তা জেনে খুব কষ্ট হচ্ছে । সত্যি ।

আমি কি লেখকে অনিকেত এর প্রতি সহানুভূতিশীল হতে বলেছি ? আমার কোট টা দেখে আপনার তেমন মনে হয়েছে ?

সহানুভুতি ব্যক্ত করতে গিয়ে সাধরণ , কর্কশ শব্দ ব্যবহার না করলে ভালো হয় । শুধু এটাই বলেছিলাম ।

হুম অনিকেত বেঁচেছে ।

২৪ শে আগস্ট, ২০১৬ রাত ৮:৪৯

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: বুঝতে পেরেছি । আপনার মন্তব্যটা যথার্থই ছিলো ।

এই ব্যাপারে মাঝেমাঝে প্রতিক্রিয়াশীল হয়ে যাই আমি ।

২২| ২৪ শে আগস্ট, ২০১৬ সকাল ৯:২৫

নীলপরি বলেছেন: আমি কি লেখককে অনিকেত এর প্রতি সহানুভূতিশীল না হতে বলেছি ?

২৪ শে আগস্ট, ২০১৬ রাত ৮:৫২

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: এই লেখাটা মোটামুটি দুই বছর আগের । একই চরিত্র নিয়ে বহু লেখা হয়েছে । আমি ঠিক করেছি এ নিয়ে আর লিখবোনা । পুরনো লেখা, যেগুলো প্রকাশ করিনি সেগুলো পোস্ট করতে পারি ।

২৩| ২৫ শে আগস্ট, ২০১৬ বিকাল ৫:১৫

গেম চেঞ্জার বলেছেন: হায়রে অধরা!! :| :|

বাস্তবতা মাঝে মাঝে এভাবেই ধোঁকা দেয় জীবনকে!

২৫ শে আগস্ট, ২০১৬ বিকাল ৫:২৯

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: দেয়না ধরা; দেয় যে ফাঁকি ।

২৪| ২৫ শে আগস্ট, ২০১৬ সন্ধ্যা ৬:৩৪

নীলপরি বলেছেন: আমিও বুঝতে পেরেছি । আপনি ঠিক সিদ্ধান্তই নিয়েছেন ।

শুভকামনা ।

২০ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৬ সকাল ৮:০২

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: পূর্বে একটা পত্র পোস্ট করেছিলাম (Click This Link), এই লেখাটা ঐ পত্রের সঙ্গে সম্পূর্ণ সাদৃশ্যপূর্ণ ।

২৫| ২০ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৬ সকাল ৮:১৪

নীলপরি বলেছেন: এতোদিন বাদে উত্তর ? ওকে :)

দেখছি লিঙ্কটা ।

২০ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৬ সকাল ৮:৩২

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: অনেক জায়গায় অনেকজনকে অনেক অযাচিত উত্তর দিয়েছি । সেগুলো মুছতে গিয়ে এই পোস্টটা চোখে পড়লো । বাস্তব কাহিনী লিখতে বসলে মাথা ঠিক থাকেনা; কখন যে কী বলে বসি...

২৬| ২০ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৬ সকাল ৮:৫৭

নীলপরি বলেছেন: হুম । হতেই পারে । ইটস ওকে !

২৭| ২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৩:২৫

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: বেশ ভালো লিখেছেন দাদা সেন বাড়ির রোড।

২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৪:৪২

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: দু'বছর ওদিকটায় ছিলাম।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.