নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

আমি ই ওয়াসিম, আমি ই হ্যাভেন ! আমি ও বলতে চাই !

ওয়াসিম ফারুক হ্যাভেন

ব্লগিং হউক সমাজ পরিবর্তনের হাতিয়ার ।

ওয়াসিম ফারুক হ্যাভেন › বিস্তারিত পোস্টঃ

পাহাড় ফের রক্তে লাল !

০৮ ই মে, ২০১৮ রাত ৮:০৩

পাহাড় শান্ত পাহাড় কিন্তু প্রায় ই আমাদের সবুজ পাহাড় রক্তে হয় লাল শান্ত পাহাড় হয়ে উঠে অস্ত্রের ঝন ঝনানিতে অশান্ত । আতি সম্প্রতি আবার আমাদের সবুজ পাহাড় রক্তাত হয়েছে পাহাড়ে উকি দিচ্ছে অশান্ত রুপ । গত ৩ মে রাঙ্গামাটির নানিয়ারচরের উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শক্তিমান চাকমা দুর্বৃত্তের গুলিতে খুন হন থানা থেকে দেড়শত গজের ভিতর । ঠিক এর এক দিন পর তার অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় অংশ নেয়ার পথে ফের দুর্বৃত্তের গুলিতে খুন হন ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিস ফ্রন্টের (ইউপিডিএফ-গণতান্ত্রিক) আহবায়ক তপন জ্যোতি চাকমা, জনসংহতি সমিতির সহযোগী সংগঠন যুব সমিতির (এমএন লারমা) নেতা সুজন চাকমা এবং যুব নেতা তন্ময় চাকমা সহ পাঁচ জন । এই ঘটনার পর থেকেই পুরো পার্বত্য অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে আতঙ্ক।

পার্বত্য জনসংহতি সমিতি ও ইউপিডিএফ এর মধ্যে বিরোধ অনেক পুরনো । ১৯৯৭ সালের ২ ডিসেম্বর ঐতিহাসিক শান্তি চুক্তির পর থেকেই ভাঙন আর মতাদর্শিক বিভক্তি দেখা দেয় পাহাড়ে। শান্তিচুক্তির পর পর ই ভাঙ্গনের কবলে পরে সন্তু লারমার জেএসএস । প্রসীত বিকাশ খীসার নেতৃত্বে গঠিত হয় ইউপিডিএফ আর মানবেন্দ্র নারায়ণ লারমার নেতৃত্বে জেএসএস সংস্কারপন্থী গঠিত হয়। ১৫ নভেম্বর-২০১৭ ইউপিডিএফ ভেঙে গঠিত হয় ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) যার আহবায়ক ছিলেন সদ্য খুন হওয়া তপন জ্যোতি চাকমা । ১৯৯৮ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি খাগড়াছড়িতে আনুষ্ঠানিকভাবে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে সন্তু লারমার নেতৃত্বে জনসংহতি সমিতির সদস্যরা যখন অস্ত্র সমর্পণ করছিলেন । ঠিক একই দিনে প্রসীত বিকাশ খীসার নেতৃত্বে শত শত বিদ্রোহী পতাকা উত্তোলন করে অস্ত্র সমর্পণের প্রতিবাদ করেছিল । এর ই ধারাবাহিকতায় ১৯৯৮ সালের ২৬ ডিসেম্বর ঢাকায় সম্মেলনের মধ্য দিয়ে পার্বত্য চট্টগ্রামের পূর্ণ স্বায়ত্তশাসনের দাবিতে প্রসীত বিকাশ খীসার নেতৃত্বে ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) গঠিত হয়। শুরু হয় সন্তু ও প্রসীতের নেতৃত্বে দুই সংগঠনের আধিপত্য রক্ষার লড়াই । একের পর এক খুন হত্যা চলতে থাকে পাহাড়ে রক্তাত হতে থাকে সবুজ পাহাড় । শান্তিচুক্তির পর থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত ৪৭৬ জন নিহত খুন হয়েছেন পাহাড়ে। আর ২০১৮ সালের ৪ মে পর্যন্ত খুন হন ১৬ জন নিখোঁজের তালিকায় আছেন ৮ জন ।পাহড়ে রক্তপাত ও সংঘাতের মুল কারণ ই হচ্ছে পাহাড়ের বিভিন্ন সংগঠন গুলির নিজেদের মধ্যে ক্ষমতার আধিপত্ত বিস্তার ও বিশ্বাহীনতা । ইউপিডিএফ সহ অন্যান সংগঠংগুলির ধারনা সন্তুলারমার জনসংহতি সমিতি সরকারের সাথে হাত মিলানোর কারনে পাহাড়িদের বিভিন্ন দাবি কোন ভাবেই আদায় করা সম্ভব হচ্ছে না । পক্ষান্তরে সন্তু লারমা ও তার দল আদায় করে নিচ্ছে সরকারের কাছ থেকে বিশেষ সুবিধা । পাহাড়ের ভূমি সংস্কারে জটিলতা সে তো অনেক পুরনো । ভূমি নিয়ে পাহাড়ি বাংগালী সবাই জড়িয়ে পরছে সংঘাতে । আমাদের পাহাড় আজ উত্তপ্ত পাহাড়িদের দাবি দীর্ঘ সময় পার হলেও শান্তি চুক্তির নুন্যতম বাস্তবায়ন হয়নি বঞ্চিত করা হয়েছে তাদের ন্যায্য অধিকার থেকে। পাহাড়িদের চলমান এই ভ্রাতৃঘাতি সংঘাত আজ শান্তিচুক্তির ভবিষ্যতকে ও প্রশ্নবিদ্ধ করছে । যা আমাদের দেশের জন্য মোটে ও মঙ্গলজনক নয় ।

তাই পাহাড়ে চলমান রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষকে বন্ধকরতে হলে পাহাড়িদের যেমন একদিকে হিংসা-দ্বেষ-প্রতিহিংসার রাজনীতি বন্ধ করতে হবে।সরকারের ও উচিত হবে পাহাড়ি শান্তিচুক্তির প্রতিটি অধ্যায় যত তাড়াতাড়ি সম্ভব বাস্তবায়ন করে পাহাড়িদের ন্যায্য অধিকার প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে পাহাড়কে শান্ত রাখা । আর যারা ক্ষমতা ও নিজেদের হীন স্বার্থের জন্য পাহাড়কে অশান্ত রাখতে চাচ্ছে তাদের কঠোর হস্তে দমনের মাধ্যমে আমাদের সবুজ পাহাড়ে শান্তি স্হাপন করা ।

মন্তব্য ৬ টি রেটিং +০/-০

মন্তব্য (৬) মন্তব্য লিখুন

১| ০৮ ই মে, ২০১৮ রাত ৮:৩৭

চাঁদগাজী বলেছেন:

পাহাড়ের ভালো মানুষদের ক্রমেই স্হলে নিয়ে এসে, পাহাড়কে মিলিটারীর সেনানিবাসে পরিণত করতে হবে, মনে হয়।

০৮ ই মে, ২০১৮ রাত ৯:১৮

ওয়াসিম ফারুক হ্যাভেন বলেছেন: ভুমিপতিদের ভুমি অধিকার দিলেই অনেকটা শান্ত হবে । সেনানিবাস কখনোই শান্তি আনতে পারবে না ।

২| ০৮ ই মে, ২০১৮ রাত ৮:৪৫

কবি হাফেজ আহমেদ বলেছেন: ওরা দাবি আদায় করবে এটা ওদের অধিকার। কিন্তু তাই বলে সন্ত্রাস করবে ?
সন্ত্রাস করে কোনোদিন দাবি আদায় করা যায় না, বরং দাবি বিলুপ্ত হওয়ার আশংকা থাকে।
সরকারের উচিত হবে এসব পাহাড়ী সন্ত্রাসীদের কঠোর হস্তে দমন করা।

০৮ ই মে, ২০১৮ রাত ৯:১৯

ওয়াসিম ফারুক হ্যাভেন বলেছেন: সন্ত্রাস করো ই কাম্য নয় । পাহাড়ে সবুজ চিরজীবি হউক এটাই কাম্য ।

৩| ০৯ ই মে, ২০১৮ সকাল ১০:৪৩

রাজীব নুর বলেছেন: পাহাড়ে শান্তি নেমে আসুক।

১৩ ই মে, ২০১৮ রাত ১২:০১

ওয়াসিম ফারুক হ্যাভেন বলেছেন: এটা সকল শান্তি প্রিয় মানুষের ই কাম্য ।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.