নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

আমার পুরো নাম শাইয়্যান মোহাম্মদ ফাছিহ-উল ইসলাম। অন্যদের সেভাবেই দেখি, নিজেকে যেভাবে দেখতে চাই। যারা জীবনকে উপভোগ করতে চান, আমি তাঁদের একজন। সহজ-সরল চিন্তা-ভাবনা করার চেষ্টা করি। আর, খুব ভালো আইডিয়া দিতে পারি।

সত্যপথিক শাইয়্যান

আমার পোস্ট সংখ্যা এক সময়ে ৩০০টিতে গিয়ে ঠেকেছিলো। আগে অনেক বিষয় নিয়ে লিখলেও এখন আমার ভাবনার বিষয় শুধুই চীন। তবে, পোস্টগুলো বেশিরভাগই ভাবানুবাদ হবে।

সত্যপথিক শাইয়্যান › বিস্তারিত পোস্টঃ

ভারত-চীন দু\'জনে দু\'জনার...কিন্তু কেউই বাংলাদেশের নয়!

০৩ রা মার্চ, ২০১৮ দুপুর ১২:৩০

দু'টা ঘটনা বলি। আমি তখন পশ্চিমা একটি দেশে মাস্টার্সে ভর্তি হয়েছি। ভার্সিটি'র প্রথম দিন। একজন ভারতীয়'র সাথে দেখা। সেও একই প্রোগ্রামের।

মোটা-সোটা ছেলেটি আমি বাংলাদেশী শুনেই আমার সাথে হিন্দীতে কথা বলা শুরু করলো। আমি কিছুক্ষণ চুপ মেরে থাকলাম। তারপর, তার সাথে যখন কথা বলা শুরু করি, তখন সে শুনতে পেলো আমি বাংলাতে কথা বলছি!!! এবারে তার চুপ মেরে থাকার পালা!!!

এরপর থেকে সে সব সময় আমার সাথে ইংরেজীতেই কথা বলতো। এই ঘটনা জানাজানি হওয়ার পরে সব বাংলাদেশী শিক্ষার্থীরা এক জোট হয়ে আমাকে স্টুডেন্ট ইউনিয়নের প্রতিনিধি বানিয়েছিলো।

দ্বিতীয় ঘটনাটা আমার ছোট ভাইকে নিয়ে। সেও সেই দেশেই পড়েছে।

একবার সফটওয়্যার প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা- গুগল হ্যাকাথনে সে আর দু'জন চায়নিজের সাথে জোট বেঁধে একটা দল গঠন করেছিলো। এক পর্যায়ে আমার ছোট ভাই একটা সফটওয়্যারের আইডিয়া দেয় টিমে। কোডিংও করে। যখন, টিমটি তাদের ফাইনাল প্রোগ্রাম জমা দিলো, তখন দেখা গেলো ডেভেলপার হিসেবে তাতে শুধু ঐ চায়নিজের নাম লেখা, পেটেন্টও তাদের! আমার ভাইয়ের নাম গায়েব। হা, হা, হা!!!

ফোটোসোর্সঃ Manmohan Singh and Wen Jiabao.jpg, flickr, 14 January 2008, Click This Link

মন্তব্য ৫ টি রেটিং +১/-০

মন্তব্য (৫) মন্তব্য লিখুন

১| ০৩ রা মার্চ, ২০১৮ দুপুর ১২:৫২

ইফতি সৌরভ বলেছেন: "তারপর তার সাথে........., আমি বাংলাতে কথা বলছি" - খুবই ভালো লাগল। আর আপনার ছোট ভাইয়ের ঘটনা তো বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশের প্রতিচ্ছবি ।

২| ০৩ রা মার্চ, ২০১৮ দুপুর ১:০৭

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: আপনার প্রথম অভিজ্ঞতা প্রসঙ্গে বলি,কলকাতাতে আমাদের মারাত্মকভাবে এই সমস্যার মধ্যে পড়তে হয়।হয় ইংরেজি না হয় হিন্দির মধ্যে আমার মত বাংলা ভাষীরা এখন মাইক্রোস্কোফিক সংখ্যালঘুতে পরিনত হয়েছি।
SBI এর ক্রেডিট কার্ড উইড্রো করতে নিজাম প্যালেসে গেছিলাম।আধিকারিক থেকে ক্লাক সবার মুখে হিন্দি শুনে, আমি পাল্টা বাংলাতে কথা বলায়,তাদের ভাবমুর্তি দেখে মনে হল আমি যেন কোন ভিন গ্রহ থেকে চলে এসেছি। আমি সেদিন ঠিক করেই রেখেছিলাম যে কোন অবস্থাতে ইংরেজিতে কথা বলবো না।অবশেষে আমার বক্তব্য লিখিত দিতে বলায়,আমি আবার বাংলাতেই বিষয়টি লিখে জমা দিই।যদিও শেষ পর্যন্ত আমার কার্ডটি উইড্রো হয়েছিল।
কাজশেষে সঙ্গে আনা টিফিন খেয়ে, টয়লেট থেকে এসে দেখি,একজন ক্লাক তার সহকর্মীরর সঙ্গে দিব্যি বাংলায় কথা বলছে।

৩| ০৩ রা মার্চ, ২০১৮ দুপুর ১:৪৯

বিলিয়ার রহমান বলেছেন: শিরোনাম দেখে পোস্ট পড়া আরম্ভ করেছিলাম! রাজনৈতিক পোস্ট টাইপের কিছু একটা চেয়েছিলাম!

তবে সারফোসে সে রকম কিছু পাইনি!

(রূপকার্থে যদিও পোস্ট আর শিরোনাম সাদৃশ্যপূর্ণ)

৪| ০৩ রা মার্চ, ২০১৮ বিকাল ৩:৩৩

ইয়াকুবুল হাসান রুপম বলেছেন: আসলেই !

৫| ০৩ রা মার্চ, ২০১৮ বিকাল ৪:০৯

রাজীব নুর বলেছেন: আমি আপনাকে একটা কথা গোপনে বলি- ভারত বাংলাদেশকে খুব পছন্দ করে।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.