নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

দেবতার ভাবনায় কখনো পাপ না থাকলেও, পাপীর ভাবনায় সবসময় দেবতা থাকে কেন?

শূন্য সারমর্ম

অক্সিজেনের মূল্য বুঝতে অক্সিজেনের সাহায্য নিতে হয়,সাথে কৃতজ্ঞতা জানাতে হয়।

শূন্য সারমর্ম › বিস্তারিত পোস্টঃ

পদ্মাসেতু যাদের ভিটেমাটিতে, তাদের টোলের লভ্যাংশ দেয়া উচিত?

২৪ শে জুন, ২০২২ সন্ধ্যা ৬:৩৪





টোলের ভাগ উহারা চায়, উহারা জেনেছে টোল আদায়ের পর সরকারের লাভ হবে ; সরকার লাভ করার পরেই তাদের কিছু অংশ যেন দেয়া হয়।তবেতিন জেলা(মুন্সীগন্জ,মাদারীপুর,শরীয়তপুর) ২২ হাজার ৫০০ পরিবার সবাই লাভ চায় কিনা তা জরিপ করে বের করতে হবে।

জমি অধিগ্রহন করেছে ২হাজার ৫২৭ হেক্টর,সরকারের খরচ হয়েছে ৩ হাজার ৪৬ কোটি টাকা,ব্যয় হয়েছে মৌজা মূল্যের দেড় গুণ দামে।জমি থেকে বাসিন্দা উঠানোর পর আর্থিক সহায়তা হিসেবে বিভিন্ন প্রকল্পের অধীনে ব্যায় হয়েছে ৭৬০ কোটি টাকা; ৭ টি পুর্নবাসন সাইট প্লট পেয়েছে ৩ হাজার, ১১০০ পরিবার পেয়েছে অন্যন্য ভিটা। পুর্নবাসন কোম্পানীর একজন স্পেশালিষ্ট বলেছে যে, বিশ্বব্যাংক সাথে জল অনেক ঘোলা হয়েছে,তাই যেন কোনো খুত যেন না বের করতে পারে ঐভাবে কাজ হয়েছে। আপনি কিছু বলতে চান?


বসতবাড়ি,জমি,ব্যবসা উৎসর্গ করার পর পরিবারগুলো মানিয়ে নিচ্ছে ধীরে ধীরে, অনেকের কাছে বন্দিজীবন হয়েছে, ছেলে-মেয়ের পড়াশোনায় সমস্যা হয়েছে,নতুন ব্যবসা দাড় করাতে সংগ্রাম চালাচ্ছে। যোগ বিয়োগ করে সবাই খুশি পানির স্পর্শ ছাড়া মেগা সিটিতে পা রাখা যাবে। ব্যবসা-বাণিজ্য বাড়বে,অর্থনৈতিক সক্ষমতা বাড়ার জন্য প্লানও করছে পরিবারগুলো।

এসব পরিবারগুলোর ক্ষুদ্রতর স্বার্থ উৎসর্গ পদ্মাসেতুতে যোগ হয়েছে,হয়তো আগামীকাল প্রধানমন্ত্রীর ভাষণে হাত তালি দিবে,খুশি থাকবে। সময়ের আবর্তনে হাত-তালির জন্য সরকারের পদ্মাসেতু নজর দেয়া শেষ হলে,উহাদের দিকে নজর দেয়া উচিত বলে মনে করেন?



মন্তব্য ৩০ টি রেটিং +১/-০

মন্তব্য (৩০) মন্তব্য লিখুন

১| ২৪ শে জুন, ২০২২ সন্ধ্যা ৬:৫১

সোনাগাজী বলেছেন:



পদ্মাসেতুর আয় থেকে তাদেরকে ১০/২০ বছর কিছুটা ভাগ দেয়া উচিত।

২৪ শে জুন, ২০২২ সন্ধ্যা ৬:৫৯

শূন্য সারমর্ম বলেছেন:
জি! আমারও তাই মনে হয়।

২| ২৪ শে জুন, ২০২২ সন্ধ্যা ৭:৩৩

ইমরোজ৭৫ বলেছেন: সরকার তো সব দিক বিবেচনা করে কাজ করে।

২৪ শে জুন, ২০২২ রাত ৮:০৯

শূন্য সারমর্ম বলেছেন:


সরকারের বিবেচনা সাধারন জনগণ জানবে না,বুঝবে না।

৩| ২৪ শে জুন, ২০২২ রাত ৮:৩৪

মোহাম্মদ গোফরান বলেছেন: টাকা ৩ গুণ পাবে সম্ভবত।

২৪ শে জুন, ২০২২ রাত ১০:২৭

শূন্য সারমর্ম বলেছেন:

পেলে তো ভালো, ওরা হাসিখুশি থাকুক সবসময়।

৪| ২৪ শে জুন, ২০২২ রাত ৯:২৬

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: জমির দামের তিন গুণ ক্ষতি পূরণ পায় শুনেছি। ওনাদের তো লাভ হওয়ার কথা জমি থেকে।

২৪ শে জুন, ২০২২ রাত ১০:২৮

শূন্য সারমর্ম বলেছেন:

জমি থেকে লাভ হয়েছে,তবে পদ্মার লাভ থেকেও চাচ্ছে আর কি।

৫| ২৪ শে জুন, ২০২২ রাত ৯:৪২

জুল ভার্ন বলেছেন: ক্ষতিগ্রস্তরা স্থানীয় জমির চলতি দামের চাইতে অনেক বেশী দাম পেয়েছে। তাছাড়াও এলাকায় অনেক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, বাজার, মসজিদ এবং কর্মসংস্থান সৃষ্টি হয়েছে -সেটাও অনেক বড়ো পাওয়া।

২৪ শে জুন, ২০২২ রাত ১০:২৯

শূন্য সারমর্ম বলেছেন:


দাম পেয়েছে ঠিক আছে; কর্মসংস্থান কেমন হয়েছে জানি না,এখন তো সবাই পদ্মা পাড়ি দিয়ে ঢাকায় ভিড় করবে।

৬| ২৪ শে জুন, ২০২২ রাত ১০:২৯

জগতারন বলেছেন:
আমি মনে করিনা;
পদ্মাসেতু যাদের ভিটেমাটিতে, তাদের টোলের লভ্যাংশ দেয়া উচিত?
কারন যাদের জমি অধিগ্রহন করা হয়েছে সরকার তাদের জমির তিন গুণ মূল্য প্রশোধ করেছ।
তা ছড়া;
১) ঐ জমির মালিকদের সরকার পুনর্বাশন করে দিয়েছে, তাদের ছেলে-মেয়েদের পড়াশোনা
করার জন্য স্কুল, কলেজ রাস্তা-ঘাট নির্মান করে দিয়েছে।
২) এই পদ্মা সেতু নির্মানের পর ঐ সেতু দিয়ে ঐ সমস্ত জমি মালিকগণ, তাদের ছেলে-মেয়েগন, তাদের পূর্বপুরুষ, দেশের সর্বসাধার মানুষ পারাপার করে সুবিধা পাবে। দেশের উন্নতি হবে যা পতক্ষভাবে ঐ জমির মালিকগনও উপোভোগ করবে।

২৪ শে জুন, ২০২২ রাত ১০:৩২

শূন্য সারমর্ম বলেছেন:

সবই ঠিক আছে,কিছুুসংখ্যক বাসিন্দারা সাময়িক অস্বস্তি থেকে লভ্যাংশ চাইছে ;যেটা হয়তো সরকারের কানে পৌছাবে না।

৭| ২৪ শে জুন, ২০২২ রাত ১০:৪৬

জগতারন বলেছেন:
কিছুুসংখ্যক বাসিন্দারা সাময়িক অস্বস্তি থেকে লভ্যাংশ চাইছে
এই চাওয়া অযৌক্তিক।
"এমেইন-ডোমেইন" একটি আন্তর্জাতিক আইন আছে।
আন্তর্জাতিক আইন বলেছি এই কারনে যে, এই আইনটি পৃথিবীর সকল দেশে এখনো বল্বাদ আছে।
এই আইনের ধারাঃ
সর্বসাধারনের সুবিধার জন্য সরকার ইচ্ছে করলে যে কোন দেশবাসির জমি অধিগ্রহন করতে পারে।

২৪ শে জুন, ২০২২ রাত ১১:১০

শূন্য সারমর্ম বলেছেন:

আমি আইন জানলাম ; নিশ্চই ওরা আইন জানে না,জানলেও হয়তো সরল মনেই লভ্যাংশ চাইবে। আইনটি কবে কখন প্রণীত হয়েছিলো?

৮| ২৪ শে জুন, ২০২২ রাত ১১:৩৫

জগতারন বলেছেন:
আইনটি কবে কখন প্রণীত হয়েছিলো?
"এমেইন-ডোমেইন" একটি বহু প্রাচীন আন্তর্জাতিক আইন।
মানব জাতির নগর সভ্যাতা প্রারম্ভ থেকেই এই আন্তর্জাতিক আইনটি প্রচলিত।
তবে নগর সভ্যতার প্রারম্ভে রাজা জোর করে দেশবাসির জমি অধিগ্রহন করা হতো।
আমি এই "এমেইন-ডোমেইন" আইন আরম্ভের সময় ব্যাপারে ওয়াকিবহাল না।
তবে আমি যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসের একজন 'রিয়ালটর' হওয়ায় এই কঠিন আইনটি সমন্ধে সম্যক অভিহিত।

'রিয়ালটর';
যুক্যরাষ্ট্র স্থাবর জমি ক্রয়-বিক্রয় বিশেজ্ঞ।

২৪ শে জুন, ২০২২ রাত ১১:৫২

শূন্য সারমর্ম বলেছেন:

ধন্যবাদ,আইনটি জানা হলো।

৯| ২৪ শে জুন, ২০২২ রাত ১১:৪২

জগতারন বলেছেন:
যুক্যরাষ্ট্র = যুক্তরাষ্ট্র।

২৪ শে জুন, ২০২২ রাত ১১:৫২

শূন্য সারমর্ম বলেছেন:


অবগত।

১০| ২৪ শে জুন, ২০২২ রাত ১১:৪৬

মরুভূমির জলদস্যু বলেছেন: সরকারি অফিসের টেবিল আর হাত ঘুরে ঘুরে শেষ পর্যন্ত কত পৌছবে ভিকটিমদের হাতে তা কে বলতে পারে।

২৪ শে জুন, ২০২২ রাত ১১:৫৩

শূন্য সারমর্ম বলেছেন:


লাল ফিতা কাটতে হবে, নাহয় সাদা ফিতায় বেঁধে পায়রা উড়াতে হবে সচিবালয় থেকে।

১১| ২৫ শে জুন, ২০২২ রাত ১২:২২

রাজীব নুর বলেছেন: তাঁরা নাকি তিন গুণ বেশী টাকা পেয়েছে। তাহলে আবার কি?

২৫ শে জুন, ২০২২ রাত ১২:৪৭

শূন্য সারমর্ম বলেছেন:

টাকা নিয়ে একটু উহ আ্যাহ করাও যাবে না নাকি!

১২| ২৫ শে জুন, ২০২২ রাত ১২:৪৭

জগতারন বলেছেন:
যাইহোক, শূন্য সারমর্ম আমি এখানে যেহেতু এই "এমেইন-ডোমেইন" প্রাচীন আইনটি এখানে অবতারনা করেছি, তাই এই আইনটি সমন্ধে পাঠক/ পাঠীকাদের আরও একটু অবগত করার জন্য আরও একটু আলোচনা করা যাকঃ

এই "এমেইন-ডোমেইন" আইনটি যেমন অনেক ভালো দিক আছে আবার খারাব দিকও আছ;
ভালোর দিকঃ
শেখ হাছিনা যা করেছে তা।

আর খারাব (অনেক) দিকঃ
এই আইনটির সুবিধা যখন বড় বড় ব্যাবাসায়ীরা কোন কোন সময়ে একজন বা একসাথে কয়েকজন
জনসাধারন বিরম্বনা ও লোকসানের পড়ে ও ক্ষতিগ্রস্ত হয়।
যেমন;
বড় বড় হাউজিং প্রকল্প বাস্তবায়ন ব্যাবসায়ী যখন কোন জন সাধারনের জমি অধিগ্রহন করে
তখন জনসাধারনদের জমির বর্তমান দাম পরিশোধ করে।
কিন্তু ঐ জমি মূল্য বহু গুন বেড়ে যাবে যখন সেখানে নগরায়ন করা হয়।
এভাবে জনসাধারন ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ব্যাবসায়ী লাভবান হয়।
তখন জনসাধারন ব্যাক্তির একমাত্র পথ;
মামলা করা ও বিচারককে বুঝায় বলা যে কিভাবে সে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে
এবং এই জমি কিভাবে তার কাছে আবেগিয় সংবেদনশীল ভাবে বহু মূল্যবান।
তখন আর সে জমি ঐ ব্যাবসায়ির না পাওয়ারই কথা।
কিন্তু, গরিব প্রজাসাধারন সেই ভাবে আইনগত ভাবে দাড়াইতে পারে না।
কারন সে মূর্খ এবং আইনকে সামনে আনার সেই সামর্থ তাহার থাকে না।
এ ভাবে দেশের প্রজাসাধারণ বিপুলভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে সম্প্রতি, যা খুবই দুঃখজনক।


'রিয়ালটর';
আমার বর্তমান অবসর সময়ের পেশা।
বিগত ৩০ বছর আমি হাওয়াই জাহাজ নির্মান প্রনালি, রক্ষানাবেক্ষন ও উড্ডয়ন সক্ষম করে তোলা পেশায় নিয়োজিত ছিলাম।

২৫ শে জুন, ২০২২ রাত ১২:৫১

শূন্য সারমর্ম বলেছেন:

অনেক ধন্যবাদ। ব্যাপার হলো,ভালোদিক ১ লাইন,খারাপ দিক ১১ লাইন।
আপনার বয়স কত তাহলে?৬০+)?

১৩| ২৫ শে জুন, ২০২২ সকাল ৭:১১

কামাল৮০ বলেছেন: জমির দাম তিন গুনের বেশি হয়ে গেছে অনেক আগেই।তিনগুন দেয়া ঠিক হয় নাই।

২৫ শে জুন, ২০২২ সকাল ১০:৩৮

শূন্য সারমর্ম বলেছেন:


কেন ঠিক হয় নাই?

১৪| ২৫ শে জুন, ২০২২ বিকাল ৪:১৩

নূর মোহাম্মদ নূরু বলেছেন:
পদ্মা সেতুর জন্য জমি সরকার একোয়ার করে নিয়েছে।
ন্যায্য দামের চেয়ে দুই/তিন গুন বেশী দাম পেয়েছে ওই
জমির মালিক। তার উপর অস্থায়ী স্থাপনা নিমা'ণ করে
অনৈতিক ভাবে আরো বেশী আদায় করেছে সরকার
থেকে, তা হলে কেনো টোলের হিস্যা দিতে হবে?

২৫ শে জুন, ২০২২ রাত ১০:৩৭

শূন্য সারমর্ম বলেছেন:


ঠিক আছে দিবো না।

১৫| ২৯ শে জুন, ২০২২ রাত ১:০৩

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন:



একসাথে বড় অংকের টাকা পেয়ে অনেকে টাকা হয়তো শেষ করে ফেলেছে এখন পদ্মা ব্রীজের অংশীদারী দাবী করলেও করে বসতে পারে - অবাক বাকস্বাধীনতা।

২৯ শে জুন, ২০২২ রাত ১:১৫

শূন্য সারমর্ম বলেছেন:

জী, এমনটাই মনে হচ্ছে।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.