নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

মাঝে মাঝে মনে হয় জীবনটা অন্যরকম হবার কথা ছিল!

মাঝে মাঝে মনে হয় জীবনটা অন্যরকম হবার কথা ছিল!

শেরজা তপন

অনেক সুখের গল্প হল-এবার কিছু কষ্টের কথা শুনি...

শেরজা তপন › বিস্তারিত পোস্টঃ

বাবনিক-৩য় পর্ব (দ্বিতীয় খন্ড)

২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ সকাল ১০:৪৪


আগের পর্বের জন্যঃ Click This Link
লিনার সাথে এর মাঝে কয়েকবার দেখা সাক্ষাৎ হয়েছে। দু-য়েকবার পার্কে আর বাকি সময় বাসাতেই। ওর মায়ের সাথে গল্প হয়েছে- তিনি একদিন আমাকে ঐতিহ্যবাহী বোরিশ স্যুপ রান্না করে খাইয়েছেন।
ওর ছোট বোন চঞ্চলা চপলা নাদিয়ার সাথেও বেশ ঘনিষ্ঠ হয়েছি। নজর ওর দিকেও পড়ে মাঝে মাঝে- কিন্তু বাবনিক মনকে শাসন করি সব হারানোর ভয়ে!
নারীদের ঘনিষ্ঠ হবার জন্য – কিংবা খুব সহজে কাছে পাবার জন্য আমাদের আরেকটা ফর্মুলা আছে। সেটা জন্মদিন ফর্মুলা।
এবছর আমারই জন্মদিন বার তিনেক হয়ে গেছে- এবার চতুর্থ বার আয়োজনের পালা!
সুমনকে আমার মনের কথা বলতেই- সে খুশীতে ঝলমলিয়ে উঠে বলল, -জন্মদিনটা আমার করলে হয়না?
আমি বললাম,- আলবৎ হয় কিন্তু যার জন্য এ আয়োজন সে যদি না আসে?
-ও- তা ঠিক, তা হলে কর।
এখানকার সব বাঙালি ছোকরারাই জানে জন্মদিন মানে হল ফালতু একটা উৎসবের বাহানা। রাতভর মদ আর জাকোজকা খাওয়া মেয়েমানুষ লেপটে জড়িয়ে ধরে নাচ-গান ফুর্তি করা।
এলিনার ধারনা নেই কেউ মিথ্যে জন্মদিন পালন করতে পারে। তাদের কাছে জন্মদিন মানে ব্যাপক ব্যাপার! পরিচিত কারো জন্মদিনের পার্টি এরা মিস করেনা বিশেষ।
বেছে বেছে অল্প কয়েকজনকে দাওয়াত দিলাম। বেশী লোকজন থাকলে ঝামেলা- সবাই সবাইকে নিয়ে নাচতে চায়- আর একটু আধটু ছোঁক ছোঁক তো করে। মদ খেলে সব দোষ মাফ!
এলিনাকে জন্মদিনের কথা বলতেই বেশ উৎফুল্ল হল বলেই মনে হয়। তাছাড়া নাদিয়াকে দাওয়াত দেয়াতে সে বেশ খুশী হল। একা একা কোথাও যেতে মনে হয় না স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে। যেহেতু বেশীরভাগ অপরিচিত ভিনদেশীদের আড্ডা যেখানে সেখানে সেখানে আসতে একটু ভয়-ডর লাগেই।
আমাদের আয়োজন বেশ জাঁকজমকপূর্ণ-ই ছিল। নিজেদের হাতে বানানো কিছুই নেই-রান্না করা মাংস ছাড়া।সব কিছুই কিনে এনে সাজিয়ে রাখা।
মদ আর খাবারের প্রাচুর্যতা দেখে রুশীয় অভ্যাগতদের চক্ষু চড়ক!
নাদিয়া-তো সব দেখে এসে অব্দি তিড়িং বিড়িং লাফাচ্ছে। খাবার আগেই গান ছেড়ে নাচ শুরু করে দিল! ওর এই বেহায়াপনা দেখে এলিনা বেশ লজ্জা পাচ্ছে। সে এসে অব্দি সোফার এককোণে চুপ মেরে বসে আছে।
বন্ধুদের সবাই প্রায় জোড়ায় জোড়ায় আসছে। সিঙ্গেলদের দাওয়াত করিনি। ওরা সবাই এলিনার দিকে আড়ে ঠারে তাকাচ্ছে। সুমন মারফত দু-দণ্ডেই খবর এ কান ও কান ছড়িয়ে পড়ল- এটা সৌম্যের নতুন শিকার।

তার সাথে ইচ্ছে করেই এক অনুষ্ঠানে মাতাল হয়ে অনেক্ষন নেচে ছিলাম। রেনেতা’র বিদায়ের পর মদটা পাকাপোক্ত ভাবে ধরেছিলাম। প্রথম পর্ব নাচের শেষে ওর বোন নাদিয়া আমাকে অনুরোধ করল তার সাথে নাচতে। সবাই তখন ঘুমে ঢুলু ঢুলু। আমি রাজী হতেই সে মেয়ে নাচতো নয় যেন শুরু করল ঢলাঢলি। দু-হাতে শক্ত করে আমার গলা জড়িয়ে ধরে আমার দেহে সাঁটঙ্গে সেটে গানের তালে তালে শরীর দুলাতে লাগল। পুরুষ আমি! উত্তেজিত হবোই। স্রোতে আমিও গা ভাসিয়ে দিলাম। হঠাৎ নাদিয়া আমার ঠোটে তার ঠোট চেপে ধরে চকাস করে গভীর একটা চুমু খেল। আমি ঠোটটা সরিয়ে নিতে নিতে আড় চোখ চেয়ে দেখি এলিনা আমাদের দিকে পুর্নদৃস্টি মেলে মিটিমিটি হাসছে। তবে চোখের কোনে ব্যথার আভাস। আমি সঙ্গে সঙ্গে নাদিয়াকে ছেড়ে দিয়ে তার হাঁটুর কাছে গিয়ে বসলাম।

তেমনি একটা বিটকেলে হাসি দিয়ে সে আমাকে ব্যাঙ্গ করে বলল কি ব্যাপার নাচ বন্ধ করলে কেন? নাচো আরো নাচো। আমি অপরাধীর মত মাথা নিচু করে বললাম ‘তোমাকে ছাড়া আর কারো সাথে নাচব না ।
অনেক্ষন রাগল তার মান ভাঙ্গাতে। অতিরিক্ত মদ্যপান আর নেচে গেয়ে ক্লান্ত হয়ে ততক্ষণে সবাই ঘুমিয়ে পড়েছে।
তখন ডেক সেটে বাজছে আমার খুব প্রিয় ‘ফিল কলিন্স’ এর সেই গানটা;
~You can tell from the lines on her face
You can see that she's been there
Probably been moved on from every place
'Cause she didn't fit in there

Oh, think twice, 'cause it's another day for you and me in paradise
Oh, think twice, it's just another day for you
You and me in paradise
বাকি রাত শুধু আমরা দুজনে নেচেছিলাম ‘ফিল কলিন্স’ এই গানের সুরে।
সে রাতে প্রথমে একটু দুরে দুরে থাকলেও গভীর রাতে দু’জনে অনেক ঘনিষ্ঠ হয়েছিলাম তবে রুশ দৃষ্টিতে সেটা শালীনতার সীমা লঙ্ঘন করেনি। আমার ইচ্ছে ছিল এগোনোর কিন্তু সে এড়িয়ে গেছে । হাতটা কোমর ছাড়িয়ে একটু এদিক ওদিক গেলেই সে একহাত বাড়িয়ে সরিয়ে দিয়েছে। ভারী বুকের উষ্ণ মোলায়েম স্পর্শ পেয়ে গভীর আবেগে ঠোট দুটো তাকে চুম্বনের জন্য এগিয়ে যেতেই সে চকিতে মুখ সরিয়ে নিয়েছে। মাঝেমধ্যে গলায় কপোলে দুয়েকটা চুমু খেয়েছি। তবে বেশী এগুতে বা জোড় করতে সাহস পাইনি ‘যদি সে রাগ করে ফিরে যায় আর না আসে। তার সাথে প্রেম করা ছিল আমার মনের সাথে আমার একটা চ্যালেঞ্জ- এটাতে হারতে আমি রাজী নই।
তবে শরীর শরীরকে টানে। এখানে একচ্ছত্র দায় শুধু পুরুষের নয়।
দু’য়েকবার সে আমার বুকের উপর মাথা রেখে শরীরের পুরো ভর ছেড়ে দিয়ে আষ্টেপৃষ্ঠে জড়িয়ে ধরে নেচেছে। তবে অল্প সময়ের জন্য। মনে হয় ক্লান্ত হয়ে।
রাশিয়া গিয়ে ভুলে গিয়েছিলাম কারো শরীর দেখতে সাধনা করতে হয়।
তবে এবারে আমাদের প্রেম পর্বটা শুরু না হয় হল। সে-ই বা মন্দ কি!

এলিনাকে নিয়ে প্রথম পর্বের জন্যঃ Click This Link

মন্তব্য ৪২ টি রেটিং +১০/-০

মন্তব্য (৪২) মন্তব্য লিখুন

১| ২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ সকাল ১০:৫৯

জুল ভার্ন বলেছেন: রোমাঞ্চ, রোমান্টিক, সাসপেন্স সবই এগিয়ে চলছে নীলাভ-সাদা কালোয়! অপূর্ব সুন্দর!!! +

২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ সকাল ১১:২০

শেরজা তপন বলেছেন: সবিশেষ ধন্যবাদ ও আন্তরিক কৃতজ্ঞতা!
আগের পর্বগুলো কি পড়েছিলেন ভাই? সময় পেলে একটু চোখ বুলাইয়েন

২| ২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ সকাল ১১:৩০

মোঃমোস্তাফিজুর রহমান তমাল বলেছেন: শুরু হয়েছে তাহলে। প্রেমের শুরু হবে হবে করে হচ্ছে না। দেখি কতদূর যায়!!

২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ সকাল ১১:৪২

শেরজা তপন বলেছেন: হ্যা রয়ে সয়ে দিচ্ছি। প্রেম শুরুর আগে শেষ হয়েও যেতে পারে- বাবনিকদের কি এক নারীতে মন বসে!!!
:)
মন্তব্যের জন্য অনেক ধন্যবাদ।

৩| ২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ দুপুর ১২:০৯

দেশ প্রেমিক বাঙালী বলেছেন: বুকের উপর মাথা, পুরো শরীরের ভর, উষ্ণ নিঃশ্বাস, গভীর আবেগে ঠোটে চুম্বন এর চেয়ে একজন পুরুষের আর কি চাই; আর যেটা চাওয়ার থাকে সেটাতেই তো সমাপ্তি, তাই নয় কি?

২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ দুপুর ১২:১৫

শেরজা তপন বলেছেন: তা ভ্রাতা ঠিক বলেছেন- এখানেই শান্তি! আর কি চাই।
~আর যেটা চাওয়ার থাকে সেটাতেই তো সমাপ্তি, তাই নয় কি?
অবশ্যই -আপনি বোদ্ধা মানুষ আপনার উপরে কি কথা বলা যায়! :)

৪| ২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ দুপুর ১২:৩৮

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন:




দেশে ও প্রবাসে টাকা পয়সা নষ্ট করার হাজারো ফর্মূলা আছে, গল্পে আমি লক্ষ্য করেছি টাকা নষ্ট করার হিড়িক লেগে আছে। আছি - শেষ পর্যন্ত পড়বো; জানতে চাচ্ছি গল্পের নায়ক কি পরিমাণ টাকা ধুলোয় উড়িয়েছেন।

২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ দুপুর ১:০৪

শেরজা তপন বলেছেন: ধন্যবাদ ঠাকুর মাহমুদ ভাই, আপনার মন্তব্যের জন্য।
এখন যাকে নিয়ে আলোচনা হচ্ছে- সে ধনবান ব্যাবসায়ীর ছেলে । দু'পর্ব পরেই তাঁর পরিবার নিয়ে খানিকটা আলোচনা হবে। সে আসলেই ফুর্তি করার নিমিত্তে টাকা উড়ানোর জন্য বিদেশ গিয়েছিল।
তবে তখন ডলারের বিপরিতে রাশিয়ার অর্থের মুল্যমান এত কম ছিল আর পন্য ভীষন সস্তা থাকার কারনে। অল্প টাকাতেই বেশ আয়েশ করা যেত।
যে সময়ের গল্প করছি; তখন এক ডলারে প্রায় চারশ রুব্লিয়া বা রুবোল পাওয়া যেত। ১৫০/২০০ রুবোলে দুই কামরার ফ্লাট ভাড়া বা সাবলেটে মিলত। তাহলে বোঝেন অবস্থা!!
আশা করি সামনের পর্বগুলোতে সাথে থাকবেন। ভাল থাকুন নিরন্তর!

৫| ২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ দুপুর ১২:৪৪

জুন বলেছেন: আমার ছেলে থাইল্যান্ডের AIT তে পড়ে। ক্যাম্পাসে এক রাতে কোন ডিপার্ট্মেন্টের তিন পাকিস্তানি আর এক ইন্ডিয়ান আপনাদের ফর্মুলায় জন্মদিনে পাট্টি করতে তিনটা মেয়েকে দাওয়াত করছিল।২টা থাই, একটা চীনা, চীনা মেয়েটা অপরুপ সুন্দরী। যাইহোক দোয়াতিদের তো উদ্দেশ্য ভিন্ন। মেয়েগুলো জানতো না। এক পর্যায়ে নাচা গানা খানাপিনার ফাকে আপনাদের মত তাদের সাথে বাবনিক হইতে গেছে। প্রথমে অস্বস্তি নিয়ে হাত সড়িয়ে দিতে গেছে তাও বাবনিকরা সরে না। পরে বের হয়ে যায়, নালিশ করে তারপর সবাই দাড়িয়ে দেখলো চারজন গাট্টি বোচকা আর সুটকেস মুটকেস নিয়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পরিত্যাগ। এইজন্য ঐদেশের মেয়েরা দিন্রাত একা একা চলাচল করে। বাবনিক জিরো টলারেন্স /:)
ভাবীরে অশেষ ধন্যবাদ এইসব জাইনা শুইনাও #:-S
তবে লেখনী জোরালো শেরজা তপন। পরের পর্বের অপেক্ষায়।

২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ দুপুর ১:০৮

শেরজা তপন বলেছেন: কি কন ভাবি কিছুই জানেনা- আপনি আবার শুভাকাঙ্ক্ষী সেজে বইলা দিয়েন না :)

তবে এই আমি আমি না এইটা নিশ্চিত!
রাশিয়ার কমন হোষতেল অহরহ চলে এসব। জোড়াজুড়ির কিচ্ছু নাই। কেউ এসব পাত্তা দেয় না।
তবে দিন পালটায় গেছে! দক্ষিন এশীয়ানদের বেল নাই
অনেক ধন্যবাদ আপু বরাবরের মত সাথে থাকার জন্য। ভাল থাকুন।

৬| ২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ দুপুর ২:২৯

আরাফআহনাফ বলেছেন: অনেক সাধনার রাশিয়ার প্রেম পর্ব শুরু হলো - :D

কি কন ভাবি কিছুই জানেনা- আপনি আবার শুভাকাঙ্ক্ষী সেজে বইলা দিয়েন না।

আমি কইতাম না -ভাবীরে, তাঁর ইমেইল এড্রেসটা কী যেন?! :P


আপনার সব লেখাই পড়ে যাই , সময়ের অভাবে মন্তব্য করা হয়ে উঠে না।
দারুন ভাবে অপেক্ষায় থাকি আপনার নতুন নতুন লেখার জন্য।

চলুক - আছি সাথে।

২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ বিকাল ৪:২৬

শেরজা তপন বলেছেন: আপনি কি মনে করেন আমি ভাবিরে ভয় পাই- এড্রেসটা লিখুন; ঠিকাছে পরে দিব না হয়

এইটাতো ঠিক না ভাই-হাই হুই হুম হ্যালো কি একটা বলে গেলেই তো মনে শান্তি পাই!
তবুও আমি আনন্দিত ও কৃতার্থ, পড়েন যে এই ঢের!!

ভাল থাকুন নিরন্তর!

৭| ২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ দুপুর ২:৩৪

মোহামমদ কামরুজজামান বলেছেন: ভাইগো ভাই, তপন ভাই , কি কমু কন? দেহেন ভাই , আপনার এই বাবনিক পড়ে এই বুড়ার হৃদয়ও বাবনিক হতে মন চায় । সে এটা বুঝতে চায়না যে তার এখন আর সময় নাই :(( এসব হ্যাপা সমালানোর ক্ষমতা আর তার নেই।আবার এটাও বুঝতে চায়না যে এটা জার সাম্রাজ্য নয়। কি করুম ভাই কইনচেন দেহি?

আপনি এইসব কিছু মিছু লিখে শীতল রক্তের বুড়াদেরও জোয়ান X(( বানানোর চেষ্টা করছেন, তা করুন ঠিক আছে তবে যদি একেবারে হৃদযন্ত্র ডাউন (বন্ধ) হয়ে যায় তাহলে কি হবে একবার ভেবেছেন কি আপনি? সবাই তখন আমি মরেছি তাতে না ভেবে ভাববে আমার বিবি (বেগম সাহেবের)র কি হবে,কোথায়-কার কাছে যাবেন উনি? কে দিবে তাকে ছায়া?

২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ বিকাল ৪:৪৮

শেরজা তপন বলেছেন: বুড্ডহা হোগা তেরা বাপ- ছবিটা দেখছেন?
সেইদিন শুনলাম আপনি কেমনে বুঝবেন যে বুড়া হয়ে যাচ্ছেন; যখন অন্য কোন সুন্দরী রমণির থেকে নিজের বৌকে বেশী ভাল লাগবে তখন ভাববেন আপনি বুড়ো হয়ে যাচ্ছেন।
আপনিতো সে হিসাবে পুরা পঁচিশে আছেন :)
বুড়া হওয়ার গল্প কইরেন না ভাই- ভয় লাগে। কি বিশ্রী এক অবস্থা :(
ভাবি সাবের প্রতি এত দরদ আপনার শুনে চউক্ষে পানি চলে আসল!

যাক সামনের পর্বের কথা মনে রেখে হার্ট টাকে শাসনে রাখুন- একটু বেশী ইয়ে আছে আরকি :P

৮| ২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ দুপুর ২:৫৭

মনিরা সুলতানা বলেছেন: সৌম্যের সাধনা শুরু হোক তাহলে।

২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ বিকাল ৪:২৮

শেরজা তপন বলেছেন: সৌম্য কি আর যোগী- বাবনিকের সাধনা শুরু হইতেই শেষ

মন কি যে চায় বলো- এর মত অবস্থা !!
মন্তব্যে ইদানিং বেশ কৃপনতা করছেন।

৯| ২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ বিকাল ৩:১৬

জুল ভার্ন বলেছেন: জ্বি ভাইয়া, আমি পূর্বে চার পর্ব পড়ে তিন পর্বে মন্তব্য করেছি।

২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ বিকাল ৪:২৯

শেরজা তপন বলেছেন: আমি বলেছিলাম প্রথম অংশের পর্বগুলোর কথা( এলিনার কথা যেখান থেকে শুরু)।
আপনার করা মন্তব্যের কথা কি আমি ভুলিতে পারি

১০| ২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ বিকাল ৩:৪৮

*আলবার্ট আইনস্টাইন* বলেছেন: সোভিয়েত ইউনিয়ন ভেঙ্গে রাশিয়া হয়ে গেছে, তবুও কোকাকোলা কি জিনিস এইটা বুঝতে রেড ওয়াইন দরকার হয়না কিছু মানুষের। রগরগে টালমাটাল পরিস্থিতির মাঝে কেউ একজন লাজুক।

২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ বিকাল ৪:৩২

শেরজা তপন বলেছেন: আহা ভাল কথা বলেছেন
তুলনাটা চরম; কোকা কোলা বুঝতে আর রেড ওয়াইন দরকার হয় না- বেশ :)

জ্বী হা কেউ একজন লাজুক আছে বলেইতো এইখানে এত ফিলিংস আর রোমান্স।

১১| ২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ বিকাল ৪:১৬

স্প্যানকড বলেছেন: চলতে থাকুক প্রেম ! ভালো থাকবেন।

২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ বিকাল ৪:৩৩

শেরজা তপন বলেছেন: আমি তো গাড়ি চালাচ্ছি- স্লো হইলে একটু ঠেলা ধাক্কা দিয়েন মাঝে মধ্যে

আপনিও ভাল থাকুন। ধন্যবাদ

১২| ২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ বিকাল ৪:৩১

শাহ আজিজ বলেছেন: রে রে রে তবে রে :) কি হচ্ছে এসব :P

২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ বিকাল ৪:৩৫

শেরজা তপন বলেছেন: ছোট ভাইরা একটু রাসলীলা করছে। আপনি দেখে ফেললেন নাকি! ইজ্জত গ্যাছে :P

১৩| ২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ সন্ধ্যা ৭:২৭

চাঁদগাজী বলেছেন:



বোরিশ স্যুপটা কিসের থেকে তৈরি, কি ধরণের স্যুপ?

২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ রাত ১০:২৮

শেরজা তপন বলেছেন: মুলত বিট দিয়ে তৈরি করা হয়। সাথে মাংস বাধা কপি, গাজর, আলু-ও দেয়া হয়।
বলশেভিক অঞ্চলের জনপ্রিয় স্যুপ এটা।

১৪| ২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ রাত ৮:৫৪

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: এতো পরে এসে বুঝতে পারছি মজা ফুরিয়ে গেছে।যেটাই বলতে চেয়েছি দেখছি কেউ না কেউ বলে দিয়েছেন। আপনার সংযমী মনের পরিচয় পেয়ে বুঝতে পারছি ক্রমশ গভীরে যাবেন।‌
পোস্টে লাইক।
পরবর্তী পর্বের অপেক্ষায় রইলাম।

২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ রাত ১০:৩২

শেরজা তপন বলেছেন: আহা আরেকটু আগে আসলে মনে হয় মনে হয় বেশ বড়সড় একটা মন্তব্য পেতাম
মিস করে গেলাম :(
হ্যা আমিতে মিলিয়ে যাওয়া সৌম্য বেশ ধৈর্যের পরিচয় দিয়েছে। মিশন সাক্সেস্ফুল করতে হলে- বাবনিক হলেও একটু ধৈর্যতো লাগে বৈকি!

আপনার তয়োময়ী- ফের আটকে গেল কেন?
লাইক ও মন্তব্যের জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ ভাই।

১৫| ২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ রাত ১১:৫৭

হাবিব বলেছেন: কোন কিছুতেই কম যান না দেখছি!

২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ সকাল ৮:০৪

শেরজা তপন বলেছেন: আমি একজন সিধাসাদা ছা-পোষা মানুষ! আমাকে এমন সুনাম বা বদনাম কোনটাই দিয়েন না
কল্পকাহিনী লিখি আরকি :)

১৬| ২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ রাত ১২:০৬

রাজীব নুর বলেছেন: শেরজা তপন কেমন আছেন?
তপন নামে আমার এক বন্ধু ছিলো ছোট বেলায়। তাই ইচ্ছা ছিলো নাপিত হওয়ার। স্কুলে তার লেখাপড়ায় একেবারেই মন ছিলো না। সে ঘরে বাইরে সব জাগায় বলত আমি নাপিত হবো। নাপিত হলে লেখাপড়ার দরকার কি?!

একদিন তপনের বাবা রাগ করে তাকে পাড়ার সেলুনে দিয়ে আসে। তপন মহা খুশি।
আজ তপন নিজে চার টা সেলুনের মালিক। অনেক টাকার মালিক হয়েছে। নিজের ফ্লাট আছে, গাড়ি আছে।

২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ সকাল ৮:০৬

শেরজা তপন বলেছেন: তপন নামে আমারো দুজন বন্ধু ছিল( দু'জনেই সনাতন ধর্মের)। একজনের বাবা আমার স্কুলের শিক্ষক ছিল।
বাবা মরে গেলে ওরা ভারতে চলে যায়। আরেকজনের খবর বহুদিন নেয়া হয় না

১৭| ২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ ভোর ৬:৪২

স্বামী বিশুদ্ধানন্দ বলেছেন: বাবনিক মনকে নিয়ন্ত্রণ করা চাট্টিখানি কথা নয় - বিশেষত স্বর্গের হুরপরি যদি মর্ত্যে নেমে আসে। সৌম্য (নাকি আপনি নিজেই) নিশ্চিতভাবেই স্বামী বিবেকানন্দের ধৈর্য্য আর মরহুম লেজেহোমো এরশাদ কাকুর রমণী বশীকরণের সকল গুন্ই ধারণ করেন।
বাই দা ওয়ে - সৌম্যের রাশি কি 'কন্যা' নাকি ? =p~

২৮ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ বিকাল ৩:৩৯

শেরজা তপন বলেছেন: সৌম্যের পরিচয় (প্রায় সত্যিকারে) দু-পর্ব পরে দিব! তাঁর পাশাপাশি আমার বায়োডাটা থাকবে মিলিয়ে নিবেন :)
এইবারে বড় শিক্ষা হোল এরপরে নিজেকে আর নায়ক কিংবা ভিলেন বানাবো না।

আমার রাশি মিথুন- সৌম্যেরটা জিগাইতে হইবে :)
হ্যা হ্যা কিছু কিছু তান্ত্রিক,গুণী আর স্বামী'দের মত তিনি বড় ধৈর্যশীল :)
চমৎকার মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ ও ইয়ে একটু দেরি হয়ে গেল উত্তর দিতে।

১৮| ২৮ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ সকাল ১১:২৩

ইসিয়াক বলেছেন: আহা !আহা!! এই কাহিনী আমার কাজে লাগবে :P । আছি সাথে আছি আপনি বলতে থাকেন । আমি কিন্তু কাউকে বলবো না ;) শপথ! :-B

২৮ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ বিকাল ৩:৪৩

শেরজা তপন বলেছেন: কি বিষয়ে কাজে লাগবে ভাই- কবিতা লিখতে নাকি?
দেশী কমনীয়,নমনীয়, লাজুক আটপৌরে ললনা ফেলে কি বিদেশিনীদের নিয়ে কবিতা লিখবেন?

বললে আর কি-ই হবে, আমার বৌ-তো কুস্তা এট্টা বুঝায় হ্যালামনি :)

১৯| ২৮ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ দুপুর ১২:২২

জুন বলেছেন: কই গেলেন? আবার রাশিয়া ট্যুরে নাকি? আমাদের বাবনিক পরের পর্ব কই শেরজা তপন ??

২৮ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ বিকাল ৩:৫৭

শেরজা তপন বলেছেন: পরের দুটো পর্ব নিয়ে ভীষন পেরেশানিতে আছি আপু।
বড্ড বেশী এরোটিক কথাবার্তা এসে গেছে- কাহিনীর পরবর্তী ঘটনা প্রবাহে এর কিছুটা প্রয়োজন আছে। কিন্তু নারী ব্লগারেরা ওই দুই পর্বে আমাকে বয়কট করতে পারে আর পুরুষ ব্লগারদের কারো কারো বদজম হতে পারে। :)
আপনার কি মতামত? ওগুলো কেটে ছেটে দেয়া যায় কিন্তু কাহিনীর স্বকীয়তা হারাবে

তবে এই শেষ- এর পর থেকে আমি পুরোপুরি ভদ্র সুবোধ সেজে যাব।

২০| ২৮ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ রাত ৯:৫৯

সোহানী বলেছেন: আমার রাশিয়ান বন্ধু-বান্ধব বলে যে ভাগ হবার আগের রাশিয়া অনেক অনেক ভালো ছিল। এখনতো নাকি যাচ্ছেতাই অবস্থা। ফ্রি গণতন্ত্র আর পশ্চিমা কালচারকে ধরতে যেয়ে দিশেহারা তারা।

একসাথে সবগুলো পর্বই পড়লাম। ভালো লাগছে অবশ্যই।

২৯ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ সকাল ৮:০৩

শেরজা তপন বলেছেন: সবগুলো পর্ব একসাথে পড়েছেন!!! আপনার ধৈর্য্য আছে বলতে হবে
সেজন্য ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা।
হ্যা ভালই ছিল- বিশেষ করে আমাদের মত বিদেশী স্টুডেন্টদের জন্যতো চরম ভাল। ওদের কাছে হয়তো ভাল লাগেনি- সেজন্যই পরিবর্তনের জন্য আন্দোলন করেছিল এখন প্রাক্তন সোভিয়েত ইউনিয়ন পাল্টে গেছে ভীষনভাবে কিন্তু অনেকেই সেই পরিবর্তনটা দারুনভাবে উপভোগ করছে। কেউ কেউ ভীষন মনঃক্ষুন্ন, বিরক্ত ও হতাশ। তারা পুর্বতন সোভিয়েতে ফিরে যেতে চায়।

বাবনিকে আপনাকে পেয়ে ভাল লাগল আপু। ভাল থাকুন

২১| ৩০ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ দুপুর ১:৪৮

জুন বলেছেন: পরের পর্ব দুটো বেশি বাবনিক তাই হয়তো আসা হবে না বলে আপনিও সন্দেহের দোলাচলে আছেন। আমিও মিথুন রাশি সেটা জানিয়ে গেলাম। আগামী বছর বাইচা থাকলে উইশ করতে ভুইলেন্না B-)

০১ লা অক্টোবর, ২০২১ সকাল ৮:২৪

শেরজা তপন বলেছেন: আসেনতো নাই- আমার আশংকা অমুলক নয়!
তবে না আসলে মন খারাপ হবে না :)
হ করুমনে- আমি যদি বাঁচি তাইলে

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.